আটঘরিয়ায় বিনাচাষে রসুন আবাদে কৃষকের মুখে হাসি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ২৫ মার্চ ২০২১ ১১:০৩

আটঘরিয়ায় বিনাচাষে রসুন আবাদে কৃষকের মুখে হাসি

 

আটঘরিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি ঃ
পাবনার আটঘরিয়া উপজেলায় বিনাচাষে রসুন আবাদে কৃষকের মুখে হাসির ঝিলিক। মাঠ জুড়ে রয়েছে রসুন আর রসুন। শোভা পাচ্ছে রসুন যা মন জড়িয়ে দিচ্ছে কৃষকের। তবে এখন তা রীতিমত রসুন তুলতে দিনরাত পরিশ্রম করছেন চাষিরা। এউপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন ও একটি পৌর সভায় ২০১৯-২০অর্থ বছরে রসুন আবাদ হয়েছে ১ হাজার ৫শ ৮৫ হেক্টর জমিতে। এবং পেয়াজ আবাদ হয়েছে ১ হাজার ৭শ ৫০ হেক্টর জমিতে। এবং ২০২১ অর্থ বছরে ১৭৮৫ হেক্টর জমিতে রসুন ও পেয়াজ ১৯৯০ হেক্টর আবাদ করা হয়েছে। কন্দ জাতের পেয়াজ (মুড়িকাটা) আবাদ হয়েছে ৪৫০হেক্টর জমিতে। তবে কৃষকেরা ইতালী জাতের রসুন বেশি আবাদ করছে

রসুর চাষী কৃষক শফিকুল ইসলামের সাথে কথা হয় তিনি জানান, গতবারের মতো এবারও তিনি ৬০ শতাংশ জমিতে রসুন চাষ করেছেন। বিঘা প্রতি তিনি ৪০ থেকে ৪৫ মন মতো রসুন পাচ্ছে তিনি। ভালো টাকা লাভ হবে বলে মনে করছেন তিনি। তিনি আরও জানান, বর্তমানে বাজারে ১৫শ থেকে ১৬শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যে কোন ফসলের তুলনায় রসুন আবাদ লাভজনক।

গোড়রী ও একদন্ত হাটে পেয়াজ ও রসুন কিনতে আসা বেপারী আব্দুল জলিল হোসেন, মোক্তার হোসেন, ও গোলাজার আলী জানান,তার মতো বেশ কয়েকজন বেপারী দেশের বিভিন্ন স্থানে পেয়াজ ও রসুন পাইকারি কিনে পাঠিয়ে দিয়ে থাকনে। তারা কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি নগদে পেয়াজ ও রসুন কিনে থাকেন।

আটঘরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রোখসানা কামরুনাহার জানান, রসুন উপজেলার কৃষকের কাছে খুবই লাভজনক মসলা জাতীয় ফসল। পেয়াজ ও রসুন অন্য ফসলের উৎপাদন বাড়াতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তারা কৃষকের পাশে অবস্থান করছেন।

এই সংবাদটি 1,229 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •