আশুলিয়ার খাল দখলে জলাবদ্ধতা, নিরসনে বিক্ষোভ ও মানব বন্ধন

প্রকাশিত:বুধবার, ০৯ জুন ২০২১ ০৭:০৬

আশুলিয়ার খাল দখলে জলাবদ্ধতা, নিরসনে বিক্ষোভ ও মানব বন্ধন
 মোহাম্মদ ইয়াসিন, সাভার:
সাভারের আশুলিয়ায় জলাবদ্ধতার প্রধান কারন নয়নজুলি খাল দখল করে বিভিন্ন বাড়িঘর ও স্থাপনা সহ কল কারখানা নির্মাণ, এর ফলে পানির  প্রবাহ বন্ধ হওয়ায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছে এ অঞ্চলের সাধারিন বাসিন্দা। এই ভোগান্তি থেকে মুক্তি চেয়ে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী ও চির তারুণ্য সমাজ কল্যাণ সংগঠন।
মঙ্গলবার (০৮ জুন) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত  আশুলিয়ার বিশমাইল-জিরাবো বাইপাস সড়কের পুকুরপাড় এলাকায় বিক্ষোভ ও মানববন্ধন ককর্মসূচী পালন করেন তারা। মানববন্ধনে চির তারুণ্য সমাজ কল্যাণ সংগঠনের সকল কর্মী এবং কয়েক শতাধিক এলাকাবাসী উপস্থিত হয়ে বিক্ষোভ করেন।
এলাকাবাসীরা জানায়, আশুলিয়ার বাইপাইল থেকে গাজিরচট হয়ে তুরাগ নদে গিয়ে মিশেছে নয়নজুলি খাল। তবে বর্তমানে দখলদারের দৌরাত্ম্যে খালটির অস্তিত্ব প্রায় নিশ্চিহ্ন। এই খালটি বর্তমানে ড্রেনে পরিণত করেছে দখলদাররা। এ কারণে পুরো আশুলিয়ায় পানি প্রবাহ বন্ধ হয়েছে। বৃষ্টি হলেই হাজার হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়ে। এই অবস্থা থেকে দ্রুত মুক্তি চায় এলাকাবাসী।
চির তারুণ্য সমাজ কল্যাণ সংগঠনের সভাপতি মোজাম্মেল হোসেন বলেন, আশুলিয়ার বাইপাইল থেকে নয়নজুলি নামের শতবর্ষী খাল দখল করে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে। সামান্য বৃষ্টিতে গাজিরচটের কিছু স্থানসহ পুকুরপাড়, জিরাবোসহ বিভিন্ন বাড়িঘর পানিয়ে তলিয়ে গেছে। ভাড়াটিয়ারা অন্য স্থানে চলে যাচ্ছেন। বাড়িঘর পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় গার্মেন্টশ্রমিকসহ কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।তিনি আরও  বলেন, খালটির পানি নিষ্কাশন বন্ধ হওয়ার সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে আমান স্পিনিং মিলস লিমিটেড ও লুসাকা গ্রুপ। দ্রুত সমস্যা নিরসনে মোজাম্মেল হোসেন, রবিউল ইসলাম রুবি, ইঞ্জিনিয়ার মোঃ শাহাদাত হোসেন, মোঃ রাসেল, লাইভ উদ্দিন, মোহাম্মদ ইমারত হোসেন, ওমর ফারুক সহ সাত জনের একটি প্রতিনিধিদল দেখা করতে চাইলে লুসাকা গ্রুপের উপ-ব্যবস্থাপক শফিক আনোয়ার বিষয়টি উপরমহলে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা আশ্বস্ত করেন। তবে আমান স্পিনিং মিলস লিমিটেড কৌশলে বিষয়টি এড়িয়ে যান।
ভুক্তভোগী রহিমা নামে এক নারী বাসিন্দা বলেন, আমরা বহুৎ কষ্টে আছি, বাড়ি ঘর ডুবে গেছে। পচা দুর্গন্ধ পুরো ঘরে। এলাকার চেয়ারম্যান দেহেনা। দয়া করে আমাদের রক্ষা করেন।
মানববন্ধন থেকে রাকিব হাসান অন্তু বলেন, আমরা এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে স্মারকলিপি প্রদান করে সাভার-আশুলিয়ার স্থানীয় সাংসদ ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী ডা: এনামুর রহমানের শরণাপন্ন হয়েছি। খালটি উদ্ধারের জন্য সাভার উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছি। খালটি দখলমুক্ত করার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা না হলে আমরা কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব।
আশুলিয়া সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হাসান পিন্স বলেন, নয়নজুলি খালটি উদ্ধার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কিছু দিনের মধ্যে আমরা দৃশ্যমান কাজ শুরু করব।
Attachments area

এই সংবাদটি 1,230 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ