ইলেকশন নিউজ

ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচন : পাঁচ প্রার্থীর তিনজনই কোটিপতি

ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচন : পাঁচ প্রার্থীর তিনজনই কোটিপতি

  ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদের উপ-নির্বাচনে বৈধ পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে তিনজনই কোটিপতি। এরমধ্যে আওয়ামী লীগের মো. আতিকুল ইসলাম, এনডিএমের ববি হাজ্জাজ ও স্বতন্ত্র মোহাম্মদ আব্দুর রহিম ব্যবসায়ী এবং কোটিপতি হিসেবেই পরিচিত। তবে কোটিপতি হলেও আতিকুলের নিজের গাড়ি নেই। আর নিজের বাড়ি নেই ববি হাজ্জাজের। রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে জমা দেওয়া হলফনামা থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি উত্তরের মেয়র পদে উপনির্বাচন হবে। ছয়জন মনোনয়নপত্র জমা দিলেও বাছাইয়ে বাদ পড়েছেন জাতীয় পার্টি-জাপার প্রার্থী শাফিন আহমেদ। তবে তিনি গতকাল বিভাগীয় কমিশনারের কাছে আপিল করেছেন। হলফনামা থেকে জানা গেছে, আতিকুল ১৬টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক। তার বার্ষিক আয় কোটি টাকার বেশি। এরমধ্যে কৃষিখাতে সাড়ে ৩ লাখ টাকা, ভাড়া বাবদ সাড়ে ৩৬ লাখ টাকা; ব্যবসা থেকে সাড়ে ৫১ লাখ টাকা এবং অন্যান্য খাত থেকে আয় প্রায় ১৮ লাখ টা
ডাকসু নির্বাচনে ৩০ বছরের বেশি হলে অযোগ্য

ডাকসু নির্বাচনে ৩০ বছরের বেশি হলে অযোগ্য

ডেস্ক রিপোর্ট ::ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল ছাত্র সংসদ নির্বাচনে কারা কারা ভোটার ও প্রার্থী হতে পারবেন তা ঘোষণা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। যারা প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে অনার্স, মাস্টার্স, এমফিলে অধ্যয়নরত তারাই কেবল ভোটার ও প্রার্থী হতে পারবেন। এক্ষেত্রে কারও বয়স ৩০ বছরের ওপরে হলে তারা ভোটার ও প্রার্থী হতে পারবেন না। এছাড়া সান্ধ্যকালীন বিভিন্ন কোর্স, প্রোগ্রাম, প্রফেশনাল এক্সিকিউটিভ, স্পেশাল মাস্টার্স, ডিপ্লোমা, এমএড, পিএইচডি, ডিবিএ, ল্যাঙ্গুয়েজ কোর্স, সার্টিফিকেট কোর্স অথবা এ ধরনের কোর্সে অধ্যয়নরতরা ডাকসু নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না। প্রত্যেক হলে ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হবে। ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠনের প্রস্তাবনার ভিত্তিতে কয়েকটি সম্পাদকীয় পোস্ট বাড়ানো হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী
নির্বাচনের রাতের কাহিনী বিএনপি তো দুরের কথা দেশের কেউই জানতেন না: রনি

নির্বাচনের রাতের কাহিনী বিএনপি তো দুরের কথা দেশের কেউই জানতেন না: রনি

  গোলাম মাওলা রনি: এমনকি কেউ দুঃস্বপ্নেও সেদিনের ঘটমান প্রহসন এবং আগের রাতের র্দূবৃত্তপনার কাহিনী কল্পনা করেনি। এমনকি যারা ওসব করেছে তারাও বলতে পারতেন না তাদের ছোঁড়া তীর কতোদুর গিয়ে কতজনকে বিদ্ধ করবে এবং কতোটা গভীরতা নিয়ে প্রতিপক্ষকে রক্তাক্ত করবে। ফলে যা হবার তাই হয়েছে। সুতরাং যারা নিজেদেরকে অসহায়, ক্ষতিগ্রস্থ ও সম্বলহীন ভাবছেন তাদের উচিত দয়া করে অপেক্ষা করা এবং প্রকৃতির কার্যকারন সম্পর্কে আশাহত না হওয়া। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে- বিএনপির কিছু শুভার্থী বোধ হয় পাগল হয়ে গিয়েছেন। তারা বিভিন্ন এঙ্গেল থেকে বহুমুখী কথাবার্তা বলে যে বিভ্রান্তী ছড়াচ্ছেন তা শেষ পর্যন্ত বিএনপির বিরুদ্ধে চলে যাচ্ছে। কেউ কেউ বিএনপিকে আন্দোলন করার পরামর্শ দিচ্ছেন- অনেকে আবার নেতৃত্ব পরিবর্তন সহ কাউন্সিল ডাকার যুক্তি খাড়া করেছেন। দুই একজন অবশ্য সংসদে যাওয়ার ব্যাপারেও আগ্রহ দেখাচ্ছেন। আমার মত
ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ছফু

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ছফু

ডেস্ক রিপোর্ট :: আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রাজনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করতে চান মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার উত্তরভাগ ইউনিয়নের কৃতিসন্তান বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সাবেক সদস্য সাইফুল আহমদ ছফু। জাতীয় নির্বাচনের আমেজ শেষ না হতেই শুরু হয়েছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের আমেজ। ফেব্রুয়ারির শুরুতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফশিল আর মার্চে সারা দেশে ধাপে ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে ইসি। সাইফুল আহমদ ছফু কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পূর্বে তিনি সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন। এর পূর্বে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সদস্য হয়ে কাজ করেন নিজ উত্তরভাগ ইউনিয়নে। রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক, শিক্ষামূলকসহ অনেক সেবামূলক কাজে জড়িত রয়েছেন ছফু। ছাত্রনেতা হিসেবে বিভিন্ন কাজে সাধারণ মানুষের কাছে ছুটে যাওয়ার পাশাপ
ঠাকুরগাঁওয়ে হেরে বগুড়ায় জয় ফখরুলের

ঠাকুরগাঁওয়ে হেরে বগুড়ায় জয় ফখরুলের

ঠাকুরগাঁওয়ে নিজ আসনে হেরে বগুড়ায় দলীয় চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আসনে বড় ব্যবধানে জিতলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ঠাকুরগাঁও-১ আসনে ফখরুল হেরেছেন প্রায় এক লাখ ভোটে। আর বগুড়া-৬ আসনে জিতেছেন দুই লাখ ২০ হাজার ভোটে। ১৯৯১ সাল থেকে ঠাকুরগাঁও-১ আসনে ভোটে লড়ছিলেন ফখরুল। জিতেছেন কেবল ২০০১ সালে। বাকি প্রতিবার পরাজয় হয়েছে বড় ব্যবধানে। আর বেগম খালেদা জিয়া বগুড়া-৬ আসনে। এখানে ধানের শীষ মানেই জয়। কখনো হারেনি এখানে বিএনপির প্রার্থীরা। ঠাকুরগাঁও-১ আসনে নৌকা নিয়ে জিতেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন। ১৭৫টি কেন্দ্রে পেয়েছেন দুই লাখ ২৪ হাজার ৭৮ ভোট। আর এক এক লাখ ২৫ হাজার ৯০৯ ভোট পেয়েছেন বিএনপি নেতা। দুই জনের মধ্যে ব্যবধান ৯৮ হাজার ১৬৯ ভোটের। ২০০৮ সালে এই আসনে মুখোমুখি হয়েছিলেন দুই নেতা। তখন ফখরুল হারেন ৫৬ হাজার ৬৯০ ভোটে। বগুড়া-৬ আসনে ফখরুল ভোট পেয়েছেন থেকে বড় ব্যবধানে জয় পেয়
রেজা কিবরিয়ার গ্রামের বাড়িতে পুলিশের অভিযান

রেজা কিবরিয়ার গ্রামের বাড়িতে পুলিশের অভিযান

হবিগঞ্জ-১ আসন (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী ড. রেজা কিবরিয়ার গ্রামের বাড়িতে পুলিশী অভিযানের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, বুধবার বিকেল ৪ টায় নবীগঞ্জ থানা পুলিশ তালা ভেঙ্গে ড. রেজা কিবরিয়ার বাড়ীর ভিতরে প্রবেশ করে তল্লাশি অভিযান চালায়। এ সময় ড. রেজা কিবরিয়ার একান্ত সহকারী শাহবুদ্দিন শুভকে একটি কক্ষে আটক রেখে ব্যাপক তল্লাশী করে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ। এদিকে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাকর্মীরা গ্রেফতার এড়াতে ঐ স্থান থেকে সরে পড়েন। এ ঘটনায় নেতাকর্মীদের মধ্যে গ্রেফতার আতংক বিরাজ করছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে ড. রেজা কিবরিয়ার সহকারী শাহবুদ্দিন শুভ জানান, হবিগঞ্জ-১ আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ড. রেজা কিবরিয়ার গ্রামের বাড়ির পিছনের গেইটের তালা ভেঙ্গে ঘরের ভিতর তল্লাশী করে আসবাবপত্র ভাংচুর ও লিফলেট ছিড়ে ফেলে পুলিশ। পুলিশ তল্লাশী চালিয়ে কা
বিএনপির কোনো চান্স দেখছেন না মুহিত

বিএনপির কোনো চান্স দেখছেন না মুহিত

বিএনপি রাষ্ট্র পরিচালনা করতেই জানে না, তাদের নেত্রী খালেদা জিয়া দেশ পরিচালনার জন্য অনুপযুক্ত। তাই এই নির্বাচনে বিএনপির কোনো চান্স নেই বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বুধবার বিকালে সিলেটের জালালাবাদ সেনানিবাস এলাকার বটেশ্বর বাজারে আওয়ামী লীগ প্রার্থী তার ছোটভাই ড. এ কে আব্দুল মোমেনের পক্ষে প্রচারণাকালে তিনি এই মন্তব্য করেন। অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচনের পরিবেশ এখনো ভালো। দুই-একটি স্থানে বিএনপির ওপর হামলা হয়ে থাকতে পারে। তবে বিএনপিও হামলা করেছে আওয়ামী লীগের ওপর। এই যে এ কে মোমেনের কয়েকটি অফিস ভাঙচুর করা হয়েছে। শুধু ভাঙচুরই নয়, কর্মীদের মারধরেরও শিকার হতে হয়েছে, সুতরাং বিএনপিও গুন্ডা।’ সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় ভোটারদের সমর্থন নিয়ে আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন অর্থমন্ত্রী। ‘মর্যাদার’ আসন হিসেবে অভিহিত সিলেট-১ আসনের বর্তমান সংসদ সদস
বাবার স্বপ্ন পূরণ করতে একটি সুযোগ দিন: রেজা কিবরিয়া

বাবার স্বপ্ন পূরণ করতে একটি সুযোগ দিন: রেজা কিবরিয়া

বাহুবল উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ ও পথসভা করেছেন হবিগঞ্জ-১ আসনের ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী ড. রেজা কিবরিয়া।মঙ্গলবার সকাল থেকে বাহুবল উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ ও পথসভা করার জন্য বের হয়েছেন। এ সময় ড. রেজা কিবরিয়ার সঙ্গে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের কয়েক শতাধিক নেতাকর্মী ছিলেন। দুপুরে উপজেলার পুটিজুরি, ডুবাঐ বাজারে পথসভায় বক্তব্য রাখেন ড. রেজা কিবরিয়া। এ সময় তিনি বলেন, বাবার অনেক পরিকল্পনা ছিল। এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার পূর্বেই ঘাতকরা আমার বাবাকে হত্যা করে। আমার বাবার স্বপ্ন পূরণ করতে যদি আপনারা একটি সুযোগ দেন, বাকিটা সময় উন্নয়ন নিয়ে আর চিন্তা করতে হবে না। শহীদ প্রেসিডেন্ট বীরমুক্তিযোদ্ধা (বীরউত্তম) জিয়াউর রহমানের বিধবা স্ত্রী খালেদা জিয়া, উনি পায়ে হেঁটে জেলহাজতে ঢুকেছিলেন এখন আর উনি হাঁটতে পারেন না। তিনি অপেক্ষা করছেন সরকার বদলের সঙ্গে সঙ্গে তিনি মুক্তি পাবেন। খালেদা জিয়ার মুক্তি
আগের সুলতান আর বর্তমান সুলতান

আগের সুলতান আর বর্তমান সুলতান

স্লোগানে ‘জয় বাংলা’, আদর্শে বঙ্গবন্ধু, অথচ নির্বাচনের প্রতীক হচ্ছে ধানের শীষ। এ স্লোগান, আদর্শ আর প্রতীক নিয়েই মৌলভীবাজার-২ আসনে লড়ছেন সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। ‘রাজনীতিতে শেষ কথা বলে কিছু নেই’ এ আপ্তবাক্যেরই যেন নিখাদ উদাহরণ সুলতান মনসুর। একসময় নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে সংসদ সদস্য হওয়া এই সাবেক ছাত্রনেতা প্রতীক বদলালেও তার জনপ্রিয়তা কাজে লাগিয়ে গণজোয়ার সৃষ্টিতে লড়ছেন। স্থানীয় মানুষের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মৌলভীবাজার-২ আসনে ভোটারদের কাছে প্রতীক নয়, ব্যক্তিই মুখ্য বলে বিবেচিত হয়। অতীতে অনেক হেভিওয়েট নেতাও দলীয় প্রতীক নিয়ে এ আসনে নির্বাচন করে পরাজিত হয়েছেন। নবম জাতীয় নির্বাচনে এ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছিল। এখানকার মানুষের মধ্যে সুলতান মনসুরকে ঘিরে অন্যরকম আবেগ ও ভালোবাসা কাজ করে। অতীতে সংসদ সদস্য থাকাকালে এলাকার উন্নয়নে নিবেদিত ছিলেন তিনি। ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তা আর অ
ভয়ের কিছু নেই, মানুষ একবারই মরে: ফখরুল

ভয়ের কিছু নেই, মানুষ একবারই মরে: ফখরুল

নারায়ণগঞ্জ, ২১ ডিসেম্বর- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আগের দিন রাত থেকে ভোটকেন্দ্র পাহারা দিন। ভয় পাবেন না, ভয়ের কিছু নেই।  মানুষ একবারই মরে, বীরের মৃত্যু নেই। শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের বন্দরের সোনাকান্দা স্টেডিয়ামে এক সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি। মির্জা ফখরুল বলেন, গত কয়দিন আগে বেগম খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করতে গেলে তিনি বলেন, তোমরা ঐক্যবদ্ধ থাকো। একতাবদ্ধ হয়ে জাতিকে মুক্ত করো, তাহলেই আমার মুখে হাসি ফুটবে। বিএনপির ১৬ জন প্রার্থীকে জেলে পাঠানো হয়েছে এবং তাদের জামিন দেয়া হচ্ছে না অভিযোগ করে মহাসচিব বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন তফসিল ঘোষণার পর হামলা মামলা গ্রেফতার করা হবে না, কিন্তু হচ্ছে। তাহলে কী তাকে সত্যবাদী বলা যায়? তিনি বলেন, লেভেল প্লেইং ফিল্ড বলতে আছে তারা হেলিকপ্টারে পতাকা লাগিয়ে প্রচারণা করছে আর আমরা অনুমতি নিয়েও সমাবেশের একটি মঞ্চ বানাতে পারি