• ১৯ জানুয়ারি, ২০২২ , ৫ মাঘ, ১৪২৮ , ১৫ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩

জামালপুরে জিংক সমৃদ্ধ ধান,গম,মসুরের চাষাবাদ বৃদ্ধির উপর কর্মশালা অনুষ্ঠিত

STAFF USBD
প্রকাশিত ডিসেম্বর ২২, ২০২১
জামালপুরে জিংক সমৃদ্ধ ধান,গম,মসুরের চাষাবাদ বৃদ্ধির উপর কর্মশালা অনুষ্ঠিত
জামালপুর সদরে জিংক সমৃদ্ধ ধান,গম,মসুরের চাষাবাদ বৃদ্ধি এবং সরকারি ক্রয় ও বিতরণ ব্যবস্থায় জিংক সমৃদ্ধ এই ফসলগুলো কে অন্তর্ভূক্তকরন বিষয়ে এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে ।
বুধবার (২২ ডিসেম্বর) আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার মোজাফফর হোসেন অডিটোরিয়ামে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নে বিংগস প্রকল্পের আওতায় এ কর্মশালার আয়োজন করে হারভেস্টপ্লাস বাংলাদেশ । এই বিংগস প্রকল্পটি জামালপুর ও শেরপুর জেলার ৬টি উপজেলায় বাস্তবায়ন করছে হারভেস্টপ্লাস সহ ওয়ার্ল্ডভিশন এবং উন্নয়ন সংঘ। কর্মশালায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিটুস লরেন্স চিরান এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আবুল হোসেন চেয়ারম্যান উপজেলা পরিষদ জামালপুর, বিশেষ অতিথি পিকন কুমার সাহা অতিরিক্ত উপ পরিচালক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, দিলরুবা ইয়াসমিন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, ডা, উত্তম কুমার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা । অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন হারভেস্টপ্লাস বিংগস প্রকল্পের সমন্য়কারী কৃষিবিদ মো, হাবিবুর রহমান ।
আলোচনায় বক্তারা বলেন বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি), বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) এবং বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) কর্তৃক উদ্ভাবিত জিংক সমৃদ্ধ বোরো মৌসুমে ব্রি
ধান৭৪ ও ব্রি ধান ৮৪ এবং আমন মৌসুমে ব্রি ধান৬২ ব্রি ধান ৭২ ও বিনা ধান ২০ জাতের পাশাপাশি রবি মৌসুমে জিংক সমৃদ্ধ বারি গম৩৩, বারি মসুর৬, বারি মসুর৭, বারি মসুর৮ প্রকল্প এলাকা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে চাষাবাদ হচ্ছে । এ ছাড়াও উচ্চ ফলনশীল ব্রি ধান ১০০ খুব শিগগিরই কৃষক পর্যায়ে সম্প্রসারণ করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন বক্তারা । যেহেতু জিংক শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি পুষ্টি উপাদান এবং হারভেস্টপ্লাস বাংলাদেশ দীর্ঘ দিন যাবত এর সম্প্রসারণ এবং বাজার জাত করনে কাজ করে আসছে তাই ভোক্তা পর্যায়ে এই ফসলগুলো সহজে পৌছানোর জন্য ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান । শিশু কিশোর কিশোরীদের ও নারী পুরুষের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি ও মেধা বিকাশে জিংক সমৃদ্ধ ধান গম মসুর ডাল সহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি এবং সরকারি ক্রয় ও বিতরণ ব্যবস্থা য় অন্তর্ভূক্তকরন করা খুবই জরুরি বলে বক্তারা মনে করেন । কর্মশালায় ১২৬ জন সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, এনজিও কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অংশ গ্রহণ করেন ।

এই সংবাদটি 1,228 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •