স্বাস্থ্য-পুষ্টি

শিশুস্বাস্থ্য রক্ষায় মৌসুমী ফল ও শাক সবজি

শিশুস্বাস্থ্য রক্ষায় মৌসুমী ফল ও শাক সবজি

স্কুলের পড়াশুনার চাপের মাঝে শিশুর শরীরকে সুস্থ ও রোগমুক্ত রাখতে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় পুষ্টিকর খাবার রাখা উচিত। এই পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে প্রচুর মৌসুমী শাক সবজি ও ফলমূলের জুড়ি নেই। ফলমূলে থাকে ভিটামিন ও খনিজ উপাদান যা শরীরের ইলেকট্রলাইট ব্যালেন্স করে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, মনোযোগ বৃদ্ধি করে, দাঁত ভালো রাখে, শরীরে শক্তি যোগায়। কিন্তু দেখা যায়, বাহির থেকে আসার পর শিশুরা ফাস্টফুড বা অতিরিক্ত চিনিযুক্ত খাবারের প্রতি আগ্রহ দেখায়, যা শরীরের জন্যও যেমন ক্ষতিকর তেমন শিশুদের অলস করে তোলে। পাশাপাশি বিভিন্ন রঙের সবজি দিয়ে খাবার রান্না করে সাজিয়ে পরিবেশন করলে শিশুদের খাওয়ার প্রতি আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে এবং সঙ্গে প্রয়োজনীয় পুষ্টিও পূরণ হবে। সবজি রান্নার ক্ষেত্রে রংধনুর রঙগুলোকে মাথায় রেখে রান্না করতে হবে। এতে খাবারে পুষ্টিমানও বৃদ্ধি পায় ও শিশুর জন্য যথাযথ ভিটামিন ও খনিজ উপাদান উপস্থিত থাকে
চিকিৎসা বিজ্ঞানে ইবনে নাফিসের সফলতা

চিকিৎসা বিজ্ঞানে ইবনে নাফিসের সফলতা

বিশ্বসেরা যে কয়েকজন মুসলিম বিজ্ঞানী রয়েছেন, তন্মধ্যে ইবনে নাফিস অন্যতম। তিনি ছিলেন তার যুগের কয়েক শতাব্দী এগিয়ে। তার দুঃসাহসী বৈজ্ঞানিক মতামত সেটাই প্রমাণ করে। চিকিৎসাবিজ্ঞানে ইবনে নাফিস যে কারণে স্মরণীয় হয়ে আছেন, তা হলো- রক্ত চলাচল সম্পর্কে তৎকালীন প্রচলিত মতবাদের বলিষ্ঠ প্রতিবাদ এবং এর সম্পর্কে নিজের নতুন মতবাদের প্রকাশ। আরব চিকিৎসাবিজ্ঞান তখন প্যালেসের মতবাদকে স্বর্গীয় বাণীর মতো অভ্রান্ত মনে করত। তার মতবাদের বিরুদ্ধে কথা বলার মতো সাহস থাকলেও কেউ এগিয়ে আসত না। এভাবে গ্যালেনের জ্ঞানের পর মহাবিজ্ঞানী ইবনে সীনার মতবাদগুলো বিজ্ঞান জগৎ মেনে নিতে প্রস্তুত ছিল না। এ সময় ইবনে নাফিস নিজের মত জোরালোভাবে প্রকাশ করেন ইবনে সীনার চিকিৎসা বিশ্বকোষ আল কানুনের অহধঃড়সু অংশের ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ইবনে নাফিস লেখেন ‘শারহু তাশবিহি কানুন লি ইবনি সীনা’। এ গ্রন্থেই তিনি রক্ত চলাচল সম্পর্কে দুঃসাহসী মতবাদের
শিক্ষার্থীর মানসিক স্বাস্থ্য উন্নয়নে পড়ালেখার চাপ কমানো জরুরি

শিক্ষার্থীর মানসিক স্বাস্থ্য উন্নয়নে পড়ালেখার চাপ কমানো জরুরি

শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্য উন্নয়নে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিদ্যমান পড়ালেখার চাপ কমানো জরুরি। এ ছাড়াও সামাজিক কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করা দরকার। সোমবার ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের মানসিক স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী মনোযত্ন কেন্দ্র-এর উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এ কথা বলেন। তারা বলেন, কমিউনিটি বা সামাজিক মানসিক উন্নয়নে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব রয়েছে। কর্মক্ষেত্রে মানসিক নির্যাতন প্রতিরোধে বিদ্যমান আইনে কোনো সুস্পষ্ট নির্দেশনা নেই এবং কর্মীর মানসিক অধিকার সম্পর্কেও কোনো নির্দেশনা নেই। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সূত্র উল্লেখ করে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের সিনিয়র কাউন্সেলর ও মানসিক স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম সমন্বয়কারী আমির হোসেন বলেন, যাদের বয়স ১৫ থেকে ২৯ বছর তাদের মৃত্যুর দ্বিতীয় মূখ্য কারণ হলো আত্মহত্যা। প্রতি ৫ জন
জনস্বাস্থ্য বিবেচনায় সোডিয়াম সালফেট আমদানি নিষিদ্ধের দাবি

জনস্বাস্থ্য বিবেচনায় সোডিয়াম সালফেট আমদানি নিষিদ্ধের দাবি

জনস্বাস্থ্যের বিবেচনায় বিষাক্ত সোডিয়াম সালফেট নিষিদ্ধের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ লবণ মিলমালিক সমিতি। আজ বুধবার রাজধানীর তোপখানায় হোটেল প্যালেসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে সমিতির সভাপতি নুরুল কবির জানান, সোডিয়াম সালফেট মিশ্রিত খাওয়ায় ভোক্তাদের হার্ট ও লিভারে ক্যান্সার হয়। বাংলাদেশ লবণ মিলমালিক সমিতির দাবিতে বলা হয়, জনস্বাস্থ্যের বিবেচনায় নিয়ে ক্ষতিকর সোডিয়াম সালফেট আমদানি নিষিদ্ধ করতে হবে। অথবা দেশীয় লবণ শিল্প রক্ষায় সোডিয়াম সালফেট আমদানীতে ১০০ ভাগ কাস্টমস ডিউটি আরোপ করতে হবে। আর চাহিদার প্রয়োজনে ঘাটতি পরিমাণ লবণ পূর্বের ন্যায় মিলমালিকদের মাধ্যমে সমাহারে আমদানিতে অনুমতি প্রদানের সিদ্ধান্ত দ্রুত নিতে হবে।  
ডায়াবেটিসজনিত কিডনি রোগ ‘ডায়াবেটিক নেফ্রোপ্যাথি’

ডায়াবেটিসজনিত কিডনি রোগ ‘ডায়াবেটিক নেফ্রোপ্যাথি’

বর্তমানে ডায়াবেটিস অন্যতম একটি রোগ এবং এর কারণে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে নানা রকম জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে। ডায়াবেটিসজনিত কিডনি রোগ এর মধ্যে অন্যতম। এ রোগের মধ্যে প্রধানত ডায়াবেটিক নেফ্রোপ্যাথি (Diabetic Nephropathy) এবং কিডনি বা প্রস্রাবনালীতে সংক্রমণ UTI অন্যতম। ডায়াবেটিক নেফ্রোপ্যাথি কী? কিডনি সম্পূর্ণভাবে বিকল বা অকেজো হওয়ার কারণের মধ্যে উন্নত দেশে ডায়াবেটিসকে প্রধান কারণ হিসেবে ধরা হয়। আমাদের মতো উন্নয়নশীল দেশে একে দ্বিতীয় প্রধান কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ইনসুলিন-নির্ভর ডায়াবেটিক রোগীদের ক্ষেত্রে এই রোগের হার ৪০-৫০ শতাংশ এবং যারা ইনসুলিন-নির্ভর নন তাদের বেলায় ১৫-২০ শতাংশ। কাদের বেলায় ডায়াবেটিসজনিত নেফ্রোপ্যাথি হবে এবং কার ক্ষেত্রে হবে না তা এখনো পরীক্ষাধীন। পারিপার্শ্বিক পরিবেশ ছাড়াও জেনেটিক্সের প্রভাব নিয়ন্ত্রণ করে কোন ডায়াবেটিক রোগীদের ক্ষেত্রে নেফ্রোপ্যাথি হবে। সাধারণত
করলাকে গুরুত্ব দিন, জেনে নিন করলার অনেক গুণাগুণ

করলাকে গুরুত্ব দিন, জেনে নিন করলার অনেক গুণাগুণ

★করলা, করল্লা, উচ্ছা, উচ্ছে ইত্যাদি এক প্রকার ফল জাতীয় সবজি। এলার্জি প্রতিরোধে এর রস দারুণ উপকারি। ডায়াবেটিস রোগীদের জন্যও এটি উত্তম। প্রতিদিন নিয়মিতভাবে করলার রস খেলে রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব। করলায় যথেষ্ট পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন ছাড়াও এতে রয়েছে বহু গুণ। ★এবার জেনে নিন, করলার আরো পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা:----- ব্রকলি থেকেও দ্বিগুণ পরিমানে বিটা ক্যারোটিন রয়েছে এতে। দৃষ্টি শক্তি ভালো রাখতে ও চোখের সমস্যা সমাধানে বিটা ক্যারোটিন উপকারী। করলায় প্রচুর পরিমানে আয়রণ রয়েছে। আয়রণ হিমোগ্লোবিন তৈরি করতে সাহায্য করে। পালংশাকের দ্বিগুণ ক্যালসিয়াম ও কলার দ্বিগুণ পরিমান পটাশিয়াম করলায় রয়েছে। দাঁত ও হাড় ভাল রাখার জন্য ক্যালসিয়াম জরুরি। ব্লাড প্রেশার মেনটেন করার জন্য ও হার্ট ভাল রাখার জন্য পটাশিয়াম প্রয়োজন। করলায় যথেষ্ট পরিমাণে ভিটামিন-সি রয়েছে। ভিটামিন সি ত
চর্মরোগ চিকিৎসায় অগ্রগতি হয়েছে

চর্মরোগ চিকিৎসায় অগ্রগতি হয়েছে

বাংলাদেশে চর্মরোগের চিকিৎসায় যথেষ্ট অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। তবে অপচিকিৎসা, অবৈজ্ঞানিক ওষুধ সেবন বা গ্রহণের কারণে রোগীর যেমন ক্ষতি হয়, তেমন রোগীর শরীরে ওষুধের কার্যকারিতা হ্রাস পায়। ফলে রোগ নিরাময় কঠিন হয়ে পড়ে। রোববার দুপুর ১২টায় ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী লাউঞ্জে চর্মরোগ বিষয়ে সর্বশেষ অগ্রগতি নিয়ে আয়োজিত বৈজ্ঞানিক সেমিনারে চর্ম বিশেষজ্ঞরা এ কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চর্ম ও যৌনব্যাধি বিভাগের উদ্যোগে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়। বিএসএমএমইউ’র প্রোভিসি (গবেষণা ও উন্নয়ন) ও চর্ম ও যৌনব্যাধি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদারের সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী একেএম মোজাম্মেল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মো. মশিউর রহমান রাঙ্গা। সম্মানিত অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাস
অ্যালার্জি যখন কষ্টকর

অ্যালার্জি যখন কষ্টকর

কথায় কথায় অ্যালার্জি, চোখ চুলকালে চোখের অ্যালার্জি, নাক চুলকালে নাকের অ্যালার্জি, চামড়ায় চুলকাতে থাকলে এবং তার সঙ্গে চাক চাক হলে ত্বকের অ্যালার্জি, দীর্ঘদিন ধরে খুসখুস কাশি থাকলে ওষুধে না কমলে এবং ধুলাবালি বা ফুলের রেণুর সংস্পর্শে বেশি হলে তাকে অ্যালার্জিক কাশি বলে থাকে। অ্যালার্জির উপসর্গ কমাতে হলে অ্যালার্জির কারণ জানতে হবে এবং অ্যালার্জির কারণ জানার জন্যই দরকার অ্যালার্জি টেস্ট বা অ্যালার্জি পরীক্ষা-নিরীক্ষা। টেস্টের প্রয়োজন কেন : রোগীর অ্যালার্জির সঠিক চিকিৎসা করতে হলে চিকিৎসককে প্রথমে জানতে হবে ঠিক কোন জিনিসটির দ্বারা অ্যালার্জি সংঘটিত হচ্ছে। অ্যালার্জি টেস্ট সঠিক এবং প্রত্যক্ষভাবে নির্ধারণ করে দেয় যে, কিসে কিসে অ্যালার্জি এবং কিসে কিসে অ্যালার্জির ভয় নেই। যদি সুনির্দিষ্ট অ্যালার্জেনগুলোকে শনাক্ত করা যায়, তাহলে রোগীর জন্য সঠিক চিকিৎসার পরিকল্পনা করা সম্ভব হয়। রোগীর অ্যালার্জি-উপসর্
ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছে বছরে  ৩০০০ শিশু

ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছে বছরে ৩০০০ শিশু

বাংলাদেশে প্রতিবছর প্রায় ৩ হাজার শিশু ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছে। এসব শিশুর অধিকাংশই ডায়াবেটিস-জনিত সমস্যার কারণে অন্ধ হওয়ার ঝুঁকিতে আছে। বুধবার রাজধানীর মহাখালীতে ব্র্যাক ইন সেন্টারে আলোচনা অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়। অরবিস ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত একটি প্রকল্পের মূল্যায়ন প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। অরবিস ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ ‘ডায়াবেটিক শিশুদের চক্ষুসেবার সমন্বিত পদক্ষেপের পারস্পরিক অভিজ্ঞতা বিনিময়’ শীর্ষক এ আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ডায়াবেটিক শিশুদের অন্ধত্বের ঝুঁকি থেকে রক্ষা করতে সমন্বিত চিকিৎসার পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি। বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী ডায়াবেটিক শিশুর সংখ্যা পাল্লা দিয়ে বাড়ছে, উল্লেখ করে প্রকল্প মূল্যায়ন প্রতিবেদনে বলা হয়, ডায়াবেটিস আক্রান্ত শিশুরা সঠিক চিকিৎসার অভাবে চোখের বিভিন্ন রোগে ভুগছে।
কুমিল্লায় রেল স্টেশনে খাবার পানির প্ল্যান্ট চালু করলো রবি

কুমিল্লায় রেল স্টেশনে খাবার পানির প্ল্যান্ট চালু করলো রবি

    কুমিল্লা রেলওয়ে স্টেশনে আগত জনসাধারণের  জন্য একটি বিশুদ্ধ খাবার পানির প্ল্যান্ট উদ্বোধন করেছে রবি আজিয়াটা লিমিটেড।   ‘নিরাপদ পানি, সুস্থ জীবন’ কর্পোরেট দায়বদ্ধতা কর্মসূচির (করপোরেট সোশাল রেসপনসিবিলিটি  -সিএসআর) আওতায় এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায় দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল ফোন অপারেটরটি।   এতে বলা হয়, কুমিল্লা রেলওয়ে স্টেশনে স্থাপিত এই প্ল্যান্টটি ঘন্টায় ৫ হাজার লিটার বিশুদ্ধ পানি সরবারহ করতে সক্ষম।   বিশুদ্ধ পানির প্লান্টটি ব্যবহারে নারী ও পুরুষের জন্য থাকছে আলাদা আলাদা ব্যবস্থা।   এছাড়াও বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের জন্য রয়েছে আলাদা সুবিধা। ওজুর জন্যও রয়েছে আলাদা ব্যবস্থা।   প্ল্যান্টের পানি বিশুদ্ধকরণে ওয়াটার এইডের কারিগরি সহায়তায় ব্যবহার করা হচ্ছে মেমব্রেন ও ইউভি ফিল্টার।