পরিবেশ-প্রকৃতি

সাংবাদিকদের অবাধ. স্বাধীনতা রয়েছে : গওহর রিজভী

সাংবাদিকদের অবাধ. স্বাধীনতা রয়েছে : গওহর রিজভী

দেশে গণমাধ্যমের অবাধ স্বাধীনতা রয়েছে। সরকার তাতে কখনও হস্তক্ষেপ করে না। কিছু ব্যক্তি বিশেষ তাদের নিজেদের স্বার্থে নানাভাবে সাংবাদিকদের উপর চাপ সৃষ্টি করেন। এসব বিচ্ছিন্ন ঘটনা গণমাধ্যমের স্বাধীনতার উপর আঘাত হানছে।   আজ বৃহস্পতিবার ট্রান্সপাারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) আয়োজিত ১৯তম দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বিষয়ক সংলাপ ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০১৭’ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড.গওহর রিজভী।   গওহর রিজভী বলেন, দারিদ্র্য নিরসন করতে হলে দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে। অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা সমাজের অনিয়ম-দুর্নীতি চিহ্নিত করতে সহায়তা করে থাকে।       অনুষ্ঠানে টিআইবির পক্ষ থেকে প্রিন্ট মিডিয়া, ইলেকট্রনিক মিডিয়া ও ইলেট্রনিক মিডিয়ার ক্যামারাম্যান সহ মোট ৯ জনকে ক্রেস্ট, সার্টিফিক
কানাইঘাটের আজিজুল হক চৌধুরী (বুম্বাই হাজী) আর নেই

কানাইঘাটের আজিজুল হক চৌধুরী (বুম্বাই হাজী) আর নেই

সিলেট  ডেস্ক :কানাইঘাটের আলহাজ্ব আজিজুল হক চৌধুরী ( বুম্বাই হাজী) আর নেই(ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)। রবিবার ৩:৪৫ মিনিটের সময় সিলেট নগরীর নুরজাহান হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৯৩ বছর। আজিজুল হক চৌধুরী কানাইঘাট উপজেলার ঝিংগাবাডী্ গ্রামে (চরিগ্রামে) এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। ছাত্রজীবন থেকে তিনি অত্যন্ত মেধাবী ও সৎচরিত্রের অধিকারী ছিলেন। লেখাপড়া শেষ করার পর তিনি হরিপুর উচ্চবিদ্যালয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন। সেখানে তার যোগ্যতা, দুরদর্শীতা ও বিচক্ষনতায় মুগ্ধ হয়ে হেমুর খাঁন সাহেব মরহুমের চাচা উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেমদ্বীন ঝিংগাবাডি্ মাদ্রাসার সাবেক সুপারইনটেনডেন্ট মরহুম হাফিজ মাওলানা আব্দুল আযিয চৌধুরীর কাছে প্রস্তাব করেন যে, তিনি মাষ্টার সাহেব কে তার ব্যবসা পরিচালনার জন্য বুম্বাই নিতে চান। খান সাহেবের প্রস্তাবে সম্মত হয়ে তিনি বুম্বাই চলে যান। তখন থেকে তিনি বুম

বায়ুমন্ডলে বাড়ছে মিথেন গ্যাস, উদ্বিগ্ন বিজ্ঞানীরা

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :বায়ুমণ্ডলে মিথেন গ্যাসের পরিমাণ যে হারে বাড়ছে তাতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা।   বাতাসে কার্বন ডাইঅক্সাইডের তুলনায় মিথেন গ্যাস পরিমাণে কম থাকলেও গ্রিনহাউজ গ্যাসের ক্ষতিকর প্রভাবের ক্ষেত্রে মিথেনের ভূমিকা অনেক বেশি।   এ বিষয়ে বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, বায়ুমণ্ডলে মিথেন গ্যাস বৃদ্ধির হার কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে জলবায়ু পরিবর্তন রোধে নেওয়া সব চেষ্টাই ক্ষুন্ন হবে।   যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকোতে আমেরিকান জিওগ্রাফিক্যাল ইউনিয়নের (এজিইউ) এবারের বৈঠকে মিথেন গ্যাস নিয়ে গুরুত্বের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।   স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির রবার্ট জ্যাকসন বলেন, “জলবায়ু পরিবর্তন রোধে এখনও কার্বন ডাইঅক্সাইড নির্গমন কমিয়ে আনাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু আমরা যদি মিথেন গ্যাসের উপস্থিতি বেড়ে যাওয
‘নীরব বিলুপ্তির পথে’ জিরাফ

‘নীরব বিলুপ্তির পথে’ জিরাফ

তিন দশকের মধ্যে জিরাফের সংখ্যা ৩০ শতাংশ কমে যাওয়ায় স্তন্যপায়ী এ প্রাণী ‘নীরব বিলুপ্তির পথে’ এগিয়ে যাচ্ছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা।   এরই মধ্যে আন্তর্জাতিক পরিবেশ সংরক্ষণ বিষয়ক সংস্থা- আইইউসিএন লম্বা গলার জিরাফকে ‘বিলুপ্তির ঝুকিতে’ থাকা প্রাণীর তালিকায় এনেছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।   আইইউসিএন এর তথ্য অনুযায়ী, ১৯৮৫ সালে সারা বিশ্বে জিরাফের সংখ্যা ছিল এক লাখ ৫৫ হাজারের মত, ২০১৫ সালে তা ৯৭ হাজারে নেমে এসেছে।   গেল ৩০ বছরে স্থলে থাকা সবচেয়ে লম্বা এ প্রাণীর সংখ্যা প্রায় এক তৃতীয়াংশ কমে যাওয়ার পেছনে খাদ্যভ্যাস ও বাস্তুভূমি পরিবর্তন, চোরা শিকারিদের হামলা এবং আফ্রিকার দেশে দেশে নাগরিক অসন্তোষ ও যুদ্ধ-বিগ্রহকে দায়ী করা হচ্ছে।   তবে মহাদেশটির কিছু কিছু জায়গা বিশেষ করে দক্ষিণাঞ্চলে কয়েক প্রজাতির জিরাফের সংখ্যা খানিকটা

মেঘের ওপরে সবুজ দেশে

পাহাড় আমার চিরকালীন মুগ্ধতা। হয়ত সমতলভূমির মানুষ বলেই আগ্রহটা বেশি।   চীনে প্রায় সব শহরেই ছোট-বড় পাহাড় কিংবা পর্বত আছে। আমাদের লুঝৌ জীবনে পথ চলতে কখনো দূর দিগন্তের দিকে চোখ পড়লে পাহাড়ের দেখা মিলত মাঝে মাঝেই।   সাদা মেঘ ভেসে যাওয়া নীল আকাশের পটভূমিতে মাথা উঁচু করে সারি সারি দাঁড়িয়ে থাকা পাহাড়গুলো নিজেদের বিশালতার জানান দিয়ে আমাদের ডাকত।   কিন্তু ব্যস্ত কর্মজীবনে সময় বের করা খুব সহজ নয়। বিশেষ করে পরবাসে, যেখানে সময়ের হিসেবে ঘাম বিক্রি করে পেট চালাতে হয়।   কোন এক গরমের ছুটির প্রাক্কালে আমার বন্ধু লিউ প্রস্তাব করল, কোথাও ঘুরতে যাব নাকি?   আমার ইচ্ছে ছিল এমেই পর্বত। চীনের অন্যতম বিখ্যাত পর্বত 'এমেই শান' (চীনা ভাষায় 'শান' মানে পর্বত, আর 'এমেই' কে কেউ উচ্চারণ করেন 'অমেই' বা কেউ 'আমেই')।   সিচুয়ান প্রদেশের মধ্যবর্ত
নেত্রকোনায় পাখি শিকারের মহোৎসব!

নেত্রকোনায় পাখি শিকারের মহোৎসব!

নেত্রকোনা: নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও নেত্রকোনায় প্রকাশ্যে শিকার ও বিক্রি হচ্ছে দেশী-বিদেশি বিভিন্ন প্রজাতির পাখি।   প্রতি শুক্র ও সোমবার নেত্রকোনার পুর্বধলা, কলমাকান্দা, ধোবাউড়া ও ময়মনসিংহের গৌরীপুর, ফুলপুর, হালুয়াঘাট থেকে শতাধিক শিকারি এবস পাখি নিয়ে হাজির হন ওই হাটে। বর্ষা, শরৎ, হেমন্ত আর শীতে জমে উঠে পাখির বাজার।   সোমবার ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার সেই শ্যামগঞ্জ বাজারে সাংবাদিক যেতেই অধিকাংশ পাখি ব্যবসায়ী ও শিকারি মুহূর্তের মধ্যে সটকে পড়েন।   সরজমিনে গিয়ে  দেখা যায়, দেশীয় বিভিন্ন প্রজাতির পাখি বিক্রি করতে এসেছেন পাখি শিকারিরা। এরমধ্যে প্রতি জোড়া ঘুঘু পাখি ১৪০ টাকা, ওয়াডা পাখি ১২০টাকা, বিভিন্ন প্রজাতির বক জোড়া ১৬০ টাকা, কাইম ছোট পাখি আটশ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও ছোট আকৃতির বিভিন্ন পাখি বিক্রি হচ্ছে জোড়া ১০০ টাকা দরে।   শিকারিদে
বিপন্নর তালিকায় ৭ প্রজাতির মৌমাছি

বিপন্নর তালিকায় ৭ প্রজাতির মৌমাছি

প্রাকৃতিক নানা পরিবর্তনে বিপন্ন মৌমাছিদের কয়েকটি প্রজাতি।  আমেরিকার হাওয়াই দ্বীপের সাত ধরনের মৌমাছিকে বিপন্ন প্রজাতির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।   হাওয়াইয়ের বিপন্ন মৌমাছির মুখের সামনের অংশ হলদে রঙের। দেখলে মনে হবে, তারা হলুদ মুখোশ পরে রয়েছে। এমন সাতটি প্রজাতির মৌমাছি মূলত দেখা যায় হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জে। দু’দশক ধরেই দ্বীপে মৌমাছিদের সংখ্যা ক্রমশ কমছে। কিন্ত্ত, এই সাতটি প্রজাতির ক্ষেত্রে বিপদ ঘণ্টা বেজে গেছে।   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বন্যপ্রাণী কর্তৃপক্ষ এই মৌমাছিদের বিপন্ন প্রজাতির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব দেয়। পরিবেশ রক্ষার কাজে যুক্ত এক্সারসেজ সোসাইটি নামে একটি সংস্থা হাওয়াইয়ের মৌমাছির উপর দীর্ঘদিন গবেষণা চালাচ্ছে। এই সংস্থার ডিরেক্টর সারিনা জেপসন জানান, মৌমাছি পরাগসংযোগের কাজ করে। পরিবেশে ভারসাম্য বজায় রাখে। পৃথিবীর অন্যত্র এই সাত প্রজাতির মৌ
বিপন্নর তালিকায় ৭ প্রজাতির মৌমাছি

বিপন্নর তালিকায় ৭ প্রজাতির মৌমাছি

থেমে যাবে কি মৌমাছির গুনগুন? প্রাকৃতিক নানা পরিবর্তনে বিপন্ন মৌমাছিদের কয়েকটি প্রজাতি।  আমেরিকার হাওয়াই দ্বীপের সাত ধরনের মৌমাছিকে বিপন্ন প্রজাতির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।   হাওয়াইয়ের বিপন্ন মৌমাছির মুখের সামনের অংশ হলদে রঙের। দেখলে মনে হবে, তারা হলুদ মুখোশ পরে রয়েছে। এমন সাতটি প্রজাতির মৌমাছি মূলত দেখা যায় হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জে। দু’দশক ধরেই দ্বীপে মৌমাছিদের সংখ্যা ক্রমশ কমছে। কিন্ত্ত, এই সাতটি প্রজাতির ক্ষেত্রে বিপদ ঘণ্টা বেজে গেছে।   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বন্যপ্রাণী কর্তৃপক্ষ এই মৌমাছিদের বিপন্ন প্রজাতির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব দেয়। পরিবেশ রক্ষার কাজে যুক্ত এক্সারসেজ সোসাইটি নামে একটি সংস্থা হাওয়াইয়ের মৌমাছির উপর দীর্ঘদিন গবেষণা চালাচ্ছে। এই সংস্থার ডিরেক্টর সারিনা জেপসন জানান, মৌমাছি পরাগসংযোগের কাজ করে। পরিবেশে ভারসাম্য বজায় রাখে। পৃথিব
কমলগঞ্জের লাউয়াছড়ার গাছ কাটার সিদ্ধান্ত স্থগিত

কমলগঞ্জের লাউয়াছড়ার গাছ কাটার সিদ্ধান্ত স্থগিত

কমলগঞ্জ(মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ভেতরে রেলপথের দু’পাশের গাছ কাটার সিদ্ধান্ত রেলওয়ের আন্ত: মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে স্থগিত করা হয়েছে। জাতীয় উদ্যানে রেল পথের দু’পাশে ঝুঁকিপূর্ণ গাছের বাস্তবতা দেখে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। গাছ পড়ে ট্রেন চলাচল ঝুঁকির বিষয়ে রেলপথের দু’পাশের গাছ কেটে ফেলার রেলওয়ের দাবিযুক্ত পত্র চালাচালিতে পরিবেশ বাদীরা প্রতিবাদ মুখর হয়ে উঠেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে গত ১৮ আগষ্ট বৃহস্পতিবার ঢাকায় রেলওয়ের আন্ত: মন্ত্রণালয়ে রেলওয়ের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান, কমলগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক এবং বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মিহির কুমার দে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে বিষয়
লাউয়াছড়ার পরিবেশ ও প্রাণীদের নিরব কান্না

লাউয়াছড়ার পরিবেশ ও প্রাণীদের নিরব কান্না

  নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘বন্যপ্রাণী ও পরিবেশ, বাঁচায় প্রকৃতি বাঁচায় দেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে এ বছর পালিত হচ্ছে বিশ্ব পরিবেশ দিবস। এই প্রতিপাদ্যের সাথে বাস্তবতা অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। কিন্তু যদি বন্যপ্রাণী বিলুপ্ত আর প্রকৃতি বিপর্যস্ত হয়ে উঠে তাহলে প্রকৃতি আর দেশ কোনটিই বাঁচবে না। ঠিক এমনই অবস্থা ধারণ করছে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে। এখানকার প্রাকৃতিক পরিবেশের বিপন্ন দশা আর বন্যপ্রাণীর জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। অত্যাচারে অত্যাচারে বিবস্ত্র হচ্ছে জাতীয় উদ্যান। বাংলাদেশের ঘন প্রাকৃতিক বনের এক টুকরো বন হচ্ছে লাউয়াছড়া। একটি মিশ্র চিরহরিৎ বন হিসাবে পরিচিত লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান। এই উদ্যানে রয়েছে মাগুরছড়া গ্যাসকূপ। ১৯৯৭ সালে অক্সিডেন্টালের গ্যাসকূপ দুর্ঘটনা ছাড়াও রেল ও সড়কপতে যানবাহনের চাকায় ও বিদ্যুৎ লাইনে পড়ে পিষ্ট হচ্ছে প্রাণিকুল। এরই মধ্যে উদ্যানের গাছ পাচার, চাষাবাদ, মাত্রাতিরিক্ত প