স্বাস্থ্য-পুষ্টি

ক্যান্সারের মতো রোগকেও প্রতিরোধ করে সফেদা

ক্যান্সারের মতো রোগকেও প্রতিরোধ করে সফেদা

ডেস্ক রিপোর্ট :: মিষ্টি ফল সফেদা। সামান্য একটু হাতের চাপেই খুলে যায়। মুখে দিলে নিমেষে মিলিয়ে যায়। থেকে যায় মিষ্টি রসের আস্বাদ। কেবল স্বাদে নয়, গুণেও অতুলনীয় এই সফেদা। ১) সফেদার মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ ও সি থাকে। ভিটামিন এ চোখের পক্ষে খুবই ভাল। আর শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন সি’র জুড়ি মেলা ভার। ২) সফেদায় প্রচুর পরিমাণে শর্করা রয়েছে। তাই ব্যস্ত দিনের আগে একটি সফেদা খেয়ে নিলে শরীর গোটা দিন চাঙ্গা থাকে। ৩) এতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকে। যা ওরাল ক্যাভিটি ক্যান্সারের মতো রোগকেও প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। ৪) সফেদায় প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস ও আয়রন রয়েছে। ফলে এটি যেমন আপনার হাড়ের জোর বাড়ায়, তেমনই শরীরে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা স্বাভাবিক রাখে। ৫) সফেদা আবার শরীরে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখতেও সাহায্য করে। ফলে রক্তচাপও নিয়ন্ত্রণে থাকে। ৬) একাধিক
হাজারো রোগ থেকে মুক্তি দেবে কাঁচামরিচ

হাজারো রোগ থেকে মুক্তি দেবে কাঁচামরিচ

প্রতিদিনের রান্নায় কাঁচামরিচ ছাড়া তো চিন্তাই করা যায় না। গরম ভাত, আলু সিদ্ধ আর ঘির সঙ্গে যদি কাঁচামরিচ থাকে, তবে তো কথাই নেই। কাঁচামরিচ শুধু যে খাবারের ঝাল করতে তা নয়, এ মরিচে রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। তবে কাঁচামরিচ তো খেয়েই যাচ্ছেন। তবে এই মরিচ কি শরীরের কোনো উপকারে আসে, নাকি ক্ষতি করে- ভেবে দেখেছেন কখনও। কাঁচামরিচ কেবল স্বাদ বাড়াবে না হাজারো রোগ থেকে মুক্তি দেবে। এতে রয়েছে বেশ কিছু স্বাস্থ্যকর দিকও।       তবে খুব বেশি কাঁচামরিচ খেতে নিষেধ করেছেন চিকিৎসকরা। বিশেষ করে শুকনো মরিচ। এতে খাদ্যনালির প্রাচীর ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মাত্রাতিরিক্ত ঝাল খেলে একটা সময়ের পর খাবার আর হজম হতে চায় না।   তবে অধিক পরিমাণে খাওয়া যাবে না। পরিমাণে কম খেতে হবে।   চিকিৎসকদের মতে, অনেক অসুখেরও দাওয়াই রয়েছে এই কাঁচামরিচ। কেন পাতে রাখবেন কাঁচামরিচ, আর কীভাবেই বা তা খেলে উপক
শরীরের যে কোনো ব্যথা নিরসনে অত্যন্ত কার্যকরী ৬টি খাবার

শরীরের যে কোনো ব্যথা নিরসনে অত্যন্ত কার্যকরী ৬টি খাবার

শরীর আছে আর ব্যথা থাকবে না, তা কি হয়? নিত্যদিনের জীবনে না জানি কত ধরণের ব্যথায় ভুগে থাকেন আপনি। অনেক ক্ষেত্রেই হয়তো সাথে সাথে ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়ার সুযোগ থাকে না। তখন কী করবেন? তাহলে জেনে রাখুন, এক্ষেত্রে খাবার হতে পারে একটি দারুন সমাধান। আসুন জেনে নেই এমন ৬টি খাবার সম্পর্কে, যেগুলো আপনাকে চটজলদি মুক্তি দিতে পারে অনেক প্রকারের ব্যথা হতেই!   ১. চেরি ফল : গবেষণাতে দেখা গেছে এই সুমিষ্ট ফলটি দেহের পেশীর পুনর্গঠন করতে সহায়তা করে। চেরি ফলের জুস অথবা হালকা সিদ্ধ চেরি খেলে শরীরের যেকোনো ব্যথা খুব দ্রুত নির্মূল হয়ে যায়।       ২. আদা : আদা খুবই উপকারী একটি ভেষজ খাবার। আয়ুর্বেদ অনুসারে প্রতিদিন খাবারে সতেজ বা শুকনা আদা যুক্ত করলে এটি শরীরের পেশী গঠনে সহায়তা করে পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের ব্যথা নিরসন করে থাকে। গবেষণা অনুসারে এটি আঘাত পেয়ে ফুলে যাওয়া অংশকেও স্
‘দেশের হাসপাতালে ১৫০ ভাগ আধুনিক সরঞ্জামাদি বৃদ্ধি পেয়েছে’

‘দেশের হাসপাতালে ১৫০ ভাগ আধুনিক সরঞ্জামাদি বৃদ্ধি পেয়েছে’

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, বর্তমান শেখ হাসিনা সরকারের আমলে দেশের ৬৪টি জেলার হাসপাতালে ১৫০ ভাগ বেড ও আধুনিক চিকিৎসা সরঞ্জমাদি বৃদ্ধি করা হয়েছে। ৪২টি পাবলিক সেক্টর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ১৮টি উচ্চতর বিশেষায়িত হাসপাতাল প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উন্নয়ন করা হয়েছে। পাশাপাশি বর্তমান সরকার প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের সব স্বাস্থ্যসেবা বিনামূল্যে প্রদান করছে।   মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কমনওয়েলথভুক্ত দেশসমূহের স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের ৭২তম সম্মেলনে আনুষ্ঠানিক বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এসব কথা বলেন।   সভায় ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের (ডব্লিউএইচও) নির্বাহী বোর্ডের ১৪৩ ও ১৪৪তম সভায় প্রতিবেদন উপস্থাপন, সংস্থাটির মহাপরিচালকের বক্তব্যের ওপর আলোচনা, নতুন সদস্য নির্বাচন, প্রোগ্রাম, বাজেট এবং নির্বাহী বোর্ডের আঞ্চল
ইঞ্জেকশনে শরীরে ফলের রস, মৃত্যুর মুখে চীনা নারী

ইঞ্জেকশনে শরীরে ফলের রস, মৃত্যুর মুখে চীনা নারী

স্বাস্থ্য সুরক্ষায় চীনের ‘অতি সচেতন’ এক নারী ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে ধমনিতে ফলের রস প্রবেশ করিয়ে মরতে বসেছিলেন।   বিবিসি জানায়, ৫১ বছরের ওই নারীর যকৃত, বৃক্ক, হৃদযন্ত্র, ফুসফুসসহ শরীরের অভ্যন্তরীণ অঙ্গপ্রত্যঙ্গ মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় পাঁচ দিন নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে মৃত্যুর সঙ্গে তাকে পাঞ্জা লড়তে হয়েছে। বর্তমানে তিনি সুস্থ আছেন।   হুনান প্রদেশের অ্যাফিলিয়েটেড হসপিটাল অব জিয়াংনান ইউনিভার্সিটিতে ওই নারী চিকিৎসা নেন।   চিকিৎসকরা বিবিসিকে জানান, ওই নারী অন্তত ২০ রকমের ফলের রস মিশিয়ে নিজের শরীরে ‘পুশ’ করেছিলেন।   চীনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পর দেশটিতে সাধারণ মানুষের মধ্যে ওষুধ সম্পর্কে ন্যূনতম জ্ঞান নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।   উইবোতে একজন লেখেন, “বোঝাই যাচ্ছে, চীনের সাধারণ মানুষের মধ্যে চিকিৎসা বিজ্ঞান সম্পর্কে ধারণা এখ
কমলা থেকে সাপের বিষের প্রতিষেধক

কমলা থেকে সাপের বিষের প্রতিষেধক

ডেস্ক রিপোর্ট :: কমলালেবু থেকে সাপের বিষের প্রতিষেধক আবিষ্কার করেছেন ভারতের এক গবেষক। ওই গবেষকের নাম শুভময় পান্ডা। এই অধ্যাপক বলছেন, কমলালেবুর মধ্যে রয়েছে সর্পপ্রতিষেধকের গুণ। কমলালেবুর মধ্যে থাকা হেসপেরেটিন কাজে লাগিয়ে অ্যান্টি ভেনাম সিরাম বা এভিসের সঙ্গে সংযোগ ঘটিয়ে প্রতিষেধক তৈরি হতে পারে গেছোবোড়া বা চন্দ্রবোড়া প্রজাতির সাপের কামড়ের। চন্দ্রবোড়া, গেছোবোড়া বা বাঁশবোড়া সাপের বিষ হিমোটক্সিন প্রকৃতির। কামড়ের সঙ্গে সঙ্গে মানবদেহের টিসুগুলোকে দ্রুত ধ্বংস করে দেয়। রক্ত থকথকে জেলির মতো হয়ে যায়। এতে কিডনির কার্যক্ষমতা হ্রাস পায়। ক্ষতস্থানে ধরে পচন। ফলে আক্রান্ত ব্যক্তিকে এভিএস ইঞ্জেকশন দিলেও তা অধিকাংশ সময়ে খুব একটা কার্যকর হয় না। এই সাপের বিষের প্রতিষেধকই লুকিয়ে রয়েছে কমলালেবুর মধ্যে। ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, কলকাতায় বেঙ্গল কেমিক্যাল বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর এ রাজ্যে ২০০৯
তেলের খনি নয়, সবচেয়ে বড় সম্পদ হলো জ্ঞান

তেলের খনি নয়, সবচেয়ে বড় সম্পদ হলো জ্ঞান

ডেস্ক রিপের্ট :: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেছেন, যুদ্ধাস্ত্রের কারখানা বা তেলের খনি নয়, সবচেয়ে বড় সম্পদ হলো জ্ঞান। এই জ্ঞান অর্জনের দিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। তিনি বলেন, অর্জিত জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে বিএসএমএমইউকে চিকিৎসাসেবা, চিকিৎসাশিক্ষা ও গবেষণায় বিশ্বমানে নিয়ে যেতে হবে। দেশের সকল মেডিকেল ও হাসপাতালে আসা রোগীদের দরদী মন নিয়ে যথাযথ চিকিৎসাসেবা প্রদানের মাধ্যমে তাদের মুখে হাসি ফোটাতে হবে। শনিবার বিএসএমএমইউ এ-ব্লকের অডিটোরিয়ামে মেডিকেল শিক্ষায় উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনের লক্ষ্যে মার্চ’২০১৯ সেশনে ভর্তিকৃত রেসিডেন্সি শিক্ষার্থীদের বরণ ও পরিচিতি অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা
বিসিপিএসের স্কিল ডেভলপমন্টে ল্যাবে এটিএলএস কোর্স চালু

বিসিপিএসের স্কিল ডেভলপমন্টে ল্যাবে এটিএলএস কোর্স চালু

বাংলাদেশের ট্রমা চিকিৎসা ব্যবস্থাপনায় চিকিৎসকদের দক্ষতা অর্জনে তথা দুর্ঘটনা কবলিত রোগীদের জরুরি চিকিৎসা সেবা প্রদানে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস্ অ্যান্ড সার্জনস্-এর (বিসিপিএস) স্কিল ডেভলপমন্টে ল্যাবরেটরিতে অ্যাডভান্সড ট্রমা লাইফ সাপোর্ট (এটিএলএস) কোর্স চালু হয়েছে।   বাংলাদেশ, ভারত, হংকং, মালয়েশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়া থেকে পাঁচটি বিষয়ের ১২ জন প্রশিক্ষক কোর্স পরিচালনা করছেন।   বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ থেকে পাস করা ১৬ জন সিনিয়র ফেলো চিকিৎসক এতে প্রশিক্ষণার্থী হিসেবে অংশ নিয়েছেন।   এ ছাড়া আগামী ১ ও ২ মার্চ অ্যাডভান্সড ট্রমা লাইফ সাপোর্ট (এটিএলএস) ইন্সট্রাকটর কোর্স কলেজের স্কিল ডেভেলপমেন্ট এটিএলএস ল্যাবে অনুষ্ঠিত হবে। ওই কোর্সেও বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ১৬ জন সিনিয়র ফেলো চিকিৎসক প্রশিক্ষণার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ নেবেন।       আজ (ম
বিএসএমএমইউ’র কেউ মারা গেলে শতভাগ বীমা সুবিধা পাবেন

বিএসএমএমইউ’র কেউ মারা গেলে শতভাগ বীমা সুবিধা পাবেন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) কর্মরত কেউ মারা গেলে তার পরিবারের সদস্যরা শতভাগ বীমা সুবিধা পাবে। এছাড়া কেউ চাকরি থেকে অবসরে গেলে তার জমাকৃত বীমার সমপরিমাণ টাকা ফেরৎ পাবেন। জীবন বীমা কর্পোরেশনের গোষ্ঠী বীমা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ চুক্তির আওতায় এ সুযোগ পাবেন তারা।   সম্প্রতি বিএসএমএমইউ-এর উপাচার্য়ের কার্যালয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে জীবন বীমা কর্পোরেশনের গোষ্ঠী মেয়াদী বীমা (গ্রুপ ইনসুরেন্স) সংক্রান্ত এ গুরুত্বপূর্ণ চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।   বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান এবং জীবন বীমা কর্পোরেশনের পক্ষে জেনারেল ম্যানেজার পারভীন সিদ্দিকা চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।   চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ূয়া ও জীবন বীমা কর্পোরেশনের চেয়ারম্য
ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস বৃহস্পতিবার

ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস বৃহস্পতিবার

প্রতিবারের মতো এবারও দেশব্যাপী ২৮ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) ‘ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস’ ও বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির ৬৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হবে। এবারের মূল প্রতিপাদ্য- ‘উন্নত ডায়াবেটিস-সেবা পেতে আজই ডিজিটাল নিবন্ধন করুন’।   এ উপলক্ষে ওইদিন সকাল সাড়ে ৮টায় জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে টিএসসি পর্যন্ত একটি পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। এতে সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ছাড়াও সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেবেন। দুপুর ১২টায় বারডেম অডিটোরিয়ামে (৩য় তলা) এক আলোচনাসভা আয়োজন করা হয়েছে।   বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এ কে আজাদ খানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি থাকবেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এবং বিশেষ অতিথি থাকবেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম। এছাড়া বক্তব্য রাখবেন সমিতির সহ-সভাপতি অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী, মহাসচিব মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ও বারডেমের মহা