ত্রিপুরাতেও তৃণমূলের খেলা শুরু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলা ২০২১ ০২:০৭

ত্রিপুরাতেও তৃণমূলের খেলা শুরু

নিউজ ডেস্কঃ

বিজেপি শাসিত ত্রিপুরাতেও খেলা শুরু করে দিল তৃণমূল। রাজধানী আগরতলায় পৌঁছেই বুধবার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তিন দূতের হুমকি, ত্রিপুরাতেও খেলা হবে।

‘খেলা হবে’ স্লোগান দিয়েই পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির জয়ের রাস্তা আটকে দেয় তৃণমূল। ২০১৪-এর সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে গোটা দেশেই ‘খেলা হবে’ স্লোগানকে জনপ্রিয় করে তোলার পরিকল্পনা নিয়েছে দলটি।

২০২৩ সালে বাংলা ভাষী ত্রিপুরাতেও বিধানসভার ভোট। তার আগে সেখানকার পরিস্থিতি যাচাই করতে গিয়েছিল বেসরকারি ভোট সমীক্ষক সংস্থা আই-প্যাক। এই সংস্থাটি তৃণমূলের হয়ে কাজ করে।

কিন্তু গত রোববার রাতে আই-প্যাকের ২৩ সদস্যকে হোটেল থেকে বার হতে নিষেধ করেন ত্রিপুরার পুলিশ কর্তারা। পরে গত সোমবার তাঁদের কোভিড টেস্ট করানো হয়। খবর পেয়েই দলের তিন শীর্ষ নেতাকে ত্রিপুরা যাওয়ার নির্দেশ দেন মমতা।

তাঁর নির্দেশ পেয়ে মঙ্গলবারই ঠিক হয় আই-প্যাক সদস্যদের উদ্ধারে পশ্চিমবঙ্গের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক, শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু ও ট্রেড ইউনিয়ন নেতা ও সাবেক এমপি ঋতব্রত ব্যানার্জি আগরতলা যাবেন।

এরপরই অবশ্য আই-প্যাক সমীক্ষকদের মুক্তি দেয় পুলিশ। তাদের করোনা রিপোর্টও নেগেটিভ এসেছে। তবে ১ আগস্ট ২৩ জনকেই আগরতলার পূর্ব থানায় দেখা করতে বলা হয়েছে।

আজ বুধবার পশ্চিমবঙ্গের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক বলেন, ‘এদের কাছে কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট ছিল ৷ কেন তাঁদের থানায় গিয়ে হাজিরা দিতে হবে? এখানকার সরকার যদি মনে করে মিথ্যে মামলা করে ভয় দেখাবে, তাহলে ওরা ভুল করছে৷ ‘

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘ফ্যাসিবাদী আচরণের সরকারি মুখ আমরা ত্রিপুরায় দেখতে পাচ্ছি ৷ ত্রিপুরার মানুষও বুঝতে পারছেন যে ভারতবর্ষে বিজেপি-কে একজনই আটকাতে পারেন, তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ দলের নাম তৃণমূল কংগ্রেস৷ ‘

তৃণমূলের শ্রমিক নেতা ঋতব্রতের মতে, বাম বা কংগ্রেস নয়, বিজেপিকে একমাত্র তৃণমূলই হারাতে পারে। তাই ভয় পেয়েছে বিজেপি। স্বৈরাচারী শাসন কায়েম হয়েছে রাজ্যে। তাই এখানেও খেলা হবে।

তৃণমূলের পাশাপাশি রাজ্য়ের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও সিপিএম পলিটব্যুরো সদস্য মানিক সরকারও আই-প্যাকের সমীক্ষকদের হয়রানির নিন্দা করেছেন। তাঁর মতে, রাজ্যে জঙ্গলের শাসন কায়েম হয়েছে।

অন্যদিকে, বিজেপির মুখপাত্র নবেন্দু ভট্টাচার্য সমস্ত অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন। তাঁর মতে, কোভিড পরিস্থিতিতে পুলিশ পুলিশের কাজ করেছে। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই।

এদিকে, দিল্লিতে তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি সোনিয়া  গান্ধী থেকে শুরু করে ভারতের বিরোধী নেতাদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করে জোট গঠনের প্রক্রিয়া চালাচ্ছেন। তাঁর আশা, গোটা দেশ থেকেই বিজেপিকে হারাতে গড়ে উঠবে বিরোধী জোট।

ত্রিপুরাতেও খেলা শুরু তৃণমূলের, বিজেপির বিরুদ্ধে স্বৈরতান্ত্রিক আচরণের অভিযোগ, ত্রিপুরার মাটিতে বিজেপিই থাকছে, পাল্টা দাবি শাসক দলের।

এই সংবাদটি 1,228 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •