বেড়ে গেছে অসাধু ব্যবসায়ীদের সক্রিয়তা

প্রকাশিত:শনিবার, ১০ এপ্রি ২০২১ ১১:০৪

বেড়ে গেছে অসাধু ব্যবসায়ীদের সক্রিয়তা
নিউজ ডেস্কঃ  পবিত্র মাহে রমজান শুরুর আর মাত্র কয়েক দিন বাকি। অন্য দিকে করোনা মহামারীর কারণে দেশে লকডাউন চলছে। এর মধ্যে নিত্যপণ্যের বাজারে চলছে নৈরাজ্য। এক দিকে ভেজাল ও নকজ পণ্য বিক্রি হচ্ছে দোকানগুলোতে। অন্য দিকে ভোক্তাদের কাছ থেকে দাম আদায় করা হচ্ছে ইচ্ছেমতো। এতে নাভিশ্বাস তৈরি হয়েছে সাধারণ মানুষের। জীবন রক্ষার ওষুধের ক্ষেত্রেও এমন অনিয়ম চলছে লাগামহীনভাবে। যদিও বাজারে ভোক্তা অধিকার অধিদফতর ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান হচ্ছে প্রায় প্রতি দিনই। এসব অভিযানে অর্থদণ্ডও দেয়া হচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ীদের। কিন্তু একে পাত্তা দিচ্ছে না ব্যবসায়ী নামের অসাধু চক্র।

জানা গেছে, রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে ভোজ্যতেল, চাল, পেঁয়াজ, ছোলা, চিনি, খেজুর, স্যানিটাইজার ও মাস্কসহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য অযৌক্তিক দামে বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া পণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শনের বিধান থাকলেও বাস্তবে এর অস্তিত্ব খুব একটা খুঁজে পাওয়া যায় না বাজারগুলোতে। বরং মূল্য তালিকার সাথে বিক্রয় রশিদের গরমিল, পণ্যের ক্রয় রসিদ সংরক্ষণ না করা, নকল ওষুধ ও মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধসহ বিভিন্ন পণ্য, নকল মাস্ক -স্যানিটাইজার, ওজনে কারচুপিসহ বিভিন্ন অপরাধের প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে।

এসব অপরাধে শনিবার রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ৩১টি প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ সাড়ে ১৩ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের অভিযানে এ দণ্ড দেয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, রাজধানীর কাওরান বাজার, মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেট, নিউমার্কেট, হাতিরপুল বাজার, পলাশী বাজারসহ বিভিন্ন সুপারশপ ও ফার্মেসিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে শনিবার। এ সব অভিযানে নেতৃত্ব দেন ভোক্তা অধিকারের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক (উপসচিব) মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার, প্রধান কার্যালয়ের উপপরিচালক মো: মাসুম আরেফিন, আফরোজা রহমান, বিকাশ চন্দ্র দাস, ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ফাহমিনা আক্তার।

এ ছাড়া ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন বাজারে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের সাথে বাজার তদারকি করেন অধিদফতরের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক রজবী নাহার রজনী, প্রনব কুমার প্রামানিক, তাহমিনা বেগম, ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী রোজিনা সুলতানা, মাগফুর রহমান ও মাহমুদা আক্তার।

ভোক্তা অধিকার অধিদফতরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা বলেন, দেশে পর্যাপ্ত পণ্যের মজুত রয়েছে ও সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে। এ ছাড়া সরকারি সংস্থা টিসিবির মাধ্যমে সরকার ভর্তুকিমূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রয় করছে। তাই অযৌক্তিকভাবে অতিরিক্ত দামে পণ্য বিক্রির সুযোগ নেই। রমজানকে সামনে রেখে অতিরিক্ত পণ্য কেনা হতে বিরত থাকতে ভোক্তাদের প্রতিও আহ্বান জানান তিনি।

এই সংবাদটি 1,233 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •