জিয়াউর রহমানের ৪০ তম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে মনফালকনে গরিঝিয়া শাখা বিএনপির আলোচনা ও দোয়া মাহফিল

প্রকাশিত:রবিবার, ৩০ মে ২০২১ ০৬:০৫

জিয়াউর রহমানের ৪০ তম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে মনফালকনে গরিঝিয়া শাখা বিএনপির আলোচনা ও দোয়া মাহফিল

ইতালি প্রতিনিধিঃ

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল মনফালকনে গরিঝিয়া শাখার উদ্যোগে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪০ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে মাগফেরাত কামনা,সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বিএনপির সকল নেতাকর্মীর রোগ মুক্তি এবং দীর্ঘায়ু কামনায় এক আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

দোয়া মাহফিলে জিয়ার আদর্শে দর্শনে বিশ্বাসী অসংখ্য সৈনিকগণ সম্পূর্ণ সামাজিক নিরাপত্তা বজায় রেখে উপস্থিত হয়ে দোয়া মাহফিলকে সাফল্য মন্ডিত করেন।

মনফালকনে গরিঝিয়া শাখা বিএনপির সভাপতি রফিকুল ইসলাম মোস্তাকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক হামীম হোসাইনের সঞ্চালনায় দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন মনফালকনে গরিঝিয়া শাখা বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা ফরিদুল ইসলাম আনিস, সাবেক প্রধান আহ্বায়ক নুরুল আমিন খন্দকার, সাবেক যুগ্ন আহ্বায়ক হুমায়ূন কবির, সিঃ সহসভাপতি জিয়াউর রহমান খান সোহেল , সহ-সভাপতি ইদ্রিস হাওলাদার , মামুন মিয়া , এমডি মিজানুর রহমান খান, মিয়া মাছুম, সিরাজুল ইসলাম টেনিস, বিএনপি নেতা জামাল মিয়া, সাইফুল ইসলাম, সিঃযুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ লিটন, মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া , দিলু শেখ ,সাংগঠনিক সম্পাদক জাকারিয়া মঞ্জুর ,শরীফ হোসাইন এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা ফরিদ আহমেদ, মাজহারুল ইসলাম, রকিব মুহাম্মাদ ইলিয়াছ, মাছুম আলী, সুমন মিয়া, এরশাদ উল্লাহ , আল আমিন খন্দকার , আনার মিয়া , আরজু মিয়া, ইছাক সরকার, কবির উদ্দিন সরকার, মুস্তফা মিয়া, জহির খান, দেলোয়ার হোসাইন, তারেক মিয়া, সামছুল সবুজ, জহিরুল্লাহ মিয়া, আপেল সারোয়ার, খোকন মিয়া, জিল্লু মিয়া ,যুবদল নেতা শাহপরাণ খন্দকার, সোহাগ মিয়া , জুনায়েদ আহমেদ, জহির খান, ওসমান মিয়া, এমডি জান্নাত হোসাইন, মুহাম্মদ মিন্টু , চন্নু মিয়া ,এমরান মিয়া, শামীম মিয়া, মোজাম্মেল শাহিদ, সাবেক সদস্য আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম বাচ্ছু, নড়িয়া পৌরসভার ছাত্র দলের সাবেক সভাপতি রোমান রাঢ়ী সহ আরো অনেকে।

করোনার সংকটময় পরিস্থিতিতে সবাইকে আমন্ত্রণ না জানাতে পারায় সভাপতি রফিকুল ইসলাম মোস্তাক ও সাধারণ সম্পাদক হামীম হোসাইন দুঃখ প্রকাশ করেন এবং আগামীতে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলে সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে বড় ধরনের অনুষ্ঠানের প্রতিশ্রুতি দেন।

এই সময় বক্তারা প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের দেশ প্রেম, মুক্তিযুদ্ধে সাহসী অবদান, সংকটময় পরিস্থিতিতে দেশের দায়ভার গ্রহন, বাকশালের অবসান, বহুদলীয় গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা, ন্যায় শাসন প্রতিষ্ঠায় বহিঃবিশ্বের সাথে সম্পর্ক উন্নয়ন ইত্যাদি নানান বিষয়ে অবদানের জন্য তাঁর স্মৃতিচারণ করেন।

একজন বীর উত্তমের সহধর্মীনী, তিন তিন বারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে যিনি জীবনের পুরো সময়টা ব্যয় করেছেন  বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে আওয়ামীলীগ সরকারের টালবাহানা নিয়ে কঠোর সমালোচনা করেন নেতৃবৃন্দরা।

তারুণ্যের অহংকার আগামী বাংলাদেশের রাষ্ট্রনায়ক  তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সরকারের ১৫ বছর ধরে একের পর এক মিথ্যা বানোয়াট মামলা দেওয়ার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান স্থানীয় নেতৃবৃন্দরা।

পরিশেষে  প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাগফেরাত কামনা ও আপোষহীন নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান এর সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘায়ু কামনায় ও অন্যান্য নেতাকর্মী যারা এই করোনাকালে ইন্তেকাল করেছেন, অসুস্থ আছেন,বর্তমান সময়ে নির্যাতিত নিপীড়িত বিএনপি নেতাকর্মী, আলেম সমাজ ও ফিলিস্তিনি ভাইবোনদের হেফাজত কামনায় মাওলানা হাফেজ নূর ই আলম মোল্লার দোয়ার মাধ্যমে মোনাজাত শেষ করেন।

এই সংবাদটি 1,227 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ