ধর্ম

সম্প্রীতির বাংলাদেশে শারদীয় দূর্গোৎসব অন্যতম জাতীয় উৎসব ……… অধ্যাপক রজত কান্তি ভট্টাচার্য্য

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য অধ্যাপক রজত কান্তি ভট্টাচার্য্য বলেছেন, সম্প্রীতির বাংলাদেশে শারদীয় দূর্গোৎসব অন্যতম জাতীয় উৎসব। তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত বাংলাদেশের মানুষ বিশ্বাস করে ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবার, উৎসব সবার। আর তাই প্রতিটি জাতীয় উৎসবে এই দেশের মানুষ একাত্ম হয়ে অংশ গ্রহণ করে। তিনি আরও বলেন, মানুষে মানুষে সম্প্রীতি বন্ধন যত দৃঢ় হবে। দেশের উন্নতি ও অগ্রগতি তত তাড়াতাড়ি হবে। অধ্যাপক রজত কান্তি ভট্টাচার্য্য শুক্রবার (৫ অক্টোবর) বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট সদর উপজেলা শাখার বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন। সংগঠনের সভাপতি নীলেন্দু দে অনপু এর সভাপতিত্বে এবং জোতিষ দত্ত এবং প্রহল্লাদ দেবনাথে যৌথ পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সংগঠনের জেলা সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রঞ্জন ঘোষ, মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত। সভায় বক্তা
কালিগঞ্জে ৫১ মন্ডপে জোরেশোরে চলছে শারদীয় দূর্গোৎসবের প্রস্তুতি

কালিগঞ্জে ৫১ মন্ডপে জোরেশোরে চলছে শারদীয় দূর্গোৎসবের প্রস্তুতি

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজার আর মাত্র দু’সপ্তাহ বাকী। পূজাকে কেন্দ্র করে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে এখন সাজসাজ রব। ৯ অক্টোবর শুভ মহালয়ার মধ্য দিয়ে পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। আর মহাপঞ্চমী পূজার মধ্য দিয়ে ১৪ অক্টোবর শুরু হবে মূল উৎসব। ১৯ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে দেবীর বিসর্জনের মধ্য দিয়ে ইতি ঘটবে শারদীয় দূর্গোৎসবের। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ কালিগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি সনৎ গাইন জানান, এ বছর উপজেলার ১২ ইউনিয়নে মোট ৫১ টি সার্বজনীন মন্ডপে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। বিগত বছরের ন্যায় এবারও সর্বাধিক ৯ টি মন্ডপে পূজা হচ্ছে উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে। এছাড়া কৃষ্ণনগর ইউনিয়নে ২ টি, চাম্পাফুল ইউনিয়নে ৬ টি, দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নে ৪ টি, কুশলিয়া ইউনিয়নে ৭ টি, নলতা ইউনিয়নে ২ টি, তারালী ইউনিয়নে ৩ টি, ভাড়াশিমলা ইউনিয়নে ৩ টি, মথুরেশপুর ইউনিয়নে ৫ টি, ধলবাড়িয়া ইউনিয়নে ৪ টি, রতনপুর
মৌলভীবাজারে আল ইসলাহ সভাপতি আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী   হযরত হুসাইন (রা.) এর শাহাদাতের মাধ্যমে হক জিন্দা হয়েছে

মৌলভীবাজারে আল ইসলাহ সভাপতি আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী হযরত হুসাইন (রা.) এর শাহাদাতের মাধ্যমে হক জিন্দা হয়েছে

বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ’র সভাপতি আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী বলেছেন কারবালায় হযরত হুসাইন (রা.) ও ইয়াযিদের মধ্যকার দ্বন্দ্ব ছিলো দুই ইজমের দ্বন্দ্ব। কারবালার ময়দানে হক ও বাতিলের দ্বন্দ্ব ছিলো। হযরত হুসাইন (রা) এর শাহাদাতের মাধ্যমে সেই হক জিন্দা হয়েছে। হযরত হুসাইন (রা.) এর শাহাদাত প্রত্যাশিত ছিলো। এ সম্পর্কে রাসূল (সা.) ও স্বয়ং হুসাইন (রা.) জানতেন। সবকিছু জানার পরও রাসূল (সা.) মুক্তির দোয়া না করে ধৈর্য ধারণের দোয়া করেছিলেন আর হুসাইন (রা.) দ্বীনের অগ্নি পরীক্ষার সম্মুখিন হয়ে সত্যের পক্ষে ও অসত্যের বিপক্ষে জীবন দিয়েছেন।    মৌলভীবাজারে ‘দ্বীন প্রতিষ্ঠায় আশুরার তাৎপর্য’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শহরের সরকারি স্কুল অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়া মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসা শাখার উদ্যোগে অনুষ্ঠিত সেমিনারে সভাপতি ছিলেন সং
পবিত্র আশুরা আজ

পবিত্র আশুরা আজ

আজ ১০ মহররম, পবিত্র আশুরা। ইসলামের ইতিহাসে শোকাবহ একটি দিন। কারবালার প্রান্তরে ঐতিহাসিক বিয়োগান্তক ঘটনার স্মরণে মুসলিম বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও আজ যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ পরিবেশে পবিত্র আশুরা পালিত হচ্ছে। ধর্মপ্রাণ অনেক মুসলমান আজ রোজা রেখেছেন। পবিত্র আশুরা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পৃথক বাণী দিয়েছেন। দিনটি উপলক্ষে বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। আপাতদৃষ্টিতে কারবালার প্রান্তরে বিয়োগান্তক ঘটনার স্মরণে দিনটি পালন করা হলেও ইসলামের ইতিহাসে এ দিনটির গুরুত্ব ও তাৎপর্য ঐতিহাসিক। কারণ বহু ঐতিহাসিক ঘটনা এদিন সংঘটিত হয়েছিল। তা
ধর্মীয় সুখের তালিকায় বাংলাদেশ ৮৩ তম

ধর্মীয় সুখের তালিকায় বাংলাদেশ ৮৩ তম

ধর্মীয় সুখী দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৮৩ তম। আর শীর্ষ তালিকায় রয়েছে কানাড। ধর্মীয় বৈচিত্র্যতা, ধার্মিক জনসংখ্যা, ধর্মীয় স্বাধীনতা, সহনশীলতাসহ বেশ কয়েকটি মানদণ্ডের ভিত্তিতে বিশ্বের সবচেয়ে এই ধর্মীয় সুখী দেশের তালিকা প্রকাশ করা হয়। ১১৫টি দেশকে নিয়ে এ তালিকা তৈরি করে যুক্তরাজ্যভিত্তিক বিলাসবহুল ভ্রমণ পরিকল্পনা সংস্থা ওয়ে ফেয়ারার ট্রাভেল। ওয়ে ফেয়ারার ট্রাভেলের এই তালিকার শীর্ষে থাকা কানাডা ধর্মীয় বৈচিত্র্যতা সূচক ও জীবন-যাপনের মানে সর্বোচ্চ স্কোর ৭ করে পেয়েছে। অন্যান্য পাঁচটি সূচকের চারটিতে ৬ করে এবং ধর্মীয় জনসংখ্যায় পেয়েছে ২। মোট ৪৯ স্কোরের মধ্যে ৪০ পেয়ে শীর্ষে রয়েছে কানাডা। এদিকে দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে ভারত। দেশটি ৩৬ স্কোর নিয়ে তৃতীয় স্থানে থাকলেও বাংলাদেশ এই তালিকায় স্কোর ১৯ পেয়ে রয়েছে ৮৩ তম অবস্থানে। নেপাল ২৭ স্কোর পেয়ে ২৩ তম, শ্র
২১ সেপ্টেম্বর পবিত্র আশুরা

২১ সেপ্টেম্বর পবিত্র আশুরা

বাংলাদেশের আকাশে কোথাও পবিত্র মহররম মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। বুধবার থেকে শুরু হবে ১৪৪০ হিজরি। ২১ সেপ্টেম্বর পালিত হবে পবিত্র আশুরা। সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আনিছুর রহমান। ধর্ম সচিব জানান, সকল জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর, মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ও দূর অনুধাবন কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশের আকাশে কোথাও নতুন আরবি বছর তথা হিজরি ১৪৪০ সনের পবিত্র মহররম মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। সে হিসেবে মঙ্গলবার জিলহজ মাসের ৩০ দিন পূর্ণ হবে এবং বুধবার থেকে শুরু হবে নতুন আরবি বছর। ১০ মহরম হচ্ছে ২১ সেপ্টেম্বর। ওই দিন শুক্রবার দেশে পবিত্র আশুরা পালিত হবে। ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমানে
হজে মক্কার ইমামের খুতবায় ভুল ধরেছিলেন সিলেটের আল্লামা মুশাহিদ বায়ামপুরী

হজে মক্কার ইমামের খুতবায় ভুল ধরেছিলেন সিলেটের আল্লামা মুশাহিদ বায়ামপুরী

ধর্ম
    আল্লামা মুশাহিদ বায়ামপুরী ১৩২৭ হিজরি মোতাবেক ১৯০৭ সালে মহররম মাসে শুক্রবার দিনে সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার বায়ামপুর গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। বায়মপুর বর্তমান কানাইঘাট পৌরসভার অন্তর্গত। তাঁর বাবার নাম কারী আলিম বিন কারী দানিশ মিয়া। আর মাতার নাম হাফেজা সুফিয়া বেগম। তিন ভাইয়ের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়। ছোটবেলায় তাঁর বাবা মারা যান। মায়ের তত্ত্বাবধানে লালিত-পালিত হন। মায়ের কাছেই তাঁর পড়াশোনার হাতেখড়ি। মাত্র সাত বছর বয়সে মায়ের কাছে কোরআন পড়া শিখেন। সঙ্গে বাংলা ও উর্দুও পড়েন।   শিক্ষাজীবন   আল্লামা বায়ামপুরী সাত বছর বয়সে গ্রামের পাঠশালায় ভর্তি হন। কানাইঘাট ইসলামিয়া মাদরাসা, যা বর্তমানে দারুল উলুম কানাইঘাট সেখান থেকে মাত্র ১০ বছর বয়সে তিনি প্রাথমিক পড়াশোনা সম্পন্ন করেন। মাধ্যমিক পর্যায়ের পড়াশোনাও এখানেই সম্পন্ন করে
ইতেকাফের উদ্দেশ্য ও শর্তাবলি

ইতেকাফের উদ্দেশ্য ও শর্তাবলি

ধর্ম
ইতেকাফ হলো মসজিদে বা নির্ধারিত স্থানে অবস্থান করা৷ রমজানের ২০ তারিখ ইফতারের আগে মসজিদে পৌঁছা মাসনুন ইতেকাফের জন্য জরুরি৷   ইতেকাফকারীদের জন্য ইতেকাফের উদ্দেশ্য ও শর্তাবলি জানা আবশ্যক৷ আর তা হলো-   ইতেকাফের উদ্দেশ্য দুনিয়ার যাবতীয় ঝামেলা থেকে সম্পূর্ণ মুক্ত হয়ে একাগ্রতার সঙ্গে আল্লাহর ইবাদতে মশগুল হওয়া, বিনয় ও নম্রতায় নিজেকে আল্লাহর দরবারে সমর্পণ করা এবং বিশেষ করে লাইলাতুল কদরে ইবাদত-বন্দেগি করার সুযোগ লাভ করাই ইতেকাফের উদ্দেশ্য৷   ইতেকাফের শর্ত ইতেকাফে রয়েছে কিছু শর্ত৷ আর তা হলো- - ইতেকাফের নিয়ত করা৷ নিয়ত ব্যতীত ইতেকাফ সহিহ নয়৷ - ইতেকাফ মসজিদে করা৷ পুরুষরা মসজিদে আর নারীরা ঘরের নামাজের স্থান অথবা নির্ধারিত স্থানে ইতেককফ করবে৷ জামা মসজিদ না থাকলে পাঞ্জেগানা মসজিদে ইতেকাফ করা৷ - রোজা রাখা৷ ওয়াজিব ও সুন্নত ইতেকাফের জন্য রোজা রাখা শর্ত৷ - মুস
রমজানে কুরআন তেলাওয়াত করবেন যে কারণে

রমজানে কুরআন তেলাওয়াত করবেন যে কারণে

ধর্ম
কুরআন নাজিলের মাস রমজান। এ মাসজুড়ে রোজা পালনসহ বিভিন্ন ইবাদতের অনেক ফজিলতও সাওয়াব রয়েছে। যে সুসংবাদ ও প্রতিশ্রুতি স্বয়ং আল্লাহ তাআলা প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের মাধ্যমে মুসলিম উম্মাহকে জানিয়ে দিয়েছেন। রমজানের অন্যতম ইবাদত হলো এ পবিত্র গ্রন্থ কুরআনের তেলাওয়াত।   কুরআন নাজিল প্রসঙ্গে আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘রমজান মাসই হল সে মাস; যে মাসে কুরআনুল কারিম নাজিল করা হয়েছে। (উদ্দেশ্য এ কুরআন) মানুষের জন্য হেদায়েত এবং সত্যপথ যাত্রীদের জন্য সুষ্পষ্ট পথ নির্দেশ আর ন্যায় ও অন্যায়ের মাঝে পার্থক্য বিধানকারী।   কাজেই তোমাদের মধ্যে যে লোক এ মাসটি (রমজান) পাবে, সে এ মাসের রোজা রাখবে।   আর যে লোক অসুস্থ কিংবা মুসাফির অবস্থায় থাকবে সে অন্য দিনে গণনা (রোজা) পূরণ করবে। আল্লাহ তোমাদের জন্য সহজ করতে চান; তোমাদের জন্য জটিলতা কামনা করেন না যাতে তোমরা গণনা পূরণ কর।
রমজানের কল্যাণ ও প্রতিশ্রুতি লাভে যা করবেন

রমজানের কল্যাণ ও প্রতিশ্রুতি লাভে যা করবেন

ধর্ম
রমজানকে আল্লাহ তাআলার তার নিজের মাস হিসেবে ঘোষণা করেছেন। হাদিসে কুদসিতে প্রিয়নবির বর্ণনায় আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘রোজা আমার জন্য রাখা হয়; আর আমিই রোজা প্রতিদান দেব।’   রমজান মাসে মুসলিম উম্মাহর জন্য অনেক সুসংবাদ রয়েছে। তন্মধ্যে সেরা সুসংবাদ হলো- এ মাসে জান্নাতের দরজা খুলে দেয়া হয়; জাহান্নামের দরজাগুলোকে বন্ধ করে দেয়া হয় আর কুমন্ত্রণাদানকারী বিতাড়িত শয়তানকে শৃঙ্খলাবদ্ধ করে রাখা হয়।       এ সবের কারণ হলো বান্দা যেন মহান রবের ইবাদত-বন্দেগিতে নিজেদের উজাড় করে দিতে পারে। আর এ ইবাদতের বিনিময়ে আল্লাহ তাআলা বান্দাকে রহমত বরকত মাগফেরাত ও নাজাত দান করতে পারেন। এ সবই মহান আল্লাহ তাআলার অপার হেকমত।   এ মাসে আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে বান্দার জন্য অসংখ্য ঘোষণা রয়েছে। এ সবের মধ্যে সেরা ঘোষণা হলো ক্ষমাপ্রাপ্তি। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন রাত দ্বিপ্রহরের পর প্রথম আসমান