আইসিপিসি-তে পশ্চিম এশিয়ার সেরা বুয়েট হেলবেন্ট দল - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, দুপুর ২:০৩, ১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

আইসিপিসি-তে পশ্চিম এশিয়ার সেরা বুয়েট হেলবেন্ট দল

newsup
প্রকাশিত অক্টোবর ১৮, ২০২১
আইসিপিসি-তে পশ্চিম এশিয়ার সেরা বুয়েট হেলবেন্ট দল

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং জগতে সবচেয়ে মর্যাদা ও প্রতিযোগিতাপূর্ণ আয়োজন এসিএম আন্তর্জাতিক কলেজিয়েট প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা যা সংক্ষেপে ‘আইসিপিসি’ বলেই অধিক পরিচিত। প্রোগ্রামিংয়ের বিশ্বকাপ বলা যায় একে। সেই বিশ্বমঞ্চে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো শ্রেষ্ঠত্বের গৌরবে উড়লো লাল সবুজ পতাকা। চূড়ান্ত পর্বে পশ্চিম এশিয়ায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) -এর ‘বুয়েট হেলবেন্ট’ দল।

 

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোয় অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১১৫টি দল অংশগ্রহণ করে। বুয়েটের বিজয়ী দলের সদস্যরা হলেন কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল (সিএসই) বিভাগের অর্ঘ্য পাল ও প্রীতম কুণ্ডু এবং তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের আশিকুল ইসলাম। দলের কোচ ছিলেন বুয়েটের সিএসই বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ সোহেল রহমান।

প্রতিযোগিতায় শিক্ষার্থীদের ১৫টি প্রোগ্রামিং ভিত্তিক সমস্যার সমাধান করতে দেয়া হয়েছিল। এর মধ্যে ৭টি সমস্যার সমাধান করে বুয়েট হেলবেন্ট সামগ্রিকভাবে ২৮তম স্থান অর্জন করে যা পশ্চিম এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষ। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রাশিয়ার নিজনি নভগরদ স্টেট ইউনিভার্সিটি।

 

দৈনিক ইত্তেফাককে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে দলের তিন সদস্য জানান তাদের অনুভূতির কথা। বলেন, “লক্ষ্য ছিল সামগ্রিকভাবে শীর্ষ ত্রিশে থাকার। সেটার পাশাপাশি পশ্চিম এশিয়ায় সেরা হওয়াটা ছিল বাড়তি পাওয়া। এতোটা আত্মবিশ্বাস ছিল না। এটা অবশ্যই অত্যন্ত ভালো লাগার।”

তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগ থেকে আসা দলের সদস্য আশিকুল ইসলামের মতে, “প্রবলেম সলভিং বা প্রোগ্রামিং করার জন্য কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এর শিক্ষার্থী হতে হবে এমন ধারণা ভুল। আসলে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সাথে এর সম্পর্ক নেই বললে চলে। তাই যে কেউ চাইলে এই ধারায় আসতে পারে। প্রয়োজন উদ্যম আর অধ্যবসায়।

দলের কোচ অধ্যাপক মোহাম্মদ সোহেল রহমানের অবদান বিশেষভাবে উল্লেখ করে দলের আরেক সদস্য অর্ঘ্য পাল বলেন, “ব্যবস্থাপনার সমস্ত দিক স্যার দেখেছেন। বলতে গেলে প্রবলেম সলভিং বাদে আর কিছু নিয়ে আমাদের ভাবতে হয়নি। এছাড়া স্যারের মূল্যবান দিকনির্দেশনা আর অনুপ্রেরণা এই অর্জনের পেছনে অনেক বড় শক্তি হিসেবে কাজ করেছে।

উল্লেখ্য, আইসিপিসি ওয়ার্ল্ড ফাইনাল ২০২০ সালে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও করোনা মহামারীর কারণে ২০২১ এর ১ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয় এবং চূড়ান্ত পর্ব হয় ৫ অক্টোবর।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।