BengaliEnglishFrenchSpanish
এমন গোল খাওয়াও সম্মানের ব্যাপার’ - BANGLANEWSUS.COM
  • ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ


 

এমন গোল খাওয়াও সম্মানের ব্যাপার’

প্রকাশিত এপ্রিল ৪, ২০১৮
এমন গোল খাওয়াও সম্মানের ব্যাপার’
  • জিদানের মতে, রোনালদোর গোলটি ফুটবল ইতিহাসেই অন্যতম সেরা।
  • গোলটির পর রোনালদোকে পেলে-ম্যারাডোনার সঙ্গে তুলনা করেছেন বুফন।
  • জুভেন্টাস–সমর্থকেরা উঠে দাঁড়িয়ে সম্মান দেখানোয় রোনালদো নিজেও অভিভূত।

তেল–চকচকে মাথায় বার কয়েক আঙুল চালালেন জিনেদিন জিদান। এরপর হাতটা এমনভাবে ঝাঁকালেন যেন তুরিনে আজ ভীষণ গরম পড়েছে। আসলে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সেই দুর্দান্ত গোলেই তাঁর এমন প্রতিক্রিয়া! সেই অলৌকিক মুহূর্তে রিয়াল কোচ যেন পরখ করতে চাইলেন, রোনালদোর গোলে তাঁর মাথায় বুঝি চুল গজিয়েছে!

শুধু জিদান নন, টিভি সেটের সামনে বসে ম্যাচটি দেখা দর্শকদের অনেকেই একই কাজ করেছেন। সত্যি বলতে, এক-দেড় মিনিটের সেই মুহূর্তটাই অলৌকিক। লুকাস ভাসকেজের বুলেট গতির শট চল্লিশ পার করা বুফন কী দারুণভাবেই না ‘সেভ’ করলেন! জুভেন্টাস গোলরক্ষকের এই জাদুকরি সেভকে রোনালদো স্রেফ ‘ওভার ট্রাম্প’ করেছেন।

জুভেন্টাস গোলপোস্টের কাছাকাছিই দাঁড়িয়ে ছিলেন রোনালদো। দানি কারভাহালের ক্রসটা ছিল তাঁর পেছনে, মানে গোলের উল্টো দিকে। সেটাও নিজের উচ্চতার চেয়েও বেশ উঁচুতে। এখান থেকে গোল করার চিন্তা কোনো সাধারণ ফুটবলারের মাথায় আসার কথা নয়। রোনালদোও সাধারণ কেউ নন। পেছনে ঘুরেই একটু এগিয়ে নিজেকে ছুড়ে দিলেন শূন্যে। বাইসাইকেল কিক!

আড়াআড়ি উচ্চতার বলকে এই কিকে পা ছোঁয়ানোই যেখানে অনেক কঠিন, সেখানে রোনালদোর শট বুফনকে নড়ার সুযোগটুকু পর্যন্ত না দিয়ে আশ্রয় নিয়েছে জালে। সেটাও আবার বুফনের ‘কনভেনশনাল’ ডাইভ দেওয়ার উল্টো প্রান্ত দিয়ে। জিদান কি আর এমনিতেই মাথায় হাত বোলানোর পাত্র! ৬৪ মিনিটে শিষ্যের এই গোলটি কিন্তু তাঁকে স্মৃতিকাতরও করেছে। সেটা বোঝা গেল ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে।

ফ্রেমে বাঁধিয়ে রাখার মতো মুহূর্ত। যার কাছে হারলেন ম্যাচ শেষে তাঁকেই অভিনন্দন জানাচ্ছেন বুফন। কিংবদন্তিরা এমনই হয়! ছবি: এএফপিফ্রেমে বাঁধিয়ে রাখার মতো মুহূর্ত। যার কাছে হারলেন ম্যাচ শেষে তাঁকেই অভিনন্দন জানাচ্ছেন বুফন। কিংবদন্তিরা এমনই হয়! ছবি: এএফপি২০০২ চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়াল মাদ্রিদ-বেয়ার লেভারকুসেন ফাইনাল মনে আছে? অনেকে ম্যাচটি মনে রেখেছেন ৪৫ মিনিটে বাইসাইকেল কিকে জিদানের অবিশ্বাস্য সেই গোলটির জন্য। অনেকের মতেই, চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে অন্যতম সেরা গোল। রিয়াল কোচকে তাঁর সেই গোলটির কথাই মনে করিয়ে দিয়েছিলেন সংবাদকর্মীরা।

১৬ বছর আগের সেই গোল আর রোনালদোর কাল রাতে গোল, এ দুটি গোলের তুলনায় জিদান কিন্তু কৌতুক করতে ছাড়েননি, ‘তুলনা হতেই পারে, তবে আমারটাই বেশি সুন্দর ছিল। এটা (রোনালদোর গোল) এই মাত্র হয়েছে বলে তাৎপর্য বেশি। তবে এটাই ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সে যা করতে পারে, তা আর কেউ পারে না। বুফন ঠিকই বলেছে, এই ধরনের খেলোয়াড়দের টুপি–খোলা অভিনন্দন জানাতে হয়। এটা ফুটবলের ইতিহাসেই অন্যতম সুন্দর গোল।’

রোনালদোর এই গোলের প্রতিক্রিয়া নিয়ে জিদানের ভাষ্য, ‘আমি রিয়াল মাদ্রিদের কোচ কিন্তু এর পাশাপাশি একজন ফুটবল–ভক্তও। এই ধরনের কিছু দেখলে…মাথায় হাত ওঠাই স্বাভাবিক।’

জুভেন্টাসের চিরসবুজ গোলরক্ষক বুফনও রোনালদোর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। যেন এমন গোল হজম করাও একটা গর্বের ব্যাপার! বুফন সোজাসাপটাই বলেছেন, ‘ডিয়েগো ম্যারাডোনা, মেসি কিংবা পেলের সঙ্গে তুল্য রোনালদো। আমার চ্যাম্পিয়নস লিগ (জয়) স্বপ্ন পূরণ করা সম্ভব না। কারণ, সেরা খেলোয়াড়টি তা থামিয়ে দিয়েছে।’

রোনালদোর গোল দেখে জিদানের অভিব্যক্তি। হতবাক! ছবি: টুইটাররোনালদোর গোল দেখে জিদানের অভিব্যক্তি। হতবাক! ছবি: টুইটারকোয়ার্টার ফাইনাল প্রথম লেগে রিয়ালের কাছে ৩-০ গোলে হেরেছে জুভেন্টাস। ফিরতি লেগ এখনো বাকি থাকলেও বুফন তাঁর ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জয়ের দৌড়ে এখানেই ইস্তফা দিলেন! আসলে তাঁর স্বপ্নের অপমৃত্যু রোনালদোর জোড়া গোলে। এর মধ্যে বাইসাইকেল কিকে দ্বিতীয় গোলটির পর তুরিনের দর্শকেরা উঠে দাঁড়িয়ে সম্মান দেখিয়েছেন রোনালদোকে। ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলে প্রতিপক্ষের মাঠে তাঁদেরই দর্শকদের মন জেতার ভাগ্য কিন্তু খুব বেশি খেলোয়াড়ের হয়নি।

রোনালদো নিজেও গোলটা আশা করেননি। তবে গোলটা পেয়ে যাওয়ার পর জুভেন্টাস সমর্থকদের সম্মান পেয়ে রিয়াল তারকা নিজেও অভিভূত, ‘এটা ছিল অসাধারণ এক মুহূর্ত। সব জুভেন্টাস–সমর্থককে ধন্যবাদ দিতে চাই, তারা এমন চমৎকার কিছু করেছে, যা আমার ক্যারিয়ারে কখনোই ঘটেনি।’

রোনালদোর অবিশ্বাস্য গোলটির ভিডিও লিংক:

এই সংবাদটি 1,226 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।