• ২৪ জানুয়ারি, ২০২২ , ১০ মাঘ, ১৪২৮ , ২০ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩

বরিশালে বন্যার আশংকা,নদী ভাংগন অব্যাহত

ADNAN USA8
প্রকাশিত আগস্ট ৮, ২০১৬

 

hgfjk

মোঃআরিফ সুমন,বরিশাল প্রতিনিধি: সারা দেশের ন্যায় বরিশালে বন্যার প্রার্দূভাব দেখা দিয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে এবং নদী ভাংগন অব্যাহত রয়েছে। উজিরপুর,গৌরনদীর,বাবুগঞ্জ ,শ্রীপুর,হিজলা অঞ্চলের নিন্ম অঞ্চল পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এ সব অঞ্চলের নদীর পানি বিপদ সিমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তাছারা বরিশালে উত্তরাঞ্চল থেকে নেমে যাওয়া পানি এখন দক্ষিণাঞ্চলের দিকে ধেয়ে ধেয়ে আসছে। এতে বরিশাল নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক সহ বরিশালের বিভিন্ন জায়গায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত দেখা দিয়েছে । কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও উজানের ঢল থেকে নেমে আসা পানি এবং জোয়ারের কারণে কীর্তনখোলা নদীর পানি বেড়ে বিপদ সীমার ৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে এর প্রভাব দেখা দিয়েছে । পানি বেশি বৃদ্ধি পাওয়ায় নগরীর প্রায় জায়গার ঘর বাড়ি তলিয়ে গেছে এবং রাস্তায় ও পানি উঠে গেছে। বিলীন হয়ে যাচ্ছে নিন্ম অঞ্চলের ব্যবস্যা প্রতিষ্ঠান, ঘরবাড়ি, ও ফসলি জমিসহ বিস্তীর্ণ অঞ্চল। হুমকির মুখে রয়েছে নদী তীরবর্তী এলাকার হাজার হাজার পরিবার। এরই মধ্যে ভিটেবাড়ি হারিয়েছেন নদীর পাশ্বে থাকা এক শতাধিক পরিবার। নগরীর বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখা গেছে, নগরীর বন্দর রোড, মেডিকেলের সামনে , ব্রাউন কম্পাউন রোড ,কাউনিয়া , ব্যাপ্টিশ মিশন রোড , নামারচর ,চাঁদমারী, আমানতগঞ্জ বেলতলা, কেডিসি, পালাশপুর ,রসুলপুরসহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে পানিতে ভরে গেছে। অন্যদিকে, সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়ন, চরমোনাই লঞ্চঘাট, চর আবদানি, চর কাউয়া, সিংহেরকাঠি, বেলতলা ফেরিঘাট, ,সুন্দরবন ডকসহ কয়েকটি স্থানে, বরফকল, সিটি কর্পোরেশনের সার্ফেস ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্টসহ বিশাল এলাকার বাসিন্দারা এখন ভাঙনের হুমকির মুখে দাড়িয়ে। এছাড়া বরিশাল নগরীরর বাহিরে বাবুগঞ্জ উপজেলার সুগন্ধা নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় বাহেরচরের কিছু এলাকা পানিতে ভরে যাওয়ার কারনে বাসিন্দারা এখন রাস্তায় গিয়ে দাড়িয়েছে। র্কীতনখোলা নদীর পাশ্বে শত শত পরিবার ভাঙন আতঙ্কে নির্ঘূম কাটাচ্ছে প্রতি সেকেন্ড। বরিশাল নগরীতে প্রায় স্থানেরই রাস্তা ঘাটসহ কোথাও কোথাও পানি ঢুকে পড়েছে বসতঘরের মধ্যেও। ফলে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে এ নগরবাসি । পলাশপুর ৫ নং ওয়াড এম হোসেন গল্লির পূর্ব মাথার রহমানিয়া কেরাতুল কোরআন নুরানী হাফিজি মাদ্রাসার পরিচালক মো:নুরুল ইসলাম ফিরোজী জানান, আগে বাড়ির সামনের রাস্তা পানিতে তলিয়ে ছিল। আজ তার মাদ্রাসার ভিতরে পানি ঢুকে ছাত্রদের বই খাতা ভিজে গেছে। তিনি আরো জানায়,পানির কারনে এই এলাকা সহ আসে পাশ্বের শিক্ষার্থীর পরছে চরম দূর্ভোগে। ফলে ছেলে নিয়ে পানির মধ্যে থাকা দুস্কর হয়ে পড়েছে বলে তিনি জানান। পানি উন্নয়ন বোর্ডের বরিশাল হাইড্রোলজি বিভাগের গেইজ রিডার আঃ রহমান জানান দৈনিক আমাদের বরিশালকে, কীর্তনখোলা নদীর পানির লেভেল সোমবার ২ দশমিক ৭ মিটার ছিল। মঙ্গলবার পানির লেভেল ছিল ২ দশমিক ৯ মিটার বৃহস্পতিবার প্রায় সাড়ে ৩ দশমিক মিটারেরও বেশি রয়েছে। গত এক সপ্তাহ থেকে প্রতিদিনই একটু একটু করে পানি চাপ বাড়ছে নদীতে বলে জানান তিনি। এব্যাপারে বরিশাল আবহাওয়া অধিদপ্তরের উচ্চ পর্যবেক্ষক মো:ইউসুফ হোসেন বলেন, গত বেশ কয়েকদিন ধরে গুড়ি গুড়ি বৃস্টি হয়েছে এ অঞ্চলে। সারা দেশের মত বন্যার পূর্বাভাস রয়েছে বরিশালে । আগামী ১ আগস্ট বৃষ্টির রেকর্ড ছিলো ১২ মিলি মিটার ২ আগস্ট ৯ দশমিক ১ মিলিমিটার ৩আগস্ট ৪দশমিক ৪ মিলিমিটার পর্যন্ত রেকড করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন রাতে মাঝারি বৃস্টি অথবা দমকাহাওয়া বয়ে যেতে পারে ।
আবহাওয়া দপ্তরের উচ্চ পর্যবেক্ষক প্রনব কুমার রায় বলেন, সিপোর্টে ৩ নং সিগন্যাল আছে তাছারা উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে লঘূ চাপের সৃষ্টি হয়েছে। বরিশালে অতটা পানি হবে না তবে ২/৩ ফুট পানি বৃদ্ধি পেতে পারে। আম্যাবসার জো এর কারনে সমুদ্রের পানি নির্ন্মাঅঞ্চলে নেমে আসছে। এ রকমের আবহাওয়া আরো দু একদিন থাকতে পারে।

এই সংবাদটি 1,229 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •