যুক্তরাষ্ট্রে ধর্মীয় গোঁড়ামির শিকার ভারতীয় বংশোদ্ভূত কংগ্রেসওম্যান তুলসি গাব্বার্ড

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ২৯ জানু ২০১৯ ০৪:০১

যুক্তরাষ্ট্রে ধর্মীয় গোঁড়ামির শিকার ভারতীয় বংশোদ্ভূত কংগ্রেসওম্যান তুলসি গাব্বার্ড

নিউইয়র্ক সংবাদদাতা :: পরবর্তী মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের হয়ে লড়াই করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কংগ্রেসওম্যান তুলসী গাব্বার্ড। কিন্তু এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ধর্মীয় গোঁড়ামির শিকার হওয়ার অভিযোগ তুলেছেন তিনি। রোববার এক কলামে তিনি লিখেছেন, কিছু গণমাধ্যম তাকে ও তার হিন্দু সমর্থকদেরকে হিন্দু জাতীয়তাবাদের দায়ে অভিযুক্ত করছে। এর মাধ্যমে হিন্দু ধর্মাবলম্বী আমেরিকানদের টার্গেট করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, তুলসি গাব্বার্ড মার্কিন কংগ্রেসের প্রথম হিন্দু সদস্য। হাওয়াই অঞ্চল থেকে তিনি ৪ বার কংগ্রেসের সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। গত ১১ই জানুয়ারি পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা দেন ৩৭ বছর বয়সী এই কংগ্রেসম্যান। রোববার রেলিজিয়াস নিউজ সার্ভিসে লেখা ওই কলামে তিনি তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত হিন্দু জাতীয়তাবাদের অভিযোগের কড়া সমালোচনা করেন।

তিনি বলেন, আগামীতে কি মুসলিম ও ইহুদি আমেরিকানদের সঙ্গেও এমনটি করা হবে? অথবা জাপানি, স্প্যানিশ বা আফ্রিকান আমেরিকানদের সঙ্গে? তুলসী গাব্বার্ড লেখেন, ‘ভারতের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আমার বৈঠককে প্রমাণ হিসেবে তুলে ধরা হচ্ছে। বিষয়টিকে একরকম সন্দেহজনক ও অসাধারণ হিসেবে চিত্রিত করা হচ্ছে। অথচ সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, হিলারি ক্লিনটন, প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পসহ কংগ্রেসের বহু সহকর্মী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তার সঙ্গে কাজ করেছেন।’ হিন্দু কংগ্রেসম্যান হিসেবে গর্ব প্রকাশ করে তিনি লেখেন- ‘কংগ্রেসের প্রথম হিন্দু সদস্য নির্বাচিত হয়ে এবং এখন প্রথম হিন্দু প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হয়ে আমি গর্বিত।

খবরের শিরোনামে ইতিহাসের প্রথম এই ঘটনা উদ্‌যাপিত হতে পারত। কিন্তু এর পরিবর্তে কিছু মানুষ সন্দেহ, আতঙ্ক ও ধর্মীয় গোঁড়ামিকে উস্কে দিচ্ছে। এটা শুধু আমার বিরুদ্ধে না, আমার সমর্থকদের বিরুদ্ধেও এটা করা হচ্ছে।’
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিষয়ে তিনি লেখেন, কয়েক দশক ধরে দু’দেশের কৌশলগত অংশীদারিত্ব অগ্রাধিকার পেয়ে আসছে। দেশের প্রতি আমার দায়বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ করা, অথচ যুক্তরাষ্ট্রের অন্য অ-হিন্দু নেতাদের নিয়ে প্রশ্ন না তোলার মতো একচোখা নীতির একটাই কারণ থাকতে পারে। তা হলো- ধর্মীয় গোঁড়ামি।

এই সংবাদটি 1,227 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ