হাসপাতালে বর্ণবাদের শিকার কৃষ্ণাঙ্গ নারী - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, সকাল ৬:৩৩, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

হাসপাতালে বর্ণবাদের শিকার কৃষ্ণাঙ্গ নারী

editorbd
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২৪
হাসপাতালে বর্ণবাদের শিকার কৃষ্ণাঙ্গ নারী

কানাডা অফিস: কানাডার অন্টারিওর একটি হাসপাতালের বিরুদ্ধে
বর্ণবাদের অভিযোগ তুললেন এক নারী। ১০ ফেব্রুয়ারি সকালে
হার্টসংক্রান্ত জটিলতায় চিকিৎসা নিতে গেলে তিনি বর্ণবাদী
বিদ্বেষের শিকার হন।

৭২ বছর বয়সী বর্ণবাদের শিকার কৃষ্ণাঙ্গ নারী শার্লি আর্চিবল্ড
অন্টারিওর উইন্ডসর রিজিওনাল হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে
গিয়েছিলেন।

শার্লি সিটিভিকে জানান, সে সময় তিনি অনুভব করছিলেন তার হার্ট
যেকোনো সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে। যদিও আগে থেকেই শার্লি
হার্টের বিভিন্ন জটিলতায় ভুগছিলেন। তাই হার্টসংক্রান্ত সমস্যার
লক্ষণগুলো তার জানা। সেদিন একই পরিচিত লক্ষণগুলো আবার
অনুভব করছিলেন তিনি।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগে গেলে আবার তার ব্যথা বৃদ্ধি পায়। এ
সময় তিনি রেজিস্ট্রেশনে থাকা কর্তব্যরত ক্লার্ককে বিষয়টি
উঠে গিয়ে জানালে সে চিৎকার দিয়ে বলে যাও বসো।

এ ঘটনার ঠিক ১৫ মিনিট পর রেজিস্ট্রেশন ক্লার্ক শার্লিকে
জানিয়েছিলেন, একজন নার্স তার সঙ্গে কথা বলবে। তিনি নার্সকে

বলেন, আমার মেয়ে ফোনে আমার সঙ্গে কথা বলছে। সঙ্গে সঙ্গে
সেই ক্লার্ক তাকে বলেন, আপনি যদি ফোন বন্ধ না করেন, আমি
সিকিউরিটিকে ডাকব।

সাধারণত কানাডার হাসপাতালগুলোতে খুবই আন্তরিকতার সঙ্গেই
রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হয়। শার্লি ও তার মেয়ে অ্যামি এ ঘটনাকে
দেখছে একেবারে বর্ণবাদী বিদ্বেষ হিসেবে।

শার্লির মেয়ে অ্যামি জানান, তিনি হাসপাতালে এসে দেখতে পান,
অনেকেই ফোনে কথা বলছে। যদিও তিনি মাকে বলেন, ফোন পারসে
ঢুকিয়ে রাখতে।

এরপরও তাদের হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়া হয়। এমনটাই
জানিয়ে ও সহায়তা চেয়ে টুইট করেন অ্যামি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।