BengaliEnglishFrenchSpanish
অবশেষে ইতালিতে অভিবাসন প্রত্যাশীরা - BANGLANEWSUS.COM
  • ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ


 

অবশেষে ইতালিতে অভিবাসন প্রত্যাশীরা

newsup
প্রকাশিত নভেম্বর ৯, ২০২২
অবশেষে ইতালিতে অভিবাসন প্রত্যাশীরা

ডেস্ক রিপোর্টঃ ইতালিয় উপকূলে আটকে পড়া অভিবাসন প্রত্যাশীদের অবশেষে জাহাজ থেকে নামতে দেয়া হয়েছে৷ তবে ফ্রান্স ও ইতালি সরকারের মধ্যে কূটনৈতিক পর্যায়ে উত্তেজনা সত্ত্বেও একটি জাহাজকে প্যারিসে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে৷

ইতালির সদ্য নির্বাচিত ডানপন্থী সরকারের আপত্তির কারণে বেশ কিছু জাহাজ অভিবাসন প্রত্যাশীদের নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরে সমুদ্র উপকূলে অপেক্ষা করছিল৷ দীর্ঘ অপেক্ষার পর অবশেষে জাহাজগুলোর অভিবাসন প্রত্যাশীদের সিসিলি দ্বীপে নামার অনুমতি দেওয়া হয়েছে৷ তবে ইতালির নতুন সরকারের আপত্তির মুখে অন্য একটি জাহাজ যাত্রীদের নিয়ে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে৷

মূলত উত্তর আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে আসা পাঁচশরও বেশি অভিবাসন প্রত্যাশী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে প্রবেশের চেষ্টা করার সময় বিভিন্ন সাহায্য সংস্থার উদ্ধার জাহাজ তাদের উদ্ধার করে৷ কিন্তু ইতালির নতুন প্রধানমন্ত্রী জর্জা মেলোনির সরকার তাদের ইতালিতে প্রবেশের অনুমতি দিতে আপত্তি জানায়৷ এর প্রতিবাদে কয়েকজন অভিবাসন প্রত্যাশী অনশন শুরু করেন৷ পরে এক সময় ইতালি সরকার শুধু শারীরিকভাবে অসুস্থদের প্রবেশের অনুমতি দিলেও বাকিদের সেই সুযোগ দিতে অস্বীকার করে৷

মেলোনি সরকারের বক্তব্য- সব অভিবাসন প্রত্যাশীর দায়িত্ব ইতালি একা নেবে না৷ তবে মঙ্গলবার জার্মানির দাতব্য প্রতিষ্ঠান মিশন লাইফলাইনের উদ্ধার জাহাজ রাইজ অ্যাবাভের ৮৯ জনকে অবশেষে নামতে দেয়া হয়৷ এছাড়া জার্মানির আরেক উদ্ধার জাহাজ এসওএস হিউম্যানিটির ৩৫ জনও ইউরোপের মাটিতে পা রাখার সুযোগ পান৷ তারপরও জিও ব্যারেন্টস নামের একটি জাহাজে দুইশরও বেশি মানুষ একই সুযোগ পাওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন৷ পরে তাদেরও জাহাজ থেকে নামতে দেয়া হয়েছে৷ অভিবাসন সংক্রান্ত কাজ করে এমন সংস্থাগুলো জানিয়েছে, তারা এখন অভিবাসন প্রত্যাশীদের হয়ে ইতালি সরকারের সঙ্গে আইনি লড়াইয়ের প্রস্তুতি নেবে৷

অভিবাসন প্রত্যাশী বোঝাই একটি জাহাজ ইতালিয় উপকূল থেকে ফ্রান্সের দিকে পাঠিয়ে দেয়ায় রোম আর প্যারিসের মধ্যে কূটনৈতিক উত্তেজনা দেখা দেয়৷ গত ২৭ অক্টোবর থেকে বেশ কয়েকবার ওশান ভাইকিং নামের ওই জাহাজটির ২৩৪ জন যাত্রীকে ইতালিতে ঢোকার অনুমতি দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়৷ কিন্তু তাতে কোনো কাজ হয়নি৷ এক পর্যায়ে জাহাজ প্রবেশের জন্য বন্দর খুলে দেয় ফ্রান্স৷ তবে ফ্রান্স সরকারিভাবে বন্দর খোলার কোনো ঘোষণা দেয়নি৷ ইতালির নতুন প্রধানমন্ত্রী জর্জা মেলোনি অবশ্য ঘোষণার অপেক্ষাও করেননি৷ তার আগেই জলবায়ু সম্মেলনে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁর সঙ্গে দেখা হয়ে যায় তার৷ দেখা হওয়া মাত্রই বন্দর খুলে অভিবাসন প্রত্যাশীদের জাহাজ তার দেশে ঢোকার সুযোগ দেয়ার জন্য মাক্রোঁকে ধন্যবাদ জানান জর্জা মেলোনি৷

এই সংবাদটি 1,227 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।