লাইফ ষ্টাইল

যে কারণে পেঁপের বীজ খাবেন

যে কারণে পেঁপের বীজ খাবেন

কাঁচা বা পাকা যেভাবেই খান না কেন, পেঁপে সব সময়ই উপকারী। এটি আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়াতে, কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে ও লিভারের গুণাগুণ বাড়াতে সাহায্য করে। পেঁপেতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট। তাই প্রতিদিন ডায়েটে পেঁপে রাখলে তা শরীর গঠনের নানা কাজে লাগে। আরও পড়ুন : যে কারণে গ্রিন টি খাবেন পেঁপে খেয়ে পেঁপের বীজ ফেলে দেওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু পেঁপের বীজের উপকারিতা সম্পর্কে জানলে আর ফেলবেন না। পেঁপের বীজে রয়েছে নানা ভিটামিন ও ফসফরাস, ম্যাগনেশিয়াম, ক্যালসিয়ামের মতো জরুরি কিছু মিনারেল। এটি ফ্ল্যাবনয়েডের অন্যতম উৎস, যা হজমশক্তি বাড়ানোর একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। জেনে নিন পেঁপের বীজের কিছু গুণ- পেঁপের বীজের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে পরিপাক প্রক্রিয়া ভালো থাকে। হজমের সমস্যা থাকলে এই ঘরোয়া উপায়ে তা দূর করতেই পারেন। লিভারের সমস্যা, বিশেষ করেফ্যাটি লিভার বা লিভার সিরোসিসে যারা
শিশুকে যেসব খাবার দেবেন না

শিশুকে যেসব খাবার দেবেন না

শিশুদের খাবারের তালিকা বড়দের খাবারের তালিকা থেকে অনেকটাই ভিন্ন হয়ে থাকে। কারণ শিশু বয়সটা একজন মানুষের সবদিক থেকে গড়ে ওঠার সময়। শিশুর শরীরে সঠিক পরিমাণ পুষ্টি সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে। অনেকসময় শিশুর আবদারের কারণে বাইরের খাবার কিনে দেওয়া হয়। যা একেবারেই ঠিক নয়। কিছু খাবার রয়েছে যা কখনোই শিশুকে খেতে দেওয়া উচিত নয়। আরও পড়ুন: যে কারণে প্রতিদিন চিনা বাদাম খাবেন শিশু খাবার কেমন হবে: রুটি এবং সবজি, ডাল ভাত, খিচুড়ির মতো খাবারে শরীরের সমস্ত প্রয়োজনীয়তা পূরণ করা সম্ভব। আমাদের সন্তানদের ক্রমবর্ধমান শারীরিক বিকাশ এবং মস্তিষ্কের দৈনন্দিন পুষ্টির চাহিদা পূরণ করে এই খাবারগুলো। এই খাবার খেলে ঘুমও ভালো হয়। অনেকেই সপ্তাহের বেশিরভাগ রাতেই একই ধরণের খাবার দিয়ে থাকেন, শিশুদের কাছে তা একঘেয়ে মনে হয়। তাই শিশুর খাবার তালিকায় বৈচিত্র আনুন। এছাড়া মাঝে মাঝে রান্নায় স্বাস্থ্যকর ফ্যাট যেমন ঘি, যোগ করতে ভুলবেন
কফির এই ব্যবহারগুলো জানতেন?

কফির এই ব্যবহারগুলো জানতেন?

এককাপ কফি পানেই উধাও হয়ে যায় সমস্ত ক্লান্তি। চায়ের পাশাপাশি পানীয় হিসেবে কফির চাহিদা বেড়েই চলেছে দিনে দিনে। এটি আমাদের শরীরের জন্য নানাভাবে উপকারী। কফির কিন্তু আরও অনেক গুণ রয়েছে। পান করা ছাড়াও কফির সদ্ব্যবহার করতে পারেন এইসব উপায়ে- আরও পড়ুন: হঠাৎ পেশিতে টান? জেনে নিন করণীয় ত্বকের জন্য কফি খুব উপকারী। কফি আমাদের ত্বকের রিঙ্কেল ও মৃত কোষ দূর করতে সাহায্য করে। এক চা চমক বেকিং সোডার সঙ্গে কফি পাউডার মেশান। এরপর মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ভালো করে ধুয়ে নিন। ফ্রিজে দুর্গন্ধের সঙ্গে আমরা কম-বেশি সবাই পরিচিত। একটি কাপে কিছুটা কফি রেখে দিন ফ্রিজের মধ্যে। কফির সমস্ত দুর্গন্ধ টেনে নেবে। ফ্রিজকে দুর্গন্ধ মুক্ত রাখবে। শখের বাগান থাকলে গাছেরও যত্ন নিতে পারেন এই কফি দিয়ে। পানির সঙ্গে মিশিয়ে বা জৈব সারের সঙ্গে মিশিয়েও দিতে পারেন। এতে মাটির নাইট্রোজেন বৃদ্ধি পায়। গাছের বৃদ্ধিও
৯ মাস মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন নারীকর্মীরা!

৯ মাস মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন নারীকর্মীরা!

নারীকর্মীদের জন্য ৯ মাস মাতৃত্বকালীন ছুটির ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকো বাংলাদেশ। সম্প্রতি রাজধানীর মহাখালীতে চাইল্ড ডে কেয়ার 'এঞ্জেলস নেস্ট' সেন্টারে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেন বিএটি বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শেহজাদ মুনিম। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, 'এঞ্জেলস নেস্ট' মূলত বিএটি বাংলাদশের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সন্তানদের জন্য স্থাপিত একটি চাইল্ড ডে কেয়ার সেন্টার। বিএটি বাংলাদেশ মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনায় বরাবরই নতুন সব দৃষ্টান্ত স্থাপন করে এসেছে। 'এঞ্জেলস নেস্ট' সেই দৃষ্টান্তের একটি। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সর্বাধুনিক সুযোগ-সুবিধা এবং কর্মজীবী মা-বাবাদের সন্তানদের দিবাকালীন পরিচর্যা এবং নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে সম্পূর্ণ নতুন ও ভিন্ন আঙ্গিকে সাজানো হয়েছে। এর ফলে অভিভাবকরা নির্ভাবনায় 'এঞ্জেলস নেস্ট' সন্তানদের রেখে স্বাচ্ছন্দ্যে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে পারবেন।
ভালোবাসা দিবসে কী উপহার দেবেন?

ভালোবাসা দিবসে কী উপহার দেবেন?

বছরের বিশেষকিছু দিন থাকে, যা অন্যান্য দিনের থেকে আলাদা। বিশ্ব ভালোবাসা দিবসও তেমনই একটি দিন। ভালোবাসার জন্য বিশেষ দিনের প্রয়োজন পড়ে কি না, এই নিয়ে তর্ক-বিতর্ক আছেই। তবে যারা এই দিনটি পালন করার পক্ষে, তাদের প্রয়োজন কিছু প্রস্তুতি। বিশেষ দিনে প্রিয় মানুষটিকে বিশেষ কোনো উপহার দেয়ার রীতি বহুদিনের। তাই ভালোবাসা দিবসও এর ব্যতিক্রম নয়। আরও পড়ুন: পছন্দের পুরুষকে জানবেন যেভাবে ভালোবাসা দিবসের উপহার হিসেবে প্রিয় মানুষটিকে কী দেবেন, এই নিয়ে মুশকিলে পড়েন অনেকেই। তাই আপনাদের সমস্যার সমাধানে জেনে নিন কিছু উপহারের নাম- উপহার হিসেবে বইয়ের চেয়ে ভালো কিছু হতে পারে না। ভালোবাসা দিবসে প্রিয়জনকে খুশি রাখতে তাই দিতে পারেন রোমান্টিক ঘরানার কবিতা, গল্প বা উপন্যাসের বই। তবে তার আগে জেনে নিন, প্রিয় মানুষটি বই পড়তে ভালোবাসেন কি না। ফুল ভালোবাসেন সবাই। তাজা একগুচ্ছ গোলাপ অথবা নানা ধরনের ফুল মিলিয
বসন্তে অসুখ থেকে দূরে থাকবেন যেভাবে

বসন্তে অসুখ থেকে দূরে থাকবেন যেভাবে

বসন্তে রঙিন ফুলের মন মাতানো গন্ধে কাজ করে ভালোলাগা। আবার এই সময়েই প্রকোপ বাড়ে নানা অসুখ-বিসুখের। হঠাৎ পরিবর্তিত আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে চলাটা একটু মুশকিল হয়ে যায়। বসন্তে অতি সক্রিয় হয়ে ওঠে কিছু ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া। ফলে ভিতর থেকে শরীর শক্তপোক্ত না হলে ঋতু পরিবর্তনের ধাক্কা সামলানো কঠিন হয়ে যায়।   আরও পড়ুন: ওষুধ ছাড়াই দূর করুন টনসিলের ব্যথা ভাইরাল ফিভার, শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা ও চামড়ার অসুখের প্রকোপ বাড়ে বসন্তে। এছাড়া পেটের গোলমাল বা অন্যান্য অসুখবিসুখও থাকে।   শীতে সাধারণত সবাই ভাজাভুজি বা মিষ্টিজাতীয় খাবার বেশি খেয়ে ফেলেন, শরীর গরম রাখার জন্য বাড়তি ক্যালোরির প্রয়োজনও হয়।     আবার এই ধরনের খাবারের কারণেই কখনো কখনো কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগতে হয়, কখনো আবার ডায়েরিয়া বা ইনফ্ল্যামেটরি বাওয়েল ডিজিজ বিরক্ত করে। অতিরিক্ত ভাজাভুজি বা মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়ার ফলে
বসন্তে অসুখ থেকে দূরে থাকবেন যেভাবে

বসন্তে অসুখ থেকে দূরে থাকবেন যেভাবে

লাইফ ষ্টাইল ডেস্ক :: বসন্তে রঙিন ফুলের মন মাতানো গন্ধে কাজ করে ভালোলাগা। আবার এই সময়েই প্রকোপ বাড়ে নানা অসুখ-বিসুখের। হঠাৎ পরিবর্তিত আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে চলাটা একটু মুশকিল হয়ে যায়। বসন্তে অতি সক্রিয় হয়ে ওঠে কিছু ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া। ফলে ভিতর থেকে শরীর শক্তপোক্ত না হলে ঋতু পরিবর্তনের ধাক্কা সামলানো কঠিন হয়ে যায়। ভাইরাল ফিভার, শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা ও চামড়ার অসুখের প্রকোপ বাড়ে বসন্তে। এছাড়া পেটের গোলমাল বা অন্যান্য অসুখবিসুখও থাকে। শীতে সাধারণত সবাই ভাজাভুজি বা মিষ্টিজাতীয় খাবার বেশি খেয়ে ফেলেন, শরীর গরম রাখার জন্য বাড়তি ক্যালোরির প্রয়োজনও হয়। আবার এই ধরনের খাবারের কারণেই কখনো কখনো কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগতে হয়, কখনো আবার ডায়েরিয়া বা ইনফ্ল্যামেটরি বাওয়েল ডিজিজ বিরক্ত করে। অতিরিক্ত ভাজাভুজি বা মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়ার ফলে গা গোলানো, বমি বা পেট ফাঁপার সমস্যাতেও ভোগেন অনেকে৷ যেসব নিয়ম ম
পেটের মেদ কমানোর সবচেয়ে সহজ উপায়

পেটের মেদ কমানোর সবচেয়ে সহজ উপায়

ওজন বাড়তে শুরু করলে সবার আগে পেটের মেদটাই আগে চোখে পড়ে। অনেকক্ষেত্রে ওজন কমলেই পেটের মেদ ঠিকই সগৌরবে টিকে থাকে। বিশেষ করে যারা দীর্ঘ সময় বসে কাজ করেন, তাদের ক্ষেত্রে পেটের মেদ বৃদ্ধি একটি কমন সমস্যা। খাওয়াদাওয়ার ক্ষেত্রে অল্প-বিস্তর নিয়ম মানা সম্ভব হলেও, আলাদা করে জিমে গিয়ে মেদ ঝরানো সম্ভব হয় না বেশির ভাগেরই।   সহজ একটি কৌশল মেনে চললে পেটের মেদকে দূর করা যায় সহজেই। এটি এমনই এক সহজ কৌশলের উপায়, যা অভ্যাস করতে আলাদা করে সময় বার করতে হবে না। বাড়িতে কিংবা অফিসে যেকোনো ব্যস্ততার মধ্যেই সেরে ফেলা সম্ভব এই ব্যায়াম। এটি নিয়মিত অভ্যাসে হু হু করে কমবে পেটের মেদ। জেনে নিন এই সহজ ব্যায়ামটির উপায়-   শিরদাঁড়া সোজা রাখুন। বসে, শুয়ে বা দাঁড়িয়ে যেকোনো অবস্থাতেই এই ব্যায়াম করা যায়। লম্বা করে শ্বাস নিয়ে তা ধরে থাকুন। শ্বাস নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পেটের পেশি সঙ্কুচিত করে পেটকে ভিতরের দিকে ট
পেটের মেদ কমানোর সবচেয়ে সহজ উপায়

পেটের মেদ কমানোর সবচেয়ে সহজ উপায়

লাইফস্টাইল ডেস্ক :: ওজন বাড়তে শুরু করলে সবার আগে পেটের মেদটাই আগে চোখে পড়ে। অনেকক্ষেত্রে ওজন কমলেই পেটের মেদ ঠিকই সগৌরবে টিকে থাকে। বিশেষ করে যারা দীর্ঘ সময় বসে কাজ করেন, তাদের ক্ষেত্রে পেটের মেদ বৃদ্ধি একটি কমন সমস্যা। খাওয়াদাওয়ার ক্ষেত্রে অল্প-বিস্তর নিয়ম মানা সম্ভব হলেও, আলাদা করে জিমে গিয়ে মেদ ঝরানো সম্ভব হয় না বেশির ভাগেরই। সহজ একটি কৌশল মেনে চললে পেটের মেদকে দূর করা যায় সহজেই। এটি এমনই এক সহজ কৌশলের উপায়, যা অভ্যাস করতে আলাদা করে সময় বার করতে হবে না। বাড়িতে কিংবা অফিসে যেকোনো ব্যস্ততার মধ্যেই সেরে ফেলা সম্ভব এই ব্যায়াম। এটি নিয়মিত অভ্যাসে হু হু করে কমবে পেটের মেদ। জেনে নিন এই সহজ ব্যায়ামটির উপায়- শিরদাঁড়া সোজা রাখুন। বসে, শুয়ে বা দাঁড়িয়ে যেকোনো অবস্থাতেই এই ব্যায়াম করা যায়। লম্বা করে শ্বাস নিয়ে তা ধরে থাকুন। শ্বাস নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পেটের পেশি সঙ্কুচিত করে পেটকে ভিতরের দি
ইলিশের মাথা ভর্তার রেসিপি

ইলিশের মাথা ভর্তার রেসিপি

লাইফস্টাইল :: গলায় কাঁটা বিঁধে যাওয়ার ভয়ে ইলিশ মাছের মাথা ও লেজ খেতে চান না অনেকেই। কিন্তু সুস্বাদু এই মাছের কোনো অংশই ফেলনা নয়। ইলিশের মাথা দিয়েই তৈরি করা যায় সুস্বাদু ভর্তা। কী ভাবছেন, কাঁটার ভয়? একদমই নেই! চলুন তবে রেসিপি জেনে নেই- উপকরণ: রান্না করা ইলিশের মাথা- ১টি, পেঁয়াজ কুচি- বড় ১টি, শুকনা মরিচ টালা- ৬-৭টি, সরিষার তেল- প্রয়োজনমতো, লবণ- স্বাদমতো। প্রণালি: রান্না করা ইলিশের তরকারি থেকে মাথাটা তুলে নিন। চাইলে লেজ অংশটিও নিতে পারেন। এবার ইলিশের মাথা ও লেজের অংশটি প্রেশারকুকারে রেখে এমনভাবে পানি দেবেন যেনো মাথাটির ওপরে এক ইঞ্চি পানি থাকে। পানি কম হলে মাছ পুড়ে যেতে পারে। এইবার প্রেশার কুকারের ঢাকনাটি লাগিয়ে চুলায় ফুল আঁচে জ্বাল দিন। প্রেশারকুকারের একটি সিটি বাজলেই আঁচ মৃদু থেকে মাঝারি করে আধা ঘন্টা থেকে চল্লিশ মিনিট জ্বাল দিন। চল্লিশ মিনিট পর আঁচ নিভিয়ে দিন। প্রেশারকুকা