টপ নিউজ

জ্যাকসন হাইটস আওয়ামী বিজনেস লীগ-এর পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন

জ্যাকসন হাইটস আওয়ামী বিজনেস লীগ-এর পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার মানস কন্যা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী ও তার প্রাপ্তি বিশ্ব বানিজ্যনীতির সম্প্রসারণ ঘটানোর লক্ষ্যে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ বানিজ্য কেন্দ্র নিউইয়র্ক জ্যাকসন হাইটস-এ ‘জ্যাকসন হাইটস আওয়ামী বিজনেস লীগ’-এর আত্মপ্রকাশ ঘটল। এই সংগঠনের আদর্শ ও লক্ষ্য হল বহিঃবিশ্বে বাংলাদেশের ব্যবসা ও বানিজ্য প্রচার এর প্রফলন ঘটানো এবং প্রবাসী ও বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের মাঝে সেতু বন্ধন রচনা সমন্বয় ঘটিয়ে সেমিনার সিম্পোজিয়াম এবং বানিজ্য মেলার আয়োজন করে বাংলাদেশের উৎপাদিত পণ্য বহিঃবিশ্বে বাজারজাত করণ। সেই লক্ষে গত ৩১শে জানুয়ারী মঙ্গলবার পালকি পার্টি সেন্টারে জ্যাকসন হাইটস আওয়ামী বিজনেস লীগ এর সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন হারুন ভূইয়া এবং পরিচালনা করেন হোসেন সোহেল রানা। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন আবুল ফজল দিদার, রফিক আহমেদ, রাশেদ আহমেদ
স্রষ্টার হস্তক্ষেপে ট্রাম্পের জয়, বিশ্বাস ৪৫ শতাংশ রিপাবলিকানদের

স্রষ্টার হস্তক্ষেপে ট্রাম্পের জয়, বিশ্বাস ৪৫ শতাংশ রিপাবলিকানদের

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে জেতাতে স্বয়ং স্রষ্টার হাত আছে বলে মনে করে দেশটির ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান দলের সমর্থকরা। দল নিরপেক্ষ পাবলিক রিলিজিওন রিসার্চ ইনস্টিটিউটের জরিপে উঠে এসেছে, ৪৫ শতাংশ রিপাবলিকান বিশ্বাস করে ট্রাম্পকে জেতাতে সরাসরি স্রষ্টা হস্তক্ষেপ করেছেন। সব মিলিয়ে প্রতি চার জনে একজন মার্কিনি জোরালো বিশ্বাস করে যে ট্রাম্পকে জেতাতে হস্তক্ষেপ করেছে। জরিপে দুই প্রধান দল রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেট দলের সমর্থক ও ধর্ম অনুসারীদের ভিত্তিতে পরিচালিত হয়। গবেষণায় দেখা যায় ৪৫ শতাংশ রিপাবলিকান বিশ্বাস করছে আমেরিকাকে আবার শ্রেষ্ঠ করে তুলতে (ট্রাম্পের নির্বাচনী স্লোগান মেক আমেরিকা গ্রেট এগেইন) স্রষ্টার সরাসরি হস্তক্ষেপ ছিল। আর মাত্র ১৮ শতাংশ ডেমোক্রেট এই ধারণায় বিশ্বাস স্থাপন করেছে। শ্বেতাঙ্গ প্রোটেস্টান্ট খ্রিস্টানদের মধ্যে নির্বাচনে স্রষ্টার হস্তক্ষেপের উপর বিশ্বাস রাখার প্রবণতা বে
মুসলিম নিষিদ্ধে ট্রাম্পকে সমর্থন আমিরাতের

মুসলিম নিষিদ্ধে ট্রাম্পকে সমর্থন আমিরাতের

সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের ওপর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন, তা নির্দিষ্টভাবে কোনো ধর্মকে লক্ষ্য করে জারি করা হয়নি বলে দাবি করেছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান। তিনি বলেন, মার্কিন প্রশাসনের নতুন সিদ্ধান্ত কোনো নির্দিষ্ট ধর্মকে লক্ষ্য করে নেয়া হয়েছে বলাটা হবে ভুল। বৃহস্পতিবার রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্গেই লেভরভের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে নাহিয়ান এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্র একটি সার্বভৌম সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই সাময়িক নিষেধাজ্ঞা বিশ্ব মুসলমানের বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠের ওপর প্রয়োগ করা হয়নি। বিশ্বজুড়ে ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ঝড় উঠলেও ইউএই পররাষ্ট্রমন্ত্রী ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা সমর্থন করেন। তিনি বলেন, কালো তালিকায় থাকা কিছু দেশের নিরাপত্তা ক্ষেত্রে 'কাঠামোগত চ্যালেঞ্
ক্যামডেনে আল কোরআন একাডেমী লন্ডন ও চ্যানেল এস এর যৌথ উদ্যোগে কোরআন বিতরণ

ক্যামডেনে আল কোরআন একাডেমী লন্ডন ও চ্যানেল এস এর যৌথ উদ্যোগে কোরআন বিতরণ

গত ২০ই জানুয়ারী‘১৭ আল কোরআন একাডেমী লন্ডন ও চ্যানেল এস এর যৌথ উদ্যোগে কোরআন বিতরণ কর্মসূচীর অংশ হিসেবে যুক্তরাজ্যের ক্যামডেনের আর রাহমান মসজিদ ও এডুকেশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় কোরআন বিতরণ প্রোগ্রাম। খায়রুল হাসান এর পরিচালনায়, মসজিদ কমিটির চেয়ারম্যান এম এ সালামের সভাপতিত্বে প্রোগ্রামে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- ইসলামিক স্কলার ও সেন্টার ফর ইসলামিক গাইডেন্সের চেয়ারম্যান শায়খ কে এম মওদুদ হাসান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- আল কোরআন একাডেমী লন্ডন এর চেয়ারম্যান হাফেজ মুনির উদ্দীন আহমদ। আল কোরআন একাডেমী লন্ডনের কার্যক্রম, অর্থসহ কোরআন তেলাওয়াতের গুরুত্ব, কোরআন বিতরণের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে অতিথিবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মসজিদেও ইমাম মাওলানা সালমান আহমেদ। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল এস এর চ্যারিটি কো-অর্ডিনেটর তাওহিদুল করিম মুজাহিদ ও আল কোরআন একাড
তিন মুসলিমপ্রধান দেশের অন্যরকম প্রতিক্রিয়া

তিন মুসলিমপ্রধান দেশের অন্যরকম প্রতিক্রিয়া

সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা নির্বাহী আদেশের বিরুদ্ধে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতা ও নাগরিক সরব। খ্রিস্টান প্রধান পশ্চিমা দেশগুলোর নেতারাও ট্রাম্পের সমালোচনা করছেন। কিন্তু এই নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে মুসলিম দেশগুলোর কোনো প্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে। প্রভাবশালী তিনটি মুসলিমপ্রধান দেশ কার্যত ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞাকে হয় মুখ বুজে মেনে নিয়েছে, নয়তো তাকে প্রকাশ্যে সমর্থন দিয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুসলিম দেশ ইন্দোনেশিয়া নিশ্চুপ। উল্টো দেশটি তাদের নাগরিকদের ট্রাম্পের বিষয়ে কথা বলতে না করেছে। ফরেন পলিসি সাময়িকীর প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। গত সোমবার এক অনুষ্ঠানে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো বলেন, ট্রাম্পের নীতির প্রভাব তাদের ওপর পড়েনি। তাই এ নিয়ে তারা কেন ক্ষোভ দেখাবেন বলে প্রশ্ন রাখেন তিনি। উইদোদোর মুখপাত্র জোহান বুদি বলেছে
লন্ডনে বালাগঞ্জ ওসমানীনগর জাতীয়তাবাদী যুব ঐক্যপরিষদ ইউকের সভা

লন্ডনে বালাগঞ্জ ওসমানীনগর জাতীয়তাবাদী যুব ঐক্যপরিষদ ইউকের সভা

বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের গুম, হত্যা, নির্যাতন ও মিথ্যা মামলা বন্ধ করে অবিলম্বে সাবেক সংসদ সদস্য, বিএনপির সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি এম ইলিয়াস আলীকে তার স্বজনদের কাছে দ্রুত ফিরিয়ে দেয়ার দাবী জানিয়ে সভা করেছে বালাগঞ্জ ওসমানীনগর জাতীয়তাবাদী যুব ঐক্যপরিষদ ইউকের নেতৃবৃন্দ। সোমবার পূর্ব লন্ডনের ব্রিকলেইনের একটি রেস্টুরেন্টে বিশাল প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি শাহজাহান আলম। সাধারণ সম্পাদক সানুর মিয়া ও যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস সত্তার ইমন এর যৌথ পরিচালনায় পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় দেশের বিরাজমান সরকার দলীয় অগতান্ত্রিক আচরন, বিরোধী নেতাকর্মীদের গুম, হত্যা, নির্যাতন, মিথ্যা মামলা বন্ধের দাবী ও দেশে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় বিশ্বনেত্রীবৃন্দের হস্তক্ষেপ কামনা করে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সিনিয়র সহ সভাপতি আতাউর রহমান মিফতা, সহ সভাপতি মোদাচ্ছির খান, জাহাঙ
যে কারণে মিত্র অস্ট্রেলিয়ান প্রধানমন্ত্রীর ফোন কেটে দিলেন ট্রাম্প

যে কারণে মিত্র অস্ট্রেলিয়ান প্রধানমন্ত্রীর ফোন কেটে দিলেন ট্রাম্প

নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও অস্ট্রেলিয়ান প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম ট্রার্নবুলের মধ্যে সর্বশেষ ফোনালাপ উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ে শেষ হয়েছে। আমেরিকার অন্যতম অনুগত ও বিশ্বস্ত বন্ধু অস্ট্রেলিয়ার নেতার সঙ্গে মার্কিন নতুন কমান্ডার ইন চিফের টেলিফোনালাপ সবচেয়ে অনুকূল হবে-সবার প্রত্যাশা ছিল এটাই। কিন্তু পরিবর্তে শরণার্থী চুক্তি নিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলের তীব্র বাদানুবাদ হয়। শনিবার এই দুই নেতার মধ্যে এ উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয় বলে জানিয়েছে জ্যেষ্ঠ একজন মার্কিন কর্মকর্তা। তাদের এই ফোনালাপ কয়েক ঘণ্টা দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার কথা কিন্তু মাত্র ২৫ মিনিটের মাথায় আচমকা ট্রাম্প তার ফোন রেখে দেন। ফোনালাপের এক পর্যায়ে ট্রাম্প টার্নবুলের মুখের ওপর বলে দেন, তিনি একই দিনে রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনসহ চার বিশ্ব নেতার সঙ্গে কথা বলেছেন এবং এ প
বসতি স্থাপন নিয়ে ইসরাইলকে ট্রাম্পের হুশিয়ারি

বসতি স্থাপন নিয়ে ইসরাইলকে ট্রাম্পের হুশিয়ারি

ফিলিস্তিনের ভূমি দখল করে নতুন বসতি স্থাপনের ঘোষণা দেয়ায় ইসরাইলকে হুশিয়ার করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি প্রতিষ্ঠায় ট্রাম্প প্রশাসনের উদ্যোগকে খাটো করতে বসতি স্থাপনের ঘোষণা দেয়া হচ্ছে অভিযোগ করে অবিলম্বে তিনি এ চেষ্টা বন্ধে আহ্বান জানান। গত ২০ জানুয়ারি দায়িত্ব নেয়ার আগে থেকেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইসরাইলের পক্ষে বিতর্কিত মন্তব্য করে আসছিলেন। একদিকে ট্রাম্প ইসরাইলের তেলআবিব থেকে ফিলিস্তিনি শহর জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস সরিয়ে আনার কথা বলেন। অন্যদিকে ফিলিস্তিনি ভূমিতে নতুন করে বসতি স্থাপনের তৎপরতা শুরু করে ইসরাইল। এরমধ্যেই বৃহস্পতিবার হঠাৎ করে ইসরাইলকে হুঁশিয়ার করলেন ট্রাম্প। হোয়াইটহাউজের একজন কর্মকর্তা জেরুজালেম পোস্টকে বলেন, ফিলিস্তিন-ইসরাইল সংঘাতের অবসানে 'দ্বি-রাষ্ট্রের সমাধানের' বিষয়ে অঙ্গীকারাবদ্ধ। তিনি বলেন, ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে নতুন
ফিলিস্তিনের প্রতি সমর্থন পুর্নব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ

ফিলিস্তিনের প্রতি সমর্থন পুর্নব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ

ফিলিস্তিন ও ফিলিস্তিনের জনগণের প্রতি চিরন্তন সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাংলাদেশ এ বার্তা দেয়। বৈঠকের পরে পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, ‘বৃহস্পতিবার বৈঠকে একটি আন্তঃসরকার কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং রেগুলার ভিত্তিতে দু’দেশের পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক হবে।’ তিনি বলেন, ‘ফিলিস্তিন এখন কঠিন সময় পার করছে এবং আমরা ইসরায়েলের আগ্রাসনকে নিন্দা জানিয়েছি ।’ বাংলাদেশ দু’দেশ তত্ত্বকে সমর্থন করে এবং এর মাধ্যমে ফিলিস্তিন ও ইসরায়েল দুটি দেশ হবে। বৈঠকে আব্বাস বাংলাদেশের এ অবস্থানের জন্য ধন্যবাদ জানান। পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘আব্বাস আমাদের জানিয়েছেন, তারা শান্তির্পূণভাবে আলোচনার মাধ্যমে ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চান এবং এর জন্য বাংলাদেশের সমর্থন প্রত্যাশা করে
পাঁচ মুসলিম দেশের নাগরিককে ভিসা দেবে না কুয়েত

পাঁচ মুসলিম দেশের নাগরিককে ভিসা দেবে না কুয়েত

মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ পাঁচটি দেশের নাগরিকদের ভিসা না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুয়েত। ওই পাঁচটি দেশ থেকে চরমপন্থীরা কুয়েতে প্রবেশ করতে পারে আশংকা করে এই সিদ্ধান্ত নেয় মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। কুয়েত যে পাঁচটি দেশের নাগরিকদের ভিসা দেয়া বন্ধ করেছে সেগুলো হল : পাকিস্তান, সিরিয়া, ইরাক, আফগানিস্তান ও ইরান। যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম নাগরিকদের প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির এক সপ্তাহের মাথায় কুয়েতও এ সিদ্ধান্ত নিল। তবে কুয়েত পাকিস্তানের নাগরিকদের ভিসা দেবে না- এমন খবর অস্বীকার করেছে ইসলামাবাদ। খবর দ্য ইকোনমিক টাইমসের। সিরিয়ার নাগরিক প্রবেশের ওপর এর আগে একবার নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল কুয়েত। ২০১১ সালেই এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।