যুক্তরাজ্য

তিন গুণি লেখক সাংবাদিককে সম্মাণনা জানালো লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাব

তিন গুণি লেখক সাংবাদিককে সম্মাণনা জানালো লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাব

ডেস্ক রিপোর্ট : বৃটিশ বাংলাদেশী সাংবাদিকদের প্রতিনিধিত্বশীল সংগঠন লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাব তিনজন গুনি ব্যক্তিত্বকে সম্মান জানাতে ১৭ মে মঙ্গলবার আয়োজন করে বিশেষ এক সম্মাণনা অনুষ্ঠানের। পূর্ব লন্ডনের মন্টিফিউরি সেন্টারে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমি কর্তৃক প্রবাসী লেখক পুরস্কার বিজয়ী প্রবীন সাংবাদিক ও লেখক জনাব ইসহাক কাজল ও লেখক গবেষক জনাব ফারুক আহমদ এবং কমনওয়েলথ জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিজেএ এর ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় বিশিষ্ট সাংবাদিক জনাব সৈয়দ নাহাস পাশাকে স“র্ধনা প্রদান করা হয়। লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের সহ সভাপতি জনাব মাহবুব রহমানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক জনাব এমদাদুল হক চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই সম্মাণনা অনুষ্ঠানের শুরুতে স“র্ধিত অতিথিবৃন্দকে ফুলের তোড়া উপহার দেন বিশিষ্ট লেখক জনাব ফরিদ আহমদ রেজা, সাংবাদিক জনাব মতিউর রহমান চৌধুরী ও জনাব আব্দুল আহাদ চৌধুরী বাবু। এছাড়া
লন্ডনে রাস্তার নীচে কত স্বর্ণ আছে?

লন্ডনে রাস্তার নীচে কত স্বর্ণ আছে?

ডেস্ক রিপোর্ট : লন্ডনের রাস্তায় হয়তো স্বর্ণ গড়াগড়ি খায় না, তবে বিশ্বের বড় একটি স্বর্ণের মজুদ আছে লন্ডনেরই একটি রাস্তার নীচে। মাটির নীচে থাকা ব্যাংক অফ ইংল্যান্ডের সাতটি ভল্টে মজুদ থাকা স্বর্ণের পরিমাণ সাড়ে ৫ হাজার ১৩৪ টন। এগুলো ১২.৪ কেজির একেকটি বার আকারে পাঁচ লাখ স্বর্ণ বার রাখা আছে। প্রতিটি স্বর্ণ বারের দাম সাড়ে তিনলক্ষ পাউন্ড বা বাংলাদেশী চারকোটি টাকার বেশি। লন্ডনের থ্রেডনিডল স্ট্রীটের নীচে দুইটি তলার ভল্টগুলোয় সোনাগুলো রাখা আছে। সেখানে জেপি মরগান এবং এইচএসবিসির মালিকানায় আরো ছয়টি ছোট আকারের ভল্ট রয়েছে, যেখানে এসব ব্যাংকের স্বর্ণ আছে। সব মিলিয়ে এই সড়কের নীচে সোনা আছে সাড়ে ৬ হাজার টনের বেশি। এর চেয়ে স্বর্ণ জমা আছে একমাত্র নিউইয়র্ক ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে, সাড়ে ৬ হাজার টন। যদিও এই সোনার পুরোটার মালিক ব্যাংক বা ব্রিটেনের সরকার নয়। বেশিরভাগ সোনার মালিক ব
লন্ডনে ফ্লাইওভারের নীচে স্টীল ফ্রেইমের উপর রাত্রি যাপন

লন্ডনে ফ্লাইওভারের নীচে স্টীল ফ্রেইমের উপর রাত্রি যাপন

ডেস্ক রিপোর্ট : লন্ডন বারা অব নিউহ্যামে একটি ফ্লাইওভারের নীচে স্টীল ফ্্েরইমের উপর হোমলেসরা ঘুমাতেন বলে জানা গেছে। ফ্লাইওভারের স্টীলের ফ্রেইমে কায়দা করে বেড বানিয়ে সেখানে দিব্যি ঘুমিয়ে দিন পার করে দিতেন ৪ জন মানুষ। নিউহ্যামের কেনিংটাউনে ‘এ থার্টিন’ ফ্লাইওভারের নীচে স্টীলের ফ্রেইমের উপর বেড ও খাদ্যদ্রব্য পাওয়া গেছে। ফ্লাইওভারের নীচে স্টীলের ফ্রেইমের উপর বিছানা থেকে মানুষের পা ঝুলে থাকার বিষ্ময়কর দৃশ্যটি প্রথমে একজন কাউন্সিল অফিসার দেখতে পান। রাস্তার উপরে যেখানে ফ্লাইওভারের স্টীলের ফ্রেইমের সঙ্গে ট্রাফিক কন্ট্রোলের বৈদ্যতিক তার পেছানে আছে সেখানে একজন মানুষের পা ঝুলে থাকতে দেখা যায়। পরবর্তীতে নিউহ্যাম কাউন্সিলের তদন্তকারীরা সেখানে বেড, খালি কফির কার্টুন এবং ফুডের ঝাড় পেয়েছেন। দুজন বৃটিশ এবং দুজন লিথোনিয়ান নাগরিক সেখানে ঘুমাতেন বলে জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। তবে তারা কতোদিন যাবৎ সেখানে ঘুমাতো তা

পূর্ব লন্ডন থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ বাংলাদেশী পরিবার

বিশেষ প্রতিনিধি, যুক্তরাজ্য :: পূর্ব লন্ডন থেকে দুই সন্তানসহ আচমকা নিখোঁজ হয়ে গেছে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত একটি খ্রিষ্টান পরিবার। রহস্যঘেরা এ নিখোঁজের ঘটনায় এখন পর্যন্ত কুল-কিনারা করতে পারেনি পুলিশও। জানা গেছে, নারী নির্যাতনের দায়ে কারাগারে ছিলেন লন্ডনের ফরেষ্ট গেইট এলাকার বাসিন্দা বাংলাদেশী বংশোদ্ভূ সুমন কস্টা (৩৬)। ৬ সপ্তাহ কারাগারে ছিলেন সুমন। আর সুমন যেদিন জামিনে মুক্তি পান সেদিন থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ রয়েছেন সুমনের স্ত্রী সুরভী কস্টা (২৫) ও এ দম্পতির দুই সন্তান। বড় মেয়ে স্কার্লেট কস্টার বয়স সাত বছর আর ছেলে স্কার্লিওন’র বয়স তিন বছর। খোঁজ মিলছে না সুমনেরও। সুরভীর সন্তানসহ নিখোঁজের ঘটনায় সুমন জড়িত, এমন সন্দেহ উড়িয়ে দিচ্ছে না পুলিশ। মঙ্গলবার নিঁেখাজ সুরভী আর তার দু সন্তানের সন্ধানে পুলিশ জরুরী ভিত্তিতে ব্রিটেনজুড়ে অনুসন্ধান শুরু করেছে স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড। গত ৫ই মে নিখোজেঁর বিষয়ে
ক্যালিফোর্নিয়ায় মুসলিম ছাত্রীকে আইএস বানানোর চেষ্টা

ক্যালিফোর্নিয়ায় মুসলিম ছাত্রীকে আইএস বানানোর চেষ্টা

ডেস্ক রিপোর্ট : যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লস ওসুস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বাৎসরিক সাময়িকীতে মুসলিম ছাত্রীকে আইএস হিসেবে তুলে ধরার পর ক্ষমা চেয়েছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।  স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি, কেউ একজন ওই ছাত্রীর নাম পাল্টে ‘আইএসআইএস ফিলিপস’ করে দিয়েছিল। তার প্রকৃত নাম বায়ান জেহলিফ। এদিকে গত শনিবার বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সুসান পেট্রোসেলি বিদ্যালয়ের পক্ষে অনাকাঙ্খিত ওই ঘটনার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন। বলেন, সাময়িকীতে ওই মুসলিম ছাত্রীর ছবির নিচের ক্যাপশনে বিদ্যালয়ের কোনো এক শিক্ষার্থী বায়ান জেলিফের নাম পাল্টে ‘আইএসআইএস ফিলিপস’ লিখে দেয়। এ ঘটনার প্রতিক্রিয়ায়  জেলিফ তার ফেসবুকে লেখেন, ‘আমি মর্মাহত, বিরক্ত ও মনক্ষুণ্ন যে লস ওসুস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ইয়ারবুকে তা প্রকাশ করা হয়েছে। বস্তুত আমি আইএস নই। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ যা করেছে তা ধৃষ্টতা। আমি এর সঙ্গে ভিন্নমত পোষণ করি। চলুন আমরা স
লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সৈয়দ শামসুল হক ও তাঁর স্ত্রীর স্বাক্ষাত

লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সৈয়দ শামসুল হক ও তাঁর স্ত্রীর স্বাক্ষাত

ডেস্ক রিপোর্ট : লন্ডনে অবস্থানরত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোমবার তাঁর হোটেল সুইটে সব্যসাচি কবি ও লেখক সৈয়দ শামসুল হকের সাথে সৌজন্য স্বাক্ষাত করেন। এ সময় কবির স্ত্রী ডাঃ আনোয়ারা সৈয়দ হক এবং বঙ্গবন্ধুর ছোট কন্যা শেখ রেহানা উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী কবি শামসুল হকের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন। বাংলা সাহিত্য ছাড়াও বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাঁর অবদানের কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিঁনি সব-সময় মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে কাজ করেছেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা জনাব সজীব ওয়াজেদ উপস্থিত ছিলেন। তিঁনি কবির দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন। বুলগেরিয়ায় অনষ্ঠিতব্য দি গ্লোবাল উইমেন লিডারস ফোরামে যোগাদানের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে সেন্টাল লন্ডনে তাজ হোটেলে অবস্থান করছেন। কবি সৈয়দ শামসুল হক বর্তমানে দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য লন্ডনে অবস্থান করছেন।
লন্ডন মাতাচ্ছে বাঙালির খাবার ঝালমুড়ি

লন্ডন মাতাচ্ছে বাঙালির খাবার ঝালমুড়ি

ডেস্ক রিপোর্ট : বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় খাবার ঝালমুড়ি। শহরের আনাচে কানাচে আর গ্রামের রাস্তাঘাটি- কোথায় পাওয়া যায়না ঝালমুড়ি! সব বয়সের, সব পেশার মানুষের কাছেই লোভনীয় খাবার ঝালমুড়ি। তবে এবার বাংলাদেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে লন্ডন মাতাচ্ছে এই জনপ্রিয় খাবারটি। ঝালমুড়ি বিক্রেতা অ্যাঙ্গাস ডেনুন সেই ঝালমুড়িওয়ালাও কিন্তু আবার বাংলাদেশি না; একজন ব্রিটিশ। লন্ডনের রাস্তাঘাটে ঘুরে ঘুরে ঝালমুড়ি বিক্রি করেন তিনি। কখনো গাড়িতে, কখনো পায়ে হেঁটে আবার কখনো স্টল সাজিয়ে। প্রথম কলকাতায় এসে ঝালমুড়ির সঙ্গে পরিচিত হন আফ্রিকান বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক অ্যাঙ্গাস ডেনুন। ব্যস, লন্ডনে ফিরে গিয়ে শুরু করলেন ঝালমুড়ির ব্যবসা। সেখানে তার দোকানের নাম ‘দ্য এভরিবডি লাভ ঝালমুড়ি এক্সেপ্রেস’ (সবার প্রিয় ঝালমুড়ি এক্সপ্রেস)।   অ্যাঙ্গাসের ঝালমুড়ি স্টল
ইমিগ্র্যান্টদের দখলে চলে যাচ্ছে লন্ডনের নিউহ্যাম বারা

ইমিগ্র্যান্টদের দখলে চলে যাচ্ছে লন্ডনের নিউহ্যাম বারা

ডেস্ক রিপোর্ট : পুরোপুরি ইমিগ্র্যান্টদের দখলে চলে যাচ্ছে গ্রেটার লন্ডনের নিউহ্যাম কাউন্সিল। ক্রমান্বয়ে ইমিগ্র্যান্টদের বসতি বৃদ্ধির পাশাপাশি কাউন্সিল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন স্থানীয় ইংলিশ অধিবাসীরা। গত ১৫ বছরে প্রায় ৭০ হাজার ইমিগ্র্যান্ট অধিবাসী এসে নিউহ্যাম কাউন্সিলে বসতি গড়েছেন। ইমিগ্র্যান্টদের দাপটের কাছে স্থানীয়, কুট্টি ইংলিশ অধিবাসীদের উপস্থিতি প্রায় বিলিয়ন হয়ে গেছে বলে বিবিসির এক ডকুমেন্টারিতে উঠে এসেছে। ওই ডকুমেন্টারীর তথ্য অনুযায়ী, ইউকের মধ্যে সবচাইতে বেশি মাল্টিকালচারিজম অর্থাৎ বহু সংস্কৃতি ও বহু ভাষার মানুষের বসবাস হল নিউহ্যাম কাউন্সিলে। বারার সর্বমোট জনসংখ্যার প্রায় ৭৩ শতাংশ হলেন এথনিক এবং কালো। প্রায় ১শ ৪৭টি ভাষার মানুষের বসবাস নিউহ্যামে। অথচ এই ১৫ বছর আগেও নিউহ্যামে কর্মজীবি শ্বেতাঙ্গ ইংলিশ স্থায়ী বাসিন্দাদের আধিপত্য ছিল বেশি। বর্তমানে সর্বমোট জনসংখ্যার মাত্র ১৬ শতাংশ হলেন শ্ব
সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনার দায়ে বৃটিশ বাংলাদেশীর জেল

সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনার দায়ে বৃটিশ বাংলাদেশীর জেল

ডেস্ক রিপোর্ট : লন্ডনবিডিনিউজ২৪: ইংল্যান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিমান ঘাঁটিতে হামলা চালানোর পরিকল্পনার অভিযোগে এক বৃটিশ বাংলাদেশীর যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে কিংস্টোন ক্রাউন কোর্ট। দন্ডপ্রাপ্ত যুবকের নাম জুনায়েদ খান। বয়স ২৫ বছর। সে লুটনের বাসিন্দা। ইংল্যান্ডের ইস্ট এংলিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিমান ঘাঁটিতে হামলার পরিকল্পনার জন্যে জুনায়েদ আইএসের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন বলে অভিযোহ ছিল। পুলিশের তদন্তে বেরিয়ে আসে, জুনায়েদের এক স্বজন সাজিব খান আইএসে যোগ দিতে সিরিয়ায় পাড়ি জমিয়েছিলেন। জুনায়েদেরও সেই পরিকল্পনা ছিল। একটি কোম্পানির ‘ডেলিভারি ড্রাইভার’ জুনায়েদ সিরিয়ায় আইএস নেতাদের কাছে পাঠানো এক বার্তায় প্রেসার কুকারে বোমা নিয়ে বিস্ফোরণ ঘটানোর পর মার্কিন সৈন্যদের ছুরিকাঘাতে হত্যার পরিকল্পনার কথা জানান বলে অভিযোগ ওঠার পর তদন্ত শুরু হয়। মামলার নথিতে বলা হয়েছে, এরপর পুলিশ জুনায়েদের বাড়িতে আইএসের পতাকা
৮০ ভাগ ব্রিটিশ নাগরিক রাশিয়ায় বাস করতে চায়!

৮০ ভাগ ব্রিটিশ নাগরিক রাশিয়ায় বাস করতে চায়!

ডেস্ক রিপোর্ট : লন্ডনবিডিনিউজ২৪: ব্রিটেনের শতকরা ৮০ ভাগ নাগরিক নিজ দেশের পরিবর্তে রাশিয়ায় বসবাস করার পক্ষে মতামত দিয়েছে। নতুন এক জরিপে এ মতামত উঠে এসেছে। তারা ব্রিটেন ছেড়ে রাশিয়ায় চলে রাজি আছে। ইংল্যান্ডের ট্যাবলয়েড পত্রিকা ‘দ্যা এক্সপ্রেস’ এ জরিপ চালিয়েছে এবং এতে অংশ নিয়েছে ২২ হাজার মানুষ। এর মধ্যে শতকরা ৭৮ ভাগ মানুষ বলেছে, বিনা মূল্যে জমি দেয়া হলে তারা রাশিয়ায় চলে যেতে প্রস্তুত রয়েছে। সম্প্রতি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, যেসব লোক রাশিয়ার সবচেয়ে পূর্বাঞ্চলে বসবাসে রাজি হবে তাদেরকে বিনামূল্যে ২.৫ একর জমি দেয়া হবে। দেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে পুতিন এ প্রস্তাব দিয়েছেন। জরিপে অংশ নেয়া এক ব্যক্তি বলেছে, “ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন কিংবা করবিনের লেবার দলের অধীনে থাকার চেয়ে রাশিয়ায় আমি অনেক বেশি ভালো থাকব।” আরেক ব্যক্তি এমন প্রস্তাব দেয়ার জন্য প্রেসি