কানাডা

কানাডায় বাংলাদেশ দূতাবাসে মুজিবনগর দিবস পালিত

কানাডায় বাংলাদেশ দূতাবাসে মুজিবনগর দিবস পালিত

কানাডার অটোয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে মুজিবনগর দিবস পালিত হয়েছে।   মঙ্গলবার এ উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কানাডায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিজানুর রহমান।   অনুষ্ঠানে দিবসটি উপলক্ষে পাঠানো রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতির বাণী পাঠ করে শোনান যথাক্রমে বাংলাদেশ দূতাবাসের মিনিস্টার নাইম উদ্দিন আহমেদ, কাউন্সিলর সাখাওয়াত হোসেন, কাউন্সিলর ফারহানা আহমেদ চৌধুরী ও প্রথম সচিব মো.শাকিল মাহমুদ।   অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন দূতাবাসের প্রথম সচিব অপর্ণা পাল। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ সংক্রান্ত একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়। এরপর মুজিবনগর দিবসের উপর একটি মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।   আলোচনায় অংশ নেন নুরল হক, কবির চৌধুরী, মমতা দত্ত ও দূতাবাসের কাউন্সিলর সাখাওয়াত হোসে
টরন্টোয় প্রথমবারের মতো সূর্যোদয়ে বাংলা বর্ষবরণ

টরন্টোয় প্রথমবারের মতো সূর্যোদয়ে বাংলা বর্ষবরণ

‘কাক ডাকা ভোরে দল বেধে রমনার বটমূলে হাজির হওয়া’-  প্রবাসের বাংলা নববর্ষের উদযাপনে এই স্বাদটা মেটানো যাচ্ছিলো না কিছুতেই।  বৈশাখি মেলা, মঙ্গল শোভাযাত্রা সবকিছু যুক্ত হলেও এটিই ছিলো অনুপস্থিত। আবৃত্তি শিল্পী মেরী রাশেদীনের প্রস্তাবনা ও পরিকল্পনায় এবার সেটিও যুক্ত হলো টরন্টোর বৈশাখি আয়োজনে। বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা করে প্রাণের টানেই টরন্টোনিয়ান বাংলাদেশিরা এবার সুর্যোদয়ের লগ্নেই বাংলা নববর্ষকে  বরণ করে নিয়েছে। আর এর মধ্য দিয়ে টরন্টোর বাংলা সংস্কৃতি চর্চায় যুক্ত হলো নতুন এক ধারা। ‘নব আনন্দে জাগো’ শিরোনামে গ্র্যান্ড প্যালেসের আয়োজনে চারদিনের বৈশাখি উদযাপনেসূর্যোদয়ের লগ্নে বর্ষবরণের আয়োজন করা হয়।  বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা  করেই  সাপ্তাহিক ছুটির দিনের সকাল বেলা টরন্টোর বাংলাদেশিরা যোগ দেন  বাংলা বর্ষ বরনের আয়োজনে। টরন্টোর শিল্পীদের পরিবেশনায় নাচ, গান আর কবিতায় বরণ করা হয় বাংলা নতুন বছর ১৪২৫কে ।
টরন্টোয় ‘বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার্স নাইট’

টরন্টোয় ‘বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার্স নাইট’

কানাডায় বসবাসরত বাংলাদেশি প্রকৌশলীদের  সংগঠন এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার্স অব অন্টারিও’র ১৯তম বার্ষিক ‘বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার্স নাইট-২০১৮’অনুষ্ঠিত হয়েছে গত শনিবার।  চাঁদনি গ্র্যান্ড বাঙ্কুয়েট হলে আয়োজিত এই ইঞ্জিনিয়ার্স নাইটে কানাডায় বসবাসরত বাংলাদেশি প্রকৌশলী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা অংশ নেন। কানাডার ফেডারেল  ইমিগ্রেশন মন্ত্রী আহমেদ হুসেন এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। কানাডায় বাংলাদেশের হাই কমিশনার মিজানুর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউট অব বাংলাদেশ-এর প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর,ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টার্ন অন্টারিও’র প্রেসিডেন্ট ড. অমিত চাকমা এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ উপলক্ষে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন আয়েশা মৌসুমি, ফারহানা শান্তা, নাফিয়া ঊর্মি, লিটন কাজী প্রমূখ।তাসরিনা শিখা এবং প্রকৌশলী আলী তারিক কবিতা আবৃত্তি করেন। অর
কানাডায় লোক পাঠানোর নামে ইস্টওয়েস্ট ইমিগ্রেশনের প্রতারণা

কানাডায় লোক পাঠানোর নামে ইস্টওয়েস্ট ইমিগ্রেশনের প্রতারণা

কানাডায় লোক পাঠানোর নামে চটকদার বিজ্ঞাপন দিয়ে অভিনব কায়দায় প্রতারণা করছে ইস্টওয়েস্ট ইমিগ্রেশন লিমিটেড। মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে বিপুল অর্থ। নানা টালবাহানায় হয়রানি করছে গ্রাহকদের। আর এসব বিষয় প্রমাণিত হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটিকে অর্থদণ্ড দিয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। সেইসঙ্গে এই প্রতিষ্ঠানের মালিকানাধীন আরেক প্রতিষ্ঠান এক্সক্লুসিভ সার্ভিসেস লিমিটেডকেও অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার অধিদফতরের উপ-পরিচালক শাহীন আরা মমতাজ জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বিদেশে লোক পাঠানোর নামে ইস্টওয়েস্ট ইমিগ্রেশন লিমিটেড গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারণা করছে এমন একটি লিখিত অভিযোগ করেন মো. নাসির উদ্দিন (মিলন) নামের এক ভোক্তা। তার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে উভয়পক্ষকের উপস্থিতিতে শুনানি করা হয়। শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে মিথ্যা বিজ্ঞাপন দিয়ে অভিযোগকারীকে প্রভাবিত করা ও প্রতিশ্রুতি মোতাবেক
স্বাধীনতা দিবসকে ঘিরে টরন্টোতে ৭১টি পতাকাবাহী গাড়ির র‍্যালি

স্বাধীনতা দিবসকে ঘিরে টরন্টোতে ৭১টি পতাকাবাহী গাড়ির র‍্যালি

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসকে ঘিরে স্থানীয় সময় গত রবিবার টরন্টোতে অনুষ্ঠিত হয় গাড়ির শোভাযাত্রা। এসময় বাংলাদেশ এবং কানাডার পতাকা বহন করা ৭১টি গাড়ি ব্লাফার্স পার্ক থেকে যাত্রা শুরু করে কিংস্টন রোড, ডেনফোর্থ এভিনিউ, ডজ রোড তা ওয়ার্ডেন উডস কমিউনিটি সেন্টারে গিয়ে শেষ হয়। বহুসংস্কৃতির দেশ কানাডীয় কমিউনিটি কানাডার পাশাপাশি পরিচিত হন বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকার সাথে। এই নজরকাড়া স্বাধীনতা দিবস গাড়ির শোভাযাত্রার আয়োজন করে কানাডায় বাংলাদেশি কমিউনিটির গাড়ি প্রেমীদের সংগঠন ‘দ্য গ্রিন অ্যান্ড রেড হুইলারস’। শোভাযাত্রা শেষে ওয়ার্ডেন উডস কমিউনিটি সেন্টারে এক বর্ণাঢ্য কনসার্টের আয়োজন করে সংগঠনটি।
টেইলর ক্রিক পার্কে হবে টরন্টোর শহীদ মিনার

টেইলর ক্রিক পার্কে হবে টরন্টোর শহীদ মিনার

বাঙালি অধ্যূষিত ডেনফোর্থ সংলগ্ন টেইলর ক্রিক পার্কে হবে টরন্টোর শহীদ মিনার। শিগগিরই  মিনার স্থাপনার কাজ শুরু হবে। টরন্টো সিটি কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে এটি অনুমোদন করেছে।  শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠার সাথে সরাসরি জড়িত সিটি কাউন্সিলর জেনেট ডেভিস মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে এই তথ্য জানান।   টরন্টো ফিলম্ ফোরাম, অন্য থিয়েটার ও থিয়েটার ফোকস এর যৌথ আয়োজনে এই অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বক্তৃতাকালে সিটি কাউন্সিলর জেনেট ডেভিস বলেন, গত কয়েকদিন ধরে শহীদ মিনার নিয়ে নানা গ্রুপিং, রাজনীতি হচ্ছিলো। আমি আপনাদের জানাতে চাই যে, শিগগিরই শহীদ মিনার হবে। এর জন্য টেইলর ক্রিক পার্কে জায়গা ঠিক করা হয়েছে।   তিনি বাংলাদেশি কমিউনিটির প্রতি ঐক্যবদ্ধ হয়ে এগিয়ে আসার  আহ্বান জানিয়ে বলেন, শহীদ মিনার হবে সকল বাংলাদেশিদের। যারা আজ এইখানে শহীদ দিবস উদযাপন করছেন, যার
দিল্লিতে ট্রুডোর ভাংড়া নাচ

দিল্লিতে ট্রুডোর ভাংড়া নাচ

শীতল ভারত সফরে নাচ দিয়ে উষ্ণতা ছড়ালেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।   বৃহস্পতিবার নয়া দিল্লির কানাডা হাই কমিশনে এক অনুষ্ঠানে বাদ্যের তালে তালে ট্রডোর ভাংড়া নাচ এখন ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।   পাঞ্জাবের ঐতিহ্যবাহী এই নাচের ছন্দে ভারতীয় পোশাকে ট্রুডোর তাল মেলানো ফেলা নিয়ে প্রশংসা-নিন্দা দুইই চলছে।     সপরিবারে আট দিনের ভারত সফরে ট্রুডো নয়া দিল্লির সাড়া তেমন পাচ্ছিলেন না বলে আলোচনা চলছিল। আর তার কারণও পাঞ্জাব নিয়েই।   শিখ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের প্রতি ট্রুডোর সহানুভূতিতে ট্রুডোর প্রতি নাখোশ ছিলেন ভারতের কর্তাব্যক্তিরা।   তবে সফরের শেষ দিকে এসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দেখা পেয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী; শুক্রবার নিজের ‘ট্রেডমার্ক’ আলিঙ্গনে ট্রুডোকেও বাঁধেন মোদী।  
কানাডায় শিশুদের রঙ-তুলিতে ভাষা আন্দোলন

কানাডায় শিশুদের রঙ-তুলিতে ভাষা আন্দোলন

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের অংশ হিসেবে বেঙ্গলি ইনফরমেশন অ্যান্ড এমপ্লয়মেন্ট সার্ভিসেসের (বায়েস) উদ্যোগে কানাডার টরন্টোয় অনুষ্ঠিত হয়েছে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা।   চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় টরন্টোর বাঙালি শিশুরা রঙ-তুলিতে নান্দনিকভাবে ফুটিয়ে তোলেন মহান একুশ আর ১৯৫২ সালের বীরত্বগাথা-বাঙালির মহান ভাষা আন্দোলনকে। ১৭ ফেব্রুয়ারি টরন্টোর ডেনফোর্থ অ্যাভিনিউয়ের এক্সেস পয়েন্টে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।   অনুষ্ঠানে স্থানীয় এমপি, এমপিপি, সিটি কাউন্সিলর, বিপুলসংখ্যক প্রতিযোগী, অভিভাবক ও কমিউনিটির বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন।  
কানাডায় বাংলাদেশি তরুণীর কৃতিত্ব

কানাডায় বাংলাদেশি তরুণীর কৃতিত্ব

কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়া প্রদেশের নানাইমো অ্যাম্বাসেডর নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি তরুণী লিউনা শেরিফ। তীব্র প্রতিযোগিতায় অবতীর্ণ হয়ে লিউনা শেরিফ মিস নানাইমোর মুকুট জয় করেন। এছাড়া দুজন কানাডীয় তরুণী মারিয়া ক্লিউমটে এবং ক্যাথেরিন নরম্যান ভাইস নানাইমো অ্যাম্বাসেডর নির্বাচিত হন।   মিস নানাইমোর মুকুট জয়ের পর লিউনা শেরিফ নানাইমো শহরে ২০১৬ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৭ সালের অক্টোবর পর্যন্ত মিস নানাইমো অ্যাম্বাসেডর হিসেবে বিভিন্ন সমাজসেবা, নতুন প্রজন্মকে বিভিন্ন কল্যাণমূলক কাজে উদ্বুদ্ধকরণ, মাদক থেকে নিজেকে মুক্ত রাখা ও পরিচ্ছন্নতা ইত্যাদি বিষয়ে কাজ করেন। এ ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ দিবসে লিউনা পাবলিক স্পিকার হিসেবে অংশ নেন।   লিউনা শেরিফ সপরিবারে কানাডায় বসবাস করেন। লিউনা শেরিফের বাবা মেজর (অব.) আরিফ ইসলাম। বর্তমানে তিনি কানাডা সরকারের একজন কর্মকর্তা। লিউনার মা বারডেম হাসপাতালের সাবেক চি
কানাডায় শিশুদের রঙ-তুলিতে ভাষা আন্দোলন

কানাডায় শিশুদের রঙ-তুলিতে ভাষা আন্দোলন

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের অংশ হিসেবে বেঙ্গলি ইনফরমেশন অ্যান্ড এমপ্লয়মেন্ট সার্ভিসেসের (বায়েস) উদ্যোগে কানাডার টরন্টোয় অনুষ্ঠিত হয়েছে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা।   চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় টরন্টোর বাঙালি শিশুরা রঙ-তুলিতে নান্দনিকভাবে ফুটিয়ে তোলেন মহান একুশ আর ১৯৫২ সালের বীরত্বগাথা-বাঙালির মহান ভাষা আন্দোলনকে। ১৭ ফেব্রুয়ারি টরন্টোর ডেনফোর্থ অ্যাভিনিউয়ের এক্সেস পয়েন্টে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।   অনুষ্ঠানে স্থানীয় এমপি, এমপিপি, সিটি কাউন্সিলর, বিপুলসংখ্যক প্রতিযোগী, অভিভাবক ও কমিউনিটির বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন।       শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার বিষয় ছিল ‘আমার মাতৃভাষা, আমার গর্ব।’ প্রায় ৫০ জন শিশু চিত্রশিল্পী প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। শিশু শিল্পীরা জল রং, ওয়েল প্যাস্টেল (মোমের রং) ও কাঠ পেনসিলের রঙে মনের মাধুরী মিশিয়ে ভাষার