স্বাস্থ্য-পুষ্টি

তামাকপণ্যে সচিত্র সতর্কবাণী মুদ্রণ যথাসময়ে বাস্তবায়নের দাবি

তামাকপণ্যে সচিত্র সতর্কবাণী মুদ্রণ যথাসময়ে বাস্তবায়নের দাবি

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন অনুযায়ী তামাকপণ্যের প্যাকেট ও কৌটার উপরিভাগে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণী মুদ্রণ বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে। জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেল এনটিসিসি এক গণবিজ্ঞপ্তি দিয়ে আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর হতে বাস্তবায়নের কথা রয়েছে। তবে সেটা ঘোষণার তারিখ থেকে যেন যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করা হয় তা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ছেন তামাকবিরোধী সংগঠন প্রজ্ঞা।   সোমবার রাজধানীর প্ল্যানার্স টাওয়ারে আয়োজিত এক কর্মশালায় বক্তারা এ দাবি জানায়। প্রজ্ঞার এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এ বি এম জুবায়েরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রজ্ঞার কনভেইনার মর্তুজা হায়দার লিটন, এন্টি টোব্যাকো মিডিয়া অ্যালায়েন্স (আত্মার) কো-কনভেনার নাদিরা কিরণ ও মিজান চৌধুরী।   জানা গেছে, সব তামাকজাত পণ্যের প্যাকেট, কার্টন বা কৌটার উপরিভাগের অন্যূন ৫০ শতাংশ জায়গাজুড়ে সচিত্র স্বাস্থ্য
প্রেসক্রিপশনে ফুড সাপ্লিমেন্ট লিখতে পারবেন না চিকিৎসকরা

প্রেসক্রিপশনে ফুড সাপ্লিমেন্ট লিখতে পারবেন না চিকিৎসকরা

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :দেশের চিকিৎসকরা রোগীর প্রেসক্রিপশনে (ব্যবস্থাপত্র) ফুড সাপ্লিমেন্ট জাতীয় কোনো আইটেম লিখতে পারবেন না। স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে জারিকৃত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।   অধিদফরের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা জানান, জারিকৃত এ নির্দেশনা অমান্য করে রোগীর ব্যবস্থাপনায় কোনো চিকিৎসক ফুড সাপ্লিমেন্ট লিখলে তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।   স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ও লাইন ডিরেক্টর (হসপিটাল সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট) এর স্বাক্ষরে বৃহস্পতিবার জারিকৃত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দশম জাতীয় সংসদের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ১৬তম বৈঠকে ফুড সাপ্লিমেন্ট নামের আইটেম ডাক্তাররা যেন ব্যবস্থাপত্রে না লিখেন সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। সেই মোতাবেক দেশের সকল চিকিৎসকরা তাদের ব্যবস্থাপ
বর্ষাকালে শিশুর যত্নে করণীয়

বর্ষাকালে শিশুর যত্নে করণীয়

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :চলছে বর্ষাকাল। শৈশবের স্বাভাবিক দুরন্তপনা থেকেই শিশুরা সবকিছু সমান আগ্রহ নিয়ে জানতে এবং বুঝতে চায়। তাই বৃষ্টি দেখলে ভিজতে চাওয়াটাও তাদের সেরকমই একটি আবদার। কিন্তু এই বর্ষা থেকেই অসুখ বাঁধতে পারে শিশুর শরীরে। তাই এসময় শিশুর প্রতি বিশেষ যত্নশীল হোন। বর্ষার গুমোট ও স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ায় শিশুদের ভাইরাসজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রাথমিক অবস্থায় সর্দি, কাশি, জ্বর ও গলাব্যথা থাকলেও একটু অযত্নে এসব রোগ মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। এমনকি টনসিলাইটিস ও নিউমোনিয়া হওয়ার ভয় থেকে যায়।   বৃষ্টির পানিতে যাতে বাচ্চারা ভিজে না যায়, সে দিকে খেয়াল রাখুন। আর যদি ভিজেই যায়, তাহলে পরনের পোশাক সঙ্গে সঙ্গে পাল্টে মাথা ও শরীর শুকনো তোয়ালে দিয়ে ভালো করে মুছে দেবেন। নয়তো জ্বর, ঠাণ্ডা, সর্দি-কাশি হতে পারে।   বাজারজাত ফলের শরবত বা জুস শিশুদের খেতে না দেওয়াই
স্বাস্থ্য অধিদফতরে ১৪১ পিএম-ডিপিএম বদলি ও পদায়ন

স্বাস্থ্য অধিদফতরে ১৪১ পিএম-ডিপিএম বদলি ও পদায়ন

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত বিসিএস (স্বাস্থ্য) ক্যাডার/স্বাস্থ্য সার্ভিসের ১শ’ ৪১ চিকিৎসককে প্রোগাম ম্যানেজার (পিএম) ও ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার (ডিপিএম) পদে বদলি ও পদায়ন করেছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।   বদলি ও পদায়নকৃত চিকিৎসকদের মধ্যে অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপক, উপ-পরিচালক, সহকারী পরিচালক, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা, লেকচারার ও মেডিকেল অফিসার রয়েছেন।   রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে আজ (মঙ্গলবার) স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ পারসোনাল শাখা-২ এর যুগ্মসচিব এ কে এম ফজলুল হক স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ সব তথ্য জানা গেছে। ১ জুন থেকে শুরু হওয়া পাঁচ বছর মেয়াদি বিভিন্ন অপারেশন প্ল্যান (ওপি) বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তাদেরকে বদলি/পদায়ন করা হয়।
অনেক রোগের মহৌষধ পুদিনা পাতা

অনেক রোগের মহৌষধ পুদিনা পাতা

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :গাছটির নাম পুদিনা। পুরো গাছটিরই আছে নানা ধরনের গুণ। তবে পাতা যেন অনেক রোগের মহৌষধ। বছরের যে কোনো সময়ে রোপণ করা যায় গাছটি। তবে একটু বিশেষ খেয়াল রেখে ডাল ভেজা বা আদ্র মাটিতে পুঁতে রাখলেই এই গাছ জন্মে। এছাড়া আবাদি অনাবাদি ও বনজ সব ধরনের হয়ে থাকে এটি। ভিজা পরিবেশে এবং আর্দ্র মাটিতে সবচেয়ে ভালো জন্মে। কাণ্ডসহ গাছটি ১০ থেকে ১২০ সেন্টিমিটার লম্বা হয়।   পরিচিতি : ছোট গুল্ম জাতীয় গাছ। বহু বর্ষজীবী পাতা ডিম্বাকৃতি, সুগন্ধী যুক্ত। সবুজ। পুদিনা পাতা প্রাচীনকাল থেকেই বেশ জনপ্রিয় ওষুধ হিসেবে পরিচিত। বহু রোগের আরোগ্যে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। পুদিনা পাতা এক ধরনের সুগন্ধি গাছ। এই গাছের পাতা তরি-তরকারির সঙ্গে সুগন্ধি হিসেবে ব্যবহার করা হয়।   বিশ্বের অনেক দেশেই পুদিনার গাছ জন্মে। পুদিনা পাতায় ৪০-৯০% মেনথল তেল পাওয়া যায়। যা বিভিন্ন পা
পায়ের আঙ্গুলগুলো মিশে গেছে মাহমুদার

পায়ের আঙ্গুলগুলো মিশে গেছে মাহমুদার

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :অনেক দিন ধরেই ডাক্তার মাহমুদাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলছেন। কিন্তু আমি পেশায় একজন ভ্যানচালক। সেখানে কত টাকা খরচ হবে সেটা জানি না। হাসপাতালে গেলে ভর্তি নেবে কীনা তাও জানি না। তাছাড়া ঢাকায় আমার কোনো আত্মীয়ও নাই। কোথায় গিয়ে উঠবো, কে আমাকে সাহায্য করবে এই চিন্তায় মেয়েকে নিয়ে আজো এলাকায় পড়ে আছি। ইতোমধ্যে গরু-ছাগল বিক্রি করে ২০ হাজার টাকা যোগাড় করেছি। এছাড়াও এলাকার এক ভাই ২০ হাজার টাকা দিয়ে সহযোগিতা করেছেন।   জাগো নিউজকে এভাবেই বলছিলেন দিনাজপুরের বিরল উপজেলার বনগাঁও গ্রামের গাডাংপাড়ার ভ্যানচালক আবদুর রহিম। তার বড় মেয়ে মাহফুজা পুরোপুরি সুস্থ হলেও ছোট মেয়ে ৮ বছর বয়সী মাহমুদা জন্মের পর থেকেই পুরো শরীর জুরে ঘা আক্রান্ত। জন্মের পরপরই শরীরে একটি ফসকা উঠেছিল মাহমুদার। এরপর থেকেই তার সম্পূর্ণ শরীর ঘা দিয়ে ভরা। এই ঘা
শরীর থেকে চামড়া খসে পড়ছে মাহাদির

শরীর থেকে চামড়া খসে পড়ছে মাহাদির

দুই বছর আগে ডায়রিয়া হয়েছিল ৪ বছরের শিশু আব্দুল্লাহ আল মাহাদির। প্রথম দিনই ১শ বারেরও অধিক পাতলা পায়খানা হয়েছিল তার। এরপর থেকেই শরীর ফুলে যাওয়া ও চামড়া খসে মাংস বের হয়ে যায় মাহাদির। যখন একটু ভালো হয়, তখন নতুন করে চামড়া জন্মাতে শুরু করে। আবার যখন ডায়রিয়া শুরু হয় তখন সেই আগের অবস্থা শুরু হয় তার। মাহাদির চিকিৎসা করাতে এ পর্যন্ত প্রায় ৬ লাখ টাকা খরচ করেছেন বাবা মসজিদের ইমাম আলাউদ্দিন।   মাহাদি বর্তমানে শ্যামলীতে অবস্থিত শিশু হাসপাতালের ৩য় তলার ৩০২ নম্বরে কেবিনে চিকিৎসাধীন। গত ১০ রমজান অর্থাৎ ৬ জুন থেকে মাহাদিকে নিয়ে এই হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন তার বাবা-মা। প্রতিদিন সেখানে আড়াই হাজার টাকা কেবিন ভাড়া, ইনজেকনসহ অন্যান্য ওষুধ কিনতে সব মিলে ৫ হাজার টাকা খরচ হচ্ছে মাহাদির জন্য।   একই হাসপাতালে কিছুদিন ফ্রি বেডে থাকার সুযোগ হলেও মাহাদির প্রতিনিয়ত যন্ত্রণার কান্
চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে এনজিওদের সহযোগীর ভূমিকা পালনের আহ্বান

চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে এনজিওদের সহযোগীর ভূমিকা পালনের আহ্বান

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :যেসব ভবনের ছাদে গাছপালা লাগানো হয় সেখানকার প্রায় ৭০শতাংশ স্থানেই জমে থাকা পানিতে এডিস মশার বংশ বিস্তার ঘটছে। এজন্য সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সচেতন করে তোলার ক্ষেত্রে এনজিওদের সম্পৃক্ত হয়ে সহযোগীর ভুমিকা পালনের আহ্বান জানানো হয়েছে।   বুধবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নগর ভবনের সেমিনার কক্ষে চিকুনগুনিয়া রোগ প্রতিরোধে এক মতবিনিময় সভায় এ আহ্বান জানানো হয়। সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিল্লাল এর সভাপতিত্বে সংস্থার বস্তি উন্নয়ন বিভাগের উদ্যোগে মাঠ পর্যায়ে কর্মরত বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রতিনিধিদের নিয়ে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।   নির্মাণাধীন ভবনের চৌবাচ্চা, পরিত্যক্ত ভবন, গাছের কোটরে, এসি, ফ্রিজ, ফুলের টব, টায়ার, খালি ক্যান, ডাবের খোসায় জমে থাকা পানিতে এ মশা জন্মায়। এগুলো অপসারণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয
মাথা ঘোরা সমস্যা দূর করবেন যেভাবে

মাথা ঘোরা সমস্যা দূর করবেন যেভাবে

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :মাথা ঘোরাকে অসুখ হিসেবে মানতে নারাজ অনেকেই। কারণ এটি যেমন হুটহাট হতে পারে তেমনি হুট করে চলেও যেতে পারে। কোনও একটি নির্দিষ্ট কারণে নয়, নানা কারণে আমাদের এই সমস্যা হতে পারে। এটি কোনো রোগ না হলেও নানা রোগের লক্ষণ এর মধ্যে দিয়ে বোঝা সম্ভব। রক্তচাপ কম থাকলে, ডিহাইড্রেশন হলে, মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে বা কোনও রকমের উত্তেজনা বা ভয় থাকলে মাথা ঘোরার সমস্যা হতে পারে। তবে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। নিচে কয়েকটি ঘরোয়া পদ্ধতি সম্পর্কে বলা হল, যা মাথা ঘোরা বা ঝিমঝিম করার সমস্যায় প্রতিষেধক হিসাবে কাজ করবে।   লেবুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যা অনেক বেশি এনার্জি দেয়। মাথা ঘোরার সমস্যাকে কমাতেও এর জুড়ি নেই।   মধুতে রয়েছে এমন উপাদান যা প্রচুর পরিমাণে এনার্জি বাড়িয়ে দেয়। মাথা ঘোরার সমস্যাকে কমাতে সাহায্য করে।   মাথা ঘোরালেই এক জায়গায় বসে
সরকারি হাসপাতালগুলোতে খোলা হচ্ছে চিকুনগুনিয়া হেল্পডেস্ক

সরকারি হাসপাতালগুলোতে খোলা হচ্ছে চিকুনগুনিয়া হেল্পডেস্ক

স্বাস্থ্য-পুষ্টি  ডেস্ক :দেশের সব সরকারি হাসপাতালে চিকুনগুনিয়া পরিস্থিতি মোকাবেলায় হেল্পডেস্ক খোলার উদ্যোগ নিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের নির্দেশে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।   পাশাপাশি মন্ত্রীর নির্দেশে এ রোগে আক্রান্তদের বিভিন্ন অস্থিসন্ধির ব্যথা প্রশমনে প্রতিটি হাসপাতালে প্রয়োজনে জয়েন্ট পেইন ক্লিনিক বা আর্থালজিয়া ক্লিনিক খোলারও উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।   এখান থেকে রোগীদের প্রয়োজন অনুযায়ী ফিজিওথেরাপি বা ওষুধ সেবনের পরামর্শ দেয়া হবে। দেশের সব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ জেলা-উপজেলা হাসপাতালেও এ সেবা দেয়া হবে।   রোববার স্বাস্থ্য অধিদফতরে অনুষ্ঠিত এক জরুরি সভা থেকে দেশের সব হাসপাতালের পরিচালক, বিভাগীয় পরিচালক ও সিভিল সার্জনদের কাছে এ নির্দেশনা দেয়া হয়। স্বাস্থ্য অধিদফতরের ডিজি অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ ভিডিও ক