স্পোর্টস

ভাগ্যকে দুষতে রাজি নন ব্রাজিলের কোচ

ভাগ্যকে দুষতে রাজি নন ব্রাজিলের কোচ

ইতিহাস কিংবা র‍্যাংকিং নয়, কোয়ার্টার ফাইনালে মাঠের খেলাতেও বেলজিয়ামের চেয়ে ঢের এগিয়ে ছিল ব্রাজিল। সুযোগ তৈরি করা কিংবা বল ধরে রাখা, সব পরিসংখ্যানেই এগিয়ে থাকা দলের নাম ব্রাজিল। তবু গোলসংখ্যায় পিছিয়ে থাকায় পরাজিত দলে থেকেই শেষ হয়েছে ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্বপ্ন।   ম্যাচ শেষে অনেকেই ব্রাজিলের পরাজয়ে দুষেছেন ভাগ্যকে, ভাগ্যের পরিহাসেই ব্রাজিলের যাত্রা থামল বলেও মন্তব্য করেছেন কেউ কেউ। তবে দলের কোচ তিতে মনে করেন খেলার মাঠে ভাগ্য বলে কিছু নেই। বেলজিয়াম ভালো খেলেছে বলেই ম্যাচ জিতেছে বলে মনে করেন ব্রাজিলের কোচ।       ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিতে বলেন, ‘ফুটবলে অনেকসময় অনেক কিছুই হয়। তবে আমি ভাগ্যের ব্যাপারে কথা বলতে আগ্রহী নই। যেখানে আমাদের সুযোগ আছে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে দেয়ার সেখানে আমি ভাগ্যে বিশ্বাস করি না।’   পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলেছেন বেলজিয়ামের
শুধু লুকাকুকে নিয়েই ভাবছে না ব্রাজিল

শুধু লুকাকুকে নিয়েই ভাবছে না ব্রাজিল

এখনো পর্যন্ত তিন ম্যাচ খেলে ৪ গোল করেছেন বেলজিয়ামের ফরোয়ার্ড রোমেলু লুকাকু। বেশ ভালোভাবেই রয়েছেন গোল্ডেন বুটের দৌড়ে। ব্রাজিলের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াইয়ে বেলজিয়ামের অন্যতম প্রধান অস্ত্র এই লুকাকুই।   ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এই তারকার উড়ন্ত ফর্মের কথা অজানা নয় ব্রাজিল শিবিরেও। তবে শুধুমাত্র লুকাকুকে নিয়েই ভাবছে না ব্রাজিল। বেলজিয়াম দলে আরও অনেক বিধ্বংসী খেলোয়াড় আছে বলেই মানছেন কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের অধিনায়কত্ব পাওয়া মিরান্দা।       ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে মিরান্দা বলেন, ‘বেলজিয়ামে লুকাকু একাই খেলে না। নিশ্চিতভাবেই তারা খুবই শক্তিশালী দল। তাদের আক্রমণভাগ বিধ্বংসী। তবে প্রতিপক্ষের আক্রমণ রুখে দিতে সকল খেলোয়াড়ের প্রতি সমান মনোযোগ দিতে হবে। কারও প্রতি আলাদা খেয়াল রাখতে গিয়ে অন্যদের ছেড়ে দেয়ার সুযোগ নেই।’   শুক্রবার বাংলাদেশ সম
চার চ্যাম্পিয়ন আর চার নতুনের সেমিতে ওঠার লড়াই

চার চ্যাম্পিয়ন আর চার নতুনের সেমিতে ওঠার লড়াই

  ২০টি বিশ্বকাপের শিরোপা ভাগ করে নেয়া আট দেশের ৭টি ছিল এবারের বিশ্বকাপে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চারবার চ্যাম্পিয়ন হওয়া ইতালি বাদ পড়েছিল বাছাই পর্ব থেকেই। বাকি সাত চ্যাম্পিয়নের মধ্যে জার্মানি বিদায় নিয়েছে গ্রুপ পর্ব থেকেই। আর্জেন্টিনা এবং স্পেন বিদায় নিয়েছে দ্বিতীয় পর্ব থেকেই।   তৃতীয় ধাপে এসে বিশ্বকাপ যেমন নতুন চ্যাম্পিয়ন পাওয়ার সম্ভাবনায় দাঁড়িয়ে, তেমন পুরনো কারও গলায়ই মালা দিতেও। কোয়ার্টার ফাইনালে সাবেক চার চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল, ফ্রান্স, ইংল্যান্ড ও উরুগুয়ের সঙ্গে সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে আছে স্বাগতিক রাশিয়া, ক্রোয়েশিয়া, সুইডেন এবং বেলজিয়াম।   নকআউট পর্ব মানেই বিশ্বকাপের দলগুলোর আসল লড়াই। যেখানে পা হড়কালেই সর্বনাশ। দ্বিতীয় পর্ব থেকে প্রতিটি ম্যাচই ফাইনালের মতো। সেই ফাইনালের আগে ফাইনাল বাধা টপকাতে পারেনি মেসিদের আর্জেন্টিনা, ওজিল-মুলারদের জার্মানি আর ইনিয়েস্তাদের স্পে
টাইব্রেকার জয় করে শেষ আটে ইংল্যান্ড

টাইব্রেকার জয় করে শেষ আটে ইংল্যান্ড

বিশ্বকাপে টাইব্রেকারে পৌঁছে তিন ম্যাচের তিনটিতেই হেরেছিল ইংল্যান্ড। অবশেষে টাইব্রেকার জয় করলো ইংলিশরা। কলম্বিয়াকে ভাগ্য পরীক্ষায় হারিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ আটে উঠেছে সাউথগেটের শিষ্যরা।   দ্বিতীয়ার্ধে পেনাল্টি থেকে হ্যারি কেইনের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ড। যোগ করা সময়ে দুর্দান্ত হেডে সমতা ফেরান ইয়েরি মিনা। অতিরিক্ত সময়েও ম্যাচে ছিল ১-১ সমতা। অবশেষে টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে জিতে উচ্ছ্বাসে ভাসে ইংল্যান্ড।   আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ হয়েছে কিন্তু উল্লেখযোগ্য সুযোগ এসেছে কম। দুই দল মিলিয়ে মাত্র ছয়টি শট ছিল লক্ষ্যে; কলম্বিয়া ৪টি, ইংল্যান্ড ২টি। টাইব্রেকার রোমাঞ্চ ফিরিয়ে না আনলে এটি হতো শেষ ষোলোর সবচেয়ে ম্যাড়ম্যাড়ে লড়াই। ম্যাচে ফাউল হয়েছে ৩৬ বার। মোট ৮ জন খেলোয়াড় হলুদ কার্ড দেখেছেন, যার মধ্যে কলম্বিয়ার ছয়জন।   মস্কোর স্পার্তাক স্টেডিয়ামে ম্যাচের প্রথম সুযোগটা কাজে লাগা
নেইমার জাদুতে মেক্সিকোকে হারিয়ে কোয়ার্টারে ব্রাজিল

নেইমার জাদুতে মেক্সিকোকে হারিয়ে কোয়ার্টারে ব্রাজিল

ফেবারিটদের পতনের বিশ্বকাপে পাঁচবারের বিশ্বকাপ জয়ী ব্রাজিল দ্বিতীয় রাউন্ডেই কঠিন লড়াইয়ের সামনে পড়ে মেক্সিকর সঙ্গে। ম্যাচের শুরুতেই শক্ত রক্ষণভাগ নিয়ে একাদশ সাজায় মেক্সিকো। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ব্রাজিলকে রুখতে পারেনি মেক্সিকো। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে নেইমারে যাদুতে মুখ থুবড়ে পরে মেক্সিকান রক্ষণভাগ। ম্যাচে নিজে একটি গোল করার পাশাপাশি ফিরমিনোর গোলেও অবদান রাখেন নেইমার। মেক্সিকোকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়ে কোয়ার্টারে ওঠলো ব্রাজিল।   পুরো ম্যাচেই ব্রাজিলের সঙ্গে সমান তালে লড়েছে বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে জার্মানিকে হারানো মেক্সিকো। ম্যাচের দুই মিনিটে আক্রমণ করে বসে মেক্সিকো। ডান পাশ থেকে ডি বক্সের বাইরে লোজানোর শট মিরান্ডার গায়ে লেগে প্রতিহত হয়। ৫ মিনিটে ম্যাচে প্রথমবারের মোট গোলমুখে শট নেয় ব্রাজিল। ২০ গজ দূর থেকে নেইমারের নেওয়া দুর্দান্ত শট রুখে দেন ওচোয়া।       মাঝে পুরো
তিন পেনাল্টি ঠেকিয়ে ক্রোয়েশিয়ার নায়ক সুবাসিচ

তিন পেনাল্টি ঠেকিয়ে ক্রোয়েশিয়ার নায়ক সুবাসিচ

পেনাল্টি শ্যুটআউট, দর্শকরা ধরেই নেন গোল হওয়ার সম্ভাবনা ৯০-৯৫ ভাগ। ভালো গোলরক্ষকেরও কিছু করার থাকে না, যদি সঠিক জায়গায় শটটি নিতে পারেন শ্যুটার। ভাগ্যের একটা ব্যাপার আছে। তবে বুদ্ধিমত্তাকেও আপনি একেবারে অগ্রাহ্য করতে পারবেন না। অনেক সময় খেলোয়াড়ের চেহারা দেখে গোলরক্ষক আন্দাজ করে ফেলেন, কোনদিকে শটটা আসতে পারে। অনেক সময় আবার শ্যুটারকে নার্ভাসও করে ফেলেন তারা। যার ফলশ্রুতিতে সহজ সুযোগও নষ্ট করে ফেলেন কেউ কেউ।   বুদ্ধিমত্তার এই ভেলকিতে হয়তো দুই-একটি শট ঠেকিয়ে দেয়া সম্ভব। তবে ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক ড্যানিয়েল সুবাসিচ রোববার রাতে যা করে দেখালেন, অনেকেরই হয়তো শুনে বিশ্বাস হবে না। যারা খেলা দেখেছেন, তাদেরই তো বিশ্বাস করতে কষ্ট হয়েছে! একটি বা দুটি নয়; তিন-তিনটি পেনাল্টি শট ঠেকিয়ে দিয়েছেন মোনাকোর এই গোলরক্ষক। যার অবিশ্বাস্য নৈপুন্যেই শ্বাসরুদ্ধকর এক ম্যাচে ডেনমার্ককে টাইব্রেকারে হারিয়ে কোয়ার্টা
মেসির যেখানে শেষ, এমবাপের সেখানে শুরু

মেসির যেখানে শেষ, এমবাপের সেখানে শুরু

‘তোমার হল শুরু, আমার হল সারা’- কাজান এরেনায় ফ্রান্সের বিপক্ষে আর্জেন্টিনার ম্যাচ শেষে কবি গুরু রবীন্দ্রনাথের এই গানটি বাজিয়ে দিলো মন্দ হতো না। ফুটবল সাম্রাজ্য শাসন তো গত ১০টি বছর করলেন লিওনেল মেসি। জীবনের হয়তো শেষ বিশ্বকাপ খেলতে এসেছিলেন এবার রাশিয়ায়। কিন্তু তরুণ এক ফরাসী ফুটবলার, কাইলিয়াম এমবাপে যেভাবে মেসির হাত থেকে সাম্রাজ্যের মুকুটটা কেড়ে নিলেন, সেটাই বড় করুণ।   ফ্রান্স ফুটবল দলটি মোটেও আর্জেন্টিনার চেয়ে অভিজ্ঞ নয়। কিন্তু তুমুল প্রতিভার স্ফুরণ ঘটিয়েছেন কোচ দিদিয়ের দেশম। কয়েকজন অভিজ্ঞ ফুটবলারের সঙ্গে একঝাঁক তরুণ প্রতিভা। প্রতিটি জায়গায় সেরা কম্বিনেশন তৈরি করেছেন তিনি। ফরাসিদের এই কম্বিনেশন ভাঙা বড় কোনো অভিজ্ঞ এবং পেশাদার দলের পক্ষে অসম্ভব। যেটা পারেনি আর্জেন্টিনার মত দলও।       ফ্রান্সের এই নতুন বিপ্লব, তার কেন্দ্র বিন্দু কিন্তু আন্তোনিও গ্রিজম্যান
আর্জেন্টিনার বিদায়!

আর্জেন্টিনার বিদায়!

লাখো ভক্তকে কাঁদিয়ে বিশ্বকাপের ২১তম আসর থেকে বিদায় নিয়েছে অন্যতম হট ফেভারিট দল আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচে নবাগত আইসল্যান্ডের সাথে ১-১ গোলে ড্র করে তারা। পরে দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে বড় ব্যবধানে হার নিভু নিভু হয়েছিল আর্জেন্টিনার যে আশার প্রদীপটি, আইসল্যান্ডকে হারিয়ে সেই প্রদীপে আবার নতুন করে জ্বালানি দেয় নাইজেরিয়া।     নাইজেরিয়ার বিপক্ষে লিওনেল মেসির ১৪ মিনিটের গোলে ১-০ তে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে তারা। তবে বিরতির পর পেনাল্টি থেকে গোল করে তাদের হতাশ করে নাইজেরিয়া। খেলা শেষ হওয়ার ৪ মিনিট আগে রোহোর দুর্দান্ত গোলে ২-১ গোলে জিতে শেষ ষোলোতে পৌঁছে আর্জেন্টিনা।     এরপর দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম ম্যাচে আর্জেন্টিনাকে মুখোমুখি হতে হয় ফ্রান্সের। বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় শুরু হয় এই হাই-ভোল্টেজ ম্যাচ।     শুরু থেকেই ছন্দময় খ
ফ্রান্সের বিপক্ষে দেখা যাবে ‘অদম্য’ আর্জেন্টিনাকে

ফ্রান্সের বিপক্ষে দেখা যাবে ‘অদম্য’ আর্জেন্টিনাকে

বেশ কষ্টে সৃষ্টে গ্রুপ পর্বের বাঁধা পেরিয়েছে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দেশ আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয় রাউন্ডে তাদের প্রতিপক্ষ দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ফ্রান্স। শনিবার কাজান এরেনায় শেষ আটের টিকিট পাওয়ার লড়াইয়ে মাঠে নামবে এই দুই দল। ম্যাচে নেতিবাচক যেকোন ফলাফলেই বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাবে এক দল।   তবে আর্জেন্টাইন কোচ হোর্হে সাম্পাওলির ভাষ্য তার দল আর্জেন্টিনা হার মানবে না। ফ্রান্সের বিপক্ষে অদম্য মানসিকতা নিয়েই খেলতে নামবে আলবিসেলেস্তেরা। ম্যাচের আগের দিন আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে এই কথা জানান আর্জেন্টাইন কোচ।       দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে দলের জন্য, দেশের জন্য কিছু করার যে তাড়না, যে তাগিদ তিনি দেখছেন সেটিই আর্জেন্টিনার জয়ের অন্যতম নিয়ামক বলে মনে করেন সাম্পাওলি। তবে শুধু আবেগ দিয়েই যে ম্যাচ জেতা যাবেনা সে ব্যাপারেও সতর্ক আছেন আর্জেন্টাইন কোচ।   সাম্পাওলি বল
আয়ারল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের মেয়েদের সিরিজ জয়

আয়ারল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের মেয়েদের সিরিজ জয়

ক্রিকেটে বাংলাদেশের মেয়েদের উন্নতি চোখে পড়ছে বেশ। কদিন আগে ভারতের মতো শক্তিশালী দলকে হারিয়ে এশিয়া কাপের শিরোপা জেতে সালমা খাতুনের দল। এবার আয়ারল্যান্ডের মাটিতে এক ম্যাচ হাতে রেখেই টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতে নিয়েছে টাইগ্রেসরা।   প্রথম টি-টোয়েন্টিতে রোমাঞ্চকর লড়াই হয়েছিল। একেবারে শেষ বলে ৪ উইকেটে জিতেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। এবারও জয়ের ব্যবধানটা একই, তবে শেষ বল পর্যন্ত যেতে হয়নি। ৫ বল হাতে রেখেই আইরিশদের ৪ উইকেটে হারিয়েছেন সালমা-জাহানারারা। এই জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ।       ডাবলিনে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং নিয়েছিল আয়ারল্যান্ড। ৮ উইকেটে তারা থামে ১২৪ রানে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬০ রান করেন ওপেনার সিসিলিয়া জয়েস। বাংলাদেশের মেয়েদের বোলিং তোপে বাকিদের কেউ ত্রিশের ঘরও ছুঁতে পারেননি। অধিনায়ক লরা ডেলানি করেন ২০ রান।   বাংলাদেশের