মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

মার্কিন কংগ্রেসে প্রথম মুসলিম নারী

মার্কিন কংগ্রেসে প্রথম মুসলিম নারী

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন রাশিদা তালিব। ৪২ বছর বয়সী রাশিদা ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত। ডেমোক্রেট দল থেকে মনোনয়নপ্রাপ্ত রাশিদা মিশিগান রাজ্যের সাবেক আইনপ্রণেতা। মিশিগান আইনসভাতেও তিনি ছিলেন প্রথম নির্বাচিত মুসলিম নারী।   ফিলিস্তিনি অভিবাসী পরিবারের মেয়ে হিসেবে তার পরিবারে রাশিদাই প্রথম সন্তান, যিনি হাইস্কুল ডিপ্লোমা অর্জন শেষে কলেজ ডিগ্রি ও ল'ডিগ্রি অর্জন করেন। মিশিগান আইনসভায় তিনি সর্বোচ্চ ছয় বছর দায়িত্ব পালন করেছেন।   রাজ্যের ১৩ জেলার প্রতিনিধি হওয়ার দৌড়ে আছেন রাশিদা। ওই আসনে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টি কিংবা তৃতীয় কোনো দলের প্রার্থী না থাকায় নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন রশিদা। নির্বাচিত হলে আগামী বছরের জানুয়ারি থেকে দুই বছরের জন্য দায়িত্ব পালন করবেন তিনি।   এক টুইট বার্
নিউইয়র্কে আঞ্জুমানে আল ইসলাহ ইউএসএ’র কর্মশালা অনুষ্ঠিত

নিউইয়র্কে আঞ্জুমানে আল ইসলাহ ইউএসএ’র কর্মশালা অনুষ্ঠিত

নিউইয়র্কে আঞ্জুমানে আল ইসলাহ ইউএসএ’র দায়িত্বশীলদের সম্মেলনে বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা হুসামুদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী বলেছেন, ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা কথায় নয়, নিজের জীবনে বাস্তবায়নের মাধ্যমে সবার সামনে তুলে ধরতে হবে। তাহলেই ইসলাম সম্পর্কে ভ্রান্ত ধারণা দূর হবে। গত রোববার ব্রঙ্কসের বাংলাবাজার জামে মসজিদে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ পরিবেশের মধ্য দিয়ে আঞ্জুমানে আল ইসলাহ ইউএসএ’র দায়িত্বশীলদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে আলোচনা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। আঞ্জুমানে আল ইসলাহ ইউএসএ’র সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আবুল কাশেম ইয়াহইয়ার পরিচালনায় এবং আঞ্জুমানে আল ইসলাহ ইউএসএ’র সহ সভাপতি মাওলানা সৈয়দ সাজিদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আঞ্জুমানে আল ইসলাহর সভাপতি, শামসুল উলামা আল্লামা ফুলতলী (রা:) এর সন্তান বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা হুসামুদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী। &nbs
আরো ১৬ বিলিয়ন চীনা পণ্যে মার্কিন শূল্কারোপ কার্যকর

আরো ১৬ বিলিয়ন চীনা পণ্যে মার্কিন শূল্কারোপ কার্যকর

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন নতুন করে চীনা আরো ১৬ বিলিয়নের পণ্যের ওপর শূল্কারোপ করেছে। দীর্ঘ প্রক্রিয়া ও পর্যালোচনা শেষে দেশটির সাথে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে অন্তত ২৫শতাংশ হারে শূল্কারোপ করা হল। এবার চীনের রপ্তানি করা অন্তত ২৭৯টি পণ্যকে লক্ষবস্তু করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’।   মঙ্গলবার ওয়াশিংটন কর্তৃপক্ষ জানায়, বেইজিং এখানে অন্যায়ভাবে ব্যবসা করছে। যুক্তরাষ্ট্র তাদের যে হারে শূল্ক দেয় তারা তা দেয় না। নতুন করে আরো ২শত বিলিয়নের পণ্যের ওপর শূল্কারোপের পরিকল্পনা করলেও। এটি বিশ্ব বাণিজ্যের গুরু ও যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক প্রতিদ্বন্দ্বী চীনের ওপর ট্রাম্প প্রশাসনে দ্বিতীয় বাণিজ্যিক শূল্কারোপের আঘাত বলে জানিয়েছে ‘সিএনবিসি’।   উল্লেখ্য, গত ৩১ মে আমদানি পণ্য স্টিল ও অ্যালুমিনিয়ামের ওপর শূূল্কারোপ করেছিলেন ট্রাম্প। জুলাইতে এসে সরাসরি চীনকে আক্রমণ করতে তাদে
বার্নিকাটের গাড়িতে হামলার বিচার চায় যুক্তরাষ্ট্র

বার্নিকাটের গাড়িতে হামলার বিচার চায় যুক্তরাষ্ট্র

ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটকে বহনকারী দূতাবাসের একটি গাড়িতে হামলার ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের বিচার চেয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।   গত শনিবার রাজধানীর মোহাম্মদপুরে একটি নৈশভোজ শেষে ফেরার সময় ওই হামলার ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বেগ জানিয়েছে। পাশাপাশি বার্নিকাটের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারকে অনুরোধ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।   আজ সোমবার কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, ঢাকায় মার্কিন দূতাবাস গতকাল রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে পাঠানো এক কূটনৈতিক পত্রে এ অনুরোধ জানিয়েছে।   ওই হামলার বিবরণ দিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশকে (ডিএমপি) দেওয়া পত্রের একটি অনুলিপি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে দিয়েছে দূতাবাস। এতে বলা হয়েছে, নাগরিক অধিকার সংগঠন সুশাসনের জন্য নাগরিকের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের বাসায় নৈশভোজে অংশ নেন মার্শা বার্নিকাট। নৈশভোজ শেষে রাষ্ট্রদূত
শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা সমর্থন করা যায় না : মার্কিন দূতাবাস

শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা সমর্থন করা যায় না : মার্কিন দূতাবাস

নিরাপদ সড়কের দাবিতে দেশব্যাপী চলমান ছাত্র আন্দোলনে সহিংস হামলা কোনোভাবেই সমর্থন করা যায় না বলে মন্তব্য করেছে ঢাকায় নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস।   আজ রোববার মার্কিন দূতাবাসের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে দেওয়া এক বিবৃতি থেকে এ কথা জানা যায়। বিবৃতিতে বলা হয়, গত সপ্তাহ থেকে সড়কে উন্নত যানবাহন ও নিরাপত্তার দাবিতে স্কুল-কলেজের ছাত্রদের নেতৃত্বে বাংলাদেশব্যাপী চলমান শান্তিপূর্ণ ছাত্র আন্দোলন এরই মধ্যেই সারা দেশের মানুষের মনোযোগ আকর্ষণ করেছে। দূতাবাস বলে, ‘কাণ্ডজ্ঞানহীনভাবে সম্পত্তি বিনষ্ট করা, বিশেষ করে বাস ও অন্যান্য যানবাহন ধ্বংসের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের ওই কর্মকাণ্ড আমরা গ্রহণযোগ্য মনে করি না। কিন্তু এসবের কোনো কিছুই নিরাপদ বাংলাদেশের লক্ষ্যে শান্তিপূর্ণভাবে নিজেদের গণতান্ত্রিক অধিকার চর্চা করতে থাকা হাজার হাজার তরুণের ওপর নৃশংস হামলা ও হিংস্রতাকে সমর্থন করা যায় না।’ গতকাল শনিবা
রেস্টুরেন্টে জন্ম, তাই আজীবন ফ্রিতে খাবার!

রেস্টুরেন্টে জন্ম, তাই আজীবন ফ্রিতে খাবার!

গত ১৭ জুলাইয়ের রাতের ঘটনা। ফেসবুকে সেই দিনের ভয়ঙ্কর রাতের গল্প শুনিয়েছেন নবজাতকের বাবা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের বাসিন্দা রবার্ট গ্রিফিন জানাচ্ছেন, হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন তাঁর স্ত্রী ম্যাগিকে। কথা ছিল, এক বন্ধুর কাছে তাঁর মেয়েদের রেখে হাসপাতালে নিয়ে যাবেন স্ত্রীকে।   গ্রিফিনের বন্ধু জানায়, চিক-ফিল-এ নামে এক রেস্তোরাঁয় দেখা করে মেয়েদেরকে নিয়ে যাবেন তিনি। সেই পরিকল্পনা করেই রাস্তায় বেরিয়েছিলেন গ্রিফিন। মাঝ পথেই প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয় ম্যাগির।   বন্ধুর সঙ্গে রাস্তায় দেখা হয়ে যাওয়ায় তাঁর গাড়িতে মেয়েদের তুলে দেন গ্রিফিন। মেয়েদের বিদায় দিয়ে যখন নিজের গাড়িতে ফিরলেন, সিটে তাঁর স্ত্রী নেই! ভয় হয় গ্রিফিনের। খোঁজ শুরু করেন তিনি।   সামনেই চিক-ফিল-এ রেস্তোরাঁ। রাত ১০ টা বেজে যাওয়ায় রেস্তোরাঁ প্রায় বন্ধ হওয়ার পথে। ম্যাগি ওই রেস্তোরাঁর টয়লেট ব্যবহার করার অনুরো
যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানই জানিয়েছি, আমার ব্যক্তিগত মতামত নয়

যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানই জানিয়েছি, আমার ব্যক্তিগত মতামত নয়

নিজের বিরুদ্ধে চলা সমালোচনাকে পাত্তা না দিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেছেন, বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং নির্বাচন নিয়ে তিনি যা বলেছেন বা বলছেন তা তার ব্যক্তিগত মতামত নয়। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানই জানিয়েছেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার সঙ্গে বৈঠক শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে রাষ্ট্রদূত এ মন্তব্য করেন। তার ভাষায়Ñ সমালোচনা গণতন্ত্রেও সৌন্দর্য্য। এটা বাক স্বাধীনতার অংশ। নির্বাচন কশিমনের অধীনে আসন্ন সব নির্বাচনই সুষ্ঠু হবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে মার্কিন দূত বলেনÑ যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সকল নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক দেখতে চায়।  
ওয়াশিংটনে বই মেলায় ফখরুদ্দীন

ওয়াশিংটনে বই মেলায় ফখরুদ্দীন

যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানীতে বাঙালিদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এক বইমেলায় যোগ দিলেন ফখরুদ্দীন আহমদ।   ছুটির দিনে ওয়াশিংটন ডিসির উপকণ্ঠে ভার্জিনিয়ার এনানডেল শহরে নোভা কম্যুনিটি কলেজ ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত এই মেলায় একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন তিনি।   বাংলাদেশে জরুরি অবস্থার মধ্যে গঠিত বহুল আলোচিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা ফখরুদ্দীনকে।   এর আগে ওয়াশিংটন ডিসিতে বিভিন্ন পারিবারিক অনুষ্ঠান এবং ঈদ জামাতে দেখা গেলেও এই প্রথম কোনো প্রকাশ্য অনুষ্ঠানে দেখা গেল। অনুষ্ঠানে তার স্ত্রীও ছিলেন।   ড. আশরাফ আহমেদের ‘পাণ্ডুলিপির একাত্তর’র মোড়ক উন্মোচনের পর আলোচনায় ফখরুদ্দীন বলেন, “আশরাফ আহমেদের সাথে আমার প্রথম পরিচয় আশির দশকে যখন তিনি বিজ্ঞান নিয়ে গবেষণা করতেন, যা এখনও করে থাকেন। অবশ্য এখন তিনি লেখক হিসেবেই বেশি পরিচিতি পাচ্ছেন।”   বইটি পড়
যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

  যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভায় অংশ নিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খোন্দকার মোশারফ হোসেন।   যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামসুদ্দিন আজাদের সভাপতিত্বে এ মতবিনিময় সভা পরিচালনা করেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ।   অতিথি হিসেবে খোন্দকার মোশারফ হোসেন ছাড়া আরও বক্তব্য দেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন এবং নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা।     সভায় মন্ত্রী বলেন, “বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণের পথে বাংলাদেশ অনেকটা এগিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের এ পরিক্রমা এখন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। উন্নয়নের এই ধারাক্রম অব্যাহত রাখতেই সামনের নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে জয়ী করার বিকল্প নেই। এজন্য দেশ ও প্
১৬ জুলাই ফিনল্যান্ডে ট্রাম্প-পুতিন বৈঠক

১৬ জুলাই ফিনল্যান্ডে ট্রাম্প-পুতিন বৈঠক

১৬ জুলাই ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিঙ্কিতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।     ক্রেমলিন এবং  হোয়াইট হাউজ বৃহস্পতিবার বৈঠকের স্থান ও দিনক্ষণের এ তথ্য নিশ্চিত করে জানিয়েছে।   হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে বলেছে, “দুই নেতা যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যকার সম্পর্ক এবং জাতীয় নিরাপত্তার নানা বিষয় নিয়ে কথা বলবেন।”   ট্রাম্প ও পুতিনের মধ্যে এটিই হবে প্রথম পূর্ণ রাষ্ট্রীয় বৈঠক। ইউরোপে উত্তেজনার মধ্যে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের মিত্রদেশগুলোসহ আমেরিকায় রাশিয়ার সমালোচকরাও নিবিড়ভাবে এ বৈঠকের ওপর নজর রাখবে।   ট্রাম্প এর আগে বুধবারই পুতিনের সঙ্গে তার বৈঠক হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে বলেছিলেন, এ বৈঠক হতে পারে পশ্চিমা সামরিক জোট নেটো নেতাদের ১১-১২ জুলাইয়ের সম্মেলনের পর।বৈঠকটি ফিনল্যান্ডের রাজধানীতে হতে পারে বলেও আ