স্বাস্থ্য-পুষ্টি

ভারত থেকে মাংস আমদানি বন্ধের দাবি

ভারত থেকে মাংস আমদানি ও গরুর হাটের চাঁদাবাজি বন্ধের দাবি জানিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন মাংস ব্যবসায়ী সমিতি। রোববার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির ছোট মিলেনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব রবিউল আলম এ দাবি জানান। তিনি বলেন, মাংস আমদানির জন্য দেশের জনগণ কোনো সুবিধা পাচ্ছে না, মাংসের দামও কমেনি। এর ফলে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত চামড়া প্রোডাক্ট অব দি ইয়ার এখন হুমকির মুখে। হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করে আধুনিক চামড়া শিল্পনগরী গড়ে তোলা হয়েছে। সেখানে মাংস আমদানি হলে রপ্তানি ধ্বংস হবে। মাংস ব্যবসায়ী সমিতি আরো দাবি করে, গাবতলী গরুর হাটের ইজারাদার ইজারার শর্ত মানছে না, আইনও মানছে না। ইচ্ছেমত অবৈধ চাঁদাবাজি করছে। এ বিষয়ে ঢাকা সিটি করপোরেশনে শত শত অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি। মাংস ব্যবসায়ীরা চাঁদাবাজির শিকার হওয়ায় অতিরিক্ত মূল্য জনগণের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে। রবিউল আলম ঢাক
আমলকি রসের নানা গুণ

আমলকি রসের নানা গুণ

আমাদের পরিচিত ও সব জায়গায় পাওয়ায় এমন ফলের মধ্যে আমলকি অন্যতম। নানা গুণাগুণে ভরপুর আমলকি। এতে রয়েছে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা। যেমন- রক্ত পরিশ্রুত করে আমলকি। এছাড়া এতে থাকা বিভিন্ন ভিটামিনের সমাহার ত্বক এবং চুলে পুষ্টিও জোগায়। শীতে ঘরে ঘরে সর্দি ও জ্বর থাকাটাই স্বাভাবিক। প্রতিদিন এক চামচ আমলকির রস মধু দিয়ে খেয়ে দেখুন, সর্দি-কাশির প্রকোপ থেকে রেহাই পেয়ে যাবেন। পাশাপাশি মুখের আলসার হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কমে যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, আমলকির মধ্যে থাকা অ্যামাইনো অ্যাসিড এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হৃৎপিণ্ডের কর্মক্ষমতা বাড়ায়। নিয়মিত আমলকির রস খেলে কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রণে থাকে। ডায়াবিটিস রোগীদের কাছে খুবই উপকারি আমলকির রস। হাঁপানি কমাতেও সাহায্য করে এই রস। শরীর থেকে টক্সিন বা বিষাক্ত পদার্থ ছেঁকে বার করে দেয় আমলকির রস। আমলকির রসে থাকা অ্যামিনো অ্যাসিড এবং প্রোটিন চুলের পুষ্টি যোগায়। চুল পড়া রোধ করে। আমলকি হ
পাঁচ বছরে ২৫ হাজার এমবিবিএস ডাক্তার

পাঁচ বছরে ২৫ হাজার এমবিবিএস ডাক্তার

দেশে ডাক্তারের সংখ্যা বাড়ছে। সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজ থেকে গত পাঁচ বছরে গড়ে ৫ হাজার করে প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থী এমবিবিএস পাস করেছেন। আগামী ৩ থেকে ৪ বছর গড়ে ৭ হাজার থেকে ৮ হাজার শিক্ষার্থী ডাক্তারি পাস করে বের হবে। পূর্ববর্তী পাঁচ বছরে প্রতি বছর গড়ে ৪ হাজার শিক্ষার্থী এমবিবিএস পাস করে বের হয়েছিল। বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) নির্ভরযোগ্য সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।   চিকিৎসা শিক্ষা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশে ডাক্তারের সংখ্যা বৃদ্ধি আপাতদৃষ্টিতে সুখবর হলেও অদূর ভবিষ্যতে তা মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দেখা দিতে পারে। গত পাঁচ বছরে ২৫ হাজার শিক্ষার্থী ডাক্তারি পাস করে বের হলেও তাদের মধ্যে কতজন প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শিক্ষা গ্রহণ করে ‘দক্ষ ডাক্তার’ হয়েছেন তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।   বিএমডিসি সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে দেশে বিএমডিসির রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত মোট ডাক্তার
সাত দিনের মধ্যে রোগী-চিকিৎসক সুরক্ষা আইনের নির্দেশ

সাত দিনের মধ্যে রোগী-চিকিৎসক সুরক্ষা আইনের নির্দেশ

রোগী ও চিকিৎসকদের সুরক্ষার জন্য আইনের খসড়া চূড়ান্ত করতে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। আগামী সাত দিনের মধ্যে আইনটি চূড়ান্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।   মঙ্গলবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্যসেবা আইন প্রণয়ন-সংক্রান্ত সভায় সভাপতিত্বকালে তিনি এ নির্দেশ দেন। কমিটিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, যুগ্মসচিবসহ বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন এবং স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের একজন করে প্রতিনিধি থাকবেন।   সভায় মোহাম্মদ নাসিম বলেন, হাসপাতালে রোগী এবং চিকিৎসকদের সুরক্ষার লক্ষ্যে আইন প্রয়োজন। মন্ত্রিসভা বৈঠকে উত্থাপনের জন্য আইনটি দ্রুত প্রস্তুত করার নির্দেশ দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। সভায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য অধিদফতরে মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আ
চিকিৎসকদের মর্যাদা নিজেকেই রক্ষা করতে হবে

চিকিৎসকদের মর্যাদা নিজেকেই রক্ষা করতে হবে

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ভিসি অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান বলেছেন, চিকিৎসকদের আত্মমর্যাদা নিজেকেই রক্ষা করতে হবে। দায়িত্ব পালনে অবহেলা না করে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে।   তিনি বলেন, সম্প্রতি দু’জন চিকিৎসককে নিয়ে সংবাদপত্রে লেখালেখি হচ্ছে, এমন বিষয় কাম্য নয়। অপরাধী যে-ই হোক তাকে শাস্তি পেতেই হবে। তবে কেউ যাতে ষড়যন্ত্রের শিকার না হন তাও দেখতে হবে।   রোববার ইন্সটিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) উদ্যোগে ইউরোলজি বিভাগের ‘টিম বিল্ডিং ফর সেলফ অ্যাসেসমেন্ট’ বিষয়ক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।       ভিসি বলেন, নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও এদেশের চিকিৎসাসেবা ও চিকিৎসা শিক্ষা অনেক দূর এগিয়েছে। তবে স্বাস্থ্য সেবার গুণগত মানের দিকে আরও নজর দিতে হবে।   তিনি বলেন, বিএসএমএমইউ
জরায়ুমুখের ক্যান্সার সচেতনতা দিবসে ‘জননীর জন্য পদযাত্রা’ অনুষ্ঠিত

জরায়ুমুখের ক্যান্সার সচেতনতা দিবসে ‘জননীর জন্য পদযাত্রা’ অনুষ্ঠিত

বাল্যবিবাহকে জোর না’ এই প্রতিপাদ্যে দেশে প্রথমবারের মত জরায়ুমুখের ক্যান্সার সচেতনতা দিবস পালিত হয়। ক্যান্সারবিরোধী মোর্চা ‘মার্চ ফর মাদার’ ও আন্তর্জাতিক রোটারি জেলা ৩২৮১, বাংলাদেশ যৌথভাবে এখন থেকে প্রতি বছর জানুয়ারি মাসের দ্বিতীয় শনিবার পালিত করবে।   এ উপলক্ষে সকাল ৯টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শেষে ‘জননীর জন্য পদযাত্রা’ বের হয়। ফার্মগেট পর্যন্ত এই পদযাত্রা থেকে জরায়ুমুখের ক্যান্সার নিয়ে সহজ বাংলায় লেখা তথ্যসমৃদ্ধ লিফলেট বিতরণ করা হয়, যা সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহের সৃষ্টি করে।   সংক্ষিপ্ত আলোচনায় কর্মসূচির প্রেক্ষাপট ও উদ্দেশ বর্ণনা করেন মার্চ ফর মাদার-এর প্রধান সমন্বয়কারী ও জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউটের ক্যান্সার ইপিডেমিওলজি বিভাগের প্রধান ডা. মো. হাবিবুল্লাহ তালুকদার রাসকিন।   তিনি বলেন, জরায়ুমুখ
নিয়মিত আদা খেলে ক্যান্সার হবে না

নিয়মিত আদা খেলে ক্যান্সার হবে না

দেশে যে হারে নানা ধরনের ক্যান্সারের প্রকোপ বাড়ছে, তাতে আদা খাওয়ার প্রয়োজনও যে বেড়েছে, সে বিষেয় কোনও সন্দেহ নেই! কারণ সম্প্রতি প্রকাশিত একটি গবেষণা পত্রে এমনটা দাবি করা হয়েছে যে নিয়মিত অল্প করে আদা খাওয়া শুরু করলে শরীরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং জিঞ্জেরল নামক দুইটি উপাদানের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। যা ক্যান্সার রোগকে ধারে কাছেও ঘেঁষতে দেয় না। আসলে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরে উপস্থিত টক্সিক উপাদানদের বের করে দেয়। ফলে দেহের অন্দরে ক্যান্সার সে জন্ম নেয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়।   শীতের সময় পিঠের ব্যথা খুবই কমন একটি সমস্যা। সেই সঙ্গে জয়েন্ট পেন তো আছেই। আর যদি বয়স ৫০ পরিয়ে গিয়ে থাকে, তাহলে তা কথাই নেই! সেক্ষেত্রে ব্যথা যেন রোজের সঙ্গী হয়ে ওঠে। এমন পরিস্থিতিতে আদা কষ্ট কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। আসলে আদায় উপস্থিত বেশ কিছু উপকারি উপাদান শরীরে প্রবেশ করার পর প্রদাহ বা ইনফ্লেমেশন এত
কিডনি ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম ঢাকার বাইরে সম্প্রসারণ করা দরকার

কিডনি ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম ঢাকার বাইরে সম্প্রসারণ করা দরকার

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, বাংলাদেশ কিডনি ফাউন্ডেশন দেশের কিডনি রোগ নিরাময়, ট্রান্সপ্লান্টেশন ও সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করে যাচ্ছে। বিভিন্ন কারণে দেশে কিডনি রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ কারণে ঢাকার বাইরে কিডনি ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম সম্প্রসারণ জরুরি। এতে করে তৃণমূল পর্যায়ে সাধারণ জনগণ কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশনসহ এ রোগের চিকিৎসার প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা পাবে।   শনিবার সকালে রাজধানীর মিরপুরে কিডনি ফাউন্ডেশন হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের কনভেনশন হলে বাংলাদেশ কিডনি ফাউন্ডেশন এবং বাংলাদেশ রেনাল অ্যাসোসিয়েশনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত আইএসএন পাইওনিয়ার অ্যাওয়ার্ড ২০১৭ প্রদান এবং ‘গ্লোবাল বার্ডেন অফ ক্রনিক কিডনি ডিজিজ’ শীর্ষক বিজ্ঞানভিত্তিক সেমিনারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।   মন্ত্রী বলেন, রোগের প্রতিকারের চেয়ে প্রত
জরায়ুমুখের ক্যান্সার সচেতনতা দিবসে ‘জননীর জন্য পদযাত্রা’

জরায়ুমুখের ক্যান্সার সচেতনতা দিবসে ‘জননীর জন্য পদযাত্রা’

‘‌বাল্যবিবাহকে জোর না’ প্রতিপাদ্য সামনে রেখে দেশে প্রথমবারের মত জরায়ুমুখের ক্যান্সার সচেতনতা দিবস পালিত হবে আজ শনিবার (১৩ জানুয়ারি)। ক্যান্সারবিরোধী মোর্চা ‘মার্চ ফর মাদার’ ও ‘আন্তর্জাতিক রোটারি জেলা ৩২৮১, বাংলাদেশ’ এর যৌথ উদ্যোগে প্রতি বছর জানুয়ারি মাসের দ্বিতীয় শনিবার এ দিবসটি পালন করা হবে।   দিসবটি উপলক্ষে আজ সকাল ৯টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) বটতলায় এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শেষে ‘জননীর জন্য পদযাত্রা’ বের করা হবে। পদযাত্রা থেকে জরায়ুমুখের ক্যান্সার নিয়ে সহজ বাংলায় লেখা তথ্যসমৃদ্ধ লিফলেট বিতরণ করা হবে। বিএসএমএমইউ ভিসি অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান ও রোটারি ইন্টারন্যাশনাল ডিস্ট্রিক্ট ৩২৮১ এর গভর্নর এফ এইচ আরিফ এ পদযাত্রার নেতৃত্ব দেবেন। পদযাত্রা শেষে সমাপনী বক্তব্য রাখবেন ক্যান্সার সারভাইভার, কবি ও সংসদ সদস্য কাজী রোজী।   এছাড়া দুপুর ১২টায় স
তিন মাসের মধ্যে বিএসএমএমইউ মেডিক্যাল কনভেনশন সেন্টার উদ্বোধন

তিন মাসের মধ্যে বিএসএমএমইউ মেডিক্যাল কনভেনশন সেন্টার উদ্বোধন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) আওতায় আন্তর্জাতিকমানের মেডিকেল কনভেনশন সেন্টার নির্মাণ কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার বিকেলে রাজধানীর মিন্টু রোডে এ মেডিক্যাল কনভেনশন সেন্টার পরিদর্শনে এসে নির্মাণ কাজের অগ্রগতি দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।   আগামী তিন মাসের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেডিকেল কনভেনশন সেন্টার উদ্বোধন করবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএসএমএমইউ ভিসি অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, প্রোভিসি (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, প্রোভিসি (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।   মেডিক্যাল কনভেনশন সেন্টারের বিষয়ে বিস্তারিত মন্ত্রীকে অবহিত করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) ও সেন্টার অব এক্সিলেন্সে পরিণতকরন ২য় পর্যায় প্রকল্পের পরিচালক অধ্যাপক ডা.