এসএসসি ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা দাবী, প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ০৮ এপ্রি ২০২১ ১২:০৪

এসএসসি ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা দাবী, প্রতিবাদে মানববন্ধন

প্রতিনিধি, বাউফল:
এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা দাবি এবং দীর্ঘদিন পর্যন্ত প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকায় মানববন্ধন করেছেন বাউফলের দাসপাড়া ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা । গতকাল বুধবার দুপরের দিকে বিদ্যালয় মাঠে প্রায় অর্ধ শতাধিক শিক্ষার্থী ও অভিভাবক ওই মানববন্ধন করেন।
রুবিনা আক্তার নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থীর ফরম করতে তার মা দুই হাজার টাকা নিয়ে আসলে প্রধান শিক্ষক কর্তৃক মনোনিত শিক্ষকরা ওই টাকা রাখেননি। রুবিনার মা জানান, শিক্ষকরা তিন হাজার টাকা না দিলে ফরম পূরণ করতে দেবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমার স্বামী দিন মজুর। ধার কর্জ করে দুই হাজার টাকা জোগার করেছি। মুন্নি নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থীর বাবা মো. রেজাউল কবীর জানান, তার মেয়ের ফরম পূরণের জন্য দুই হাজার টাকা সংগ্রহ করে এনেছি। শিক্ষকরা তিন হাজার টাকার কমে নেবেন না। প্রধান শিক্ষক স্কুলে আসে না। তিনি ফোনও বন্ধ করে রেখেছেন। তার সাথে কথা বলতে হলে বাউফল সদরে গিয়ে কথা বলতে হয়। বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা জানান, প্রধান শিক্ষক স্কুলে না এসে বাউফলে থাকেন। বছরে এক মাসও স্কুলে আসেন না। করোনাকালিন একবারও তাকে স্কুলে দেখা যায়নি। তিনি স্কুলের কোন খোঁজ-খবরও নেন না।
সন্তানদের ফরম পূরণ করতে স্কুলে আসা অভিভাবকরা বলেন, এই এলাকায় বেশিরভাগ শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরাই গড়িব শ্রেণির। তারপরেও ফরম পূরণে যে কোন সমস্যা হলে প্রধান শিক্ষক উপস্থিত থেকে সমাধান দেবেন। কিন্তু প্রধান শিক্ষক স্কুলেই আসেন না। তার অনুপস্থিতে যে শিক্ষকদের টাকা নেয়ার দায়িত্বে আছেন তারাও প্রধান শিক্ষকের নির্দেশ ব্যাতিত দুই হাজার টাকা গ্রহণ করছেন না। প্রধান শিক্ষকের অনুপস্থিতি এবং ফরম পূরণে কালক্ষেপনের কারণেই মানববন্ধন করা হচ্ছে বলে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা জানান।
মানববন্ধন শেষে ফরম পূরণের টাকা নেয়ার দায়িত্বে থাকা শিক্ষকদেরকেও স্কুলে পাওয়া যায়নি। শিক্ষার্থীরা জানান, ফরম পূরণের টাকা যে শিক্ষকদের মাধ্যমে দেয়ার জন্য প্রধান শিক্ষক দায়িত্ব দিয়েছেন তারা স্কুলের অদুরে দোকানে বসে গল্প-গুজব করছেন। এদিকে প্রধান শিক্ষক মো. বখতিয়ার উদ্দিনের ০১৭২৫৬৩২৭৮১ নম্বরে বার বার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

এই সংবাদটি 1,228 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •