BengaliEnglishFrenchSpanish
জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকার মতবিনিময় সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন : বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় আগে আঞ্চলিক শান্তি ও সহযোগিতা প্রয়োজন - BANGLANEWSUS.COM
  • ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ


 

জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকার মতবিনিময় সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন : বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় আগে আঞ্চলিক শান্তি ও সহযোগিতা প্রয়োজন

banglanewsus.com
প্রকাশিত অক্টোবর ২, ২০২২
জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকার মতবিনিময় সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন : বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় আগে আঞ্চলিক শান্তি ও সহযোগিতা প্রয়োজন

ডেস্ক রিপোর্ট :: জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকার মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেছেন, এবারের জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী যুদ্ধ নয়, শান্তির পক্ষে কথা বলেছেন। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার কথা বলেছেন। আর বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় আগে আঞ্চলিক শান্তি ও সহযোগিতা প্রয়োজন। এজন্য বাংলাদেশ সরকার প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলো ছাড়াও বিশ্বের সকল দেশের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ ‘ইকোনমিক কূটনীতি’র মাধ্যমে এগিয়ে চলেছে। তিনি বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশীর সমস্যার বিষয়ে সরকার অবগত এবং এসব সমস্যা সমাধানে সরকারবদ্ধ পরিকর। বাংলাদেশে বিনোয়াগকারী ৭জন বিশিষ্ট প্রবাসীর গ্রেফতারের ঘটনায় নিজেই বিব্রত উল্লেখ করে ড. মোমেন বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে এবং এব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে স্বরাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছি। খবর ইউএনএ’র।
জ্যাকসন হাইটসের নবান্ন পার্টি হলে বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকার সভাপতি বদরুল হোসেন খান। সভা পরিচালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলাম। নিউইয়র্কে বাংলাদেশে কনসাল জেনারেল ড. মনিরুল ইসলাম ছাড়াও সভায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে সভামঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্লাহ, বাংলাদেশ সোসাইটি ও জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি আজমল হোসেন কুনু, সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন সিদ্দিকী, বিশিষ্ট রাজনীতিক এম এ সালাম ও দেওয়ান শাহেদ চৌধুরী, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট সদর সমিতি ইউএসএ’র সভাপতি অধ্যাপিকা রানা ফেরদৌস চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী ও মুজাহিদুল ইসলাম, কুইন্স ডেমোক্র্যাটিক পার্টির ডিষ্ট্রিক্ট লীডার এট লার্জ এটর্নী মঈন চৌধুরী, এডভোকেট মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।
কনসাল জেনারেল ড. মনিরুল ইসলাম সহ সভায় আজিমুর রহমান বুরহান, অধ্যাপিকা রানা ফেরদৌস চৌধুরী, রুহুল আমীন সিদ্দিকী, ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, রেজাউল আলম (অপু) প্রমুখ সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। আর সময়ের অভাবে মঞ্চে উপবিষ্ট অধিকাংশ অতিথি সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা বক্তব্য রাখতে পারেননি। সভায় দেওয়ান শাহেদ চৌধুরী প্রবাসীদের দাবী-দাওয়া সম্বলিত একটি স্মারকলিপি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনের কাছে হস্তান্তর করেন।
সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন ‘নিউইয়র্ক-ঢাকা-নিউইর্ক’ রুটে বিমান চলাচল সম্পর্কে বলেন, এজন্য বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে সকল ব্যবস্থা এবং যা যা উদ্যোগ নেয়া দরকার তা করা হয়েছে। এখন শুরু যুক্তরাষ্ট্র সরকারের অনুমতি দরকার। এজন্য তিনি ইউএসএ সরকারের প্রতি চাপ সৃষ্টির জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান। প্রবাসীদের এনআইডি প্রাপ্তি সম্পর্কে বলেন এজন্য সরকারের পক্ষ থেকে পর্যায়ক্রমে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আর যতদিন প্রবাসীরা এনআইডি না পাবেন ততদিন তাদের পাসপোর্ট ‘এনআইডি’র মতো কাজ করবে।
সিলেট-১ আসনের এমপি ড. মোমেন বলেন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে চার লেন নয়, প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহে ছয় লেনের মহাসড়ক নির্মান করা হচ্ছে। এছাড়াও সিলেট শহরের সকল রাস্তা উন্নয়ন ও প্রশস্ত করা হচ্ছে। এবং মাটির নীচ দিয়ে বিদ্যুৎ লাইন নেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সিলেটের ৫০০ বেডের ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ৯০০ বেডে উন্নীত করা হয়েছে, প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে ২২টি আইসিইউ।
ড. মনিরুল ইসলাম বলেন, প্রবাসীদের সেবায় কনস্যুলেটের সেবা আরো বৃদ্ধি করা হয়েছে। কনস্যুলেটে সেবা নিতে এসে কেউ যেনো ফিরে না যায় তার জন্য ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, আমার স্টাফদের বলা আছে। ‘আমরা পরবো না’ এমন কথা আমি বিশ্বাস করতে চাই না। তিনি বলে, প্রবাসীদের অন্যতম দাবী এনআইডি’র বিষয়ে যখন যে মন্ত্রী মহোদয় কনস্যুলেটে এসেছেন, আমি তাঁদেরকে বিষয়টি অবহিত করেছি। প্রবাসীদের সেবা দিতে কনস্যুলেটের অন্তরিকতার কোন অভাব নেই।
বদরুল হোসেন খান ঢাকায় যুক্তরাজ্যের ৭জন প্রবাসীকে গ্রেফতারের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, তারা বিনিয়োগকারী। কেন তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তা তদন্তপূর্বক প্রবাসীদের মুক্তি দেয়ার দাবী জানান। তা না হলে প্রবাসীরা দেশে বিনিয়োগ করতে উৎসাহ হারিয়ে ফেলবেন। তিনি আগামীতে প্রধানমন্ত্রী নিউইয়র্ক আসলে তাঁর সাথে সিলেটবাসীদের সাথে সাক্ষাতের ব্যবস্থা করার জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনের প্রতি দাবী জানান।
সভায় বিশেষ দোয়া পরিচালনা করেন জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সহ সভাপতি মওলানা ছয়ফুল হক সিদ্দিকী। সভায় বৃহত্তর সিলেটের প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। নৈশ ভোজের মাধ্যমে সভার সমাপ্তি ঘটে।

এই সংবাদটি 1,231 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।