মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক :এত জল্পনা-কল্পনা, এত জরিপ, এত হিসাব-নিকাশ সব কিছু পাল্টে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হলেন রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।   নারী কেলেঙ্কারি, বিতর্কিত কর্মকাণ্ড-মন্তব্য, বদমেজাজী, ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক জ্ঞানের অভাবসহ কোনো অভিযোগই তাকে আটকে রাখতে পারল না। ‘প্রমিথিউস আনবাউন্ড’ এর মতো ট্রাম্প ‘আনবাউন্ড’ হয়ে ছিনিয়ে নিলেন বিজয়।   মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের ৫৮তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে যা হলো তাকে এককথায় বলা যেতে পারে ‘ট্রাম্প-কোয়েক’ বা ‘ট্রাম্পকম্প’।   সত্যিই তো ‘কাঁপিয়ে দিলেন’ ট্রাম্প। ৫৩৮টি ইলেক্টোরাল ভোটের মধ্যে জয়ের জন্য ২৭০টি ভোটের প্রয়োজন ছিল ট্রাম্পের। ডেইলি মেইলের তথ্যমতে, ট্রাম্প ইতিমধ্যে পেয়েছেন ২৭৬টি ইলেক্টোরাল ভোট। এরকমটি হওয়ার কথা ছিল হিলারি ক্লিনটনের ক্ষেত্রে। অথচ তিনি পেলেন মাত
ইতিহাস গড়া হলো না হিলারির

ইতিহাস গড়া হলো না হিলারির

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক : বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র যুক্তরাষ্ট্রের ২২৭ বছরের ইতিহাসে দেশটির প্রধান কোনো রাজনৈতিক দলের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হয়েছিলেন হিলারি। আর তাই বিশ্ববাসী ভেবেছিলেন, আমেরিকার ইতিহাসে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হবেন হিলারি। কিন্তু ট্রাম্পের কাছে হেরে হোয়াইট হাউসে প্রবেশ করতে পারলেন না হিলারি। ইতহাস গড়া হলো না তার।   নির্বাচিত হওয়ার জন্য পুরো দেশ চষে বেড়িয়েছেন হিলারি। ক্যাফে, গির্জা, সমাবেশ- যেখানেই গেছেন সেখানে একবার হলেও তার গত চার দশকের কর্মজীবনে বিরোধীদের কাছ থেকে যে আক্রমণ ও তিক্ততার শিকার হয়েছেন, সেসব প্রসঙ্গ তুলে এনেছেন। সর্বশেষ এক জরিপে রিপাবলিকান দলীয় প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পেছনে ফেলে এগিয়েও ছিলেন ডেমোক্র্যাটিক দলীয় প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। কিন্তু আমেরিকার ৪৫তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে পারলেন না তি
বিশ্বকে তাক লাগিয়ে হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প

বিশ্বকে তাক লাগিয়ে হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক :হিলারি যদি জেতেন তা হবে ট্রাম্পের প্রতি নেতিবাচক মনোভাবের জন্য, জরিপের এমন ফল ছিলো নির্বাচনের আগে। তবে শেষ মুহূর্তে জরিপের সব ফল উল্টে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।   সব জল্পনা-কল্পনা এবং উত্তেজনার অবসান ঘটিয়ে রিপাবলিকান ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন। ইলেক্টোরাল কলেজ ভোটে ট্রাম পেয়েছেন ২৭৬ ভোট এবং হিলারি পেয়েছেন ২১৮ ভোট।   আমেরিকাকে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি নিয়ে, প্রেসিডেন্ট হয়ে হোয়াইট হাউসে যাওয়ার বাসনার কথা জানিয়ে ভোটারদের সামনে হাজির হওয়ার অনেক আগে থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের মানুষ ডোনাল্ড ট্রাম্পকে চেনে সবচেয়ে রঙদার, সবচেয়ে জাঁকালো ধনকুবের হিসেবে।   ব্যবসায়ী ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতির একেবারে কেন্দ্রে আবির্ভূত হবেন, কয়েক বছ
ইলেক্টোরাল ভোট : ট্রাম্প ২৪৪ হিলারি ২১৫

ইলেক্টোরাল ভোট : ট্রাম্প ২৪৪ হিলারি ২১৫

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক :ক্যালিফোর্নিয়ায় জয়ের মাধ্যমে ইলেক্টোরাল ভোটে ব্যবধান কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে হিলারি ক্লিনটন। এখন পর্যন্ত ট্রাম্প পেয়েছেন ২৩২টি ইলেক্টোরাল ভোট। অপরদিকে, হিলারি পেয়েছেন ২১৫টি ভোট। খবর ওয়াশিংটন পোস্ট।   ট্রাম্প মোট পেয়েছেন ৪ কোটি ৬৮ লাখ ৯৯ হাজার ৮১৮টি ভোট। অর্থাৎ ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৮ দশমিক ৬ ভাগ ভোট। হিলারি  পেয়েছেন ৪ কোটি ৫১ লাখ ৮৮ হাজার ৪৭০টি ভোট। অর্থাৎ হিলারি পেয়েছেন মোট ৪৬ দশমিক ৮ ভাগ ভোট।   প্রেসিডেন্ট হতে হলে ট্রাম্পের আর মাত্র ২৬টি ভোট দরকার। অপরদিকে, হিলারির প্রয়োজন আরো ৫৫ ভোট। হিলারির চেয়ে ইলেক্টোরাল ভোটে এগিয়ে আছেন ট্রাম্প।   যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের নিয়মানুযায়ী ভোটারদের ভোটে সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয় না। তাদের ভোটে প্রতিটি অঙ্গরাজ্যে ইলেক্টোরাল কলেজের সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ইলেক্টো
এখন পর্যন্ত ২৫টি অঙ্গরাজ্যে জয়ী ট্রাম্প, হিলারি ১৮টিতে

এখন পর্যন্ত ২৫টি অঙ্গরাজ্যে জয়ী ট্রাম্প, হিলারি ১৮টিতে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক :হিলারি ক্লিনটন অথবা ডোনাল্ড ট্রাম্প যেকোন একজনের মুখে ফুটবে শেষ হাসি। শেষ হয়েছে ভোটগ্রহণ, এখন চলছে গণনা। অপেক্ষা আর কয়েক ঘন্টার। এবারের নির্বাচনে প্রায় ৫৪ শতাংশ মার্কিন ভোটার ভোট দিয়েছেন। এখন পর্যন্ত ৪৩টি অঙ্গরাজ্যের ফলাফল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ট্রাম্প জিতেছেন ২৫টিতে এবং হিলারি জয় পেয়েছেন ১৮টি অঙ্গরাজ্যে। ট্রাম্প ২৪৪টি এবং হিলারি ২১৫টি ইলেকটোরাল ভোট পেয়েছেন। পেসিডেন্ট হতে হলে যে কোনো প্রার্থীকে ২৭০টি ইলেকটোরাল ভোট পেতে হবে। ।   ডোনাল্ড ট্রাম্প যেসব অঙ্গরাজ্যে জয় পেয়েছেন: কেন্টাকি, ইন্ডিয়ানা, ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া, ওকলাহোমায়, মিসিসিপি, টেনেসি, সাউথ ক্যারোলিনা, নর্থ ডাকোটা, সাউথ ডাকোটা, নেব্রাস্কা, কেনসাস, আরকানসাস, উওমিং, টেক্সাস, আলাবামা, লুসিয়ানা, মন্টানা, মিসৌরি, ওহিও, ইডাহো, নর্থ ক্যারোলাইনা, ফ্লোরিডা, জর্জিয়া, আইওয়া, কানসাস।  
ব্যাটল-গ্রাউন্ড নেভাদা হিলারির, কি ঘটেছে সেখানে?

ব্যাটল-গ্রাউন্ড নেভাদা হিলারির, কি ঘটেছে সেখানে?

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক :ঐতিহাসিকভাবে ব্যাটল-গ্রাউন্ড নেভাদা রাজ্যটি রিপাবলিকানদের। কিন্তু সাম্প্রতিক জনমিতিক পরিবর্তন এই রাজ্যটিকে পরিণত করেছে একটি ব্যাটল-গ্রাউন্ডে।   গত নয়টি নির্বাচনেই বিজয়ী প্রেসিডেন্টরা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এই রাজ্যটিতে জয় পেয়েছেন।   প্রতিপক্ষ হিলারি ক্লিনটনের চাইতে বেশী সংখ্যক ব্যাটল-গ্রাউন্ড স্টেটে জয় পেয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।   ফ্লোরিডা, ওহাইও এবং নর্থ ক্যারোলিনা ডোনাল্ড     ট্রাম্পের। প্রেসিডেন্ট হতে দরকার আর মোটে ২৬টি ইলেক্টোরাল ভোট।   ভার্জিনিয়ায় ক্লিনটন জিতবেন বলে ভবিষ্যদ্বাণী।   পেনসিলভানিয়া ও মিশিগান-সহ আরো কয়েকটি ব্যাটল-গ্রাউন্ডে এখনো হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে, ফলে এখনো এগুলোর ফলাফল আন্দাজ করা যাচ্ছে না।   ভোটের সম্ভাব্য ফলাফল বৈশ্বিক মুদ্রা বাজারকে অস্থিতিশীল করে ফে
একটি পথই খোলা হিলারির

একটি পথই খোলা হিলারির

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক :মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শেষ। এখন ফলাফল ঘোষণা চলছে। ভোটের রাত থেকে স্বাভাবিকভাবেই বেশ উদ্বেগে কাটছে দুই প্রার্থীর।   বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প ২৪৪টি পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। হিলারি ক্লিনটন পেয়েছেন ইলেক্ট্রোরাল ২০৯টি ভোট।   ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প ২৪৪টিতে জয় পেয়েছেন। হিলারি ক্লিনটন পেয়েছেন ২০৯টি।   ডোনাল ট্রাম্প এগিয়ে থাকায় হিলারি শিবিরে     দুশ্চিন্তা বাড়ছে। বিবিসি জানিয়েছে, হোয়াইট হাউজে যেতে হলে হিলারি ক্লিনটনকে এখন পেনসিলভানিয়া, মিশিগান এবং উইসকনসিনে জিততেই হবে।   নর্ম অর্নেস্টেইন বলেছেন, তার এখন জয়ের জন্য একটি মোটে পথ খোলা। আর ট্রাম্পের জন্য খোলা বহু পথ।   এখন হিলারির সময় কেমন যাচ্ছে তা নিয়ে লিখেছে এবিসি নিউ
ইলেক্টোরাল ভোট : ট্রাম্প ২৪৪ হিলারি ২০৯

ইলেক্টোরাল ভোট : ট্রাম্প ২৪৪ হিলারি ২০৯

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক :ক্যালিফোর্নিয়ায় জয়ের মাধ্যমে ইলেক্টোরাল ভোটে ব্যবধান কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে হিলারি ক্লিনটন। এখন পর্যন্ত ট্রাম্প পেয়েছেন ২৪৪টি ইলেক্টোরাল ভোট। অপরদিকে, হিলারি পেয়েছেন ২০৯টি ভোট। খবর ওয়াশিংটন পোস্ট।   ট্রাম্প মোট পেয়েছেন ৪ কোটি ৬৮ লাখ ৯৯ হাজার ৮১৮টি ভোট। অর্থাৎ ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৮ দশমিক ৬ ভাগ ভোট। হিলারি  পেয়েছেন ৪ কোটি ৫১ লাখ ৮৮ হাজার ৪৭০টি ভোট। অর্থাৎ হিলারি পেয়েছেন মোট ৪৬ দশমিক ৮ ভাগ ভোট।   প্রেসিডেন্ট হতে হলে ট্রাম্পের আর মাত্র ২৬টি ভোট দরকার। অপরদিকে, হিলারির প্রয়োজন আরো ৬১ ভোট। হিলারির চেয়ে ২৩ ইলেক্টোরাল ভোটে এগিয়ে আছেন ট্রাম্প।   যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের নিয়মানুযায়ী ভোটারদের ভোটে সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয় না। তাদের ভোটে প্রতিটি অঙ্গরাজ্যে ইলেক্টোরাল কলেজের সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ইলেক
২০ রাজ্যে জয়ী ট্রাম্প, ১২টিতে হিলারি

২০ রাজ্যে জয়ী ট্রাম্প, ১২টিতে হিলারি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক :মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ৩২টি অঙ্গরাজ্যের ফল ঘোষণা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ২০টি অঙ্গরাজ্যে জয়ী হয়েছেন ট্রাম্প এবং ১২টিতে হিলারি। ওহাইওসহ গুরুত্বপূর্ণ চারটি রাজ্যে জয়ী হয়েছেন ট্রাম্প।   এ পর্যন্ত পাওয়া ফলাফল অনুযায়ী, ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৯ দশমিক ২ ভাগ ভোট। অপরদিকে হিলারি ক্লিনটন পেয়েছেন ৪৭ দশমিক ৭ ভাগ ভোট।   নিউ হ্যাম্পশায়ারে ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৮ দশমিক ৯ ভাগ ভোট। আর হিলারি পেয়েছেন ৪৫ দশমিক ৯ ভাগ ভোট।   নর্থ ক্যারোলিনাতেও এগিয়ে ট্রাম্প। সেখানে ট্রাম্পের মোট ভোট ৫০ দশমিক ৫ ভাগ এবং হিলারির মোট ভোট ৪৬ দশমিক ৯ ভাগ।   যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্য হচ্ছে ওহাইও। এখানে ট্রাম্প পেয়েছেন ৫৩ দশমিক ৪ ভাগ ভোট এবং হিলারি পেয়েছেন ৪২ দশমিক ২ ভাগ ভোট।   এদিকে, ভার্জি
লড়াই এখন হাড্ডাহাড্ডি

লড়াই এখন হাড্ডাহাড্ডি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ প্রায় শেষ। পাশাপাশি চলছে গণনাও।   ইতিমধ্যে ৪০টি রাজের ফল ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৪ রাজ্যে ট্রাম্প ও ১৬ রাজ্যে হিলারি জয়ী হয়েছেন।   এসব রাজ্যে হিলারি ২০৯টি ইলেকটোরাল ভোট পেয়েছেন। তবে ট্রাম্প ২৩২টি ইলেকটোরাল ভোট পেয়ে এগিয়ে আছেন।   ট্রাম্প জয় পেয়েছেন টেক্সাস ও ফ্লোরিডায়। এ দুই রাজ্যে ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা ৩৮ ও ২৯। অর্থাৎ ট্রাম্প এ দুই রাজ্যেই পেয়েছেন ৭৭টি ইলেকটোরাল ভোট। এ ছাড়া ট্রাম্প ওহাইও ও নর্থ ক্যারোলিনায় জয় পেয়েছেন। কেনটাকিতে জয় পেয়েছেন হিলারি ক্লিনটন।   ট্রাম্প এগিয়ে রয়েছেন আরকানসাস, আলাবামা, ইন্ডিয়ানা, ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া, মিসিসিপি, সাউথ ক্যারোলিনা, কানসাস, নর্থ ডাকোটা, সাউথ ডাকোটা, টেনেসি, ওকলাহোমা, ওয়াইওমিং ও নেব্রাস্কায়।   হিলারি এগিয়