ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, দুপুর ২:৪৫, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

editorbd
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২৪
ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

হাকিকুল ইসলাম খোকন ,সিনিয়র প্রতিনিধিঃবাংলাদেশের সাথে অংশীদারিত্ব আরও গভীর করতে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র: মার্কিন ভারপ্রাপ্ত উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্কট উরবম।খবর বাপসনিউজ।মহান ভাষা আন্দোলনের সকল শহিদের আত্মত্যাগকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসে গত বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) যথাযোগ্য মর্যাদায় “মহান শহিদ দিবস” এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়েছে।এই ঐতিহাসিক দিনটি স্মরণে দূতাবাস বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে জীবন উৎসর্গকারী সকল ভাষা বীরদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে দিনব্যাপী এক কর্মসূচি গ্রহণ করে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে সন্ধ্যায় দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, কূটনীতিক, মার্কিন সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের উপস্থিতিতে এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জনাব মোহাম্মদ ইমরান এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক ভারপ্রাপ্ত উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী জনাব স্কট উরবম (Mr. Scott Urbom) ।রাষ্ট্রদূত ইমরান তার বক্তব্যে মহান ভাষা আন্দোলনের সকল শহিদ ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।তিনি মহান ভাষা আন্দোলনের চেতনাকে বাঙালি জাতির ‘বাতিঘর’ হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, ভাষা সৈনিকদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত সমৃদ্ধ বাংলা ভাষা বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুলে ধরার উপযুক্ত কূটনৈতিক মাধ্যম হতে পারে।
রাষ্ট্রদূত বলেন মহান ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সক্ষমতা নিয়ে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি নতুন প্রজন্মকে সমৃদ্ধ বাংলা ভাষা, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য সম্পর্কে আরও জানার জন্য উৎসাহিত করতে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি অনুরোধ জানান।অনুষ্ঠানের সম্মানিত অতিথি স্কট উরবম বাংলাদেশকে যুক্তরাষ্ট্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, গত ৫০ বছরে তারা স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও অন্যান্য খাতে বাংলাদেশে বিপুল পরিমান বিনিয়োগ করেছে। তিনি বলেন যুক্তরাষ্ট্র আগামী ৫০ বছর এবং এরপরেও বাংলাদেশের সঙ্গে এই অংশীদারিত্ব আরও দৃঢ় করতে আগ্রহী।স্কট উরবম বলেন মাতৃভাষা দিবস শুধুমাত্র বাংলাদেশের জনগনের হৃদয়েই নয়, সমগ্র পৃথিবীর মানুষের হৃদয়েও বিশেষ স্থান করে নিয়েছে। তিনি শ্রদ্ধার সাথে সেইসব বীরদের মহান আত্মত্যাগের কথাও উল্লেখ করেন যারা বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ও বাংলা ভাষা রক্ষায় অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন। মার্কিন ভারপ্রাপ্ত উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন আজ বাংলা পৃথিবীতে অন্যতম সর্বাধিক উচ্চারিত ভাষা হিসেবে স্থান করে নিয়েছে এবং এটি সারা বিশ্বে বাংলা ভাষার প্রভাব ও গুরুত্বের প্রমাণ বহন করে । পরে দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে একটি বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে দূতাবাস পরিবার, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ফরেন সার্ভিস ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং ভারত, নেপাল, জাপান ও শ্রীলঙ্কার শিল্পীরা এবং একটি বাংলাদেশি সাংস্কৃতিক দল কবিতা আবৃত্তি, সঙ্গীত ও দলীয় নৃত্য পরিবেশন করে উপস্থিত অতিথিদের মুগ্ধ করেন। পরে রাষ্ট্রদূত ইমরান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে দূতাবাস আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। এর আগে সকালে বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে এই গৌরবোজ্জ্বল দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান ও ডিফেন্স অ্যাটাচে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ শাহেদুল ইসলাম অংশ নেন। রাত ১২ টা ০১ মিনিটে দূতাবাসের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের অংশগ্রহণে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরানের নেতৃত্বে দূতাবাস প্রাঙ্গণে অবস্থিত শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং ‘প্রভাত ফেরি’ বের করার মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়।দিনের অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল দূতাবাস প্রাঙ্গণে রাষ্ট্রদূত কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আবক্ষ প্রতিকৃর্তিতে পুষ্পস্তবক অর্পন, ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন, তথ্যচিত্র প্রর্দশন এবং বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন। এ উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী পাঠ করেন মিনিস্টার (ইকনোমিক) ড. মোঃ ফজলে রাব্বি, মিনিস্টার (পলিটিক্যাল) মোঃ রাশেদুজ্জামান এবং ফার্স্ট সেক্রেটারি অহিদুজ্জামান নূর।

দিনব্যাপী অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কাউন্সেলর ও দূতালয় প্রধান শামীমা ইয়াসমিন স্মৃতি, ফার্স্ট সেক্রেটারি (পাসপোর্ট এবং ভিসা উইং) মুহাম্মদ আব্দুল হাই মিলটন এবং ফার্স্ট সেক্রেটারি মোঃ আতাউর রহমান। International Mother Language Day observed at Bangladesh Embassy in Washington: Hakikul Islam Khokan,Senior Correspondedt:US keen to deepen partnership with Bangladesh, says US Acting Deputy Assistant Secretary Scott Urbom
The Bangladesh Embassy in Washington DC observed “Mohan Shahid Dibosh” and the International Mother Language Day on Wednesday (21 February) by recalling the supreme sacrifice of the martyrs of the 1952 Language Movement.To commemorate the historic day, the Embassy arranged a daylong program by paying glowing tributes to the language heroes who laid down their lives in Dhaka 72 years ago to establish Bangla as the state language.As part of the program, a colorful function was held at the auditorium of the Mission in the evening in the presence of ambassadors, diplomats from various countries, senior officials of the US government and the members of Bangladeshi diaspora.Bangladesh Ambassador to the United States Mr. Muhammad Imran delivered the welcome remarks, while Mr. Scott Urbom, the Acting Deputy Assistant Secretary, Bureau of South and Central Asian Affairs, the US Department of State, spoke at the function as the Guest of Honour.In his remarks, Ambassador Imran paid deepest homage to the martyrs of the great Language Movement and Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman. He described the spirit of great Language Movement as like a ‘lighthouse’ for Bengali nation and said that the rich Bangla language earned through the bloodshed of language heroes could be a proper diplomatic tool to project Bangladesh in the international arena.Holding the spirit of the great Language Movement and the War of Liberation, Bangladesh is marching forward fast with tremendous economic performance under the leadership of Hon’ble Prime Minister Sheikh Hasina, he said.The Ambassador called upon the Bangladeshi diaspora in the USA to encourage the new generations to learn more about the rich Bangla language, culture and heritage.Speaking at the function, Mr Scott Urbom said Bangladesh has been an important partner of the USA for over 50 years, investing billions of dollar in Bangladesh’s health, education and other sectors. “We look forward to deepening the partnership with Bangladesh in the next 50 years and beyond,” he said.
He said the Mother Language Day holds special place in the hearts of not only the people of Bangladesh, also the people of all over the world. He also mentioned the sacrifice of those heroes who shed blood to establish the nation of Bangladesh and preserve the Bangla language.Mr. Scott Urbom said today Bangla ranks one of the most well-spoken languages in the world, and it is the testament to Bangla language’s influence and importance of connecting Bengali speakers around the world.Later, a spectacular cultural function was held where the Embassy Family, officials of the Foreign Service Institute, the US Department of State, as well as artistes from India, Nepal, Japan and Sri Lanka and a Bangladeshi cultural group performed captivating the audience with songs, group dance and reciting poems at the packed Bangabandu Auditorium. Later the Ambassador handed over prizes among the winner of essay competition organized by the Embassy.Earlier in the morning, a discussion session highlighting the significance of the glorious day was held at the Bangabandhu Auditorium in the morning. Ambassador Muhammad Imran and Defence Attache Brigadier General Md Shahedul Islam took part in the discussion.The program of the day commenced with the placing of a floral wreath at the altar of the Shaheed Minar by Bangladesh Ambassador to the United States Muhammad Imran on the embassy premises and bringing out a ‘Probhat Ferry’ with the participation of the officers, employees and their family members at one-minute past zero hour.Other program of the day included ceremonial hoisting of the national flag at half-mast by the Ambassador in front of the Chancery and placing of a floral wreath at the bust of Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman in the presence of the Embassy officials and employees, screening of a documentary and holding a special prayer.The messages issued on the occasion by the Hon’ble President, the Hon’ble Prime Minister and the Foreign Minister were read out by Minister (Economic) Md Fazle Rabbi, Minister (Political) Md Rashedujjaman and First Secretary Wahiduzzaman Noor.
Counselor and Head of Chancery Shamima Yeasmin Smriti, First Secretary (Passport & Visa Wing) Muhammad Abdul Hye Milton and First Secretary Md Ataur Rahman conducted the daylong program.

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।