প্রখ্যাত সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিম চলে গেলেন না ফেরার দেশে - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, বিকাল ৪:২৯, ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

প্রখ্যাত সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিম চলে গেলেন না ফেরার দেশে

editor
প্রকাশিত অক্টোবর ১৮, ২০২০
প্রখ্যাত সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিম চলে গেলেন না ফেরার দেশে

না ফেরার দেশে চলে গেলেন সিলেটের সাংবাদিকতায় বটবৃক্ষ প্রখ্যাত সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিম। আজ থেমে গেলো তার সাংবাদিকতার কলম। দৈনিক উত্তরপূর্বের প্রধান সম্পাদক, বাংলাদেশ টেলিভিশনের সিলেট প্রতিনিধি, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আজিজ আহমদ সেলিম গতকাল রোববার (১৮ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সিলেট সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। আজিজ আহমদ সেলিমের মৃত্যুতে সিলেটের গণমাধ্যমসহ সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
আজ সোমবার (১৯ অক্টোবর) সকালে পারিবারিক সিদ্ধান্তের পর তাকে কোথায় কখন দাফন করা হবে তা জানানো হবে।
নগরীর মজুমদারী রিতা কুটিরের বাসিন্দা আজিজ আহমদ সেলিমের মৃত্যু সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে সতীর্থসহ সিলেটবাসীর মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। তার মৃত্যুতে সিলেটের সাংবাদিকরা একজন অভিভাক হারালো আর সিলেটবাসী হারালো একজন সরব ও সাদা মনের মানুষকে। ৬৭ বছর বয়সী আজিজ আহমদ সেলিম মৃত্যুকালে স্ত্রী সাহরিন আজিজ চৌধুরী, তিন মেয়ে, তিন ভাই ও চার বোনসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
আজিজ আহমদ সেলিমের জন্ম ১৯৫৩ সালে। ছাত্র জীবন থেকে তিসি কর্ম-উদ্দীপক ছিলেন। ১৯৭২ সালে সিলেট এমসি ইন্টারমেডিয়েট কলেজে (বর্তমান সিলেট সরকারী কলেজ) ছাত্র সংসদ নির্বাচনে সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। তখন সহ-সভাপতি (ভিপি) পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। কর্ম জীবনে আজিজ আহমদ সেলিম বাংলাদেশের প্রাচীনতম সংবাদপত্র সাপ্তাহিক যুগভেরীতে যোগদান করেন। দীর্ঘদিন স্টাফ রিপোর্টার ছিলেন।
একসময় সাহিত্য পাতাও দেখতেন। ১৯৮৯ সালে আজিজ আহমদ সেলিম যুগভেরীর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হন। পরবর্তীতে যুগভেরী দৈনিক হিসেবে যাত্রা করে। আজিজ আহমদ সেলিম ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে যুগভেরীকে এগিয়ে নিয়ে যান। ১৯৯৩-৯৪ সেশনে তিনি সিলেট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে আজিজ আহমদ সেলিম সিলেট জেলা প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠায় নেতৃত্ব দেন এবং পরে টানা দুইবার সভাপতি নির্বাচিত হন। তিনি দৈনিক উত্তরপূর্ব’র জন্ম থেকে প্রধান সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বিটিভির সিলেট জেলা প্রতিনিধি হিসেবেও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন। এছাড়া আজিজ আহমদ সেলিম ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) সভাপতি, সুজন সিলেট জেলা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, বাংলাদেশ ভারত-মৈত্রী সমিতি সিলেটের সভাপতি হিসেবে সামাজিক উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত। তিনি একজন প্রফেশনাল ক্রিকেট আম্পায়ারও ছিলেন। চলতি বছর জাতিসংঘের জলবায়ু বিষয়ক জরুরি সম্মেলনকে সামনে রেখে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় দায়ী দেশসমূহের প্রতিশ্রæতি রক্ষার দাবিতে তরুণদের অংশগ্রহণে ‘বৈশ্বিক জলবায়ু ধর্মঘট’ ও অনুষ্ঠিত মানবন্ধনে অন্যান্যদের সাথে আজিজ আহমদ সেলিমও নেত্বত্ব দেন।

সম্প্রতি বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের সমন্বয়ে সিলেট অঞ্চলের উন্নয়নের দাবিতে গঠন করা হয়েছে ‘সিলেট উন্নয়ন পরিষদ‘। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ৬ লেন সড়ক প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়া নিয়ে ধীরগতি, আখাউড়া-সিলেট ডাবল রেললাইন নিয়ে দীর্ঘসূত্রিতা, সিলেটের বাদাঘাট বাইপাস সড়ক ও বিমানবন্দর সড়ক প্রশস্তকরণ, সুরমা নদী খনন, সিলেটে বঙ্গবন্ধু পার্কসহ আরো অনেক কাজ কোথায় যেন আটকে আছে। সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে এসব দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জোরদার করার লক্ষ্যে গঠিত কমিটিতে সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিমকে আহবায়ক করা হয়।

সদা হাস্যোজ্জল, বিনীয় ও সদালাপী আজিজ আহমদ সেলিম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ৮ অক্টোবর থেকে সিলেট সেনানিবাসের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। অবস্থায় অবনতি হলে তাকে লাইফসাপোর্টে রাখা হয়। গতকাল সন্ধ্যায় মেডিকেল বোর্ড বসে তার লাইফসাপোর্ট খুলে দেওয়া হয়। রাত সাড়ে ৮ টার দিকে তিনি না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। রাত ১১ টারদিকে লাশ সেনানিবাস থেকে তার বাসায় নিয়ে আসা হয়। আজ সকালে জানাযার বিষয়ে পারিবারিকভাবে সীদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গেছে।
সর্বজন শ্রদ্ধেয় সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিমের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের ন্যায় দৈনিক উত্তরপূর্ব পরিবারও গভীরভাবে শোকাহত।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।