BengaliEnglishFrenchSpanish
শিউলি ফুলের বোটা দিয়ে খাবার রাঙানো হতো - BANGLANEWSUS.COM
  • ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ


 

শিউলি ফুলের বোটা দিয়ে খাবার রাঙানো হতো

newsup
প্রকাশিত নভেম্বর ৮, ২০২২
শিউলি ফুলের বোটা দিয়ে খাবার রাঙানো হতো

ফিচার: বাজারের হরেক রকম খাবারে কত রকমের ভেজাল মেশানোর কথা আমাদের মগজে গেঁথে রয়েছে। কেউ কেউ সেসব খাবারের কথা শুনেই চমকে উঠেন! বরং বাজারের খাবার না খেয়েই তিনি দিব্যি সুস্থ আছেন, আছেন সুরক্ষিত।
বাজারের অনিরাপদ খাবার খেয়ে চরম দুর্ভোগের পাশাপাশি ডাক্তার আর ফার্মেসির পেছনে খরচ হয়ে যাবে বহুগুণ টাকা।
শুনে কিছুটা চমকে উঠারই কথা যে, এক সময় শিউলি ফুলের বোটা দই বা মিষ্টিজাতীয় খাবারে ব্যবহার করা হতো। কিন্তু তারপরও ওটা খুবই প্রাকৃতিক জিনিস। তাতে নেই ভেজাল বা শারীরিক ক্ষয়ক্ষতির লেশমাত্র ভাগ।

বলতে দ্বিধা নেই, ভেজাল বা অনিরাপদ খাবার অপেক্ষা এই প্রাকৃতিক জিনিসগুলোর সংমিশ্রণ জনস্বাস্থ্য ঝুঁকির সম্ভাবনা শূন্যের কোঠায়।

‘শিউলি’ ফুলের আরেক নাম ‘শেফালি’। এর বৈজ্ঞানিক নাম Nyctanthes arbor-tristis। সুগন্ধি জাতীয় এ ফুলে রয়েছে ৫ থেকে সাতটি সাদা বৃতি ও মাঝে লালচে-কমলা টিউবের মতো বৃন্ত। ফলের ব্যাস ২ সেন্টিমিটার এবং এটি দুই ভাগে বিভক্ত। প্রতিটি ভাগে একটি করে বীজ থাকে। এ ফুল রাতে ফোটে এবং সকালে ঝরে যায়। শরৎ ও হেমন্ত কালের শিশিরভেজা সকালে ঝরে থাকা শিউলি অসম্ভব মোহনীয় আবহ তৈরি করে।

শরৎ আর হেমন্তের প্রাকৃতিক প্রতীক শিউলি। শিউলি ভোরের আলো সহ্য করতে পারে না। ভোরের সূর্য আলো ছড়াবার আগেই ফুলগুলো গাছ থেকে ঝরে ঝরে মাটিতে পড়ে থাকে। মাথা তুলে গাছে লেগে থাকা ফুলগুলোকে খোঁজার চেষ্টা করা হলে সে চেষ্টা ব্যর্থ হয়। কিছুতেই দেখা যায় না।

প্রত্যেক বাঙালির কাছে শিউলি, কাশফুল আর শরৎকালের একটা আলাদাই গুরুত্ব আছে। কারণ, সর্বপ্রথম এরাই জানান দেয় শারদীয় দুর্গোৎসবের। বলাই বাহুল্য, শিউলি ও কাশফুল ছাড়া শরৎ যেমন নিষ্প্রাণ, তেমনি শারদীয় উৎসবও অনেকটাই অসম্পূর্ণ। শরৎ ও হেমন্তকালের শিশির ভেজা সকালে ঝরে থাকা শিউলি অসম্ভব সুন্দর দৃশ্য তৈরি করে। শিউলির আরেক নাম পারিজাত! হিন্দু পৌরাণিক কাহিনিতে অনেকবার এসেছে শিউলি ফুল বা পারিজাত এর কথা।

এই সংবাদটি 1,226 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।