পলিটিকস

‘কালো টাকা সাদা করার সুযোগ জনগণ পছন্দ করে না’

‘কালো টাকা সাদা করার সুযোগ জনগণ পছন্দ করে না’

বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেটে ঢালাওভাবে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। যা জনগণ পছন্দ করে না।   মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে যুক্তফ্রন্টের উদ্যোগে এবং বিকল্পধারার আয়োজনে ‘বাজেট ২০১৯-২০২০ বাস্তবায়ন ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।   বি চৌধুরী উপজেলায় ট্যাক্স সেন্টার করার প্রস্তাবের জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এটা সরকারের একটি ভালো উদ্যোগ। তবে এটা কর বৃদ্ধি করে নয় বরং করের নেটওয়ার্ক বাড়াতে হবে। উপজেলার করদাতাদের উৎসাহিত করার জন্য তাদের প্রণোদনা দিতে হবে। তাদের সরকারি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানাতে হবে।   তিনি দেশের জ্যেষ্ঠ নাগরিকদের জন্য বিভাগীয় সদরে ৫ হাজার বেডের হাসপাতাল স্থাপন এবং তাদের বিভিন্ন রোগের জন্য ওষুধের দাম শতকরা ৫০ ভাগ
সদস্য সংগ্রহ করতে তৃণমূলে আওয়ামী লীগের চিঠি

সদস্য সংগ্রহ করতে তৃণমূলে আওয়ামী লীগের চিঠি

তৃণমূলের সব মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি অর্থাৎ জেলা, উপজেলা-ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে সম্মেলন শেষ করার তাগিদ দিয়ে চিঠি পাঠাচ্ছে আওয়ামী লীগ। একই সঙ্গে নতুন সদস্য সংগ্রহ করার জন্যও নির্দেশনা দিয়েছে দলটি।   চলতি বছরের অক্টোবর মাসে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির মেয়াদোত্তীর্ণ হবে। এই অক্টোবর মাসেই আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন হওয়ার কথা আছে। এ জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির আগে সম্মেলন শেষ করার তাগিদ দিয়ে চিঠি পাঠানো হচ্ছে।   আওয়ামী লীগের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দলের দফতর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপকে চিঠি তৈরি করার নির্দেশ দিয়েছেন।       আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, যেসব জেলা-উপজেলায় সম্মেলনের মেয়াদ শেষ হয়েছে, সেগুলো দ্রুততম সময়ের মধ্যে শেষ করার জন্য নিদের্শ দেয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় সম্মেলনে
‘স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে আ’লীগ’

‘স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে আ’লীগ’

আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা আমির হোসেন আমু বলেছেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছে।   রোববার জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দলের প্রতিষ্ঠার প্রেক্ষাপট, স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা, দেশ গঠনে দলের গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা ও ইতিহাস তুলে ধরেন তিনি।   আমির হোসেন আমু বলেন, এ দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ১৯৪৯ সালে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই দলের মূল নেতৃত্বের অন্যতম একজন ছিলেন।   তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর আন্দোলন সংগ্রামের মূল লক্ষ্য ছিল এ দেশের মানুষের মুক্তি। তিনি মানুষকে মুক্তিযুদ্ধের জন্য প্রস্তুত করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে এ দেশের মানুষ স্বাধীনতা পেয়েছে। অর্
খালেদার মুক্তি নিয়ে সরকার- বিএনপির সমঝোতা চুড়ান্ত

খালেদার মুক্তি নিয়ে সরকার- বিএনপির সমঝোতা চুড়ান্ত

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে সরকার এবং বিএনপির মধ্যে সমঝোতার খবর পাওয়া গেছে। একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, দুই পক্ষই সমঝোতার একটি মাঝামাঝি পর্যায়ে উপনিত হয়েছে, যাতে করে বেগম খালেদা জিয়াও মুক্তি পাবে এবং তিনি রাজনীতিতে নিস্ক্রিয় হবেন। এরকম একটি মধ্যস্থতা চুড়ান্ত প্রায়। সবকিছু চুড়ান্ত হলে বেগম খালেদা জিয়ার যে দুটি মামলায় জামিন এখনো হয়নি সে দুটি মামলায় জামিনের আবেদন করা হবে। আপিল বিভাগে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার জন্য হাইকোর্টে জামিন চাওয়া হবে।       খালেদা জিয়ার আইনজীবির বলছেন, সরকার যদি বাধা না দেয়। তাহলে বেগম খালেদা জিয়ার বয়স এবং তার রাজনৈতিক পরিচয় এবং তিনি যেহেতু দুইবারের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এবং যেহেতু তিনি নারী সেজন্য তিনি প্যারোল কোড অনুযায়ী জামিন যোগ্য। ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া যদি আদাল
বেগম খালেদা জিয়ার রাজনীতি ছাড়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসছে

বেগম খালেদা জিয়ার রাজনীতি ছাড়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসছে

বেগম খালেদা জিয়ার রাজনীতি ছাড়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসছে বলে বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে।  তবে কেন তিনি রাজনীতি ছাড়ছে এনিয়ে পরস্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে। বিএনপির একটি অংশ বলছে তারেক জিয়া বিএনপির পূর্ণ কর্তৃত্ব গ্রহণ করতে চান। একক সিদ্ধান্তে দল পরিচালনা করতে জান। বেগম খালেদা জিয়া দলের চেয়ারপারসন থাকার কারণে বিএনপির একটি বড় অংশি, বিশেষ করে খালেদার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অনেকেই তারেক জিয়ার নির্দেশ সিদ্ধান্ত মানতে অসম্মতি জানাচ্ছে। এরফলে তারা দলের মধ্যে নানারকম বিভাজন তৈরী করছে। এ কারণেই আপাতত রাজনীতি থেকে বেগম খালেদা জিয়াকে অবসরে পাঠানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।       তবে অন্য একটি সূত্র বলছে, বেগম খালেদা জিয়ার অবসরের বিষয়টি সম্পূর্ণ একটি সমঝোতার অংশ। বেগম খালেদা জিয়াকে জামিনে মুক্ত করার জন্যই এই পন্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ঐ সূত্রমতে সরকারের সঙ্গে বিএনপির যে সমঝো
ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে জাপার বৈঠক

ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে জাপার বৈঠক

জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের সঙ্গে বৈঠক করেছেন ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের কর্মকর্তারা।   বৃহস্পতিবার দুপুরে জাপা চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।   জাতীয় পার্টির পক্ষে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নেন পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য আলমগীর সিকদার লোটন, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা মাহমুদুর রহমান মাহমুদ এবং যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু।       ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের পক্ষে নেতৃত্ব দেন চিফ অব পার্টি কেটি ক্রোক। তার সঙ্গে ছিলেন সিনিয়র ডিরেক্টর এমডি আবদুল আলিম ও প্রোগ্রাম ম্যানেজার অনিন্দ্য রহমান।   বৈঠকে গণতন্ত্র, সুশাসন, রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে গণতান্ত্রিক চর্চা এবং নেতৃত্ব উন্নয়ন ও বিকাশ নিয়ে আলোচনা হয়। ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও
রাজনীতির নেতৃত্ব নিয়ে জিএম কাদেরের দুঃখ

রাজনীতির নেতৃত্ব নিয়ে জিএম কাদেরের দুঃখ

রাজনীতির নেতৃত্বে রাজনীতিবিদরা না থাকায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের।   দলের বিভাগীয় সাংগঠনিক সভা সফল করতে বুধবার দুপুরে পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে অনুষ্ঠিত এক সভায় দুঃখ করে তিনি বলেন, আগের দিনে গণমানুষের ভালোবাসায় সিক্ত রাজনীতিবিদরাই সামনের সারিতে থেকে রাজনীতির নেতৃত্ব দিয়েছেন। কিন্তু এখন সে অবস্থা নেই। অনেক ক্ষেত্রেই ব্যবসায়ীরা টাকা বিনিয়োগ করে রাজনীতিকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে।   জিএম কাদের বলেন, রাজনীতির এই ধারা পরিবর্তন করতে হবে। রাজনীতিবিদদের হাতেই রাজনীতির নেতৃত্ব ফিরিয়ে আনতে হবে। জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে একটি মেধাবী টিম তৈরি করা হবে বলেও জানান তিনি।   সামনে জাপার সুদিন আসছে উল্লেখ করে দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বলেন, দেশবরেণ্য অনেকেই এখন জাতীয় পার্টির পতাকাতলে সামিল হতে আগ্রহ প্রকাশ করছেন। বিভিন্ন রাজনৈতি
‘নাশকতা করে কেউ পার পাবে না’

‘নাশকতা করে কেউ পার পাবে না’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, দেশে নাশকতার সুযোগ নেই। এটা করে কেউ পার পাবে না। নাশকতা প্রতিহত করতে গোয়েন্দাবাহিনী প্রস্তুত রয়েছে। যারা বাংলাদেশকে ভালোবাসে তারা কখনো নাশকতা করতে পারে না।   বুধবার দুপুরে গুলিস্তানে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক বর্ধিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ২৩ জুন আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই বর্ধিত সভার আয়োজন করে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ।   সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষ এখন অনেক সচেতন হয়েছে। নাশকতা করে কেউ পার পাবে না। তারপরও আমরা প্রস্তুত রয়েছি।       প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মহানগরের করণীয় সম্পর্কে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি কামাল বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মহানগর আওয়ামী লীগের ঐতিহ্য তুলে ধরব। সারা বাংলাদেশ
‌‘অধিকার আদায়ে সোচ্চার থাকবে জাপা’

‌‘অধিকার আদায়ে সোচ্চার থাকবে জাপা’

জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মুহম্মদ কাদের বলেছেন, ইতিবাচক রাজনীতিতে জাতীয় পার্টির ভূমিকা অনন্য। জাপা সব সময় দেশ ও মানুষের অধিকার আদায়ে সোচ্চার থাকবে। এ কারণে পার্টিকে তৃণমূল পর্যায়ে আরো শক্তিশালী করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।   রোববার দুপুরে জাপা চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে বিশেষ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভায় সঞ্চালনা করেন পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা।   এতে আরো উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান দিদারুল আলম দিদার, যুগ্ম মহাসচিব হাসিবুল ইসলাম জয়, শফি উল্লাহ শফি, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, যুগ্ম দফতর সম্পাদক এম.এ. রাজ্জাক খান, কেন্দ্রীয় নেতা মো. এনাম জয়নাল আবেদিন, অ্যাডভোকেট আবু তৈয়ব, শফিকুল আলম দুলাল ও মিজানুর রহমান দুলাল প্রমূখ।   সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২
রাজনীতিতে সুবাতাস ফিরিয়ে আনুন: হারুনুর রশীদ

রাজনীতিতে সুবাতাস ফিরিয়ে আনুন: হারুনুর রশীদ

প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনাকে জাতীয় সংলাপ আহ্বানের অনুরোধ জানিয়েছেন বিএনপির সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশীদ।   তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে সুশাসন ফিরিয়ে আনার জন্য সংসদ নেতা উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। জাতীয় নেতৃবৃন্দকে নিয়ে সংলাপ আহ্বান জানিয়ে একটি আবহ তৈরি করবেন। আর রাজনীতিতে সুবাতাস ফিরিয়ে আনবেন।’   রোববার জাতীয় সংসদে ২০২৮-২০১৯ সালের সম্পূরক বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ আহ্বান জানান।   হারুনুর রশীদ বলেন, ‘আমাদের বলা হচ্ছে যে, অবৈধ সংসদে কেনো আসছেন। সংসদের বাইরে থাকলেই তো পারতেন। সংসদে ছয় জন প্রবেশ করার মধ্য দিয়ে কিন্তু এ সংসদের বৈধতা পাবে না। কারণ আমরা এ সংসদে প্রবেশ করেছি, এর অন্যতম কারণ হচ্ছে সংবিধানে আমাদের যে গণতান্ত্রিক স্পেস রয়েছে, সেই স্পেস এ সংসদে অনুপস্থিত। তাই আজ আওয়ামী লীগ বলেন, মহাজোটই বলেন, আপনারা ঢাকঢোল বাজিয়ে সভা সমাবেশ করেন আর আমরা সভা সমাবে