গ্রেট বৃটেন

দুই পুত্রবধূর ঝগড়ায় ব্রিটিশ রাজপরিবারে ভাঙন!

দুই পুত্রবধূর ঝগড়ায় ব্রিটিশ রাজপরিবারে ভাঙন!

বৃটেন ডেস্ক :: বৃটেনের রাজপরিবারের দুই পুত্রবধূর মধ্যে ঝগড়া হয়েছে। এমনকি এ কারণে নাকি রাজপরিবারে ভাঙনের সম্ভাবনাও দেখা দিয়েছে। দেশটির রাজপরিবারের দুই পুত্রবধূ কেট মিডলটন ও মেগান মর্কেল পরস্পর ঝগড়ায় লিপ্ত হয়েছেন। এ কারণে বড়দিনের অনুষ্ঠানে তাদের একসঙ্গে দেখা যাবে না। এবার বড়দিনে হ্যারি ও মেগান জুটি রাজপ্রাসাদে থাকছেন না। তারা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে স্যান্ড্রিংহামে ছুটি কাটাবেন। আর কেট যাবেন বাপের বাড়ি বার্কশায়ারে। রাজপরিবারের দুই বধূর বিবাদ শুরু হয় মেগান মর্কেলের বিয়ের আগে থেকেই। রাজপরিবারের বৌ হওয়ার আগে তিনি পরিবারের মধ্যে প্রভাব খাটাতে শুরু করেন। সেখান থেকেই বিবাদ শুরু হয়। কেট মিডলটনের এক পরিচারিকাকে নিয়ে দুই রাজবধূর ঝগড়া শুরু হয়। ওই পরিচারিকার সাথে খারাপ ব্যবহার করেছিলেন মর্কেল। তাতে ক্ষুব্ধ হন কেট। এক পর্য়ায়ের দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে স্ত্রীর পক
যুক্তরাজ্য পৌঁছালেন আমিরাতে ক্ষমা পাওয়া ব্রিটিশ শিক্ষাবিদ

যুক্তরাজ্য পৌঁছালেন আমিরাতে ক্ষমা পাওয়া ব্রিটিশ শিক্ষাবিদ

সংযুক্ত আরব আমিরাতে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে যাবজ্জীবন সাজা পাওয়ার পর ক্ষমা পাওয়া ব্রিটিশ শিক্ষাবিদ ম্যাথিউ হেজ যুক্তরাজ্যে পৌঁছেছেন। সোমবার তাকে আমিরাতি প্রেসিডেন্ট ক্ষমা ঘোষণা করেন। মঙ্গলবার সকালে তিনি যুক্তরাজ্য পৌঁছান। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এখবর জানিয়েছে। হেজের পরিবারের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার সকালে লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে তার পৌঁছার কথা নিশ্চিত করা হয়েছে। বিমানবন্দরে এ সময় তার স্ত্রী ড্যানিয়েলা তেজাদা ও পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। দীর্ঘ সাত মাস নিঃসঙ্গ কারাবাস ভোগ করা এই ব্রিটিশ নাগরিক বলেন, আমার মুক্তির জন্য যারা কাজ করেছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানানো কোথা থেকে শুরু করবো তা জানি না। যা লেখা হয়েছে সেগুলো সম্পর্কে আমি বিশেষ কিছুই জানি না। ডানি (স্ত্রী) আমাকে জানিয়েছে আমার সমর্থনে লেখাগুলো ছিল অসাধারণ। ব্রিটিশ দূতাবাসসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ। সোমবার দেশটির জাত
যুক্তরাজ্যে রাজনৈতিক আশ্রয় চাইলেন আসিয়া বিবির স্বামী

যুক্তরাজ্যে রাজনৈতিক আশ্রয় চাইলেন আসিয়া বিবির স্বামী

পাকিস্তানে ধর্ম অবমাননা এবং মহানবী হজরত মোহাম্মদ (স.)কে নিয়ে কটূক্তির দায়ে করা মামলায় ফাঁসির দণ্ড থেকে রেহাই পাওয়া খ্রিস্টান নারী আসিয়া বিবির স্বামী যুক্তরাজ্য, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের কাছে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছেন। খবর দ্য গার্ডিয়ান। এ বিষয়ে এক ভিডিও বার্তায় আসিয়ার স্বামী আশিক মাসিহ বলছেন, ‘পরিবার নিয়ে আমি পাকিস্তানে বর্তমানে খুবই বিপজ্জনক অবস্থায় আছি। সে সময় তিনি আরও বলেন, ‘আমি যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাহায্যের আবেদন করছি। যত দ্রুত সম্ভব আমাদের স্বাধীনতার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।’ একইসঙ্গে তিনি যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডার রাষ্ট্রপ্রধানদের কাছেও বিষয়টি বিবেচনার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। দ্য গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে বলছে, এ দিকে গত শনিবার (৩ নভেম্বর) আসিয়া বিবির আইনজীবী সায়িফ মুল্লুক প্রাণের ভয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন। তিনি দেশটিতে জীবননাশের শঙ্কায় ছিলেন উল্লেখ করে বিভিন্ন সংবাদমা

অসুস্থ মেয়েকে দেখতে যুক্তরাজ্যে যেতে পারবেন বাংলাদেশি মা

যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করা বাংলাদেশি এক মা যুক্তরাজ্যে বসবাসরত অসুস্থ মেয়েকে দেখতে যাওয়ার জন্য ভিসা পেয়েছেন। প্রয়োজনীয় চাহিদা পুরণ করতে না পারায় তার ভিসা আবেদন বাতিল করা হয়েছিল। সংবাদমাধ্যমে এনিয়ে খবর প্রকাশের পর ‘ব্যতিক্রমভাবে সিদ্ধান্ত’ বদলেছে ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ৬১ বছর বয়সী ফাতেহা বেগম মাঝে মাঝে বাংলাদেশ এবং মাঝে মাঝে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করনে। লন্ডনে বসবাসরত মেয়ে অসুস্থ তুনাজ্জিনা নিজুকে দেখতে যেতে ভিসার আবেদন করেন তিনি। নিজু ওভারিয়ান ক্যান্সারে ভুগছেন। তবে বেগমের আবেদন সঠিক মনে না হওয়ার ভিত্তিতে ভিসা প্রত্যাখান করে যুক্তরাজ্য। তার ঘটনাকে দৃষ্টিগোচর করে সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর চলতি সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি পান ফাতেহা বেগম। ওই চিঠিতে তাকে নিশ্চিত করা হয়, ‘ব্যতিক্রমভাবে সিদ্ধান্ত বদলেছেন’ তারা। পূর্ব লন্ডনে স্বামী ও দুই সন্তানের সঙ্গে বসবাস
যুক্তরা‌জ্যে বাংলা‌দেশি বিজ্ঞানীর ব্যাক‌টে‌রিয়া নির্ণায়ক আবিষ্কার

যুক্তরা‌জ্যে বাংলা‌দেশি বিজ্ঞানীর ব্যাক‌টে‌রিয়া নির্ণায়ক আবিষ্কার

যুক্তরাজ্য প্রবাসী বাংলাদেশি বিজ্ঞানী ড. প্রদীপ সরকারসহ ৬ জনের একটি গবেষণা দল এক ধরণের এক‌টিভ প‌লিমার হাই‌ড্রে‌জেল তৈরি করেছেন। এর মাধ্যমে অল্প খরচে সঠিকভাবে ব্যাকটেরিয়া ইনফেকশন পরীক্ষা করা সম্ভব। ফলে চিকিৎসকরা দ্রুততম সময়ে সঠিক অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করতে পারবেন। তাদের এই আবিস্কার চিকিৎসা বিজ্ঞানের নতুন দ্বার উন্মোচন করতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। প্রফেসর ষ্টিভ রিমারের তত্ত্বাবধানে প্রায় ৩ বছরের বেশী সময় ধরে নিরলস প্রচেষ্টায় এই আবিস্কার সম্ভব হয়েছে। সম্প্রতি এই গবেষণার স্বীকৃতি হিসেবে যুক্তরাজ্যের রয়্যাল সোসাইটি ১০ হাজার পাউন্ড অনুদান দিয়েছে। প্রাথমিক ভাবে এই প্রযুক্তি প্রাণীর ওপর পরীক্ষা করা হবে। পরে এটি ক্লিনিক্যাল টেস্টের জন্য পাঠানো হবে। বাংলাদেশি বিজ্ঞানী ড. প্রদীপ সরকার এই গবেষক দলের লিড সাইন্টিটিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন। বিশ্বখ্যাত ৫টিরও বেশী জার্নালে তাদের গবেষণার ফলাফল প্
জন্মসূত্রে নাগরিকত্ব বাতিলের পরিকল্পনায় ট্রাম্প কতটা সফল হবেন?

জন্মসূত্রে নাগরিকত্ব বাতিলের পরিকল্পনায় ট্রাম্প কতটা সফল হবেন?

নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে জন্মসূত্রে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব পাওয়ার চলতি নিয়ম বাতিলের পরিকল্পনা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। জনপ্রিয় ওয়েবসাইট এক্সিওস এর সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেছেন। কিন্তু তিনি কি তা করতে পারেন? এই প্রশ্ন অনেকে তুলেছেন। ট্রাম্প বলেন, ‘আমেরিকার নাগরিক নন, এমন যে কেউ এসে সন্তান জন্ম দিলেই সেই সন্তান আমেরিকার নাগরিকত্ব দাবি করতে পারে। এই নিয়ম অত্যন্ত হাস্যকর, এটি বন্ধ হওয়া উচিত।’তবে এটি দেড়শ বছরের পুরোনো নীতি। তাতে বলা হয়েছে, আমেরিকার মাটিতে জন্মগ্রহণ করলেই দেশটির নাগরিকত্ব পাবে। এই ব্যবস্থা পরিবর্তনের জন্য সংবিধান সংশোধন প্রয়োজন বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।ট্রাম্পের বক্তব্য হচ্ছে, তার আইন বিশেষজ্ঞরা তাকে নিশ্চিত করেছেন যে, তেমন কোনও সংশোধনীর প্রয়োজন নেই। নির্বাহী আদেশের মাধ্যমেই এটা করা সম্ভব। প্রেসিডেন্ট তার একক ক্ষমতাবলে এমন পদক্
জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিকত্ব প্রাপ্তির সুযোগ বন্ধ করছে ট্রাম্প প্রশাসন

জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিকত্ব প্রাপ্তির সুযোগ বন্ধ করছে ট্রাম্প প্রশাসন

যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব নেই এমন অধিবাসীদের সন্তানরা জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিকত্ব লাভের যে সুযোগ ভোগ করছে তা বন্ধ করার উদ্যোগ নিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। মঙ্গলবার এইচবিও টিভি চ্যানেলকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, সরকার অবৈধ অভিবাসী ও নাগরিকত্ব নেই এমন অধিবাসীর সন্তানদের জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিকত্ব লাভের সুযোগ বন্ধ করার পরিকল্পনা করছে। ১৯৬৮ সাল থেকে কার্যকর এই আইন বন্ধে তিনি বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে পরামর্শ করছেন। ওই আইন অনুসারে, যেসব শিশু মার্কিন ভূ-খন্ডে জন্ম গ্রহণ করে, তাদের সবাইকে জন্মসূত্রে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব দেয়া হয়। এ বিষয়ে ট্রাম্প বলেন, আমরাই বিশ্বের একমাত্র দেশ যেখানে একজন ব্যক্তি আগমন করবে, শিশুর জন্ম দিবে এবং ওই শিশু অবধারিতভাবে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক হবে। যুক্তরাষ্ট্রে তাকে সব ধরণের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হবে। এটা হাস্যকর।
যুক্তরাষ্ট্রে ইহুদিদের সিনাগগে অস্ত্রধারীর হামলা, নিহত ১১

যুক্তরাষ্ট্রে ইহুদিদের সিনাগগে অস্ত্রধারীর হামলা, নিহত ১১

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যে ইহুদি ধর্মাবলম্বীদের উপসনালয় সিনাগগে এক অস্ত্রধারীর হামলায় অন্তত ১১ জন নিহত হয়েছে। এতে আহত হয়েছে আরো ছয় জন। শনিবার সেখানকার পিটাসবার্গ শহরে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ সন্দেহভাজন হামলাকারীকে আটক করেছে। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা। হামলার বিষয়ে শহরের জননিরাপত্তা পরিচালক ওয়েন্ডেল হিসরিক বলেন, শনিবারের হামলায় সন্দেহভাজন এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। সে একাধিক গুলিবিদ্ধ হয়েছে। পুলিশি হেফাজতে একটি হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছে। গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই’র স্পেশাল এজেন্ট বব জোনস বলেন, হামলাকারী একটি রাইফেল ও তিনটি হ্যান্ডগান নিয়ে সিনাগগের মধ্যে হামলা শুরু করে। এসময় উপাসনালয়ের মধ্যে বিপুল সংখ্যক মানুষ ছিল। স্থানীয় টিভি চ্যানেলের খবরে বলা হচ্ছে, হামলাকারী একজন শ্বেতাঙ্গ পুরুষ। একজন নিরাপত্তাকর্মী বার্তা সংস্থা এপিকে জানিয়েছেন, গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তির নাম রবার্ট বাওয়ার্স। তা
বাংলাদেশে স্থিতিশীলতা দেখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র : বার্নিকাট

বাংলাদেশে স্থিতিশীলতা দেখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র : বার্নিকাট

গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য গ্রহণযোগ্য বিরোধীদলের অংশগ্রহণ দরকার বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া বার্নিকাট। তিনি বলেন, বাংলাদেশের স্থিতিশীলতা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রত্যাশা করে। বাংলাদেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণে সরকার আন্তরিক বলে বিশ্বাস করি। সব দলের অংশ গ্রহণে, নিরপেক্ষ, শান্তিপূর্ণ নির্বাচন সবার প্রত্যাশা। দেশের গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে সব রাজনৈতিক দল আন্তরিক হবেন বলে আশাকরি। বাংলাদেশের আগামী নির্বাচন নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক হোক, এটাই চায় যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার (২২ অক্টোবর) সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শিয়া বার্নিকাট বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব সুভাশিষ বসু ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মুন্সী সফিউল হকসহ সিনিয়র কর্মকর
যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার হিসেবে পেশাদার কূটনীতিক সাঈদা মুনা তাসনিমকে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। অন্যদিকে নাজমুল কাওনাইনকে থাইল্যান্ডের বাংলাদেশ দূতাবাসের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। গতকাল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বহিঃপ্রচার অনুবিভাগের এক বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ এ দুই মিশনের নেতৃত্বে রদবদলের সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। বিসিএস একাদশ ব্যাচের কর্মকর্তা তাসনিম এর আগেও লন্ডনে বাংলাদেশ মিশনে দায়িত্ব পালন করেছেন। গুরুত্বপূর্ণ এই মিশনের প্রধান পদে তিনিই হচ্ছেন প্রথম নারী। ২০১৪ সালে রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব নিয়ে থাইল্যান্ডে যাওয়ার আগে ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জাতিসংঘ ও বহিঃপ্রচার অনুবিভাগের মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এ ছাড়া জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনেও তিনি ছিলেন। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে লেখাপড়ার পর তাসনিম ইউনিভার্সিটি অব অব ল