বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু"র দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, সকাল ১১:৪৯, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু”র দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

newsup
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৩
বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু”র দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

মেহেদী হাসান, দোয়ারাবাজার (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন হেলাল খসরু উচ্চ বিদ্যালয়ের দাতা ও প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আইনজীবী, লেখক গবেষক বজলুুল মজিদ চৌধুরী খসরু’র দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার লক্ষীপুর ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন হেলাল-খসরু উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়োজনে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফারুক আহমেদের সভাপতিত্বে মছদ্দর আলীর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ইউপি সদস্য ফারুক মিয়া, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সমাজসেবক নুরুননবী,কাবিল আহমেদ, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী হুমায়ুন, বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক ফারুক আহমেদ, সিনিয়র শিক্ষক আলী আকবর, লক্ষীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মফিজ আলী প্রমুখ

বক্তারা বলেন, বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু অনেক সুকর্ম করেছেন। তাঁর অর্জন অনেক। সিক্ত হয়েছেন সম্মান, শ্রদ্ধা ও ভালবাসায়।খসরু একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, লেখক ও গবেষক।মুক্তি সংগ্রামে সুনামগঞ্জ এবং “রক্তাক্ত ৭১, সুনামগঞ্জ” নামে বই লিখেছেন। তিনি মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন “হেলাল-খসরু” হাইস্কুলের অন্যতম দাতা ও প্রতিষ্ঠাতা। হেলাল-খসরু নামে একটি ট্রাস্ট আছে। এই ট্রাস্ট থেকে মুক্তিযোদ্ধা এবং গরীব ও মেধাবী ছাত্রদের বৃত্তি প্রদানের ব্যবস্থা রয়েছে। খসরু মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের সঙ্গেও সম্পর্কিত ছিলেন। খসরু অত্যন্ত অমায়িক ও শিষ্টাচার সম্পন্ন ব্যক্তি ছিলেন। তিনি তাঁর ব্যবহার দিয়ে যেকোন লোককে সহজেই আপন করে নিতে পারতেন। তিনি মানুষের ভালবাসা পেয়েছেন। সিক্ত হয়েছেন শ্রদ্ধায়। তিনি মানুষের স্মরণের গ্রন্থিতে বেঁচে আছেন এবং বেঁচে থাকবেন। আমরা এই মহান ব্যক্তির রুহের মাগফিরত কামনা করছি।শেষে মরহুম বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু’র মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।