• ২১ জানুয়ারি, ২০২২ , ৭ মাঘ, ১৪২৮ , ১৭ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩

যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রায় প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারীর মুখ

newsup
প্রকাশিত জানুয়ারি ১৩, ২০২২
যুক্তরাষ্ট্রের মুদ্রায় প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারীর মুখ

নিউজ ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রে এতদিন মুদ্রার এক পিঠে দেশের প্রথম প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াশিংটনের মুখ থাকত। অন্য পিঠে এক ঈগলের ছবি। বিগত ৯০ বছর এমন রীতিই চলে এসেছে। তবে এবার সেই রীতি ভাঙছে দেশটিত। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়।

দেশের ২৫ সেন্টের (আমেরিকায় যা কোয়ার্টার নামে প্রচলিত) কয়েনে দেখা যাবে কবি, সাহিত্যিক ও আন্দোলনকারী মায়া অ্যাঞ্জেলুর ছবি। এই প্রথম আমেরিকান কোয়ার্টারে কোনো আফ্রো আমেরিকান বংশোদ্ভূত মহিলার ছবি ব্যবহার করা হচ্ছে। মঙ্গলবার আমেরিকান মিন্ট (টাকশাল) কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ২৫ সেন্টের ঐ বিশেষ মুদ্রার উদ্বোধন করা হয়। ডেনভার ও ফিলাডেলফিয়ায় তৈরি ঐ মুদ্রা বাজারে ছাড়ার প্রক্রিয়াও শুরু হয়ে গেছে।এখন থেকে ২৫ সেন্টের ঐ মুদ্রার এক পিঠে থাকবে কৃষ্ণাঙ্গ মায়ার ছবি আর অন্য পিঠে ওয়াশিংটনের।

গত বছর জানুয়ারিতে ‘আমেরিকান উইমেন কোয়াটার্স প্রোগ্রাম’ সংক্রান্ত একটি আইন পাশ হয়েছিল। ২০২২ থেকে ২০২৫ সালের মধ্যে প্রতি বছর কোয়ার্টারে একজন করে উল্লেখযোগ্য আমেরিকান মহিলার ছবি প্রকাশ করা হবে। টাকশালের ডেপুটি ডিরেক্টর ভেনট্রিস গিবসন এক বিবৃতিতে বলেছেন, আমেরিকার ইতিহাসে যেসব নারীর অবিস্মরণীয় অবদান রয়েছে, তাদের উত্সর্গ করা মুদ্রা প্রকাশ্যে আনতে পেরে আমরা গর্ব বোধ করছি।’ আমেরিকান কোষাগার সচিব জ্যানেট ইয়েলেনও বলেছেন, আমেরিকার কিছু অসাধারণ নারী চরিত্রকে মুদ্রার মাধ্যমে সম্মান জানাতে পেরে আমরা গর্বিত।

মায়ার মতো একই সম্মান দেওয়া হবে মহাকাশে পা রাখা প্রথম আমেরিকান মহিলা স্যালি রাইড, নিউ মেক্সিকান নারী অধিকার রক্ষা কর্মী নীনা ওটেরো-ওয়ারেন, চীনা বংশোদ্ভূত আমেরিকান চিত্র তারকা অ্যানা মে ওং এবং চেরোকি জনজাতি বংশোদ্ভূত নেত্রী উইলমা ম্যানকিলারকে। ১৯২৮ সালে আমেরিকার মিসৌরিতে জন্মেছিলেন ‘আই নো হোয়াই দ্য কেজ্ড বার্ড সিংস’ এর স্রষ্টা মায়া অ্যাঞ্জেলু। কৃষ্ণাঙ্গদের অধিকার রক্ষা আন্দোলনে এক সময়ে মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র এবং ম্যালকম এক্সের মতো ব্যক্তিত্বের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ছেন এই কবি। ২০১৪ সালে তার মৃত্যু হয়।

এই সংবাদটি 1,229 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •