হামাসের টানেল ডুবিয়ে দিতে পানির পাম্প বসিয়েছে ইসরায়েল - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, সন্ধ্যা ৬:০৮, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

হামাসের টানেল ডুবিয়ে দিতে পানির পাম্প বসিয়েছে ইসরায়েল

newsup
প্রকাশিত ডিসেম্বর ৫, ২০২৩
হামাসের টানেল ডুবিয়ে দিতে পানির পাম্প বসিয়েছে ইসরায়েল

অনলাইন ডেস্ক:

অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড গাজায় হামাসের নিয়ন্ত্রণে থাকা টানেল নেটওয়ার্ককে সমুদ্রের পানি দিয়ে ডুবিয়ে দিতে চায় ইসরায়েল, যাতে করে এসব টানেলে লুকিয়ে থাকা হামাস যোদ্ধাদের বাইরে বের করে আনা যায়। এই লক্ষ্যে দেশটি এরই মধ্যে বিশাল সেচব্যবস্থার জোগাড় করে ফেলেছে। গতকাল সোমবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, গত নভেম্বরের মাঝামাঝি থেকেই ইসরায়েল এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে। এরই মধ্যে তারা সমুদ্র থেকে পানি টেনে আনার জন্য গাজা আল-শাতি শরণার্থীশিবিরের পাশে অন্তত পাঁচটি পানির পাম্প স্থাপন করেছে, যেগুলো প্রতি ঘণ্টায় কয়েক হাজার ঘনমিটার পানি বয়ে আনতে পারবে। সেই হিসাবে একবার পানি টানা শুরু করলে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই গাজার টানেলগুলো পানিতে ভরে যাবে।

তবে এখনো বিষয়টি নিশ্চিত নয় যে, ইসরায়েল সব জিম্মিকে মুক্ত করার আগেই এসব পাম্প ব্যবহার করবে কি না। কারণ, এখনো হামাসের কাছে শ-খানেক ইসরায়েলি জিম্মি রয়ে গেছে। হামাস জানিয়েছে, এসব জিম্মি টানেলের ভেতরে সুরক্ষিত অবস্থানে রয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে এক মার্কিন কর্মকর্তা বলেন, টানেলগুলো ব্যবহারের অনুপযোগী করে তোলাটা ইসরায়েলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি করতে গিয়ে দেশটি নতুন কোনো পদ্ধতির আশ্রয় নিতেই পারে। তবে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে এখনো কোনো আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করেনি। ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনীর এক কর্মকর্তা বলেছেন, ‘ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী হামাসের সক্ষমতাকে ছিন্নভিন্ন করে দিতে বিভিন্ন কৌশলে কাজ করছে। তারা বিভিন্ন সামরিক কৌশল ও যন্ত্রপাতিও ব্যবহার করছে।’

ওই মার্কিন কর্মকর্তা ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে জানিয়েছেন, ইসরায়েল সরকার গত নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রকে এই পরিকল্পনার বিষয়ে জানায়। তবে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সরকার এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কত দূর এগিয়েছে, সে বিষয়ে এখনো নিশ্চিত নন তিনি। তবে ওই মার্কিন কর্মকর্তা জানান, ইসরায়েল এখনো এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে দেশটি এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের বিষয়টিও উড়িয়ে দেয়নি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।