সমাজে রাসুল (সা:) এর আদর্শ বাস্তবায়নে  ইমামদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে: আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টে ২০২১ ০১:০৯

সমাজে রাসুল (সা:) এর আদর্শ বাস্তবায়নে  ইমামদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে: আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী

বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ র মোহতারাম সভাপতি আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী বলেছেন, বর্তমান পৃথিবী এক ভয়ংকর পরিনতির দিকে যাচ্ছে, এই পরিস্থিতির মোকাবেলায় ইমামদের এগিয়ে আসতে হবে। আল্লাহর এ জমিন আলেম উলামারা আবাদ করেছেন তাদের মেহনত ও ত্যাগের বিনিময়ে ইসলামের তাহজিব তামাদ্দু প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এই ভারত উপমহাদেশে হযরত শাহ অলিউল্লাহ রহ. থেকে শুরু করে আল্লামা ফুলতলি সাহেব রহ. পর্যন্ত যেভাবে দ্বীনের খেদমতের আঞ্জাম দিয়েছেন তা এই দুই তিন বছরে নেট দুনিয়া ঘ্রাস করে ফেলছে। আজকের যুবসমাস ফেইসবুক নিয়ে ব্যাস্ত। মোবাইলের অপব্যবহারে পুরো মুসলিম উম্মাহ আক্রান্ত। এমন অন্ধকার থেকে পরিবার, সমাজ, দেশ ও জাতিকে আলোর পথে নিয়ে আসতে ইমামদের অগ্রনী ভুমিকা পালন করতে হবে।

মিম্বরে কেবল নামাজের ফজিলত নিয়ে আলোচনা করলে চলবে না, বরং হুকুম আহকাম সম্পর্কে মুসল্লিদের জানাতে হবে। মুয়াজ্জিনদের শানে আল্লাহ সুবহানাহু ওতায়ালা যে আয়াত নাযিল করেছেন সেই আয়াতের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন ইমাম মুয়াজ্জিনদেরবকে কিয়ামতের মাঠে আল্লাহ তাদের গলা উঁচু করে রাখবেন। কুরআন সুন্নাহ ভিত্তিক সমাজ গঠনে ইমামদের ভূমিকা অপরিসীম। তিনি বলেন, আপনারা লতিফিয়া নামে একটি স্বতন্ত্র সোসাইটি গঠন করেছেন, সেই লক্ষ্যে কাজ করেন তবে কাউকে কটাক্ষ করবেন না, মনে রাখবেন অন্য শায়েখকে গালি দিলে সে আপনার মুরব্বিদের গালি দিবে, হাদিসে আসছে তুমি যদি অন্যের পিতাকে গালি দাও সে তুমার পিতাকে গালি দিবে। এ জন্য মসলক প্রতিষ্ঠা না করে সুন্দর সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ইমামরা সমাজের সম্মানিত ব্যাক্তি আপনারা মানুষের কাছাকাছি থাকেন এসব বিষয় মানুষের মাঝে উপস্থাপন করতে হবে। তিনি বলেন, আল্লামা ফুলতলি রহ. বলতেন ” অন্যের ভালো দেখলে মন খোশ রাখিও” এই কথার মর্ম অন্তরে লালন করে হিংসা বিদ্বেষহীন একটি মানবিক পৃথিবী তৈরি করতে হবে। প্রেমহীন মানুষের অন্তরে প্রেম জাগাইতে হবে।

লতিফিয়া ইমাম সোসাইটি সিলেট মহানগর শাখার নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথাগুলো বলেন। গতকাল বুধবার সুবিদবাজারস্হ সিলেট প্রেসক্লাবে লতিফিয়া ইমাম সোসাইটি সিলেট মহানগর শাখা আয়োজিত অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জালালপুর জালালিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার স্বনামধন্য অধ্যক্ষ হযরত মাওলানা জ. উ.ম.আব্দুল মুনঈম মন্জলালী , বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ সিলেট মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আজির উদ্দীন পাশা, লতিফিয়া ক্বারী সোসাইটি সিলেট মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা সৈয়দ কুতবুল আলম , ইসলামিক ফাউন্ডেশন সিলেট এর ফিল্ড অফিসার মাওলানা আব্দুল বাকী,সিলেট মহানগর তালামীযের সভাপতি এস এম মনোয়ার হোসেন।
শাখা সভাপতি মাওলানা জামিল আহমদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মুক্তাদির আল আজহারী, মাওলানা আলী হোসেন জায়েদ ও মাওলানা মারুফ আহমদের যৌথ পরিচালনায় আর বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি মাওলানা ইমদাদুল হক, বর্তমান সহ-সভাপতি মাওলানা মাহবুব আহমদ নাঈমী, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা লিয়াকত হোসেন নুমান, সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মুকিত,বিশিষ্ট সমাজ সেবক জনাব লুকমান আহমদ।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি হাফিজ বিলাল আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আব্দুস ছামাদ,সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আকমল হোসাইন,প্রচার সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মুমিন বিপ্লবী, অর্থ সম্পাদক মাওলানা আব্দুশ শুকুর, অফিস সম্পাদক মাওলানা মুশতাক আহমদ,প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা শামসুল ইসলাম ,মাওলানা আমির হামজা ছালিম, মাওলানা আব্দুল কাদির, মাওলানা নজরুল ইসলাম  প্রমুখ। -বিজ্ঞপ্তি

এই সংবাদটি 1,232 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ