মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১৮০ কোটি ডলার অস্ত্র কিনছে আমিরাত

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১৮০ কোটি ডলার অস্ত্র কিনছে আমিরাত

স্টাফ রিপোর্ট :: যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ১৮০ কোটি ডলারের সমরাস্ত্র কিনছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত। ইয়েমেনের নিরীহ মানুষের ওপর ভয়াবহ আগ্রাসন পরিচালনায় সৌদি আরবের প্রধান সহযোগী হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে আমিরাত। সোমবার আবুধাবি সামরিক প্রদর্শনীর দ্বিতীয় দিনে সমরাস্ত্র কেনার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। খবর পার্স ট্যুডে। পাঁচ দিনব্যাপী এই প্রদর্শনী আগামী বৃহস্পতিবার শেষ হবে। প্রদর্শনীর মুখপাত্র জেনারেল মোহাম্মাদ আল হাসানি জানিয়েছেন, মার্কিন সমরাস্ত্র নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ‘রেথিয়ন’র কাছ থেকে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কেনার জন্য ১৮০ কোটি ডলারের চুক্তি সাক্ষর করেছে আবু ধাবি। এছাড়া, সংযুক্ত আরব আমিরাতের সেনাবাহিনী অস্ট্রেলিয়ার একটি সমরাস্ত্র নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক কোম্পানির কাছ থেকে অস্ত্র কেনার লক্ষ্যে আরো ১০০ কোটি ডলারেরও বেশি মূল্যের চুক্তি করেছে। আরব
ভেনেজুয়েলার সামরিক বাহিনীর প্রতি মাদুরোকে ছাড়ার আহ্বান ট্রাম্পের

ভেনেজুয়েলার সামরিক বাহিনীর প্রতি মাদুরোকে ছাড়ার আহ্বান ট্রাম্পের

ভেনেজুয়েলার সমাজতান্ত্রিক প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে সামরিক বাহিনীর যারা সমর্থন দিচ্ছেন তারা তাদের জীবন ও ভবিষ্যৎ ঝুঁকিতে ফেলছেন বলে সতর্ক করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ভেনেজুয়েলায় মানবিক ত্রাণ প্রবেশ আনুমোদন করতে বাহিনীটির প্রতি আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের। সোমবার ফ্লোরিডার মিয়ামিতে এক সমাবেশে এসব কথা বলেন ট্রাম্প। সমাবেশে উপস্থিত লোকজনের অধিকাংশই ছিল ভেনেজুয়েলা ও কিউবা থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আসা অভিবাসী। ট্রাম্প বলেন, ভেনেজুয়েলার সামরিক বাহিনী যদি মাদুরোকে সমর্থন দেওয়া অব্যাহত রাখে তাহলে তারা ‘সবকিছু হারাবে’। “তোমাদের সামনে কোনো নিরাপদ ভবিষ্যৎ নেই, বের হবার সহজ কোনো দরজা নেই এবং কোনো পথও নেই। তোমরা সবই হারাবে,” বলেছেন তিনি। সোমবার রাতে দেওয়া এক প্রতিক্রিয়ায় ট্রাম্পের ভাষণকে ‘নাৎসি ধরনের’ বলে অভিহিত করেছেন মাদুরো। বলেছেন, ট্রাম্পের আচ
নোবেলের জন্য ট্রাম্পকে মনোনয়নের প্রস্তাব

নোবেলের জন্য ট্রাম্পকে মনোনয়নের প্রস্তাব

শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মনোনয়নের প্রস্তাব দিয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। ওয়াশিংটনের অনুরোধে আবে এই প্রস্তাব দেন বলে রোববার জাপানের একটি পত্রিকায় বলা হয়। জাপানের সরকারি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে আশাহি শিম্বুন পত্রিকার খবরে বলা হয়, গত জুন মাসে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে ট্রাম্পের যুগান্তকারী বৈঠকের পর এ পুরস্কারের বিষয়ে ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে মনোনয়নের প্রস্তাবের জন্যে অনুরোধ জানানো হয়। এর আগে শুক্রবার ট্রাম্পের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনার ক্ষেত্র উন্মুক্ত করায় এবং দুশ্চিন্তা কমানোয় শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য তার নাম প্রস্তাব করেছেন আবে। নোবেল শান্তি পুরস্কার কমিটির কাছে পাঠানো পাঁচ পৃষ্ঠার মনোনয়ন প্রস্তাব চিঠির কপি তাকেও (ট্রাম্প) দিয়েছেন আবে। হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেন, ‘আবে আমাকে
যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম মুসলিম নারী মেয়র হলেন সাদাফ

যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম মুসলিম নারী মেয়র হলেন সাদাফ

স্টাফ রিপোটার :: যুক্তরাষ্ট্রের প্রিন্সটন অঞ্চলের উত্তরের শহর মন্টগোমেরির প্রথম মুসলিম নারী মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়ে ইতিহাস গড়লেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত সাদাফ জাফর। তিনি এই শহরের শুধুমাত্র প্রথম মুসলিম নারী মেয়র হিসেবেই নির্বাচিত হন নি বরং তিনি এখানকার প্রথম পাকিস্তানি-আমেরিকান মেয়র এবং একই সাথে তিনি দক্ষিণ এশিয়ান-আমেরিকান নারী হিসেবে প্রথম নির্বাচিত কোনো মেয়র। শহরটির লোকসংখ্যা প্রায় ২৫,০০০ হাজার। সাদাফ জাফর হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইসলাম, লিঙ্গ এবং দক্ষিণ এশিয়ার ইতিহাস নিয়ে ডক্টরেট করেছেন। একই সাথে তিনি দেশটির প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দক্ষিণ এশিয়ান স্টাডিজ বিভাগে পোষ্ট-ডক্টরাল গবেষণায় কিছুদিন কাজ করেছিলেন এবং সেখানে তিনি দক্ষিণ এশিয়া, ইসলাম ও এশিয়ান-আমেরিকান বিভাগে পাঠদান করেছেন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সাদাফ জাফরের বলেন, ‘আমি মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবো বলে সি
প্রার্থীতা প্রত্যাহার করলেন ন্যুয়ার্ট

প্রার্থীতা প্রত্যাহার করলেন ন্যুয়ার্ট

 স্টাফ রিপোটার :: জাতিসংঘে নতুন মার্কিন রাষ্ট্রদূতের প্রার্থীতা থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করেছেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিদার ন্যুয়ার্ট। জাতিসংঘে পরবর্তী মার্কিন রাষ্ট্রদূত হিসেবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পছন্দের শীর্ষে ছিলেন তিনি। শনিবার নিজের নাম প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে মার্কিন সংবাদ চ্যানেল ফক্স নিউজের সাবেক উপস্থাপিকা ও কূটনীতিক হিদার ন্যুয়ার্ট বলেন, আমার প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করে জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে বিবেচনা করায় আমি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও’র কাছে কৃতজ্ঞ। তিনি বলেন, তবে গেল দুমাস আমার পরিবারের জন্য কঠিন একটি সময় গেছে এবং এটিই আমার পরিবারের জন্য সবচেয়ে ভালো হবে যদি আমি এ প্রার্থীতা থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করি। প্রশাসনের সঙ্গে গেল দুবছর ধরে কাজ
দেশি উদ্যোগে সাহায্য করবে যুক্তরাষ্ট্রর ফাউন্ডার স্পেস

দেশি উদ্যোগে সাহায্য করবে যুক্তরাষ্ট্রর ফাউন্ডার স্পেস

দেশের উদ্যোক্তা বা স্টার্টআপদের সাহায্যে কাজ করবে যুক্তরাষ্ট্রর স্টার্টআপ মেন্টরিং প্রতিষ্ঠান ফাউন্ডার স্পেস। বাংলাদেশ হাই টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, দেশের স্টার্টআপদের সাহায্য করতে বাংলাদেশ হাই টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ ও যুক্তরাষ্ট্রর ফাউন্ডার স্পেস এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। ক্যালিফোর্নিয়ার সানফ্রানসিসকোতে গতকাল বৃহস্পতিবার ওই সমঝোতা সই হয়। এর আওতায় বাংলাদেশের স্টার্ট-আপদের সার্বিক সহযোগিতা দেবে প্রতিষ্ঠানটি। ফাউন্ডার স্পেস বিশ্বব্যাপী স্টার্ট-আপদের মেন্টরিং করে। এ ছাড়া তারা স্টার্টআপগুলোকে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ফান্ড বা তহবিল পেতেও সাহায্য করে। প্রতিষ্ঠানটি অনলাইনে কিংবা সরাসরি এসব সাহায্য করে থাকে। হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বাংলাদেশের স্টার্ট-আপদের সঙ্গে ফাউন্ডার স্পেসের সুদূরপ্রসারী সম্পর্ক সৃষ্টি করা এ সমঝোতার অন্যতম লক্ষ্য। সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্
দেয়াল নির্মাণে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন ট্রাম্প

দেয়াল নির্মাণে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন ট্রাম্প

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের অর্থ বরাদ্দের জন্য কংগ্রেসকে এড়াতে শেষ পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় জরুরি অবস্থা জারির সিদ্ধান্তই ঘোষণা করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুক্রবার হোয়াইট হাউজের রোজ গার্ডেনে ট্রাম্প টিভিতে সম্প্রচারিত এক ঘোষণায় বলেন, মেক্সিকো থেকে দক্ষিণপশ্চিমাঞ্চলের সীমান্ত দিয়ে মাদক, অপরাধী এবং অবৈধ অভিবাসীর ঢল ঠেকিয়ে দেশকে সুরক্ষিত রাখতেই তিনি জরুরি অবস্থার আদেশে সই করছেন। সীমান্তের ওই পরিস্থিতিকে জাতীয় নিরাপত্তায় অনেক বড় হুমকি উল্লেখ করে ট্রাম্প তা ঠেকাতে ‘দেয়াল কাজে আসবে’ বলে দাবি করেন। জরুরি অবস্থা জারির ফলে ট্রাম্প সামরিক কিংবা দুর্যোগ খাতের মতো বিভিন্ন খাত থেকে অর্থ দেয়াল নির্মাণের জন্য বরাদ্দ দিতে পারবেন। অবৈধ অভিবাসন রুখতে সীমান্তে ‘যে কোনো মূল্যে’ স্থায়ী বেড়া নির্মাণ ছিল ট্রাম্পের অন্যতম নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি। নির্মাণ কাজ শুরু করতে চলতি বছর কংগ
জরুরি অবস্থা জারি করতে পারেন ট্রাম্প

জরুরি অবস্থা জারি করতে পারেন ট্রাম্প

জরুরি অবস্থা জারি করতে পারেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডেনাল্ড ট্রাম্প। মেক্সিকো সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণে পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দের জন্য তিনি দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করতে পারেন বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। মার্কিন সরকারের অচলাবস্থা রোধে সীমান্তে নিরাপত্তা বিলে স্বাক্ষর করবেন ট্রাম্প। এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, কংগ্রেসকে পাশ কাটিয়ে মার্কিন সামরিক ফান্ড ব্যবহার করে মেক্সিকো সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণ করতে চান ট্রাম্প। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার ক্ষমতার অপব্যবহার ও আইনের অপব্যবহার করছেন বলে অভিযোগ এনেছেন ডেমোক্রেটের শীর্ষ নেতারা। ট্রাম্প সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণকে বেশি জোর দিচ্ছেন কারণ নির্বাচনী প্রচারণায় এ বিষয়ে তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। এটা তার নির্বাচনী প্রচারণার অন্যতম প্রতিশ্রুতি ছিল। তবে তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে যে অর্থ বরাদ্দ দাবি করেছেন সে পরিমাণ অর্থ আদায় সম্ভব হচ্ছে না। সীমান্তে ন
দেয়ালের বরাদ্দে ‘অখুশি’ ট্রাম্প, চুক্তি স্বাক্ষর নিয়ে ‘সিদ্ধান্তহীনতায়’

দেয়ালের বরাদ্দে ‘অখুশি’ ট্রাম্প, চুক্তি স্বাক্ষর নিয়ে ‘সিদ্ধান্তহীনতায়’

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন বিভাগ ও সংস্থার ‘অচলাবস্থা’ এড়াতে ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান কংগ্রেস সদস্যদের চুক্তি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে খুশি করতে পারেনি। মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে পর্যাপ্ত বরাদ্দ না পাওয়ায় বাজেট বিলে স্বাক্ষর করা নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের কাছে ট্রাম্প কংগ্রেস সদস্যদের চুক্তি নিয়ে তার অসন্তুষ্টির কথা জানান বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের। সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে চলতি বছরই ৫৭০ কোটি ডলার বরাদ্দ চেয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ডেমোক্রেটরা দাবি অগ্রাহ্য করলে ট্রাম্প গত বছরের ডিসেম্বরে কেন্দ্রীয় সরকারের এক চতুর্থাংশ বিভাগ ও সংস্থার ব্যয় নির্বাহের বাজেট বিলে স্বাক্ষর করেননি। দুই পক্ষের অনড় অবস্থানের কারণে টানা ৩৫দিন প্রায় ৮ লাখ মার্কিন সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী বেতনহীন অবস্থায়
বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে তৎপরতা : যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে কংগ্রেসের কড়া চিঠি

বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে তৎপরতা : যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে কংগ্রেসের কড়া চিঠি

স্টাফ রিপোটার :: বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে পররাষ্ট্র দফতর কি পদক্ষেপ নিয়েছে তা জানতে চেয়ে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পের কাছে মঙ্গলবার চিঠি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের ফরেন অ্যাফেয়ার্স কমিটি। নির্বাচন জালিয়াতি, ভোট কারচূপি, ভোটার নির্যাতনের নানা দিক তুলে ধরে এ বিষয়ে মার্কিন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয় ওই চিঠিতে। মঙ্গলবার প্রথমবারের মতো বিষয়টি সামনে আসে কমিটির টুইট বার্তায়। পরে অবশ্য হাউজ ফরেন আফেয়ার্স কমিটির ওয়েবসাইটে পুরো চিঠিটি প্রেস রিলিজ আকারে প্রকাশ করা হয়। এদিকে, একই দিন যুক্তরাষ্ট্র সিনেটের আর্মর্ড সার্ভিস কমিটির শুনানিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘এক দলীয় শাসন’ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। হাউজ ফরেন এফেয়ার্স কমিটির পক্ষ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে উদ্বেগ প্রকাশ করে জানানো হয়, আমরা বাংলাদেশের গণতন্ত্রের নেতিবাচক প্রবণতা নিয়ে গভীরভাবে উদ্বি