ইউক্রেন সফরে যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন

banglanewsus.com
প্রকাশিত May 9, 2022
ইউক্রেন সফরে যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন

ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর পর এই প্রথমবার আকস্মিক সফরে দেশটিতে গিয়েছেন মার্কিন ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন। বিবিসি জানায়, গতকাল রবিবার আকস্মিক সফরে ইউক্রেন যান জিল বাইডেন। ইউক্রেনের সীমান্তবর্তী শহর উঝহোরোদের একটি স্কুলে দেশটির ফার্স্ট লেডি ওলেনা জেলেনস্কার সঙ্গে দেখা করেন জিল বাইডেন। ওই স্কুলটি বর্তমানে বাস্তুচ্যুত মানুষদের জন্য একটি আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এক প্রতিক্রিয়ায় জিল বাইডেন বলেন, ‘আমি মা দিবসে আসতে চেয়েছিলাম। যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনের জনগণের পাশে আছে।’

ইউক্রেনে চলমান রুশ হামলাকে নৃশংস উল্লেখ করে তা বন্ধ করার আহ্বান জানান তিনি। এ মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় জেলেনস্কা বলেন, ‘আমরাও (ইউক্রেনের জনগণ) তা অনুভব করতে পারছি।’ এরপর ইউক্রেনের ফার্স্ট লেডি জেলেনস্কা বলেন, যুদ্ধের মধ্যে ইউক্রেন সফর একটি ‘সাহসী পদক্ষেপ’। তিনি মনে করেন, মা দিবসে ইউক্রেন সফর করাটা খুব প্রতীকী।

জিল বাইডেনকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘এমন গুরুত্বপূর্ণ একটি দিনে আমরা আপনার ভালোবাসা ও সমর্থন অনুভব করতে পারছি।’ স্কুলের একটি কক্ষে দরজা বন্ধ করে এক ঘণ্টারও বেশি সময় যাবত উভয় দেশের ফার্স্ট লেডি আলাপ করেন। তারপর তারা স্কুলের বাচ্চাদের সঙ্গে যোগ দেন। সেখানে শিশুরা ছবি আঁকা ও টিস্যু পেপার দিয়ে ভালুকসহ বিভিন্ন কিছু বানাচ্ছিল। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর পর থেকে এই প্রথমবার ফার্স্ট লেডি জেলেনস্কাকে জনসম্মুখে দেখা গিয়েছে। ভয়েস অব আমেরিকা জানায়, গত ১০ সপ্তাহ যাবত দুই সন্তান নিয়ে আত্মগোপনে ছিলেন জেলেনস্কা।

মার্কিন কর্মকর্তারা জানান, গত কয়েক সপ্তাহ যাবত জেলেনস্কার সঙ্গে জিল বাইডেনের নিয়মিত যোগাযোগ হচ্ছিল। নিরাপত্তার কারণে মার্কিন ফার্স্ট লেডির ইউক্রেন সফরের তথ্য আগে গণমাধ্যমকে জানানো হয়নি। শুরুতে মার্কিন ফার্স্ট লেডি স্লোভাকিয়া সফর করেন। সেখান থেকে ইউক্রেন যান। ফার্স্ট লেডির বহু সফরসঙ্গী স্লোভাকিয়ায় রয়ে যায়। এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রতিবেশী পোল্যান্ডে সফর করেছিলেন। তখন নিরাপত্তার কারণে ইউক্রেন সফর থেকে বিরত থাকেন তিনি।

মার্কিন ফার্স্ট লেডিদের যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশে সফর অপ্রচলিত হলেও একেবারেই নতুন কোনো ঘটনা না। এর আগেও ২০০৫ ও ২০০৮ সালে আফগানিস্তান সফর করেছিলেন তৎকালীন মার্কিন ফার্স্ট লেডি লোরা বুশ। ২০১৫ সালে সাবেক ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা কাতারের একটি এলাকা সফর করেছিলেন। ওই এলাকাকে সংঘাতপূর্ণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন অপারেশন পরিচালনার কেন্দ্র হিসেবে ওই এলাকাকে ব্যবহার করা হতো।

এই সংবাদটি 1,226 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।