স্বাস্থ্য-পুষ্টি

নিয়মিত অ্যালোভেরার রস পানের ৭টি বিস্ময়কর উপকারিতা

নিয়মিত অ্যালোভেরার রস পানের ৭টি বিস্ময়কর উপকারিতা

অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী অতি পরিচিত একটি উদ্ভিদের নাম। বহুগুণে গুণান্বিত এই উদ্ভিদের ভেষজ গুণের শেষ নেই। এতে আছে ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, জিঙ্ক, ফলিকঅ্যাসিড, অ্যামিনো অ্যাসিড ও ভিটামিনএ, বি৬,বি২ ইত্যাদি। অ্যালোভেরার জেল রুপচর্চা থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য রক্ষায় ব্যবহার হয়ে আসছে। অনেকেই অ্যালোভেরা জুস পান করে থাকেন। আপনি জানেন কি প্রতিদিন অ্যালোভেরা জুস পান করার উপকারিতা? ১। হার্ট সুস্থ রাখতে আপনার হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে অ্যালোভেরা জুস। অ্যালোভেরা কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে দেয়। এটি দূষিত রক্ত দেহ থেকে বের করে রক্ত কণিকা বৃদ্ধি করে থাকে। এটি দীর্ঘদিন আপনার হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে থাকে। ২। মাংসপেশী ও জয়েন্টের ব্যথা প্রতিরোধ অ্যালোভেরা মাংসপেশীর ব্যথা কমাতে সাহায্য করে থাকে। এমনকি ব্যথার স্থানে অ্যালোভেরা জেলের ক্রিম লাগালে ব্যথা কমে য
রমজানে যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন

রমজানে যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন

ডা. সজল আশফাক :: সারাদিন রোজা রাখার পর শরীরের ক্লান্তি কাটাতে কিছুটা রুচিকর খাবারের দরকার আছে। কিন্তু অনেক সময়েই রুচিকর খাবারের নামে আয়োজনটা অনেকটা বাড়াবাড়ি পর্যায়ে চলে যায়। আমরা ভুলে যাই রোজার উদ্দেশ্য ও দর্শন। বরং কখনো এমন সব খাবারের আয়োজন করি যা কোনোভাবেই স্বাস্থ্যসম্মত নয়। প্রক্রিয়াজাত ফুড এবং জাংক ফুড : এ ধরনের খাবার রোজার সময় এড়িয়ে চলাই বাঞ্ছনীয়। প্রক্রিয়াজাত মাংস এ সময়ে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এসব মাংসে থাকে উচ্চমাত্রার নাইট্রেট ও সোডিয়াম। এই নাইট্রেট হজম প্রক্রিয়ার এক পর্যায়ে নাইট্রোসএমাইনে পরিণত হয়, যা ক্যান্সার সৃষ্টিকারী একটি ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ হিসেবে পরিচিত। ফাস্টফুডের অন্যতম উপাদান হচ্ছে প্রক্রিয়াজাত মাংস, বাড়তি লবণ ও সম্পৃক্ত চর্বি। বাড়তি লবণ ও সম্পৃক্ত চর্বি মিলিত ফল মানেই আয়ুষ্কাল হ্রাস। জাংকফুডের মধ্যে চিপস্, ক্যানডিও শরীরের ক্ষতি করে। চিপস্জাতীয় খাবারগুলো তৈরি ক
মেয়েদের জন্য মারাত্মক হতে পারে মাথার যন্ত্রণা

মেয়েদের জন্য মারাত্মক হতে পারে মাথার যন্ত্রণা

মাথায় যন্ত্রণা একটা খুবই সাধারণ অসুখ। রোদ লাগলে, অনেকক্ষণ না খেয়ে থাকলে কিংবা অন্যান্য কারণে প্রায়ই আমাদের মাথায় প্রচন্ড যন্ত্রণা হয়। মাথার যন্ত্রণাকে বেশিরভাগ মানুষই বিশেষ গুরুত্ব দেন না। কিন্তু মেয়েদের ক্ষেত্রে এই ছোট্ট মাথার যন্ত্রণার ফলে, কতটা ভয়ঙ্কর পরিণতি হতে পারে জানেন? সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, মাথার যন্ত্রণার ফলে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হন ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা। মেয়েদের মাথার যন্ত্রণা থেকে দেখা দিতে পারে হৃদযন্ত্রের সমস্যার মতো আরও অন্যান্য ভয়ঙ্কর অসুখ। শুধু তাই নয়, মৃত্যুর আশঙ্কাও বাড়ে এই মাথা যন্ত্রণা থেকে। হৃদপিণ্ডে রক্ত চলাচল সঠিক না হলেই হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোকস, বুকে যন্ত্রণা প্রভৃতি অসুখ দেখা দেয়। আবার মাইগ্রেনের ফলে হৃদযন্ত্রের সমস্যা দেখা দেয়। চিকিত্‌সকেদের একাংশ বলছেন যে, মাইগ্রেন থেকে মেয়েদের মৃত্যুর আশঙ্কা পর্যন্ত থাকে। ধূমপান, অতিরিক্ত চিন্তা, বয়সজনিত কারণ এছাড়াও হরমোনের
মুখে ও নাকে ব্ল্যাকহেড দূর করার সাধারণ ঘরোয়া উপায়।

মুখে ও নাকে ব্ল্যাকহেড দূর করার সাধারণ ঘরোয়া উপায়।

ব্ল্যাকহেড বা অবাঞ্চিত কালো লোম মুখের সৌন্দর্য ব্যহত করে। এই ব্ল্যাকহেড ঘরে বসে দূর করা সম্ভব, কিন্তু ত্বকের ধরণ বুঝে উপযুক্ত পন্থা গ্রহণ করতে হবে। যদি আপনার ত্বক তৈলাক্ত হয়, তবে প্যাকটি সপ্তাহে ৩-৫ বার, শুস্ক ও সংবেদনশীল ত্বকে সপ্তাহে ১ বার আর স্বাভাবিক ত্বকে সপ্তাহে প্রতিদিন প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। ব্ল্যাকহেড দূর করার বিভিন্ন প্যাক লেবু ও টক দই এর প্যাক: ২ চা চামচ ব্যসন, ৩ চা চামচ টক দই ও ১ চা চামচ লেবুর রস দিয়ে প্যাকটি তৈরি করতে হবে, যা ব্ল্যাকহেড আক্রান্ত জায়গায় ১০ মিনিট লাগিয়ে রাখার পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ভাল করে মুখটি ধুতে হবে, বেকিং পাউডারের প্যাক: ২ টে চামচ বেকিং পাউডার ও ৪ টে চামচ পানি মিশিয়ে প্যাকটি তৈরি করতে হবে এবং আক্রান্ত স্থানে মোটা করে লাগাতে হবে। ১০ -১২ মিনিট পর প্যাকটি শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখটি ভাল করে ধুয়ে ফেলুন। ডিমের প্যাক: অতিরিক্ত ঘন ব্ল্যাকহেড থাকল
খালি পেটে ভুলেও খাবেন না এই ৬টি খাবার

খালি পেটে ভুলেও খাবেন না এই ৬টি খাবার

ঘুম থেকে উঠে অনেকে অনেক কাজ করে থাকেন। কেউ খালি পেটে পানি পান করেন কেউ বা চা আবার কেউ খালি পেটে কফি পান করে থাকেন। কিন্তু আপনি কি জানেন খালি পেটে কোন খাবারগুলো খাওয়া উচিত আর কোন খাবারগুলো খাওয়া একেবারেই উচিত নয়? খালি পেটে লেবু পানি বা রসুনের কোয়া খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী তা আমরা জানি। এমন কিছু খাবার আছে যা দারুন স্বাস্থ্যকর, কিন্তু খালি পেটে খাওয়া একদমই উচিত নয়। ১। সোডা জাতীয় পানি পান : খালি পেটে কোক, মিরিন্ডা, বা সোডা জাতীয় খাবার খেলে কি হবে? এই খাবারগুলো অ্যাসিড লেভেল বৃদ্ধি করে দেয়, যার কারণে অ্যাসিডিটি সমস্যা, বমি বমি ভাব এমনকি জ্বালাপোড়ার সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে। ২। কলা : স্বাস্থ্যকর এই ফলটি খালি পেটে খাওয়া বেশ ক্ষতিকর। আমরা সবাই জানি কলা ম্যাগনেসিয়ামের একটি বড় উৎস। কিন্তু খালি পেটে কলা খেলে শরীরের ম্যাগনেশিয়ামের পরিমাণ বৃদ্ধি করে দেয়। যার কারণে শরীরে ম্যাগনেশিয়াম এবং ক্যাল
নখের কোণা উঠা সমস্যা থেকে মুক্তির সহজ উপায়

নখের কোণা উঠা সমস্যা থেকে মুক্তির সহজ উপায়

নখের কোণায় প্রচণ্ড ব্যথা, একটু খেয়াল করতেই দেখলেন যে বেকায়দা ভাবে নখ বৃদ্ধি পেয়েছে আর ঢুকে যাচ্ছ মাংসের ভেতরে। এমন একটা স্থানে যে কেটে ফেলারও কোন উপায় নেই, কেননা তাতে মাংস কাটা পড়বে। এই সমস্যাটিকেই বাংলায় আমরা বলে থাকি “নখের কোণা ওঠা”। জেনে নিন ব্যথা কমানো ও ইনফেকশন প্রতিরোধ করার সহজ উপায় – – হাত বা পা উষ্ণ লবণ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন মিনিট দশেক। যতটা সহ্য করতে পারেন, ততটা গরম পানি নেবেন। – কাজ শুরুর আগে মেনিকিউর সেট গরম পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে জীবাণুমুক্ত করে নিন। – এবার পা/হাত ভালো করে মুছে নিন। মুছে নেয়ার পর নখ কাটুন। বেড়ে ওঠা বাড়তি নখ ও তার আশেপাশে যতটা সম্ভব কেটে ফেলুন। – এবার রয়ে যাওয়া বাড়তি নখ চিমটার সাহায্যে সামান্য উঁচু করে ধরুন এবং আরেকটি চিমটার সাহায্যে সামান্য একটু তুলো নখের নিচে গুঁজে দিন। খুব সাবধানে কাজটি করুন। এই কাজটি আপনার নখে ব্যথা হতে দেবে না। – যতদিন নখে
হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণগুলো!

হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণগুলো!

যে লক্ষণগুলো থাকলে আগামী ৩০ দিনের মাঝেই হার্ট অ্যাটাক হতে পারে! অনেকেই মনে করেন যে হার্ট অ্যাটাক কেবল পুরুষদের রোগ, এটা একান্তই ভুল ধারণা। কারণ নারী ও পুরুষ উভয়েই এই রোগের ঝুঁকিতে রয়েছে। তবে হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ নারী ও পুরুষে ভিন্ন ভিন্ন। নারীদের ক্ষেত্রে এমনকি ১ মাস আগে থেকেই দেখে যেতে শুরু করে ভয়াল হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ। তাই যদি এই লক্ষণগুলো আপনার মাঝে দেখা যেতে থাকে, তাহলে দেরি না করে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। কারণ এই লক্ষণগুলো জানিয়ে দেয় যে আগামী ৩০ দিনের মাঝেই হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকিতে রয়েছেন আপনি! ১) নিঃশ্বাসে কষ্ট হওয়া হার্ট অ্যাটাকের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণ। যদি আপনার নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়, দম আটকে আসা ভাব হয় প্রায়ই তাহলে অবিলম্বে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। Respiratory ও cardiovascular system পরস্পরের ওপরে নির্ভরশীল। যদি হার্ট কম রক্ত পায়, তাহলে ফুসফুসও কম অক্সিজেন পায়। ফলাফল হচ্ছে ন
কোলন ক্যান্সারের এই লক্ষণগুলো আপনি অবহেলা করছেন না তো?

কোলন ক্যান্সারের এই লক্ষণগুলো আপনি অবহেলা করছেন না তো?

কোলন ক্যান্সার একটি নীরব ঘাতক। লক্ষণ দেখা দেয়ার আগে বেশির ভাগ মানুষই লক্ষ্য করেন না যে তিনি অসুস্থ। আর লক্ষণ যখন ধরা পড়ে ততদিনে নিরাময় করাটা অনেক জটিল ও কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। রোগের প্রথম পর্যায়ে সাধারণত লক্ষণ চোখে পড়ে না, পড়লেও সেগুলোকে আমরা সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যা ভেবে এড়িয়ে যাই, এর পেছনে গুরুতর কোনো রোগ আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে যাই না। ওবেসিটি, ধূমপান, শরীরচর্চা না করা, বেশি রেড মিট খাওয়া, পারিবারিক ইতিহাস, টাইপ টু ডায়াবেটিস এগুলো থাকলে আপনার কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি বেশি বলে ধরা যেতে পারে। জেনে নিন কোলন ক্যান্সারের প্রাথমিক পর্যায়ের কিছু লক্ষণের কথা। ১) অ্যানিমিয়া বা রক্তশূন্যতা রক্তশূন্যতা ধরা পড়ার মানে এই যে আপনার অভ্যন্তরীণ কোনো অঙ্গ থেকে হয়তো রক্তক্ষরণ হচ্ছে, যদিও আপনি তা বুঝতে পারছেন না। যদি অ্যানিমিয়া হয়ে থাকে ঋতুস্রাব চলাকালে নারীর শরীরে, তাহলে সাধারণত অন্য কোনো কারণ খুঁজতে যায় না
স্বামী – স্ত্রীর মারাত্মক যে ৮ টি ভূলের কারনে সন্তান প্রতিবন্দী হতে পারে ! শিঘ্রই জেনে নিন

স্বামী – স্ত্রীর মারাত্মক যে ৮ টি ভূলের কারনে সন্তান প্রতিবন্দী হতে পারে ! শিঘ্রই জেনে নিন

মহান আল্লাহতায়ালা প্রত্যেক পুরুষের জন্য স্ত্রী হিসেবে একজন নারীকে মনোনিত করে রেখেছেন। এই স্ত্রীর সাথে আল্লাহর দেওয়া বিধান অনুযাই সহবাস করলে আমরা সহজেই তৃপ্তি লাভ করতে পারি। বেঁচে যেতে পারি এইডস এর মত নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে। মহান আল্লাহতায়ালা বলেন, হে পুরুষ সম্প্রদায় আমি তোমাদের জন্য তোমাদের স্ত্রীকে হালাল করে দিয়েছি। যাতে করে তোমরা শয়তানের ধোঁকায় পরে বিপথগামী না হও। ধর্ম ও জীবনের আলোচনায় আজ আমরা জেনে নিব স্বামী স্ত্রী সহবাসের দোয়া, কখন সহবাস নিষিদ্ধ ও সহবাসের কিছু নিয়ম সহবাসের দোয়া : ‘বিসমিল্লাহি জান্নিবিনা শাইত্বানা ওয়া জান্নিবিশ শাইত্বানা মা রাযাকতানা’ অর্থাৎ হে আল্লাহ আমাকে শয়তান হতে বাঁচার এবং আমার জন্য যা হালাল করেছ তাহা হইতে শয়তানকে বিতারিত করো। সহবাস নিষিদ্ধ : (১) রোগী ব্যক্তি সহবাস করিলে তার রোগ আরো বেড়ে যায় এবং শরীরের ক্ষতি হবে (২) শরীরে জ্বর ও বেশি গরমে স্ত্রী সহবাস