পরিবেশ-প্রকৃতি

জাতীয় পরিবেশ ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা নিন

কামরুল ইসলাম চৌধুরী :: জাতিসংঘ মহাসচিব কফি আনান দেড় দশক আগে ঢাকায় এসে বাংলাদেশের পরিবেশ বিপর্যয় নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন। কফি আনানের সেই হুঁশিয়ারির সঙ্গে বিজ্ঞানীরা একমত যে, বাংলাদেশ মারাত্মক পরিবেশ বিপর্যয়ের কবলে। আবহাওয়া পরিবর্তনের নির্মম শিকার হচ্ছে বাংলাদেশ। ভবিষ্যতে বিপর্যয় আরও ঘনীভূত হবে। সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা মাত্র এক মিটার বাড়লেই দেশের সাড়ে ১৭ শতাংশ ভূমি সাগরতলে হারিয়ে যাবে চিরতরে। কয়েক কোটি লোক পরিবেশ আর জলবায়ু শরণার্থী হবে। বিশ্বের সবচেয়ে যে বড় ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট সুন্দরবন, তা সাগরকোলে তলিয়ে যাবে। বাংলাদেশের কৃষি, জীববৈচিত্র্য বিপন্ন হবে। মোট কথা হলো, বাংলাদেশের পরিবেশ সমস্যা আর সংকট এখন আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে এক আলোচিত বিষয়। আমাদের আর্সেনিক সমস্যা, ঢাকা মহানগরীর বায়ুদূষণের সংকট বিশ্ব পরিবেশ নিয়ে যারা মাথা ঘামান, তাদের উৎকণ্ঠিত করে তোলে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি, এ দেশের পরি
আজকে রাতটি হতে যাচ্ছে বছরের দীর্ঘতম রাত, আগামীকাল ক্ষুদ্রতম দিন!

আজকে রাতটি হতে যাচ্ছে বছরের দীর্ঘতম রাত, আগামীকাল ক্ষুদ্রতম দিন!

২১ ডিসেম্বর সূর্য মকরক্রান্তি রেখার ওপর অবস্থান করায় এবং উত্তর মেরু সূর্য থেকে কিছুটা দূরে হেলে থাকায় উত্তর গোলার্ধে দীর্ঘতম রাত্রি ও ক্ষুদ্রতম দিন হয়ে থাকে এবং দক্ষিণ গোলার্ধে এর বিপরীত অবস্থা দেখা যায়। আজ শুক্রবারের রাতটি হতে যাচ্ছে বছরের দীর্ঘতম রাত। অন্যদিকে আগামীকাল শনিবার দিনটি হবে ক্ষুদ্রতম। এটি অবশ্য উত্তর গোলার্ধের দেশগুলোতে ঘটবে। তবে বিপরীত অবস্থা থাকবে দক্ষিণ গোলার্ধে। সেখানে একই সময় হবে দীর্ঘতম দিন ও হ্রস্বতম রাত। রাতটা দীর্ঘতম হলেও সঙ্গে থাকবে চাঁদ। সারারাতই চাঁদের আলো পৃথিবীকে সঙ্গ দেবে। দীর্ঘ রাত হওয়ায় কুয়াশা গাছের পাতায় ফোঁটা ফোঁটা পানি জমিয়ে ফেলে। গ্রামবাংলায় প্যাঁচার নানা ধরনের ডাকের সঙ্গে পাতাঝরা পানির টুপ টুপ শব্দ মোহময় করে তুলে। দীর্ঘতম রাত অথবা হ্রস্বতম দিনকে এভাবে ব্যাখ্যা করা যেতে পারে-২১ জুন তারিখে উত্তর গোলার্ধে আমরা পাই দীর্ঘতম দ
শীতের আগমনে লাকসাম-মনোহরগঞ্জের ধনুকার সম্প্রদায়ের এখন সুদিন

শীতের আগমনে লাকসাম-মনোহরগঞ্জের ধনুকার সম্প্রদায়ের এখন সুদিন

শীত মৌসুম আসছে। শীতল বাতাসের সাথে রাতে হালকা শীতের পরশ শুরু। শীত মৌসুমের আগমনে লাকসাম-মনোহরগঞ্জ উপজেলার ধনুকার সম্প্রদায় ব্যবসায়ীদের এখন সুদিন। ধনুকার সম্প্রদায় লেপ তোষক তৈরীর কাজে এখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে। লেপ তোষক দোকানের মালিক ও শ্রমিকদের খাওয়া ধাওয়ার কোন সময় নেই। সেলাইয়ের কাজে তুলোধনুতে ব্য¯ত মালিক শ্রমিকগন। শীত মৌসুমের আগমনে ক্রেতারা লেপ তোষকের দোকান গুলোতে আগে থেকে পছন্দমত লেপ তোষক তৈরীর অর্ডার দিয়ে বায়না করছেন। ধনুকার সম্প্রদায় ব্যবসায়ীরা এবার ভালো মুনাফার জন্য বেশী বিক্রি করার আশায় দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। গত কিছু দিন ধরে শীতল বাতাসের সাথে রাতে একটু একটু শীতের হাওয়া পড়ায় ধনুকার সম্প্রদায়ের এখন ঘুম নেই। শীতের আগমন কন কনে ঠান্ডা শীত পড়ায় এখন গভীর রাতে কাঁথা কম্বল নিয়ে ঘুমাতে হয়। কন কনে ঠান্ডা শীত ঠেকাতে লেপ তোষক কাঁথা কম্বল হলো মানুষের ভরসা। জানা যায় লাকসাম বাজার, রেলওয়ে জংশনস

বদলে যাচ্ছে পান্থকুঞ্জ

পার্কের হাঁটাপথের আশপাশে জমে থাকা বর্জ্যের স্তূপ উধাও। ভেতর ও চারপাশের ফুটপাতে গড়ে ওঠা ভাসমান মানুষের বসতি কিংবা অবৈধ স্থাপনাগুলো নেই। রীতিমতো জঙ্গলে রূপ নেওয়া ঝোপগুলো পরিষ্কার। বসার বেঞ্চ ও ছাউনিগুলো ঝকঝকে। সেখানে বিশ্রাম নিচ্ছেন পথচলতি মানুষ। এই চিত্র কারওয়ান বাজারের পান্থকুঞ্জ পার্কের। কিছুদিন আগেও ত্রিভুজাকৃতির পার্কটি ছিল ছিনতাই ও মাদক সেবনসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের আখড়া। এখন সেখানে বেড়ানোর পরিবেশ ফিরছে। ‘জল সবুজে ঢাকা’ প্রকল্পের আওতায় পার্কটি ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) কর্তৃপক্ষ। এই প্রকল্পের আওতায় ডিএসসিসির আরও ৩০টি পার্ক ও খেলার মাঠ উন্নয়নের কাজ চলছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএসসিসির অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, নতুন নকশা অনুসারে পার্কটিতে সীমানাদেয়াল থাকবে না। এখানে স্থাপন করা হবে একটি উন্মুক্ত ক্যাফেটেরিয়া ও গ্রন
সাংবাদিকদের অবাধ. স্বাধীনতা রয়েছে : গওহর রিজভী

সাংবাদিকদের অবাধ. স্বাধীনতা রয়েছে : গওহর রিজভী

দেশে গণমাধ্যমের অবাধ স্বাধীনতা রয়েছে। সরকার তাতে কখনও হস্তক্ষেপ করে না। কিছু ব্যক্তি বিশেষ তাদের নিজেদের স্বার্থে নানাভাবে সাংবাদিকদের উপর চাপ সৃষ্টি করেন। এসব বিচ্ছিন্ন ঘটনা গণমাধ্যমের স্বাধীনতার উপর আঘাত হানছে।   আজ বৃহস্পতিবার ট্রান্সপাারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) আয়োজিত ১৯তম দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বিষয়ক সংলাপ ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০১৭’ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড.গওহর রিজভী।   গওহর রিজভী বলেন, দারিদ্র্য নিরসন করতে হলে দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে। অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা সমাজের অনিয়ম-দুর্নীতি চিহ্নিত করতে সহায়তা করে থাকে।       অনুষ্ঠানে টিআইবির পক্ষ থেকে প্রিন্ট মিডিয়া, ইলেকট্রনিক মিডিয়া ও ইলেট্রনিক মিডিয়ার ক্যামারাম্যান সহ মোট ৯ জনকে ক্রেস্ট, সার্টিফিক
কানাইঘাটের আজিজুল হক চৌধুরী (বুম্বাই হাজী) আর নেই

কানাইঘাটের আজিজুল হক চৌধুরী (বুম্বাই হাজী) আর নেই

সিলেট  ডেস্ক :কানাইঘাটের আলহাজ্ব আজিজুল হক চৌধুরী ( বুম্বাই হাজী) আর নেই(ইন্না লিল্লাহি...রাজিউন)। রবিবার ৩:৪৫ মিনিটের সময় সিলেট নগরীর নুরজাহান হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৯৩ বছর। আজিজুল হক চৌধুরী কানাইঘাট উপজেলার ঝিংগাবাডী্ গ্রামে (চরিগ্রামে) এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। ছাত্রজীবন থেকে তিনি অত্যন্ত মেধাবী ও সৎচরিত্রের অধিকারী ছিলেন। লেখাপড়া শেষ করার পর তিনি হরিপুর উচ্চবিদ্যালয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন। সেখানে তার যোগ্যতা, দুরদর্শীতা ও বিচক্ষনতায় মুগ্ধ হয়ে হেমুর খাঁন সাহেব মরহুমের চাচা উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেমদ্বীন ঝিংগাবাডি্ মাদ্রাসার সাবেক সুপারইনটেনডেন্ট মরহুম হাফিজ মাওলানা আব্দুল আযিয চৌধুরীর কাছে প্রস্তাব করেন যে, তিনি মাষ্টার সাহেব কে তার ব্যবসা পরিচালনার জন্য বুম্বাই নিতে চান। খান সাহেবের প্রস্তাবে সম্মত হয়ে তিনি বুম্বাই চলে যান। তখন থেকে তিনি বুম

বায়ুমন্ডলে বাড়ছে মিথেন গ্যাস, উদ্বিগ্ন বিজ্ঞানীরা

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :বায়ুমণ্ডলে মিথেন গ্যাসের পরিমাণ যে হারে বাড়ছে তাতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা।   বাতাসে কার্বন ডাইঅক্সাইডের তুলনায় মিথেন গ্যাস পরিমাণে কম থাকলেও গ্রিনহাউজ গ্যাসের ক্ষতিকর প্রভাবের ক্ষেত্রে মিথেনের ভূমিকা অনেক বেশি।   এ বিষয়ে বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, বায়ুমণ্ডলে মিথেন গ্যাস বৃদ্ধির হার কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে জলবায়ু পরিবর্তন রোধে নেওয়া সব চেষ্টাই ক্ষুন্ন হবে।   যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকোতে আমেরিকান জিওগ্রাফিক্যাল ইউনিয়নের (এজিইউ) এবারের বৈঠকে মিথেন গ্যাস নিয়ে গুরুত্বের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।   স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির রবার্ট জ্যাকসন বলেন, “জলবায়ু পরিবর্তন রোধে এখনও কার্বন ডাইঅক্সাইড নির্গমন কমিয়ে আনাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু আমরা যদি মিথেন গ্যাসের উপস্থিতি বেড়ে যাওয
‘নীরব বিলুপ্তির পথে’ জিরাফ

‘নীরব বিলুপ্তির পথে’ জিরাফ

তিন দশকের মধ্যে জিরাফের সংখ্যা ৩০ শতাংশ কমে যাওয়ায় স্তন্যপায়ী এ প্রাণী ‘নীরব বিলুপ্তির পথে’ এগিয়ে যাচ্ছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা।   এরই মধ্যে আন্তর্জাতিক পরিবেশ সংরক্ষণ বিষয়ক সংস্থা- আইইউসিএন লম্বা গলার জিরাফকে ‘বিলুপ্তির ঝুকিতে’ থাকা প্রাণীর তালিকায় এনেছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।   আইইউসিএন এর তথ্য অনুযায়ী, ১৯৮৫ সালে সারা বিশ্বে জিরাফের সংখ্যা ছিল এক লাখ ৫৫ হাজারের মত, ২০১৫ সালে তা ৯৭ হাজারে নেমে এসেছে।   গেল ৩০ বছরে স্থলে থাকা সবচেয়ে লম্বা এ প্রাণীর সংখ্যা প্রায় এক তৃতীয়াংশ কমে যাওয়ার পেছনে খাদ্যভ্যাস ও বাস্তুভূমি পরিবর্তন, চোরা শিকারিদের হামলা এবং আফ্রিকার দেশে দেশে নাগরিক অসন্তোষ ও যুদ্ধ-বিগ্রহকে দায়ী করা হচ্ছে।   তবে মহাদেশটির কিছু কিছু জায়গা বিশেষ করে দক্ষিণাঞ্চলে কয়েক প্রজাতির জিরাফের সংখ্যা খানিকটা

মেঘের ওপরে সবুজ দেশে

পাহাড় আমার চিরকালীন মুগ্ধতা। হয়ত সমতলভূমির মানুষ বলেই আগ্রহটা বেশি।   চীনে প্রায় সব শহরেই ছোট-বড় পাহাড় কিংবা পর্বত আছে। আমাদের লুঝৌ জীবনে পথ চলতে কখনো দূর দিগন্তের দিকে চোখ পড়লে পাহাড়ের দেখা মিলত মাঝে মাঝেই।   সাদা মেঘ ভেসে যাওয়া নীল আকাশের পটভূমিতে মাথা উঁচু করে সারি সারি দাঁড়িয়ে থাকা পাহাড়গুলো নিজেদের বিশালতার জানান দিয়ে আমাদের ডাকত।   কিন্তু ব্যস্ত কর্মজীবনে সময় বের করা খুব সহজ নয়। বিশেষ করে পরবাসে, যেখানে সময়ের হিসেবে ঘাম বিক্রি করে পেট চালাতে হয়।   কোন এক গরমের ছুটির প্রাক্কালে আমার বন্ধু লিউ প্রস্তাব করল, কোথাও ঘুরতে যাব নাকি?   আমার ইচ্ছে ছিল এমেই পর্বত। চীনের অন্যতম বিখ্যাত পর্বত 'এমেই শান' (চীনা ভাষায় 'শান' মানে পর্বত, আর 'এমেই' কে কেউ উচ্চারণ করেন 'অমেই' বা কেউ 'আমেই')।   সিচুয়ান প্রদেশের মধ্যবর্ত
নেত্রকোনায় পাখি শিকারের মহোৎসব!

নেত্রকোনায় পাখি শিকারের মহোৎসব!

নেত্রকোনা: নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও নেত্রকোনায় প্রকাশ্যে শিকার ও বিক্রি হচ্ছে দেশী-বিদেশি বিভিন্ন প্রজাতির পাখি।   প্রতি শুক্র ও সোমবার নেত্রকোনার পুর্বধলা, কলমাকান্দা, ধোবাউড়া ও ময়মনসিংহের গৌরীপুর, ফুলপুর, হালুয়াঘাট থেকে শতাধিক শিকারি এবস পাখি নিয়ে হাজির হন ওই হাটে। বর্ষা, শরৎ, হেমন্ত আর শীতে জমে উঠে পাখির বাজার।   সোমবার ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার সেই শ্যামগঞ্জ বাজারে সাংবাদিক যেতেই অধিকাংশ পাখি ব্যবসায়ী ও শিকারি মুহূর্তের মধ্যে সটকে পড়েন।   সরজমিনে গিয়ে  দেখা যায়, দেশীয় বিভিন্ন প্রজাতির পাখি বিক্রি করতে এসেছেন পাখি শিকারিরা। এরমধ্যে প্রতি জোড়া ঘুঘু পাখি ১৪০ টাকা, ওয়াডা পাখি ১২০টাকা, বিভিন্ন প্রজাতির বক জোড়া ১৬০ টাকা, কাইম ছোট পাখি আটশ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও ছোট আকৃতির বিভিন্ন পাখি বিক্রি হচ্ছে জোড়া ১০০ টাকা দরে।   শিকারিদে