সময়ের প্রলাপ

আত্নকথন ::: রোটারেক্ট এবং আমি  . . .

আত্নকথন ::: রোটারেক্ট এবং আমি . . .

মাহফুজ আদনান ::: রোটারেক্ট জেলার মাসিক ভুলেটিনে রোটারেক্ট নিয়ে লেখা চেয়েছেন বাংলাদেশের রোটারেক্ট জেলা ৩২৮২ এর জেলা প্রতিনিধি রোটারেক্টর পিপি জিয়াউদ্দিন হায়দার শাকিল । রোটারেক্ট ইতিহাস নিয়ে নতুন কিছু লিখার প্রয়োজন বোধ করি না । কেননা আমার, আমাদের প্রিয় সংগঠন রোটারেক্ট নিয়ে এর আগে অনেক সিনিয়র নেতৃবৃন্দ লিখেছেন । আর ইন্টারনেট এর যুগে রোটারেক্ট হিস্টোরি গুগল সাহেবের কাছে সার্চ দিলেই বেরিয়ে আসবে । রোটারেক্ট থেকে কি পেয়েছি বা পাচ্ছি আর রোটারেক্ট আন্দোলন নিয়ে নিজের কিছু সুন্দর সময়গুলোর কথা তুলে ধরবো । বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ সংগঠন রোটারি ইন্টারন্যাশনালের অন্যতম বৃহৎ একটি যুব সংগঠন । ১৩ মার্চ ১৯৬৮ রোটারেক্ট সংগঠনের যাত্রা । রোটারেক্ট ক্লাব অব মদন মোহন কলেজের একজন সাধারণ সদস্য হিসেব আমার পথচলা শুরু । আসলে রোটারেক্ট কি সেটা আমি জানতাম না । আমার মামা রোটারেক্ট ক্লাব অব সিলেট এমসি কলেজের স
রোহিঙ্গাদের নির্যাতন বন্ধে চুপ থাকা যায় কি ?

রোহিঙ্গাদের নির্যাতন বন্ধে চুপ থাকা যায় কি ?

মাহফুজ আদনান : বিশ্বের বুকে চলমান অনেক ঘটনা মানবমনে নাড়া দেয় । দেবে বা কেন আমরা সবাই যে রক্ত মাংস গড়া মানুষ । প্রশ্ন থাকতে পারে তাহলে গত মাস যাবত মায়ানমার সেনাবাহীনি সাধারণ বেসামরিক মানুষের উপর যে হত্যা-নির্যাতন, ধর্ষণ করছে তারা কি মানুষ ? আসলে এসবের হিসাব কষতে হলে ফিরে যেতে পুরনো ইতিহাসে । আসলে এরা মানুষরুপি পশু । আদিমযুগের সকল বর্বরতাকে তারা হার মানিয়েছে । তা না হলে কিভাবে পারে  পিতার চোখের সামনে মেয়েকে ধর্ষণ, অবুঝ শিশুকে কেটে টুকরো টুকরো করা, জীবন্তু মানুষকে পুড়য়ে ফেলা । আবার গুলি করে মেরে মৃত শরীরকে টুকরো টুকরো করা । মানব ইতিহাসের এক চরম ঘৃন্য নির্যাতনে মেতে উঠেছে মায়ানমারের সেনাবহিনী । না এই সব কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব ঈমানি দায়িত্ব । সেই দায়িত্ব পালনে ইতি মধ্যে প্রতবাদী হয়ে উঠেছে বাংলাদেশসহ বিশ্বের প্রবাসী অধ্যুষিত শহর গুলোতে । সবাই যে যার অবস্থান থে
কেমন বাংলাদেশ চাই ?

কেমন বাংলাদেশ চাই ?

মাহফুজ আদনান ::: প্রথা বিরোধী লেখক ও গবেষক ডঃ হুমায়ুর আজাদ’র একটি বিখ্যাত গ্রন্থ ‘ছাপান্ন হাজার বর্গমাইল’ যেখানে এই অনার্য শব্দ যোদ্ধা নির্ভীক শেরপা আমাদের স্বাধীন বাংলাদেশের অবক্ষয়-নষ্টামীর চিত্র করুণ অথচ নির্মোহ দৃষ্টিতে চিত্রায়ন করেছেন। দীর্ঘশ্বাসের ভঙ্গিমায় প্রশ্ন তুলেছেন এই যে বাংলাদেশ তা কেমন চেয়েছিলাম কেমন হয়েছে আর কেমন হবে। কিন্তু বেদনাই চেতনার শেষ চিত্র নয়। এখনও সামনে যথেষ্ট সময় রয়েছে পাল্টে যাবার, পাল্টে দিবার এজন্য একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে না। আমাদের নিজস্ব সম্পদই যথেষ্ট। এখন প্রশ্ন গ্যাস খনির এই দেশে আমাদের মাথাপিছু আয় বাড়ছে না কেন ? এর প্রধান কারণ আমাদের রাজনৈতিক ব্যর্থতা, বুদ্ধিজীবিদের লেজুড় বৃত্তি, রাষ্ট্রীয় ব্যাপারে বেশিরভাগ মানুষের নির্লিপ্ততা। কেন এই অবস্থা ? নাগরিক কখন রাষ্ট্র সম্মন্ধে উদাসীন হয়, যখর রাষ্ট্রীয় প্রশাসন একপেশে, আমলাতান্ত্রীক জটিলতায় সুস্পষ্

আমাদের নিরন্তুর পথচলা . . .

মাহফুজ আদনান ::: বাংলানিউজইউএসডটকম । এই অনলাইন দৈনিকটি নিয়ে আমাদের পথচলা ।আমাদের বলতে আমি আর আমার কয়েকজন বন্ধূ, বড়ভাইয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় ২০১৫ সালের পহেলা বৈশাখ থেকে আজ অবধী পরীক্ষামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছি অনলাইন দৈনিকটির । আমরা দিন দিন পরিণত হচ্ছি । প্রতিদিনই আমরা নতুন কিছু শিখছি । প্রতিদিনই আমাদের নিউজটিম চেষ্টা করছে আপনাদের ভালো কিছু উপহার দিতে । পজিটিভ গ্রুপ অব মিডিয়া আইটি ইভেন্ট এন্ড ট্যুরিজম সংগঠনের ছোট্র পরিসরের এই অনলাইন সেবায় আমরা সকলের ভালোবাসা পেয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি । সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত উদ্যোগে আমাদের নিরন্তুর পথচলা । আমাদের অতিক্রম করতে হবে আরো অনেক পথ । সংক্ষিপ্ত পরিসরে শুরু করা অনলাইনটি চালিয়ে যাচ্ছি আমরা । আমাদের নিউজটিম চেষ্টা করছে ভালো কিছু করার । এরপরেও আরো অনেক ত্রুটি আছে যে গুলো শুধরাবো আমরা । নিজস্ব প্রতিনিধিদের দিয়ে আমরা চাইছি পাঠকদের তরতাজা খ

ভাষা দিবসের ভাবনা চিন্তা . . .

মাহফুজ আদনান ::::::: মহান ভাষা দিবসের দিন আজ । এই দিনে আমরা হারিয়েছি বাংলার সূর্য সন্তানদের । আমরা যারা বয়সে নবীন । এই দেশ এই সমাজ নিয়ে আমরা খুব কমই চিন্তা করি । সময়ের কাছে আমরা বন্দি । কিন্তু সময়কে সাথে নিয়ে তো চলতে হবে । তাই পুরনো সময়গুলোকে একটু ভেবে দেখতে হয়। পশ্চিম পাকিস্তান আর পূর্ব পাকিস্তান । এই দুটি দেশ ব্রিটিশদের থেকে ভাগ হবার পর । শুরু হয় নতুন রাজনৈতিক মেরুকরণ । রাজনীতির ত্রাসে দ্বগ্ধ হয়ে । আমরা মহান ভাষা শহীদদের হারিয়েছি । উর্দু যখন বাংলার ভাষা ঘোষনা করা হয় । ঠিক তখনি রাজপথে নেমে আসেন সালাম, বরকত, রফিক, জব্বারসহ অংসখ্য মানুষ। পুলিশের গুলিতে রাজপথ ভেসে যায় । আমরা হারাই বাংলার সূর্য সন্তানদের । ভাষা হিসেবে বাংলাকে প্রতিষ্ঠিত করতে যারা জীবন বিসর্জন দিয়েছেন । তাদের অবদান আমরা বাঙ্গালী জাতি কোনদিন ভুলবো না । আর ভুলে গেলে আমাদের অস্তিত্ব থাকবে না। এরপর ধারাবাহিকভাবে আমরা