BengaliEnglishFrenchSpanish
বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত খোন্দকার সিয়ামের অভূতপূর্ব সাফল্য - BANGLANEWSUS.COM
  • ১লা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


 

বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত খোন্দকার সিয়ামের অভূতপূর্ব সাফল্য

newsup
প্রকাশিত জানুয়ারি ১৪, ২০২৩
বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত খোন্দকার সিয়ামের অভূতপূর্ব সাফল্য

স্টাফ রিপোর্টার : খোন্দকার সিয়াম, পিতা: ইঞ্জি খোন্দকার রেজাউল কাউনাইনের ছোট সন্তান। বর্তমানে এ্যামেরিকার স্বনামধন্য নিউ ইয়র্কের স্পেশাল স্কুল ব্রনক্স সাইন্সের নবম গ্রেডের একজন অতি নিয়মিত ছাত্র। ২০১৬ সালে পিতার হাত ধরে এ্যামেরিকাতে আসে এবং ৩য় গ্রেডে ভর্তি হয়। সেই থেকে শুরু তার জীবনের কঠিন পথ চলা। বাবার আর্থিক অবস্থার টানাটানি, বেজমেন্টে বসবাস, ভাষাগত সমস্যা নিয়ে তার জীবনের কঠিন সংগ্রাম শুরু হয়। কিন্তু সবকিছু সিয়ামের মেধার কাছে হার মানে। স্কুলে প্রথম কুয়ার্টের অভাবনীয় রেজাল্ট তার খ্যতি এনে দেয়। শত শত ছেলেকে পেছনে ফেলে মানথ অব স্কুল সহ বিভিন্ন ধরনের সার্টিফিকেট অর্জন করেন। প্রতি বছরে ১০০% উপস্থিতি, মেডেল ও সাটিফিকেট, গণিত অলিম্পিয়ার্ড মেডেলসহ প্রত্যেক বিষয়ে ৯৮% পেতে থাকে। বিভিন্ন ধরনের সিটি টেষ্টে রেকর্ড পরিমান মার্ক পেয়ে গ্রেড ফাইভ থেকে আইএস২৩০ স্কুলে ৬ষ্ঠ গ্রেডে ভর্তি হয়। আইএস২৩০ স্কুলে ৯৯% মার্ক রাখতে সমর্থ হয়। কোন প্রকার সহায়তা ছাড়াই নিজ একক প্রচেষ্টায় ৮ম গ্রেডে উত্তীর্ণ হয়। ৮ম গ্রেডে ম্যাথমেটিকস স্কলার এচিভমেনট সার্টিফিকেট সহ গড় ৯৮% মার্ক ও প্রিন্সিপাল এ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত হয় । করোনার ভয়াবহ তান্ডব, আলো বাতাসহীন বেজমেন্টে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়াটা তার জন্য কঠিন হয়ে দাড়ায়। কিন্তু সিয়াম থেমে থাকার পাত্র নয়। শিক্ষকদের আস্তাভাজন সিয়াম এসএইচ স্যাট পরীক্ষার প্রস্তুতি শুরু করে। কিন্তু বিধিবাম। পরীক্ষার কয়েক সপ্তাহ পূর্বে নিউইয়র্কের এক আকস্মিক বন্যায় সিয়ামের বেজমেন্ট হাটুর উপরে পানি উঠে পড়ে। তার প্রয়োজনীয় বইখাতা, কমপিউটার এবং প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র সমস্ত কিছু নষ্ট হয়ে যায় এবং সিয়াম অসুস্থ হয়ে পড়ে। যাই হোক, তার অদম্য চেষ্টা ও সাহস কোন কিছুই বাধা হয়ে দাড়াতে পারে নাই। এসএইচ স্যাট পরীক্ষায় ৫৪০ স্কোর নিয়ে ব্রনক্স সায়েন্স এন্ড হাইস্কুলে ভর্তি হয়। ইতি মধ্যে বাকা নামক সংগঠন থেকে মেধাবী ছাত্র হিসাবে ট্যালেন্ট স্টুডেন্ট এ্যাওয়ার্ড-২০২২ প্রাপ্ত হয়। প্রচার বিমুখ সিয়াম সবসময় পরদার আড়ালে থাকই পছন্দ করে। বিভিন্ন প্রোগ্রামিং এক্টিভিটি, ডিবেট টিমে অংশ গ্রহণ করছে নিয়মিত। সূদুর জ্যাকসন হাইটস্ থেকে যাত্রা করে ব্রনক্স সায়েন্সে আসা যাওয়ার প্রায় ৩ ঘন্টা ব্যয় হয়। তাতে কি আসে যায়। অদম্য সিয়াম তাকিয়ে আছে টপ টেন ইউনিভারসিটিতে ভর্তি হবার আশায়। মামুন টিউটেরিয়াল, ববি তারিক প্রতিষ্ঠানের কাছে সে কৃতজ্ঞ। আমরা চাই সিয়াম একজন বাংলাদেশী সুযোগ্য সন্তান হিসাবে আত্মপ্রকাশ করুক।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।