• ২৪ জানুয়ারি, ২০২২ , ১০ মাঘ, ১৪২৮ , ২০ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩

নিউইয়র্কে ছুরিকাঘাতে বাংলাদেশি রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী জাকির খান খুন : শুক্রবার বাদ জুমা পার্কচেস্টার মসজিদে জানাজা

ADMIN, USA
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৭

নিউইয়র্কে বাড়ীর মালিকের ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন বাংলাদেশি রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী কমিউনিটির অতি পরিচিত মুখ জাকির খান (৪৪)। স্থানীয় সময় ২২ ফেব্রুয়ারী বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় বাংলাদেশি অধ্যুষিত ব্র্রঙ্কসের থ্রকসনেক এলাকায় এ মর্মান্তিক হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। জাকির খানের হত্যাকান্ডের খবরে বাংলাদেশি কমিউনিটিতে নেমে আসে শোকের ছায়া।
জাকির খানের পারিবারিক সূত্র জানায়, জাকির খান অন্যান্য দিনের মত কাজ শেষে ব্র্রঙ্কসের লোগান এবং বারকলি এভিনিউর ভাড়া বাড়ীর সামনে দাঁড়িয়েছিলেন। ওই সময় জাকির খানের সাথে তার বাসার মালিকের ভাড়া সংক্রান্ত বিষয়ে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাসার মালিক মিশরীয় আমেরিকান উত্তেজিত হয়ে উপর্যপুরি তার বুকে চুরিকাঘাত করতে থাকে। জাকির খান রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। বাড়ীর মালিক নিজেই চিৎকার করে পুলিশে খবর দিতে বলেন। জানা যায়, এই অবস্থায় বাড়ির মালিক নিজেই পাশ্ববর্তী থানায় গিয়ে ঘটনার বর্ণনা দেয়। পুলিশ এবং এম্বুলেন্স দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে আহত জাকির খানকে উদ্ধার করে নিকটস্থ জ্যাকবি হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ভর্তি করান। চিকিৎসাবস্থায় ঘন্টা দেড়েক পর জাকির খানের মৃত্যু হয়। তার বুকে অন্তত সাতটি ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। জাকির খানের মরদেহ পোস্টমর্টেমের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

পুলিশ ঘাতক বাড়িওয়ালাকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত বাড়ীওয়ালার বয়স ৫১ বছর। প্রতিবেশিরা জানান, বাড়ী ভাড়া নিয়ে বাড়ি মালিকের সঙ্গে বছর খানেক ধরে জাকির খানের বিরোধ চলে আসছিল।
জাকির খানের গ্রামের বাড়ী সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পাঠানটিলা গ্রামে। ৭ ভাই ৫ বোনের মধ্যে জাকির খান ঢাকার নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে ১৯৯২ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হয়ে আসেন।
জাকির খান নিউইয়র্কে এসে পড়াশুনা শেষ করে রিয়েল এস্টেট ব্যবসার সঙ্গে জড়িত হন। তিনি ব্র্রঙ্কসে শীর্ষ স্থানীয় রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী হিসেবে কমিউনিটিতে পরিচিতি লাভ করেন।

জাকির খান নানা সামাজিক কর্মকান্ডে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতেন। মূলধারার রাজনীতির সঙ্গে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছিলেন। মৃত্যুর আগের দিন ব্রঙ্কসে বাংলাদেশ একাডেমি অব ফাইন আর্টস – বাফা আয়োজিত একুশে ফেব্রুয়ারীআন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রভাতফেরিতে অংশ নিয়ে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন জাকির খান। ওই সময় তিনি আয়োজকদের নানাভাবে সহযোগিতাও করেন বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। নিউইয়র্কে ঐতিহাসিক বাংলাদেশ ডে বিলটি পাশ হয় ২০১২ সালের ২৪ মার্চ। এই ঐতিহাসিক উদ্যোগটির রূপকার ছিলেন ব্রঙ্কস থেকে নির্বাচিত সিনেটর রুবিন ডিয়াজ। তাকে রেজুলেশন তৈরি করে সহযোগীতা করেন এটর্নী লুইস সিপুলভেদা (বর্তমান এসেম্বলিম্যান)। তাদের সহযোগীতা করেন তার অন্যতম উদ্যোক্তা জাকির খানসহ ব্রঙ্কস প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটির নের্তৃবৃন্দ।
জাকির খানের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে শ শ প্রবাসী বাংলাদেশি জ্যাকবি হাসপাতালে ভীড় জমান। কমিউনিটিতে নেমে আসে শোকের ছায়া। বাংলাদেশি কমিউনিটির নের্তৃবৃন্দ এ হত্যাকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
জাকির খানের স্ত্রী ন্যান্সী খান একজন সঙ্গীত শিল্পী। জাকির খানের এক কন্যা ও দু’ছেলে রয়েছে। তিন ছেলেমেয়েই ছোট। তারা এখনো স্কুলে যাচ্ছে। পিতাকে হারিয়ে শোকে বিহ্বল তিন শিশু। জাকির খানের পিতা মরহুম এজামত খান। তার মাও বেঁচে নেই।

জাকির খানের এক নিকট আত্মীয় জানান, আগামী কাল শুক্রবার ব্রঙ্কসের পার্কচেস্টার জামে মসজিদে (১২০৩ ভার্জিনিয়া এভিনিউ, ব্রঙ্কস, এনওয়াই ১০৪৭২) বাদ জুমা নামাজে জানাজা শেষে তার মরদেহ বাংলাদেশে পাঠানো হবে। সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পাঠানটিলা গ্রামে দ্বিতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।
ওই আত্মীয় জানান, জাকির খানের ভাইদের কয়েকজন দেশে গেছেন। ভাইয়ের মর্মান্তিক হত্যাকান্ডের খবর পেয়ে দেশ থেকে তারা দ্রুত যোগাযোগ করেছেন।

এই সংবাদটি 1,234 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •