৩২ বছর পর ঢাকায় হকি উৎসব

প্রকাশিত:বুধবার, ১১ অক্টো ২০১৭ ০৪:১০

৩২ বছর পর ঢাকায় হকি উৎসব

দীর্ঘ ৩২ বছর পর আবার এশিয়া কাপ হকি ফিরেছে ঢাকায়। এশিয়ার সেরা ৮ দলের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই দেখতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন হকিপ্রেমীরা। কেবল হকিপ্রেমীদেরই নয়, এ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের মানুষের নজর থাকবে লাল-সবুজ জার্সিধারী এক ঝাঁক তরুণের দিকে। আয়োজনের সাফল্যে তারাই আনতে পারবে পূর্ণতা। যেমন হয়েছিল ১৯৮৫ সালে। ঢাকায় অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় এশিয়া কাপে।

 

এশিয়া কাপ হকি ফেডারেশন যেদিন ঢাকাকে দশম আসরের ভেন্যু করার সবুজ সঙ্কেত দিয়ে কিছু শর্ত জুড়ে দেয় সেদিন থেকেই আয়োজনের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়ে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের। ফ্লাডলাইট স্থাপন করতে হবে, ডিজিটাল স্কোর বোর্ড বসাতে হবে, প্রেসবক্স, ড্রেসিং রুম, সম্প্রচার কক্ষ, আম্পায়ার্স কক্ষসহ আরও কত কিছু আধুনিক করার তাগিদ।

 

এসব করতে গিয়ে আয়োজক বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের অবস্থা লেজে-গোবরে হলেও সময়মতো এশিয়ান হকি ফেডারেশনের সামনে আধুনিক এক হকি স্টেডিয়াম উপস্থাপন করতে পেরেছে বাংলাদেশ। অপেক্ষার পালা শেষ। আজই (বুধবার) মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামের নীল টার্ফে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের লড়াইয়ে নামবে ৮ দেশ দক্ষিণ কোরিয়া, ভারত, পাকিস্তান, মালয়েশিয়া, জাপান, চীন, ওমান ও স্বাগতিক বাংলাদেশ।

 

৩২ বছর আগের এবং এবার এশিয়া কাপের পার্থক্য অনেক। ১৯৮৫ সালের টুর্নামেন্ট হয়েছিল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ঘাসের মাঠে। এবার হবে মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামের নীল টার্ফে। বিশ্বের অনেক দেশ অনেক আগেই টার্ফের সঙ্গে পরিচিত হলেও বাংলাদেশের হকিপ্রেমীদের কাছে তা ছিল কল্পনার বাইরে। তবে বাংলাদেশের হকিও টার্ফের সঙ্গে পরিচয় নতুন নয়। এই তো মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামই দেখেছে দুটি টার্ফ। সবুজ টার্ফটিকে বিদায় দিয়ে দেশের একমাত্র হকি স্টেডিয়াম বুকে ধারণ করেছে নীল টার্ফ।

এই সংবাদটি 1,227 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •