ইউরোপ

সিডনিতে চমেকের ৬০ বছর পূর্তি উৎ​সব

সিডনিতে চমেকের ৬০ বছর পূর্তি উৎ​সব

অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে পালিত হয়েছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) ৬০ বছর পূর্তি উৎসব। সিডনি শহরে বসবাসকারী চমেকের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে এ উপলক্ষে আয়োজন করেছিলেন বর্ণাঢ্য এক অনুষ্ঠানের। এতে শিক্ষার্থী ছাড়াও প্রাক্তন শিক্ষক ও আমন্ত্রিত চিকিৎসকেরাও উপস্থিত ছিলেন। তাদের উপস্থিতিতে মিলনমেলায় পরিণত হয় রেস্টুরেন্টের অন্দরমহল। এই প্রথমবারের মতো ঐতিহ্যবাহী এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির ৬০ বছরে পদার্পণ অনুষ্ঠানটি চট্টগ্রামের পাশাপাশি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশেও পালিত হয়েছে।   বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করার প্রয়াসেই এ উদ্যোগ। শেকড়ের টানে প্রিয় প্রাঙ্গণে স্লোগানে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয় এই উৎসব (সিএমসি ডে ২০১৬)। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ৬০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সিডনিতে আয়োজিত অনুষ্ঠানের নানা দৃশ্য২৫তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ডা. রোকসানা হোসেইন জেবার
ভ্রাম্যমাণ বালিয়াড়ির দ্বীপ স্যুল্ট

ভ্রাম্যমাণ বালিয়াড়ির দ্বীপ স্যুল্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : জার্মানির যে দ্বীপগুলো অভিজাত বলে নাম আছে – অর্থাৎ যেখানে বিশিষ্ট, বিত্তশালী মানুষজন ছুটি কাটাতে যান – তার মধ্যে স্যুল্ট অন্যতম। মুশকিল হলো, স্যুল্টের বালিয়াড়িগুলি বাতাসের ধাক্কায় ‘ঘুরে বেড়ায়' আর দ্বীপটা উধাও হতে থাকে! স্যুল্ট দ্বীপ মানেই বালি উড়ছে। বাতাসে সেই বালি বয়ে গিয়ে স্তূপ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। সেই বালির স্তূপে আগাছা গজাচ্ছে। বালির স্তূপ বাড়তে বাড়তে শেষে বালিয়াড়িতে পরিণত হয়। বাতাসের ঠেলায় সেই বালিয়াড়ি সরতে থাকে। একেই বলে শিফটিং স্যান্ড ডিউন্স বা ভ্রাম্যমাণ বালিয়াড়ি। এই ভ্রাম্যমাণ বালিয়াড়িগুলোই স্যুল্ট দ্বীপকে বাঁচিয়ে রেখেছিল শত শত বছর ধরে, বলেন কার্স্টেন রাইসে। তিনি বিজ্ঞানী, উপকূল বিশেষজ্ঞ এবং দ্বীপের বাসিন্দা। তারপর স্যুল্টবাসীরা উড়ন্ত বালির হাত থেকে নিজেদের বাড়িঘর বাঁচানোর চেষ্টায় বালিয়াড়িগুলোকে পোক্ত করতে, বাঁধছাদ দিতে শুরু করে। আজ দ্বীপের হ্যো
হিটলারের ‘জন্মস্থান’ শেষপর্যন্ত ভাঙ্গা হচ্ছে না!

হিটলারের ‘জন্মস্থান’ শেষপর্যন্ত ভাঙ্গা হচ্ছে না!

হিটলার ২০ এপ্রিল ১৮৮৯ সালে এ বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। জার্মানির সাবেক শাসক এডলফ হিটলার অস্ট্রিয়ায় যে বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন তা হয়ত শেষ পর্যন্ত ভেঙ্গে ফেলা হবে না। । এ বাড়িটি ক্রমেই নব্য-নাজিবাদীদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠার প্রেক্ষাপটে এর আগে এটি ভেঙ্গে ফেলা হবে বলে ঘোষণা করা হয়েছিল। অস্ট্রিয়ার ‘ব্রনাউ অ্যাম ইন’ শহরে বাড়িটি অবস্থিত ভেঙ্গে ফেলা হবে বলে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু এ সিদ্ধান্ত গ্রহণের সঙ্গে জড়িত প্যানেলের কয়েকজন সদস্য বলেছেন, তারা বাড়িটি ভেঙ্গে ফেলার বিরোধিতা করেছেন। আর এর অর্থ দাঁড়াচ্ছে বাড়িটি শেষ পর্যন্ত  ভাঙ্গা হবে না। অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ প্রশাসনিক আদালতের সাবেক সভাপতি ক্লিমেন্ট জ্যাবলোনার এবং দেশটির ঐতিহাসিক অলিভার রাথখোল যৌথ বিবৃতিতে বলেছেন, সরকারি প্রস্তাবে বাড়িটি ভেঙ্গে ফেলার কথা পরিষ্কার ভাষায় উল্লেখ করা হয়েছিল; কি
ভয়ে হিটলারের সেই বাড়িটি ভেঙে ফেলা হচ্ছে

ভয়ে হিটলারের সেই বাড়িটি ভেঙে ফেলা হচ্ছে

ভয়ে হিটলারের সেই বাড়িটি ভেঙে ফেলা হচ্ছে   আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অস্ট্রিয়ায় যে বাড়িটিতে নাৎসী জার্মানীর নেতা এডলফ হিটলারের জন্ম হয়েছিল - তা ভেঙে ফেলা হবে। কারণ হিসেবে কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা উদ্বিগ্ন যে এ বাড়িটি নব্য নাৎসীদের একটি তীর্থস্থানে পরিণত হয়ে উঠতে পারে। অস্ট্রিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী উল্ফগ্যাঙ সোবোটকা বলেছেন, সরকার বাড়িটির দখল নেবে এবং তার পর এটি ভেঙে ফেলে একটি নতুন ভবন গড়ে তোলা হবে। অস্ট্রিয়া-জার্মানী সীমান্তের কাছে ব্রাউনাউ এ্যাম ইনে অবস্থিত এ বাড়িটিতে ১৮৮৯ সালে হিটলারের জন্ম হয়।   স্থানীয় লোকেরা বলেন, বিভিন্ন দেশ থেকে নব্য-নাৎসী বা হিটলার-ভক্তরা এখনো বাড়িটি দেখতে আসেন। কর্তৃপক্ষ এটা ঠেকানোর চেষ্টা করলেও সফল হয় নি।   তিনতলা বাড়িটির বর্তমান মালিকের নাম গারলিন্ড পোমার নামে এক মহিলা, তবে ১৯৭২ সাল থেকেই সরকার এটি ভাড়া নিয়ে রেখেছে।
ব্রেক্সিটের পর অক্সিট!

ব্রেক্সিটের পর অক্সিট!

ব্রেক্সিটের পর কি ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে অস্ট্রিয়া বেরিয়ে যাবে! এমনটা করাই উচিত বলে মন্তব্য করেছেন জার্মানির শীর্ষ অর্থনীতিবিদ হ্যান্স-ওয়ার্নার সিন। তিনি বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বৃটেন বেরিয়ে গেলে এতে প্রাধান্য থাকবে অপেক্ষাকৃত দরিদ্র দেশগুলোর। তাতে সুবিধা পাবে গ্রিস ও স্পেনের মতো দরিদ্র দেশগুলো। অন্যদিকে দুর্ভোগে পড়বে জার্মানি ও অস্ট্রিয়ার মতো দেশ। এ জন্য অস্ট্রিয়ার উচিত হবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়া। যদি অস্ট্রিয়া ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যায় তাহলে তাকে বলা হবে অক্সিট (অীঁরঃ)। লন্ডনের অনলাইন এক্সপ্রেসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে। হ্যান্স ওয়ার্নার বলেছেন, বৃটেন ২০১৭ সালের শুরুতে যখন লিসবন চুক্তির ৫০ অনুচ্ছেদ সক্রিয় করবে তখন দরিদ্র দেশগুলোর করুণায় থাকবে তথাকথিত ধনী দেশগুলো। এসব গরিব দেশ ইউরোপীয় ইউনিয়নকে ব্যবহার করবে তাদের স্বার্থে। তারা ইউরো
জার্মানির কারাগারে সন্দেহভাজন সিরীয় জঙ্গির আত্মহত্যা

জার্মানির কারাগারে সন্দেহভাজন সিরীয় জঙ্গির আত্মহত্যা

জার্মানির বার্লিন বিমানবন্দরে বোমা হামলার ‘পরিকল্পনাকারী’ সন্দেহে আটক সিরীয় সন্দেহভাজন জঙ্গি লিপজিগ কারাগারে আত্মহত্যা করেছেন। খবর বিবিসির।স‌্যাক্সনি রাজ্যের বিচারমন্ত্রী জানান, বুধবার কারাগারের কক্ষ থেকে ২২ বছর বয়সী জাবের আল-বকরের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এই বিষয়ে তদন্ত চলছে।   আল-আল-বকর কীভাবে আত্মহত্যা করেছেন তা স্পষ্ট না হলেও জার্মান পত্রিকা দের স্পিগেল জানিয়েছে, আটকের পর সন্দেহভাজন ওই জঙ্গি কারাগারের ভেতর অনশন শুরু করেন। তাকে সার্বক্ষণিক নজরদারিতেও রাখা হয়েছিল।   বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বছর জার্মানিতে প্রবেশ করার পর সিরিয়ার গৃহযুদ্ধের একজন শরণার্থী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন আল-বকর। এরপর অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে জার্মানির গোয়েন্দা সংস্থা বকরের হামলা পরিকল্পনার বিষয়ে ‘নিশ্চিত হয়’।   কীভাবে বোমা ও বিস্ফোরক বানাতে হয় আল-বকর ইন্টারনেটে সেই খোঁজ
ফ্রান্সে উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত

ফ্রান্সে উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত

এনায়েত হোসেন সোহেল, প্যারিস , ফ্রান্স থেকে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে পালিত হয়েছে। এবার প্যারিসের বিভিন্ন ৭টি এলাকায় প্রবাসী বাংলাদেশের হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা ৭টি পূজামণ্ডপ তৈরি করে দুর্গাপূজার অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। মণ্ডপ গুলোতে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত প্রার্থনা ও নানা অনুষ্ঠান চলে। পূজা মন্ডপেই পুজার্থী ও দর্শনার্থীদের ছিল উপছে পড়া ভিড়। পূজায় ভক্তদের মধ্যে অঞ্জলি, প্রসাদ বিতরণ করা হয়। এছাড়াও ভোগ আরতি আর আরতি প্রতিযোগিতাও অনুষ্ঠিত হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে লন্ডন থেকে আগত শিল্পীদের পাশাপাশি ফ্রান্সের স্হানীয় শিল্পীরাও অংশ নেন। এ সময় আবহমান বাংলা ও বাঙালির ঐতিহ্যবাহী এ অনুষ্ঠানে হিন্দু ধর্মাবলম্বী ছাড়াও বিভিন্ন ধর্মের উল্লেখযোগ্যসংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি ও বিভিন্ন ধর্মালম্ভীরা ও উপস্থ
ব্রেক্সিট নিয়ে পার্লামেন্টে বিতর্কের সব সুযোগ থাকবে

ব্রেক্সিট নিয়ে পার্লামেন্টে বিতর্কের সব সুযোগ থাকবে

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া ব্রেক্সিট পরিকল্পনা নিয়ে পার্লামেন্টে বিতর্কের সব সুবিধা থাকবে। তবে আনুষ্ঠানিক ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া নিয়ে পার্লামেন্টে ভোট হবে না। বুধবার পার্লামেন্টে এমন কথা বলেছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বৃটেনের বেরিয়ে যাওয়া নিয়ে নিজের পরিকল্পনা বিস্তারিত প্রকাশ করতে প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মের ওপর চাপ রয়েছে। তবে পার্লামেন্টের ওই অধিবেশনে তিনি বলেছেন, ব্রেক্সিট ত্যাগ করার কোনে সুযোগই নেই। তবে ব্রেক্সিট নিয়ে কি ধরনের আলোচনা হবে তা অনিশ্চিত। অনেকেই বলেন, এটা হবে সবচেয়ে কঠিন সংলাপ। এতে বিনিয়োগকারী ও অর্থনীতিতেও প্রভাব পড়েছে। বিশেষ করে ‘হার্ড ব্রেক্সিট’-এর ধারণার দিকে যতই এগিয়ে যাচ্ছে ততই বৃটিশ মুদ্রার ওপর এর প্রভাব পড়ছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নে ৫০ কোটি ভোক্তার কাছে তাদের রয়েছে একক বাজার সু
ইউরোপের পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে হামলা চালাতে পারে আইএস

ইউরোপের পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে হামলা চালাতে পারে আইএস

ইউরোপের পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে হামলা চালাতে পারে আইএস। রোববার এমন আশঙ্কার কথা ব্যক্ত করে জাতিসংঘ জানিয়েছে, বিশ্বব্যাপী ব্যাপক তাণ্ডব চালাতে ইউরোপের পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে হামলার পরিকল্পণা করছে জঙ্গি গোষ্ঠি ইসলামিক স্টেট (আইএস)।   জাতিসংঘের পারমাণবিক পর্যবেক্ষক সংস্থা জানিয়েছে, ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনাগুলোর দিকে নজর রাখছে আইএসের হ্যাকাররা। যে কোনো সময় বড় ধরনের হামলার ছক কষছে তারা।   বছর দুই আগে একটি পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে সাইবার হামলা চালিয়েছে আইএসের এক জঙ্গি। ওই হামলার ঘটনা স্পষ্ট হওয়ার পরপরই এমন সতর্ক বার্তা জারি করেছে জাতিসংঘ।   সম্প্রতি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে হিংকলি পয়েন্টে একটি নতুন পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপণের অনুমোদন দিয়েছেন।   জাতিসংঘের তরফ থেকে আরো জানানো হয়েছে, বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসের বিমানবন্দরে হামলাকার
অ্যাঙ্গেলা মারকেল ব্রেক্সিট নিয়ে কঠোর অবস্থানে

অ্যাঙ্গেলা মারকেল ব্রেক্সিট নিয়ে কঠোর অবস্থানে

ব্রেক্সিট নিয়ে বোঝাপড়ার ক্ষেত্রে কঠোর অবস্থান নিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেল। তিনি বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নে বৃটিশদের অবাধে চলাচল করতে (ফ্রি মুভমেন্ট) দেয়া হবে না। একই সঙ্গে তাদেরকে একক বাজারের (সিঙ্গেল মার্কেট) সুবিধা দেয়া হবে না। অ্যাঙ্গেলা মারকেল হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বৃটেন বেরিয়ে যাওয়ার পর তাদের জন্য কোনোই ব্যতিক্রম করা যাবে না। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট। এতে বলা হয়েছে, বৃটেন যদি অবাধ চলাচলের সুবিধা অব্যাহত রাখে তাহলেই কেবল তারা ইউরোপীয় ইউনিয়নে বাণিজ্য করার পূর্ণাঙ্গ সুবিধা পাবে। উল্লেখ্য, রোববার বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে বলেছেন, আগামী বছর মার্চের শেষে লিসবন চুক্তির ৫০ নম্বর অনুচ্ছেদ সক্রিয় করতে পারেন। এর ফলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বৃটেনের বেরিয়ে আসার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে। তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন একক বাজা