নাচের সমালোচনার জবাব নাচ! - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, দুপুর ২:৫৮, ২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

নাচের সমালোচনার জবাব নাচ!

প্রকাশিত জানুয়ারি ১২, ২০১৯
নাচের সমালোচনার জবাব নাচ!

আলেকজান্দ্রিয়া ওকাসিও কর্টেজ আমেরিকার সর্বকনিষ্ঠ কংগ্রেসওম্যান। ডেমোক্রেটিক পার্টির এই তরুণ নেত্রী কয়েক মাস আগে আমেরিকাবাসীর আগ্রহের কেন্দ্রে আসেন যখন বাছাই পর্বের নির্বাচনে নিজ দলের বর্ষীয়ান নেতা জোসেফ ক্রাউলি তাঁর কাছে ধরাশায়ী হন। এরপর ওকাসিওর জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। গত ৬ নভেম্বরের মধ্যবর্তী নির্বাচনে ওকাসিও কংগ্রেসওম্যান নির্বাচিত হন।

টুইটারে একটি ভিডিও পোস্টে ওয়াশিংটনে ক্যাপিটল হিলে নতুন কর্মস্থলের দরজার সামনে ওকাসিওকে নাচতে দেখা যায়। এই টুইটে তিনি লেখেন, ‘আমি শুনেছি জিওপি (গ্র্যান্ড ওল্ড পার্ট বা রিপাবলিকান পার্টি) নারীদের নাচকে কলঙ্কজনক মনে করে। একটু অপেক্ষা করুন, এবার তারা দেখবে কংগ্রেসওম্যানও নাচে।
২ জানুয়ারি টুইটারে ওকাসিওর পুরোনো একটি ভিডিওচিত্র বারবার সামনে আসে। এটি বহুবার শেয়ার হয়। পেজ ভিউ ছিল ১ কোটি ৯ লাখ। এটিতে দেখা যায়, একটি ভবনের ছাদে ওকাসিও নাচছেন।৩ জানুয়ারি ওকাসিও কংগ্রেসওম্যান হিসেবে শপথ নেন।
অ্যানোনিমাস কিউ১৭৭৬ নামের একটি অ্যাকাউন্টের এ টুইটে বলা হয়েছে, এটা ওকাসিওর হাইস্কুল জীবনের ভিডিও। এই পোস্টে বলা হয়, ‘তিনি আমেরিকার জনপ্রিয় একজন কমিউনিস্ট। এই উজবুক সব ধরনের অভিনয় জানেন।৩০ সেকেন্ডের এই ভিডিওটি ৪ মিনিটের একটি ভিডিও ক্লিপের অংশ। এর ২০ সেকেন্ডের একটি ভিডিও আট বছর আগে ইউটিউবে ছাড়া হয়েছিল। সেই সময়ের জনপ্রিয় ধারার সঙ্গে মিলিয়ে সেটি ধারণ করা হয় বোস্টন ইউনিভার্সিটিতে। এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই ওকাসিও অর্থনীতি ও আন্তর্জাতিক সম্পর্কে স্নাতক পাস করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়টির একদল শিক্ষার্থী ওই নাচে অংশ নিয়েছিলেন। তাঁদের মধ্যে ওকাসিও কর্টেজও ছিলেন। তাঁদের ১৯৮০র দশকের সিনেমার নাচের মতো নাচতে দেখা যায়। ওকাসিওর নতুন টুইটের পর সামাজিক যোগাযোগ ব্যবহারকারীরা তাঁকে সমর্থন জানিয়েছেন। ক্যারেন টিউমাল্টি নামের একজন টুইটারে লিখেছেন, ‘এখন তিনি (ওকাসিও) আসল কাজটি করেছেন। ওই ভিডিওটি তাঁর কলেজজীবনের। এটিতে তাঁকে অনেক আকর্ষণীয় লাগছে।এর আগে গত নভেম্বর ওকাসিওর পোশাকের সমালোচনা করে এক সাংবাদিক টুইটারে একটি পোস্ট দেন। তাতে তিনি ওকাসিওকে ‘শিশুকন্যা’ হিসেবে অভিহিত করেন। দ্য ওয়াশিংটন এক্সামিনার এর প্রতিবেদক এডি স্ক্যারি ওকাসিওর একটি আলোকচিত্র দিয়েছেন যেটিতে ক্যাপিটল হিলের হলওয়েতে ওকাসিওকে হাটতে দেখা যায়। ছবিটির সঙ্গে ক্যাপশনে স্ক্যারি লিখেছেন, ‘‘(ক্যাপিটল) হিলের কর্মীরা এখনই আমাকে এই ছবিটি পাঠিয়েছেন। আপনাদের উদ্দেশে আমি বলছি: কোনো সংগ্রামী তরুণী এ রকম কোট ও জ্যাকেট পরতে পারে না।এই টুইটের সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। এটিকে অসংগত ও যৌন উত্তেজনা সৃষ্টিকারী উল্লেখ করা হয়। এর আগে এক সাক্ষাৎকারে ওকাসিও কংগ্রেসওম্যানের বেতন পাওয়ার আগে ওয়াশিংটনে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া মেটানোও তাঁর জন্য কঠিন হবে বলে উল্লেখ করেন।পোশাক নিয়ে দেওয়া টুইটের জবাবে ওকাসিও লিখেছিলেন, ‘অন্ধকার আলোকে ঘৃণা করে। এ জন্যই আপনি এ ধরনের টুইট করতে পেরেছেন। আলো উজ্জ্বলতা ছড়ায় এবং তাকে তা ছড়াতে দিন।এরপর স্ক্যারি তার টুইট পোস্ট মুছে ফেলেন। একই রকম ঘটনা ঘটে পুরোনো নাচের ভিডিও পোস্ট করা অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রেও। এ ভিডিওটি পোস্ট করার কয়েক ঘণ্টা পর সিএনএনের পক্ষ থেকে টুইটারে সার্চ দিয়ে অ্যানোনিমাস কিউ১৭৭৬ নামের অ্যাকাউন্টটি আর পাওয়া যায়নি। টুইটার বলে, এটি আর নেই।

-ফয়জুল ইসলাম চৌধুরী নয়ন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।