ইয়েমেনের কলেরা নিয়ন্ত্রণে আইসিডিডিআর,বি

প্রকাশিত:শুক্রবার, ০৬ অক্টো ২০১৭ ০১:১০

ইয়েমেনের কলেরা নিয়ন্ত্রণে আইসিডিডিআর,বি

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনের চিকিৎসক এবং নার্সদের একটি দলকে কলেরা ব্যবস্থাপনার ওপর সপ্তাহব্যাপী প্রশিক্ষণ প্রদান করছে আইসিডিডিআর,বি-র বিশেষজ্ঞ দল। এ দলের সদস্যরা দেশজুড়ে চলমান কলেরা মহামারি রোধে কাজ করছে। কুয়েতি সহযোগিতার মাধ্যমে এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলছে। ইয়েমেনে প্রায় ৬ লাখ মানুষ কলেরা আক্রান্ত।

 

আইসিডিডিআর,বি-র মিডিয়া ম্যানেজার এ কে এম তারিফুল ইসলাম খান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সব তথ্য জানা গেছে।

 

অক্টোবরের ৫ তারিখ থেকে শুরু হয়ে ১১ তারিখ পর্যন্ত আইসিডিডিআর,বি-র ঢাকা হাসপাতালে এ প্রশিক্ষণ চলবে।

 

ইয়েমেনের জনস্বাস্থ্য ও জনসংখা মন্ত্রণালয়ের রিপোর্টেও বরাত দিয়ে বলা হয়, শুধুমাত্র এ বছরের আগস্ট মাসেই ১ লাখ ৫২ হাজার ২১৬ জন মানুষ কলেরায় আক্রান্ত হয়েছে যার মধ্যে ১১৭ জন মারা গেছেন।

 

অবকাঠামোর অভাব এবং বর্তমান মানবিক সংকটের সংমিশ্রণ এই মহামারি বিস্তারে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। এ পর্যন্ত প্রায় ৬ লাখ মানুষের কলেরায় আক্রান্ত হওয়া এবং দুই হাজার আটত্রিশ জনের প্রাণহানি ঘটা নিঃসন্দেহে হতাশাজনক।

 

 

 

সাম্প্রতিক খরা এবং পানির অভাবের কারণে ইয়েমেন পৃথিবীর তীব্র পানি সংকটের দেশগুলোর অন্যতম। চলমান সহিংসতা লাখ লাখ মানুষকে বাস্তুচ্যুত করেছে, যারা এখন অপর্যাপ্ত আবাসন, পানি, স্যানিটেশন এবং খাদ্য-সংকটে জীবনযাপন করছে। ২০১৬ সালে সংঘর্ষ ছড়ানোর পর থেকে স্বাস্থ্যখাতের প্রায় অর্ধেক হাসপাতাল ও ক্লিনিক বিধ্বস্ত হয়ে যায়।

 

জাতিসংঘের মতে, ইয়েমেন বিশ্বের বৃহত্তম মানবিক সংকটকে প্রতিনিধিত্ব করে। এ মানবিক সংকটের প্রতি সাড়া দিয়ে কুয়েতি উইমেনস ফিলানথ্রোপিক টিম আইসিডিডিআর,বি-কে আর্থিক সহায়তা করছে যেন ইয়েমেনি স্বাস্থ্যকর্মীকে কলেরা নিয়ন্ত্রণে বিশেষজ্ঞ প্রশিক্ষণ প্রদান করতে পারে।

 

কুয়েতি উইমেনস ফিলানথ্রোপিক টিমের ম্যাডাম লায়লা আব্দুল্লাহ থৌনায়ান আলঘানিম বলেন, আমরা আইসিডিডিআর,বি-কে নির্বাচন করেছি কেননা এটি একমাত্র আন্তর্জাতিক সংস্থা যা বৈশ্বিক কলেরা মোকাবিলায় অপ্রতিদ্বন্দ্বী।

 

কুয়েতি জনহিতৈষী সংস্থার আর্থিক সহায়তায় ২০ জন ইয়েমেনি ডাক্তার এবং নার্সের আইসিডিডিআর,বি-র ঢাকা হাসপাতাল যেটি বিশ্বের সর্ববৃহৎ ডায়রিয়া রোগের চিকিৎসা কেন্দ্রে হাতে কলমে কলেরা ব্যবস্থাপনার ওপর প্রশিক্ষণ পাবে। তারা মহামারী নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিরোধ, নজরদারি, কেস ম্যানেজমেন্ট, এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও সেনিটেশন এর ওপরও প্রশিক্ষণ পাবে।

 

আইসিডিডিআর,বি-র উপনির্বাহী পরিচালক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, ইয়েমেনে কলেরার প্রাদুর্ভাব নিয়ে আমরা বিশেষভাবে উদ্বিগ্ন ছিলাম। আমরা এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বাস্তবায়নে সহযোগিতার জন্য কুয়েতি উইমেন্স ফিলানথ্রোপিক টিম, ইয়েমেনের জনস্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা মন্ত্রণালয় এবং সংশ্লিষ্ট সহযোগী সংস্থার প্রতি কৃতজ্ঞ।

 

এই সংবাদটি 1,227 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •