বদরউদ্দিন আহমেদ কামরানঃ একজন অকৃত্রিম গুনী মানুষের প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত:বুধবার, ১৭ জুন ২০২০ ০২:০৬

বদরউদ্দিন আহমেদ কামরানঃ একজন অকৃত্রিম গুনী মানুষের প্রতিচ্ছবি

শেবুল চৌধুরী :আমাদের কামরান ভাই নাহ্ ভুল বললাম আমাদের দুলাভাই বদরুদ্দিন আহমেদ কামরান আর নেই ।ইন্না লিললাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিঊন ।বেদনা দায়ক এই সংবাদটি আমি প্রথম দেখি ফেসবুকের একটি পোস্ট থেকে ।কিছু নষ্টদের কারণে ফেসবুকের প্রতি মানুষের বিশ্বাসের কমতি রয়েছে ।ভালোভাবে দেখতে গিয়ে পোস্টটি হারিয়ে ফেললাম।তখন রাত দশটা’র উপরে ।লক ডাউনের সুবাদে আমার কলেজে জীবনের বন্ধুদের একটি ফেসবুক গ্রুপ রয়েছে । প্রায় প্রতিদিনই আমাদের আড্ডা হয় ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে ।আমি সাথে সাথেই গ্রুপে ঢুকে সংবাদটির কথা জানালে কে একজন বলে উঠলেন, সংবাদটি সঠিক নয়।আমি সাথে সাথে বের হয়ে সার্চ করতে লাগলাম ।কোন খবর না টেলিফোন করলাম বন্ধুবর মাহবুবুল হাসান ওরফে শরীফ ভাইকে (শরীফ ভাইয়ের দুলাভাই হলেন বদরুদ্দিন কামরান)।শরীফ ভাই ফোন না ধরায় টেলিফোন করলাম আমাদের আরেক বন্ধু রনজু ভাইর কাছে ।রনজু ভাইকে অনুরোধ করলাম শরীফ ভাই কাছ থেকে সঠিক খবরটা জানার জন্য ।দু’এক মিনিটের মধ্যে রনজু ভাই টেলিফোন করে বললেন শরীফ ভাই বার্মিংহাম থেকে দূরে একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে রয়েছেন ।

তবে কামরান ভাই ভালো আছেন ।আমার কেন জানি অস্থিরতা বেড়ে গেলো। মনে মনে ভাবলাম সত্যি হলে খবর আসবেই ।এর মধ্যেই সিলেট মহানগর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মুশফিক জায়গীরদারের পোস্ট ।আমাদের কামরান ভাই আর নেই, এই শিরোনামে । দেখা মাত্রই আমি মনের অজান্তেই শেয়ার করি । তারপর বিশিষ্ট সাংবাদিক, গবেষক আমার অগ্রজ সুজাত মনসুর ভাইকে ফোন দিলাম ।সুজাত ভাই বললেন,কোন সংবাদ পত্রের নিউজ হলে বুঝে নিও সত্য।ফেসবুকের খবর পুরোপুরি বিশ্বাস করা যায় না । তবে কামরান ভাইর অবস্থা ভালো নয়। আমি টেলিফোন রাখতে না রাখতেই বার্মিংহাম মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফাহিমা রহিমের টেলিফোন ।খবরটা কি সত্যি ।আমি বললাম সূত্র ফেসবুক ।ইতিমধ্যে আবার রনজু ভাই ও সুজাত ভাইয়ের পাল্টা ফোন মৃত্যুর নিশ্চিত সংবাদ নিয়ে ।তাঁরপর থেকে দুদিন যাবৎ নানান বেদনা ও এলোমেলো নিয়ে আছি ।কয়েকবার লিখতে বসছি কিন্তু স্মৃতি ও আজ এলোমেলো ।

সিলেটের গন মানুষের নেতা, সাবেক নগর পিতা বদরুদ্দিন আহমেদ কামরানকে নিয়ে কিছু লিখার মতো দুঃসাহস বা অভিলাষ কোনটাই আমার নেই ।বদরুদ্দিন কামরান ভাইয়ের সাথে কবে, কোথায় ,কিভাবে প্রথম পরিচয়, তা নাই বা লিখলাম; আমার আম্মার মৃত্যুর পর লাশ নিয়ে যখন আমরা তিন ভাই সিলেট ওসমানী বিমান বন্দরে যাই, সেখানে আমাদের নিকট আত্মীয়দের সাথে মেয়র কামরানের পাশে দাঁড়ানোর কথা, তাও বা না লিখলাম, বিভিন্ন সভা সমাবেশ সহ অনেক কিছুর কথা বাদ দিয়ে শুধু মানুষের জন্য তাঁর যে অকৃত্রিম ভালোবাসা তা নিয়ে লিখতে গেলে ফুটে উঠবে ইতিহাসের আলোকে গুনীমানুষের প্রতিচ্ছবি ।মেয়র কামরান, আওয়ামী লীগের কামরান, সিলেটের কামরান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কামরান এগুলো আজ ইতিহাস ।আমি ইতিহাসের দিকে যাচ্ছি না।আমি শুধু কামরান ভাই নয়,দুলাভাই’র হিসেবে সাক্ষ্যতের কিংবা সেই সুন্দর স্মৃতি ময় একটি সন্ধ্যা’র কথা বলবো যা আমাদের জন্য আজ স্মৃতি ।

বদরুদ্দিন আহমেদ কামরান স্বপরিবারে বৃটেনে এসেছিলেন কিছু দিন আগে ছোট ছেলের বিবাহ উপলক্ষে ।আপা আছমা কামরানকে নিয়ে সভা করলো সিলেট উইমেন্স কলেজের এক্স স্টুডেন্ট নেটওয়ার্ক গ্রুপ(OSGWC)।সেই অনুষ্ঠানে কামরান সাহেবকে ও আনার চেষ্টা চালালে তিনি অসুস্থতার জন্য (বার্মিংহাম) আসতে পারেন নাই ।পরবর্তীতে তিনি বার্মিংহাম আসলে স্বল্প পরিসরে আমরা মিলিত হই আমার সহোদর বাংলা কাগজের অন্যতম ডাইরেক্টর আব্দুল মুয়ীন চৌধূরী সিমনের বাসায়।সেখানে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলা কাগজের সেক্রেটারী জেনারেল আলহাজ্ব খসরু খান, নির্বাহী সম্পাদক রিয়াদ আহাদ,বাংলা কাগজের অন্যতম উপদেষ্টা ফিরোজ রববানী,বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা বন্ধুবর রনজু মিয়া, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শেখ খালিক উদ্দিন,বাংলা কাগজের কাজী লোকমান হোসেন ,বন্ধু বর শরীফ ভাই, উইমেন্স কলেজ নেটওয়ার্কের মির্জা ফাতেমা খান, আখতারুন চৌধূরী গুলশান তাহেরা আনোয়ার চৌধূরী নাহিদ ,রাশিয়া খাতুন, নূরুন চৌধূরী কলি, পলি সিকদার, মিসেস আছমা কামরান, মিসেস রিয়াদ আহাদ, মিসেস ইয়াসমিন হোসেন, মিসেস জয়নাল ইসলাম প্রমুখ ।সেদিন স্বল্প সময়ের আডডায় অনেক কিছু নিয়ে কথা হলো ।কথা হলো রাজনৈতিক পরিস্থিতি থেকে শুরু করে আমাদের কৃষি ও সংস্কৃতি নিয়ে ।কথা ছিলো,ছেলের বিবাহের পর টিকেট এক্সটেনশন হলে কবিতা,গান ও আড্ডা হবে ।তবে সে আড্ডা আমরা একজন দুলাভাইকে নিয়ে করবো ।এখানে উলেলখ্য যে,বন্ধু শরীফের কথা হলো এখন থেকে আমাদেরকে কামরান ভাই নয়, দুলাভাই ডাকতে হবে ।কই আর তো আমাদের দুলাভাই ডাকা হলো না ?হলো না দুলাভাইকে নিয়ে আড্ডা? দেখা হওয়ার কথা ছিল ছোট ছেলের বিয়েতে ।তা ও হলো না। পরিশেষে মহান আল্লাহ্’র কাছে একটাই আবেদন তিনি যেন উনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন ।আমীন ।

এই সংবাদটি 1,276 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •