বিকেলে নিউজিল্যান্ডকে নাচিয়ে ছাড়ল বাংলাদেশ - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, বিকাল ৫:৩০, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

বিকেলে নিউজিল্যান্ডকে নাচিয়ে ছাড়ল বাংলাদেশ

newsup
প্রকাশিত ডিসেম্বর ৬, ২০২৩
বিকেলে নিউজিল্যান্ডকে নাচিয়ে ছাড়ল বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক:

বাংলাদেশকে দুই শোর নিচে আটকিয়ে রাখার আনন্দটা উপভোগ করতে পারল না নিউজিল্যান্ড। আলোক স্বল্পতায় দিনের খেলা শেষ হওয়ার আগে যে মাত্র ৫৫ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে বসেছে কিউইরা। এবার শেষ বিকেলে বাংলাদেশি স্পিনারদের ঘূর্ণিতে নিজেরাই নাচল।

প্রথম ইনিংসে করা বাংলাদেশের ১৭২ রানের বিপরীতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা কিছুটা ভালোই করেছিল নিউজিল্যান্ড। তবে দলীয় ২০ রানে ডেভন কনওয়ে আউট হওয়ার পর থেকেই ম্যাচের চিত্রপট বদলে যায়। ১১ রান করা কনওয়েকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম উইকেট এনে দেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ২ রানের ব্যবধানে এবার আরেক ওপেনার টম লাথামকে ফেরান সিলেট টেস্টের নায়ক তাইজুল ইসলাম। ৪ রানে উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহানকে ক্যাচ দেন কিউই ব্যাটার।

২২ রানে ২ উইকেট হারানো কিউইদের যখন বড় জুটি প্রয়োজন ঠিক তখনই দলকে আরও বিপদে রেখে যান হেনরি নিকোলস। ১ রানে তাইজুলের বলে সাজঘরে ফেরেন তিনি। নতুন ব্যাটার ড্যারিল মিচেলকে নিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন কেন উইলিয়ামসন। সিলেট টেস্টের সেঞ্চুরিয়ান ১৩ রানে আউট হয়ে যান মিরাজের বলে। নিউজিল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ককে ফেরানোর ওভারেই আরেকটি উইকেট নেন বাংলাদেশি অলরাউন্ডার।

টম ব্লান্ডেল শূন্য রানে আউট হওয়ার পরেই আলোক স্বল্পতার কারণে দিনের খেলা শেষ করে দেন মাঠের দুই আম্পায়ার। আগামীকাল ৫৫ রানে ৫ উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ডের হাল ধরবেন দুই অপরাজিত ব্যাটার মিচেল ও গ্লেন ফিলিপস। মিচেলের ১২ রানের বিপরীতে ৫ রানে অপরাজিত আছেন ফিলিপস। বাংলাদেশের হয়ে মিরাজ ৩ ও বাকি ২ উইকেট নিয়েছেন তাইজুল।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশও স্পিন ফাঁদে নাকাল হয়েছে। অলআউট হওয়ার আগে ১৭২ রান করেছে বাংলাদেশ। যদিও শুরুটা ভালোই করেছিল দুই ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয় ও জাকির হাসান। তাঁদের ২৯ রানের জুটিকে বেশি দূর এগিয়ে নিতে দেননি এজাজ প্যাটেল।

৮ রানে জাকিরকে আউট করেন প্যাটেল। দলের খাতায় কোনো রান যোগ হওয়ার আগে ফিরে যান অপর ওপেনার জয়ও। ২৯ থেকে ৪৭ রান; অর্থাৎ ১৮ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ দল। ১৪ তম ওভারে প্যাটেলের বলে ইনসাইড-এজ হয়ে উইকেটকিপার টম ব্লান্ডেলকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মুমিনুল হক (৫)। পরের ওভারে স্যান্টনারের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন নাজমুল হোসেন শান্ত (৯)।

পঞ্চম উইকেটে বিপর্যয় সামলানোর চেষ্টা করছিলেন মুশফিকুর রহিম ও শাহাদাত হোসেন দিপু। ৫০ পেরোনো একটি জুটিও গড়েছিলেন দুজনে। কিন্তু মুশফিকের খামখেয়ালি এক আউটে আবারও বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ।

৪১ তম ওভারে জেমিসনের বলটা রক্ষণাত্মক খেলেছিলেন মুশফিক, বল অফ স্টাম্পের অনেক বাইরে চলে যাচ্ছিল। মুশফিকের (৩৫) মনে কী যে হলো, গ্লাভস দিয়ে বলটা আবার সরিয়ে দিতে গেলেন। এরপর যা হওয়ার সেটিই হলো, ক্রিকেটীয় আইনে সেটি ‘অবস্ট্রাকটিং দ্য ফিল্ড’ আউট। একেবারেই অহেতুক, অপ্রয়োজনীয় এবং অবাক করা আউট। বাংলাদেশের ক্রিকেটে টেস্টে এমন আউট এবারই প্রথম।

এরপর ফিলিপসের শিকার হয়ে দ্রুত ফেরেন দিপুও (৩১)। দ্বিতীয় টেস্টেও প্রথম ইনিংসে ব্যর্থ হলে নুরুল হাসান সোহান। ৭ রান করে ফেরেন ফিলিপসের বলে স্যান্টনারকে ক্যাচ দিয়ে। এরপর ২০ রানে মেহেদী হাসান মিরাজকে ফেরান স্যান্টনার।

৫৮ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪৯ রান তুলে দ্বিতীয় সেশন বিরতিতে গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। তৃতীয় সেশনের শুরুতেই তাইজুল ইসলামকেও ফেরান ফিলিপস। শেষ উইকেটে নাঈম হাসান ও শরীফুল ইসলাম গড়েছেন ইনিংসের চতুর্থ সর্বোচ্চ ১৮ রানের জুটি। ৬৭ তম ওভারে টিম সাউদির বলে শরীফুল (১০) আউট হলে ১৭২ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের বোলারদের মধ্যে স্যান্টনার ও ফিলিপস ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।