মৃতরা কি আমাদের কথা শুনতে পায় - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, রাত ৯:২৮, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

মৃতরা কি আমাদের কথা শুনতে পায়

newsup
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১২, ২০২৩
মৃতরা কি আমাদের কথা শুনতে পায়

ডেস্ক রিপোর্ট: যদিও কখনো কেউ কবির কবরের পাশে গিয়ে এসব করার চিন্তা-ভাবনা করেনি, করবেও না। কিন্তু সমাজের অনেক মানুষকে আমরা দেখি, তারা বিভিন্ন ওলি-আউলিয়ার কবরে গিয়ে তাদের কাছে সন্তান চায়, সম্পদ চায়, চাকুরি চায়।

হ্যাঁ, তাদের কবর জিয়ারত করা, কবরের পাশে গিয়ে সুরা ফাতিহা ও সুরা ইখলাস পাঠ করা এবং তাদের নেক আমল-মাকবুলিয়াতকে উসিলা করে, মাধ্যম বানিয়ে আল্লাহর কাছে দোয়া করা যায়।

আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামাতের আকিদা হলো, নবী-ওলীদের নেক আমল-কবুলিয়াতকে মাধ্যম বানিয়ে, উসিলা করে দোয়া করা বৈধ।

কিন্তু দ্বীনের অজ্ঞতা ও ভণ্ড পীরদের অসততার ফলে এ উসিলা বর্তমানে শিরকে রূপান্তরিত হয়েছে। সবাই পীরের নামে, মাজারের নামে বিভিন্ন বস্তু উৎসর্গ করে, মান্নত করে, জবাইও করে। আমরা এসব কর্মকে সরাসরি শিরক বলে বিশ্বাস করি।

আর তাই, মৃতরা শুনতে পায় কিনা- এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এ প্রশ্নের উত্তর আমরা প্রথমত কুরআন মাজিদে খুঁজবো। এরপর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের হাদিস, সাহাবায়ে কেরামের বক্তব্য ও পরবর্তী আহলে ইলমের মতামত নিয়ে আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ।
মানুষ মারা যাওয়ার পর জীবিত মানুষের মতো সবকিছু শুনতে পায় কিনা— আহলে ইলমদের মত হলো, এ নিয়ে আল্লাহ তা‘আলা কুরআন মাজীদের কোথাও সরাসরি আলোচনা করেননি।

আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন মক্কার কুরাইশদের ইসলামের দাওয়াত দেন, তারা অবজ্ঞাসূচক আচরণ করে এবং নবীজীর আহ্বান শুনেও না শোনার ভান করে এড়িয়ে যায়। তাদের এ আচরণ সত্ত্বেও আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দাওয়াত বন্ধ করেননি।

তিনি দিনে দাওয়াত দিতেন, রাতে দাওয়াত দিতেন। ঘরে ঘরে গিয়ে দাওয়াত দিতেন, বাজারে ঘুরে ঘুরে দাওয়াত দিতেন। অথচ মুশরিকদের আচরণে মোটেও পরিবর্তন ঘটেনি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।