• ২১ জানুয়ারি, ২০২২ , ৭ মাঘ, ১৪২৮ , ১৭ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩

‘হয় ভাড়া বৃদ্ধি, নয় যত আসন তত যাত্রী’

newsup
প্রকাশিত জানুয়ারি ১৪, ২০২২
‘হয় ভাড়া বৃদ্ধি, নয় যত আসন তত যাত্রী’

নিউজ ডেস্কঃ দেশে বেড়েই চলেছে করোনা ভাইরাসের হিংস্র থাবা। দিন দিন আশঙ্কাজনকভাবে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি চলছেই। করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন রোধে বিধিনিষেধের অংশ হিসেবে আগামী শনিবার (১৫ জানুয়ারি) থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে সড়কে বাস চলাচলের নির্দেশনা দিয়েছিল সরকার। তবে সেই অনুযায়ী ১৫ জানুয়ারি থেকে অর্ধেক আসনে যাত্রী পরিবহন কার্যকর হচ্ছে না। কারণ বাসের আসনের বাইরে অতিরিক্ত যাত্রী না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পরিবহন মালিকরা। তারা বলছেন, ‘হয় ভাড়া বৃদ্ধি, নয় যত আসন তত যাত্রী’।

রাজধানীর একাধিক পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা নাম প্রকাশ  না করার শর্তে ইত্তেফাক অনলাইনকে বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে সড়কে বাস চলাচল করলে আমাদের চরম ক্ষতি হবে। কেবল ভাড়া বাড়ালেই বাসে মোট আসনের অর্ধেক যাত্রী নেওয়া হবে। ভাড়া না বাড়ালে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী অর্ধেক আসনে যাত্রী নেওয়া সম্ভব হবে না। আমরা চাই ‘যত আসন তত যাত্রী। আর না হয় আমাদের বিশেষ প্রণোদনা দিতে হবে।  সরকার যদি আমাদের দাবি না মানে তাহলে পরিবহন ধর্মঘট পালন করবো।’

স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে সড়কে বাস চলাচল ও কেবল ভাড়া বাড়ালেই বাসে মোট আসনের অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বাস চালাবে। তা নাহলে পরিবহন মালিকরা বাস চালাবেন না। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন ইত্তেফাক অনলাইনকে বলেন, ‘‘অর্ধেক যাত্রী নিয়ে সড়কে বাস চলাচল করলে পরিবহন মালিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।  স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে সড়কে বাস চলাচল করবে এমন সিদ্ধান্ত হয়েছিল। তবে নতুন তথ্য হচ্ছে ‘যত আসন তত যাত্রী’ এমন নির্দেশনা আসছে।’’

তবে এর আগে, বুধবার বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)-এর  বৈঠকে  বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেছিলেন,  ‘বাসের অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে যাত্রী পরিবহনে সরকারের নির্দেশনা রয়েছে। তাই বাস ভাড়া নির্ধারণ নিয়ে গতকাল মালিক সমিতির নেতাদের নিয়ে নিজ কার্যালয়ে বৈঠক করেছি। মালিকদের সবাই বিদ্যমান ভাড়ায় যাত্রী পরিবহনের পক্ষে মত দিয়েছেন। তাই আগামী শনিবার থেকে বিআরটিএ নির্ধারিত ভাড়ায় যাত্রী পরিবহন করা হবে।’

এর আগে, গতকাল বুধবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে গণপরিবহনে আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী বহনের বিষয়ে বাসমালিকদের নিয়ে বৈঠকে বসে বিআরটিএ। বৈঠকে বাসের ভাড়া বৃদ্ধি, চালক ও সহকারীদের সনদ বাধ্যতামূলক করাসহ নানা বিষয় তুলে ধরেছেন পরিবহন মালিকরা। দুই ঘণ্টার বৈঠক শেষে বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার জানিয়েছিলেন, আগামী শনিবার (১৫ জানুয়ারি) থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে সড়কে বাস চলাচল করবে। তবে এ ক্ষেত্রে নতুন করে ভাড়া বাড়ানো হয়নি। বিদ্যমান ভাড়ায় যাত্রী পরিবহন করতে হবে বাস মালিকদের।’

নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, ‘এখন বাস ভাড়া বাড়ানো যৌক্তিক হবে না। কারণ গত নভেম্বর মাসে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে বাসে যাত্রী পরিবহনের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে। এ বিষয়টি নিয়ে পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতাসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আমাদের ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। তারা সবশেষে একমত হয়েছেন যে, ভাড়া বাড়ানো হলে যাত্রীদের ওপর বেশি চাপ তৈরি করা হবে। এ মুহূর্তে ভাড়া বাড়ানো যৌক্তিক হবে না।’

অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বাস চালাবেন না মালিকরা, পরিবহন মালিকদের দাবি, ‘যত আসন তত যাত্রী’এই বিষেয়ে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন ইত্তেফাক অনলাইনকে বলেন, ‘সরকার সবসময় পরিবহণ খাতকে প্রশ্রয় দিয়েই যাচ্ছে। পরিবহণ মালিক-শ্রমিকরা মনে করেন, তারা যতই অপরাধ করুক, কিছু হবে না। তারা চাইলে যেকোনো সময় সারাদেশে গণপরিহন বন্ধ করে দিতে পারেন। তাদের কাছে সবাই জিম্মি। তাই অপরাধ করেই যাচ্ছেন। তাই তারা সরকারের সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ। এদিকে সরকারও তাদের কিছু করতে পারবে না।’

এদিকে, বুধবার (১২ জানুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে চট্টগ্রাম সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ জানিয়েছে, এর আগে লকডাউনের সময় প্রতি সিটে একজন করে যাত্রী বহন করা হয়। ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে ধার্য করা হয়। এতে মালিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও দেশের স্বার্থে তা মেনে নেওয়া হয়েছে। এবারও সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন সচল রাখতে হলে আগের সিদ্ধান্ত কার্যকর করে সিট প্রতি একজন ও ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্তে আসতে হবে।

এই সংবাদটি 1,229 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •