নিউইয়র্ক

মির্জা ফখরুলের মায়ের মূত্যুতে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির দোয়া মাহফিল

মির্জা ফখরুলের মায়ের মূত্যুতে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির দোয়া মাহফিল

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মা ফাতেমা আমিনের মূত্যুতে  দোয়া মাহফিল করেছে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি।স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধায় জ্যাকসন হাইটসের ইসলামিক সেন্টার ও জামে মসজিদে এ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের   নেতৃবৃন্দসহ প্রবাসীরা এতে অংশ নেন। মাহফিলের শুরুতে ঢাকা থেকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর টেলিকনফারেন্সে আয়োজকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। মির্জা ফখরুল বলেন দেশমাতা বেগম খালেদা জিয়া কারান্তরীণ। আমার মাও আমাকে ছেড়ে চলে গেলেন। দেশের ক্ষান্তিলগ্নে এ যেন আমার জন্য বড় শোকের দিন, শোকের সময়। কিন্তু আমি মনে করি আপনাদের ভালোবাসা এবং দোয়ায় আল্লাহর রহমতে আমি শোককে শক্তিতে পরিণত করতে পারবো। তিনি আরো বলেন, প্রবাসের নেতাকর্মীরা আমাকে সবসময় সহযোগিতা করেছেন, নানা কর্মসূচিতে সাহস জুগিয়েছেন। আমার মায়ের ইন্তেকালের পর আপনারা যে দোয়া মা
নিউইয়র্কে বাফার জমজমাট বর্ষবরণ

নিউইয়র্কে বাফার জমজমাট বর্ষবরণ

জমজমাট আয়োজন আর ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় নিউইয়র্কের রাজধানী আলবেনিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘বাংলা বর্ষবরণ-১৪২৫’। এ উপলক্ষ্যে আলবেনির পার্শ্ববর্তী লাথাম শহরের একটি এলেমন্টারি স্কুল মিলনায়তনে গত শনিবার দুপুরে ব্যাপক আয়োজন করেন বাংলাদেশি আমেরিকান ফাউন্ডেশন অব আলবেনি (বাফা)। এতে আশেপাশের বেশ কয়েকটি শহরের বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি নারী-পুরুষর উপস্থিত হয়ে বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানান।   বাফা আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে ছিল আলোচনা, কবিতা আবৃত্তি, শিশু-কিশোরদের মনোমুগ্ধকর ফ্যাশন শো, আকর্ষণীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং নতুন কমিটির পরিচয় পর্ব। এ ছাড়াও ছিল মিষ্টি ও জুয়েলারির বেচাকেনা।   বাফার সভাপতি মোদাসসের হুসাইনের সভাপতিত্বে এবং প্রকৌশলী হুমায়ুন কবিরের সঞ্চালনায় নতুন আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন সহ-সভাপতি জেসমিন সিদ্দিকা, সাধারণ সম্পাদক রতন হুদা, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রধান, অর্গানাইজে
বাংলাদেশী আমেরিকান কালচারাল এসোসিয়েশন ইনক’র  বর্ষবরণ উৎসব

বাংলাদেশী আমেরিকান কালচারাল এসোসিয়েশন ইনক’র বর্ষবরণ উৎসব

মাহফুজ আদনান ::: বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসব, আনন্দের উৎসব, নতুনের চেতনায় জাগ্রত হওয়ার উৎসব বাংলা বর্ষবরণ উৎসব । বাংলা বর্ষবরণ উৎসবকে ঘিরে বাঙ্গালীদের মনে উন্মাদনার কমতি থাকে না । বাংলা সংস্কৃতি, কৃষ্টি কালচারকে ভিনদেশীদের কাছে তুলে ধরতে প্রতিবছরই বিশ্বের বিভিন্ন প্রবাসী অধ্যুষিত শহরগুলোতে বাঙ্গালীরা তৎপর থাকেন । পান্তা ইলিশসহ নানাআয়োজন আর সাংস্কৃতিক পরিবেশনার আয়োজনকে ঘিরে বাঙ্গালীদের কৌতুহলের শেষ নেই । সারাবছর এদিন বা এই উৎসবকে সামনে রেখে নানান বয়সী শ্রেণি পেশার কমিউনিটি ব্যক্তিত্বরা তাদের নিজেদের সেরাটা তুলে ধরার বা উপস্থাপন করার চেষ্টা করেন । নিউইয়র্কে বাংলাদেশী কমিউনিটির লিডাররা এবারও ব্যতিক্রম করেননি । নগরের বিভিন্ন এলাকায় বাংলা বর্ষবরণকে ঘিরে করেছেন নানান আয়োজন । নগরের ব্রংকসের গোল্ডেন প্যালেসে গত ১৫ এপ্রিল বাংলাদেশী আমেরিকান কালচারাল এসোসিয়েশন ইনক'র বাংলা বর্ষবরণ এবং বৈশাখী মেলা ছ
কনগ্রেসওমেন ইভেট ক্লার্কের সমর্থনে এটর্নী মঈন চৌধুরী

কনগ্রেসওমেন ইভেট ক্লার্কের সমর্থনে এটর্নী মঈন চৌধুরী

নিউইয়র্ক সংবাদদাতা ::: গত ৮ই এপ্রিল ২০১৮ রোজ রবিবার বিকাল ৫:১০ ঘটিকায় জ্যামাইকা লিন্ডেন ব্লুবার্ডে একটি কমিউনিটি হলে কংগ্রেস ওমেন এভেট ক্লার্ক এর সমর্থনে নির্বাচনী প্রচারণা অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ষ্টেট সিনেটর লিয়র কসরি, এসেম্বলিওমেন আলিসিয়া হাইমেন, ডেমোক্রেটিক ডিস্ট্রিক্ট লিডার এট লার্জ এটর্নী মঈন চৌধুরী সহ ডেমোক্রেটিক ডিস্ট্রিক্ট লিডারগন। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এটর্নী মঈন চৌধুরী বলেন, এভেট ক্লার্ক আমার অনেক দিনের পরিচিত বন্ধু। তিনি দীর্ঘ দিন যাবৎ কমিউনিটির জন্য এবং কমিউনিটির সাথে কাজ করে আসছেন। তিনি ২০০২ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিল ওমেন হিসোবে সাফল্যের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৭ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত কংগ্রেস ওমেন হিসাবে ডিস্ট্রিক্ট-১১ এর দায়িত্ব পালন করেছেন এবং পরবর্তীতে ২০১৩ সাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত ডিস্ট্রিক্ট
নিউ ইয়র্কে প্রবাসীদের বৈশাখী মেলা

নিউ ইয়র্কে প্রবাসীদের বৈশাখী মেলা

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশিরা বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিয়েছে নানা আয়োজনে।   শনিবার নিউ ইয়র্কে ‘জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশি বিজনেস অ্যাসোসিয়েশন’ এ বৈশাখী মেলার আয়োজন করে।   এ সময় প্রবাসী বাংলাদেশিরা ‘আনন্দধ্বনি’ সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত সমবেত কণ্ঠে ‘এসো হে বৈশাখ’ সঙ্গীতে অংশ নেন।   এর রেশ থাকতেই পান্তা-ইলিশের আমেজে ‘জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস এসোসিয়েশন’ তথা জেবিবিএর বৈশাখ বরণের অনুষ্ঠানে বাঙালিদের ঢল নামে।   এ উপলক্ষে গঠিত মেলা কমিটির আহ্বায়ক রাশেদ আহমেদ, সদস্য সচিব ফাহাদ সোলায়মান, যুগ্ম সদস্য-সচিব সাজ্জাদ হোসাইন, প্রধান সমন্বয়কারী জে মোল্লাহ সানি, জেবিবিএ’র আহ্বায়ক কমিটির নেতা মহসিন ননী, এম রহমান, মো.পিয়ার, কাজী মন্টু ও মো. মহসিন মিয়া শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন।       জেবিবিএ’র পরিচালনা পরিষদের নেতা আবুল ফজল দি
নিউ ইয়র্কে প্রবাসী নারী উদ্যোক্তাদের বৈশাখ উদযাপন

নিউ ইয়র্কে প্রবাসী নারী উদ্যোক্তাদের বৈশাখ উদযাপন

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে বৈশাখী অনুষ্ঠান করেছে বাংলাদেশি নারী উদ্যোক্তাদের ফেসবুকভিত্তিক সংগঠন ‘বেঙ্গলি গার্লস লাইফস্টাইল ইন অ্যাব্রোড’ ।   স্থানীয় সময় শনিবার নিউ ইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে পালকি পার্টি সেন্টারে এতে নানা সাংস্কৃতিক আয়োজনে উপস্থাপনা করেন ফারজানা ববি ও সালমা চৌধুরী।   অনুষ্ঠান আয়োজনে ছিলেন অনলাইন শপ ‘আলিবাস’ এর প্রতিষ্ঠাতা নাহিদ সাবিহা খানম, ফারজানা ববি, ফটোগ্রাফার মোহাম্মদ এফ. আমির, জিনিস আর্ট এর প্রতিষ্ঠাতা ইসরাত নূর, লুবনা’স কেক পার্লারের প্রতিষ্ঠাতা লুবনা মাজেদা সায়ীদ, গ্ল্যামফেইস, মেকআপ বাই হেনা’র মেকআপ আর্টিস্ট হেনা মুয়া, সবুজপাতার প্রতিষ্ঠাতা মনিরা সুলতানা মুনিয়া, এটোমি’র যুক্তরাষ্ট্র গ্রাহক ফারজানা ববি ও সুরছন্দ সাংস্কৃতিক সংগঠনের মালিক এমদাদুল হক।   বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। এরপর একে একে
নিউ ইয়র্ক সিটি মেয়র পদে মেলিন্ডার পক্ষে সমাবেশ

নিউ ইয়র্ক সিটি মেয়র পদে মেলিন্ডার পক্ষে সমাবেশ

যুক্তরাষ্ট্রে ডেমোক্র্যাটিক পার্টি থেকে নিউ ইয়র্কের মেয়র পদপ্রার্থী মেলিন্ডা ক্যাটজকে নিয়ে সমাবেশ করেছে প্রবাসী বাংলাদেশিরা।   সোমবার জ্যামাইকার ইকরা কমিউনিটি সেন্টারে ‘বাংলাদেশি-আমেরিকান কমিউনিটি ফর মেলিন্ডা ক্যাটজ’ ব্যানারে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।   সমাবেশে কুইন্স বরোর প্রেসিডেন্ট ও নিউ ইয়র্কের মেয়র পদপ্রার্থী মেলিন্ডা ক্যাটজ বলেন, “অতীতের মতো সামনের দিনগুলোতেও আমি সব সময় আপনাদের পাশে থাকবো। আমি আরও সামনে যেতে চাই একজন বাঙালি-বোন হিসেবে। কারণ, এই কুইন্স সমৃদ্ধি পাচ্ছে আপনাদের মতো নিষ্ঠাবান মানুষদের কায়িক শ্রমে।”   অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের সাবেক সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান ও আইনজীবী মোহাম্মদ এন মজুমদার।   এসময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন মোর্শেদ আলম, সালেহ আহমেদ, শরাফ সরকার, বাংলাদেশ সোসাইটির কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী, এবিএম ওসমান গনি, শাহ
নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশ ডে ও পিঠা উৎসব

নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশ ডে ও পিঠা উৎসব

প্রতি বছরের ন্যায় এবারো নিউ ইয়র্কের রাজধানী আলবেনিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশ ডে ও নবান্নের পিঠা উৎসব। অর্গানাইজেশন অব বাংলাদেশি আমেরিকান কমিউনিটি (অবাক) আয়োজিত আলবেনির একটি চার্চের মিলনায়তনে রোববার বিকেল থেকে শুরু হওয়া এ পিঠা উৎসবে পার্শ্ববর্তী বেশ কয়েকটি শহরের প্রচুর সংখ্যক প্রবাসী নারী পুরুষের সমাগম ঘটে।       নবান্নের এ পিঠা উৎসবে স্থানীয় প্রবাসী বাংলাদেশি নারীরা প্রতিযোগিতার জন্য নিজ নিজ বাসা থেকে হরেক রকমের বাহারি পিঠা তৈরি করে প্রদর্শন করেন। পরে নির্ধারিত একটি কমিটির মাধ্যমে যাচাইয়ের পর সেরা পিঠা তৈরির জন্য তিনটি পুরস্কার প্রদান করা হয়।           এছাড়া পিঠা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনকারীরা হলেন-ফারহানা আক্তার, সাহেরা বেগম, আফরোজা বেগম, সাহেবা বেগম, তাসলিমা সুলতানা, ফাতেমা আক্তার, শামিম আরা নাসরিন, তানিয়া আহমেদ, ফৌজিয়া
শিব্বীর আহমেদ’র কবিতা ”বঙ্গবন্ধুর বজ্রকন্ঠ” নিয়ে খুব শিঘ্রই প্রকাশিত হচ্ছে গান ”বজ্রকন্ঠে স্বাধীনতা”

শিব্বীর আহমেদ’র কবিতা ”বঙ্গবন্ধুর বজ্রকন্ঠ” নিয়ে খুব শিঘ্রই প্রকাশিত হচ্ছে গান ”বজ্রকন্ঠে স্বাধীনতা”

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীকে সামনে রেখে লেখক সাংবাদিক শিব্বীর আহমেদের কবিতা ”বঙ্গবন্ধুর বজ্রকন্ঠ” অবলম্বনে খুব শিঘ্রই প্রকাশিত হচ্ছে গান ”বজ্রকন্ঠে স্বাধীনতা”। ১৯৭১ সালের উত্তাল রাজনৈতিক পটভুমী বঙ্গবন্ধুর সাত মার্চের ভাষন পঁচিশে মার্চের কালো রাত বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষনা পাকিস্তানী সামরিক বাহিনি কর্তৃক বঙ্গবন্ধু গ্রেফতার বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং এক সাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বিজয়ের পটভূমী নিয়ে রচিত একটি দেশপ্রেমমুলক জাগরনের গান ”বজ্রকন্ঠে স্বাধীনতা”। গানটি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি উৎসর্গ করা হয়েছে। ”বজ্রকন্ঠে স্বাধীনতা” গানটির অডিও রেকর্ডিং ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। গানটির সুর করেছেন জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত সুরকার ও শিল্পী শফিক তুহিন। গানটিতে তিনি কন্ঠও দিয়েছেন। এছাড়া
নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট ও অ্যাসেম্বলি হাউসে ‘বাংলাদেশ ডে’ উদযাপন

নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট ও অ্যাসেম্বলি হাউসে ‘বাংলাদেশ ডে’ উদযাপন

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট ও এ্যাসেম্বলী হাউসে আন্তর্জাতিক আবহে ‘বাংলাদেশ ডে’ উদযাপিত হয়েছে। স্থানীয় সময় ২৭ মার্চ মঙ্গলবার সপ্তমবারের মতো নিউইয়র্ক স্টেটের রাজধানী আলবেনীতে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপিত হল “বাংলাদেশ ডে” হিসেবে। আলবেনীর ক্যাপিটাল হিলে এদিন আবারো উড়লো বাংলাদেশের পতাকা। নিউইয়র্ক অ্যাসেম্বলি ও স্টেট সিনেটে বাংলাদেশের ৪৭ তম স্বাধীনতা দিবসের ওপর পৃথকভাবে রেজুলেশন গ্রহণ করা হয়। স্টেট অ্যাসেম্বলিম্যান লুইস সেপুলভেদা ও স্টেট সিনেটর জামাল টি. বেইলী স্টেট অ্যাসেম্বলি ও সিনেট হাউজে এসংক্রান্ত প্রস্তাবনা উত্থাপন করেন। স্টেট সিনেট ও এসেম্বলী অধিবেশনের রেজুলেশন দু’টিতে তুলে ধরা হয় বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস। সিনেট এবং এসেম্বলি গ্যালারি এদিন পুরোটাই সংরক্ষিত ছিল শুধু বাংলাদেশীদের জন্য। উভয় হাউজে শোভা পেল বাংলাদেশের পতাকা। বর্ণাঢ্য এ আয়োজনে অংশগ্রহণ করেন ১