স্বাস্থ্য-পুষ্টি

বিফ সিজলিং রেসিপি

বিফ সিজলিং রেসিপি

আজ শিখে নিন ভিন্ন স্বাদের বিফ সিজলিং রেসিপি। উপকরণ: গরুর সামনের রানের মাংস পাতলা করে কাটা ৪০০ গ্রাম, ডিমের কুসুম ১টি, ময়দা ২ টেবিল চামচ, কর্নফ্লাওয়ার ২ টেবিল চামচ, ফিশ সস ২ টেবিল চামচ, ওয়েস্টার সস ১ টেবিল চামচ, সয়াসস ২ টেবিল চামচ, টমেটো সস সিকি কাপ, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, লবণ পরিমাণমতো, চিনি আধা চা চামচ, স্বাদ লবণ আধা চা চামচ, পেঁয়াজ মোটা কুচি দেড় কাপ, টমেটো কিউব করে কাটা আধা কাপ, রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, শুকনো মরিচ চেরা ২টি, মাখন ১ টেবিল চামচ, গাজর পাতলা টুকরা আধা কাপ আধা সেদ্ধ করা। প্রণালী: মাংস পাতলা টুকরা করে ডিমের কুসুম, ১ টেবিল চামচ সয়াসস, ফিশ সস দিয়ে মেখে ১ ঘণ্টা রাখতে হবে। ময়দা ও কর্নফ্লাওয়ার দিয়ে মাংস মেখে অল্প ভেজে তুলে রাখুন। এবার ৬ টেবিল চামচ তেল গরম করে শুকনো মরিচ দিয়ে রসুন ভেজে নিন। আদা, রসুন বাটা দিয়ে পেঁয়াজ কুচি দিতে হবে। পেঁয়

নারীর সুস্থতায় প্রয়োজন সচেতনতা

কর্মজীবী নারীদের নিজেদের সঙ্গে সঙ্গে পরিবার আর অফিসের কাজ সামলে নিতে হয় সমান তালে। এতো ব্যস্ততায় নিজের দিকে তাকানোর সময় আসলে আমরা খুব একটা পাই না। তবে নিজে শারীরিক ও মানসিকভাবে ফিট না থাকলে কোনো কাজই দীর্ঘদিন ঠিকভাবে করা কঠিন। আর নিজেকে ফিট রাখতে প্রয়োজন সচেতনতা। তাই পরিবারের সদস্যদের প্রতি যত্ন নেওয়ার পাশাপাশি নিজের যত্নেও একটু সচেতন হতে হবে। সারাদিন ঘরে-বাইরে কর্মব্যস্ত জীবনের পরে শরীর ও মনের ওপরে যে চাপ পড়ে তা কাটানোর জন্য নিয়মিত ঘুম ও খাওয়া প্রয়োজন। বেশিরভাগ সময়েই কর্মজীবী নারীরা সময়ের অভাবে নিজেদের খাদ্যাভ্যাস ও স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিতে পারে না যা তাদের পরবর্তী স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ । কাজের চাপ ও অনিয়মিত খাওয়া-দাওয়ার কারণে অনেক নারীই হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। সুস্থ জীবন-যাপনের জন্য প্রয়োজন সঠিক পুষ্টি উপাদান । নারীদের বিভিন্ন বয়সে পুষ্টি চাহিদা বিভিন্ন হয়। তাই প্রতিটি কর্ম
যে ৭টি খাবার মেধা বিকাশে অত্যন্ত সহায়ক

যে ৭টি খাবার মেধা বিকাশে অত্যন্ত সহায়ক

ডেস্ক নিউজ: মেধা ও বুদ্ধি বিকাশের জন্য প্রত্যেকরই ছোটবেলা থেকেই সচেতন হওয়া উচিৎ । মস্তিষ্ককে সক্রিয় এবং সতেজ রাখতে পারলে মেধা ও বুদ্ধি বিকাশ ত্বরান্বিত হয়। এবং অনেক বেশি উন্নতি হয় বুদ্ধিমত্তার। আর এই মেধা ও বুদ্ধি বিকাশের জন্য আমাদের দরকার পরিমিত এবং পর্যাপ্ত পুষ্টির। মেধা ও বুদ্ধি বিকাশে সহায়ক এই সকল পুষ্টি আমরা খাদ্য থেকেই পেয়ে থাকি । আমাদের খাদ্যাভ্যাসের মাধ্যমেই আমরা পেতে পারি উন্নত মেধা ও বুদ্ধিমত্তা । এমন অনেক খাবার রয়েছে যা মেধা ও বুদ্ধিমত্তা নষ্ট করে, আবার এমন অনেক খাবার রয়েছে যা মেধা ও বুদ্ধি বিকাশে সহায়তা করে । আমাদের সতর্কতার সাথে আমাদের খাদ্যতালিকায় যোগ করতে হবে সেই সকল খাবার যা মেধা বিকাশে সহায়ক। এবং বাদ দিতে হবে যা বুদ্ধিমত্তা নষ্ট করতে সক্ষম। আজকে চলুন দেখে নেয়া যাক মেধা বিকাশে সহায়ক কিছু খাবার যা প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় থাকা অত্যন্ত জরুরী। গ্রীন টী গ্রীন টী বরাবর
ওষুধ ছাড়াই জ্বর-সর্দি-কাশি সারানোর উপায়

ওষুধ ছাড়াই জ্বর-সর্দি-কাশি সারানোর উপায়

ডেস্ক রিপোর্ট : হঠাৎ আবহাওয়ার পরিবর্তনে সর্দি, কাশি, জ্বরের কবলে পড়তে হচ্ছে অনেককে। এই সময়ে বিভিন্ন ভাইরাল ইনফেকশনে ভুগতে হয়। তবে এই জ্বর, সর্দি, কাশির চিকিৎসার বেশ কিছু ঘরোয়া উপায় রয়েছে। রসুন: বলা হয় রসুনের থেকে ভালো ওষুধ আর হয় না। রসুনের গুণাগুণ অনেক। ভাইরাল ফিভার, ঠাণ্ডা লাগার মতো অসুখের প্রতিরোধ করতে রসুন খুব উপকারী। শুধু ঠান্ডা লাগাই নয়, উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ কোলেস্টেরল, হার্ট অ্যাটাক এবং স্টোক প্রতিরোধেও রসুন খুব কাজে দেয়। ৫ থেকে ৬ কোয়া রসুন থেঁতো করে নিন। তারপর সেটা শুধু খেতে পারেন কিংবা স্যুপের সঙ্গে মিশিয়েও খেতে পারেন। আদা: রসুনের মতোই আদাও খুবই উপকারী একটি ঘরোয়া উপাদান। অনেক রকমের রোগ প্রতিরোধ করতে আদা খুব উপকারী। জ্বর কমাতে এক কাপ আদার রসে মধু মিশিয়ে খান। সঙ্গে সঙ্গেই ফল পাবেন। দারুচিনি: গলা ব্যথা, ঠাণ্ডা লাগা, কফ সারাতে দারুচিনি খুবই উপকারী। এতে অ্যান্টি ফাংগাল, অ্যান
তামিমের চিকিৎসায় সাড়ে ৩ লাখ টাকা প্রয়োজন: সাহায্যের অনুরোধ

তামিমের চিকিৎসায় সাড়ে ৩ লাখ টাকা প্রয়োজন: সাহায্যের অনুরোধ

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামের দরিদ্র কৃষি মজুর জুবেল মিয়া ও গৃহিনী তাছলিমা বেগমের একমাত্র শিশু সন্তান তামিম আহমদ (৫)। ধর্মীয় লাইনে পড়ানোর আগ্রহে একমাত্র ছেলেকে গ্রামের উমাতুল মুমেনিন মাদ্রাসায় ভর্তি করেছিলেন। তার বয়স দুই বছর হতেই ধরা পড়ে শিশু তামিমের হুদপিন্ডে ছিদ্র রয়েছে। সে জন্য গত তিন বছর ধরে সে নানা উপসর্গে ভোগছে। বাবা দরিদ্র কৃষি মজুর হওয়ায় প্রতিবেমীদের কাছ থেকে ধার দেনা করে আর্তিক সাহায্য নিয়ে তাকে (তামিমকে) দেখিয়েছিলেন হৃদরোগ ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা: মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরীকে। এর পর ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কার্ডিওভাসকুলার ডিজিসি(এনআইসিভিডি)-র অ্যাসোসিয়েট অধ্যাপক ডা: মো: খালেকুজ্জামানের অধীনে শিশুটি চিকিৎসাধীন আছে। চিকিৎসক জানিয়েছেন শিশু তামিমের দ্রুত অপারেশন প্রয়োজন। এ অপারেশনে ব্যয় হবে কমপেক্ষ সাড়ে তিন লাখ টাকা। একজন দরি

শক্তির জন্য রসুন!

ডেস্ক রিপোর্ট: দনৈন্দনি জীবনে আমরা প্রত্যকেইে রসুন খাই। তবে আমরা কি জানি রসুন আমাদরে দহেরেে কি উপকারে আস।ে এই রসুনই সবচয়েে উপকারি খাবাররে মধ্যে একট।ি রসুনরে স্বাস্থ্য উপকারতিা জানলে নশ্চিই আপনি অবাক হবনে। তাহলে চলুন পাঠক আজকে আমরা জনেে নইে রসুনরে নানান গুনাগুন। হাজার হাজার বছর ধরে রসুন বভিন্নি দশে ও সংস্কৃতরি মধ্যে অনকে ধরনরে ঔষধি কাজে ব্যবহার হয়ে আসছ।ে এটি শুধুমাত্র রন্ধন সর্ম্পকতি মশলাই নয়, অনকে ধরনরে স্বাস্থ্য উপকারতিা এর সাথে জড়তি। যখন মশিররে গজিা পরিামডি তরৈি হয় সইে সময় থকেইে বভিন্নি ধরনরে কাজে রসুনরে ব্যবহার হয়ে আসছ।ে ইতহিাস থকেে জানা যায় যে যুদ্ধরে সময় গ্রকি ও রোমান সন্যৈরা এবং আফ্রকিান কৃষকরো শক্তরি জন্য রসুন খতে। এছাড়া খ্রষ্টির্পূব ২০০০ শতাব্দী থকেে চীনারা রসুন ব্যবহার করতো। রসুনরে মাঝে রয়ছেে উচ্চমাত্রার ভটিামনি ব৬ি এবং স।ি এছাড়া রয়ছেে খাদ্য আঁশ, খনজি পর্দাথ এবং ম্যাঙ্গান
লক্ষ্মীপুরের দুটি হাসপাতালে ভ্রাম্যমান আদালতের ১ লাখ ১০ হাজার টাকা জরিমানা

লক্ষ্মীপুরের দুটি হাসপাতালে ভ্রাম্যমান আদালতের ১ লাখ ১০ হাজার টাকা জরিমানা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি. অব্যবস্থাপনা,নোংরা,মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষধসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে লক্ষ্মীপুর শহরের নিউ আধূনিক ও আধূনিক প্রাইভেট হাসপাতালে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযাল চালায়। এসময় দুইটি হাসপাতালকে ৫৫ হাজার টাকা করে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সমরকান্তি বসাকের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান চালায়। এর আগে একই অভিযোগে শহরের নিউ মডেল ও সেন্টাল ও হাসপাতালকে ১ লাখ ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নিবার্হ ম্যাজিস্ট্রেট সমরকান্তি বসাক ও উপজেলা নির্বাহী কমৃকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান জানান, স্বাস্থ্য বিভাগের উন্নয়নের লক্ষ্য পর্যায়ক্রমে সকল প্রাইভেট হাসপাতাল ও প্যাথলজিতে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে গাওয়া “ঘি”তে ভেজাল

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি. লক্ষ্মীপুরের বিভিন্ন হাট-বাজারে বি এস টি আই এর অনুমোদন বিহীন ভেজাল গাওয়াঘি অহরহ বিক্রি হচ্চে। এতে করে ক্রেতা সাধারন ভেজাল ঘি খেয়ে নানান ধরনের দূরারোগ্য রোগে আক্রন্ত হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে। জেলার রামগঞ্জ উপজেলার সোনাপুর,পানপাড়া.পানিওয়ালা ,নাগমুদ ও রায়পুর উপজেলার রাখালিয়া,হায়দারগঞ্জসহ বিভিন্ন হাট –বাজারে ভেজাল ঘাওয়াঘির রমরমা ব্যবসা চলছে। কিছু অসাদু ব্যবসায়ী টিনের কৌটার গায়ের লেবেলে ঢাকা ও চট্টগ্রামের ভুয়া ঠিকানা দিয়ে বিভিন্ন নাম ব্যবহার করে নিজেদের গোপন আস্তানায় ভেজাল ঘি তৈরী করে এজেন্টদের মাধ্যমে বাজারজাত করছে। রামগঞ্জ উপজেলার পানপাড়া বাজারে গিয়ে দেখা যায়, তানজিদ ট্রের্ডাস নামে একটি দোকানে পিওর গাওয়ঘি,হোয়াইট কাউ প্রিমিয়ারঘি, হোয়াইট কাউ স্পেশাল গাওয়ঘি এসব নাম দিয়ে প্রপাইটার নাহিদ ফুড প্রডাক্ট,লেবেল লাগিয়ে দের্ধাসে বিত্রিু করছে। এছাড়া একই ভাবে রামগতি,কমলনগর ও লক্ষ্ম

ফেনীতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রে ডেলিভারী টেবিল প্রদান

ফেনী প্রতিনিধি : ০২ আগস্ট’১৬ ফেনী সদর উপজেলার পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের আওতায় নয়টি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রে প্রসবসেবা সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে ডেলিভারী টেবিল প্রদান করা হয়েছে। এতে ইউনিয়ন পরিবার কল্যান কেন্দ্রে প্রসব ও মাতৃসেবা বৃদ্ধি পাবে। ফেনী সদর উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে এ সব ডেলিভারী টেবিল প্রদান করা হয়েছে। সোমবার ফেনী সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিক ভাবে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রহমান জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ইফতেখার আহমেদ চৌধুরীর হাতে এ সব ডেলিভারী টেবিল প্রদান করেন। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পি কে এম এনামুল করিম, ৯টি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের স্বাভাবিক সেবা প্রদানকারী পরিবার কল্যান পরিদর্শিকা ও উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসারগণ উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত: জেলার ৩৩টি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রে ২০১৪ সাল
ঘরেই তৈরি করুন মেদ ঝরানো জাদুকরী ক্রিম,

ঘরেই তৈরি করুন মেদ ঝরানো জাদুকরী ক্রিম,

ডেস্ক রিপোর্ট : বাজারে মেদ কমানোর জন্য নানান রকমের ক্রিম কিনতে পাওয়া যায়। পেট বা বাহুর মত শরীরের যেসব অংশে মেদ কমানো কষ্টকর, এসব ক্রিম সেই সব স্থানে ব্যবহারের জন্যই। যদিও চিকিৎসকেরা বলেন এগুলো ব্যবহার করা খুবই ক্ষতিকর। তাহলে উপায়? উপায় হচ্ছে নিজের ঘরেই একদম স্বল্প খরচে মেদ কমানোর ক্রিম বানিয়ে নিন। হ্যাঁ, একদম ঠিক শুনেছেন। আপনি চাইলে মাত্র ৩টি উপাদান দিয়ে নিজের ঘরেই বানিয়ে নিতে পারেন একটি জাদুকরী ক্রিম আর পেতে পারেন নিজের পছন্দের ফিগার! মাত্র ৭ দিন ব্যবহারেই ফলাফল পেতে শুরু করবেন এবং প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি বলে এর কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও নেই। প্রকৃতির কাছে আছে সব সমস্যার সমাধান। তাই মেদ কমানোর কাজেও আমরা নেব প্রকৃতির আশ্রয়। যা যা লাগবে ১০০ এম এল বেবি ক্রিম (সদ্য জন্মানো শিশুদের ব্যবহারের জন্য যে ক্রিম। ভালো দেখে নামকরা ব্রান্ডের নেবেন।) ২০ ফোঁটা অরেঞ্জ বা লেমন এসেনশিয়াল অয়েল ২-৫ ফোঁটা